Connect with us

ধর্ম ও জীবন

ঐতিহাসিক বদর দিবস আজ

Published

on

ন্যাশনাল হাউজিং

আজ ১৭ রমজান, ঐতিহাসিক বদর দিবস। প্রায় দেড় হাজার বছর পূর্বে ১৭ রমজান মদিনার মুসলিম ও কুরাইশদের মধ্যে ৬২৪ খ্রিস্টাব্দে এ যুদ্ধ সংঘটিত হয়। এ যুদ্ধে মুহাম্মাদ (সা.)-এর নেতৃত্বে তার সঙ্গে মুসলিম বাহিনীতে ছিলেন আবু বকর, উমর ইবনুল খাত্তাব, আলি ইবনে আবি তালিব, হামজা ইবনে আবদুল মুত্তালিব, মুসআব ইবনে উমাইর, যুবাইর ইবনুল আওয়াম, আম্মার ইবনে ইয়াসির ও আবু যার আল-গিফারি।

মুসলিম বাহিনীতে সৈনিক সংখ্যা ছিল ৩১৩ জন। এর মধ্যে মুহাজির ছিলেন ৮২ জন এবং আনসারদের মধ্যে আওস গোত্রের ছিলেন ৬১ জন ও খাজরাজ গোত্রের ছিলেন ১৭০ জন। মুসলিমদের সাথে ৭০টি উট ও দুইটি ঘোড়া ছিল। ফলে তাদের সামনে পায়ে হেঁটে যাওয়া বা প্রতি দুই বা তিনজনের জন্য একটি উট ব্যবহার ছাড়া উপায় ছিল না।

অন্যদিকে কুরাইশরা ১৩শ’ সৈনিকের এক বাহিনী গড়ে তোলা হয় এবং আবু জাহল বাহিনীর প্রধান হন। এই বাহিনীতে অসংখ্য উট, ১০০ ঘোড়া ও ৬০০ লৌহবর্ম‌ ছিল। আবু জাহল, উতবা ইবনে রাবিয়া, শাইবা ইবনে রাবিয়া, আবুল বাখতারি ইবনে হিশাম, হাকিম ইবনে হিজাম, নওফেল ইবনে খুয়াইলিদ, হারিস ইবনে আমির, তুয়াইমা ইবনে আদি, নাদার ইবনে হারিস, জামআ ইবনে আসওয়াদ ও উমাইয়া ইবনে খালাফসহ মক্কার অনেক অভিজাত ব্যক্তি মক্কার বাহিনীতে যোগ দেন।

মক্কার কুরাইশরা যখন দেখল- নবী করিম (সা.) মদিনায় হিজরত করে পৌত্তলিক, ইহুদি, খ্রিস্টান ও মুসলমানদের সমন্বয়ে পৃথিবীর প্রথম লিখিত শাসনতন্ত্র ‘মদিনা সনদ’-এর ভিত্তিতে শান্তিপূর্ণ ইসলামী রাষ্ট্র গঠন করেছে। জাতি, ধর্ম, বর্ণ, গোত্র ও দলমত নির্বিশেষে তার নেতৃত্বে মদিনাবাসী বিনা প্রতিবন্ধকতায় নিঃশঙ্কচ জীবনযাপন করছেন। ইসলামের মর্মবাণী ধীরে ধীরে আরব উপদ্বীপ ছেড়ে বহির্বিশ্বে প্রচারিত হচ্ছিল, তখন মক্কার কাফের সম্প্রদায় ও মদিনার ষড়যন্ত্রকারী মুনাফিকরা চক্রান্ত করে নবী করিম (সা.) ও ইসলামকে দুনিয়া থেকে চিরতরে উৎখাত করতে যুদ্ধের রণপ্রস্তুতি গ্রহণ করে।

আরবের তৎকালীন যুদ্ধরীতি অনুযায়ী প্রথমে সংঘটিত মল্লযুদ্ধে মুসলিমদের হাতে কাফের বাহিনী পরাজিত হয়। মুসলিম বাহিনী বীরবিক্রমে লড়াই করে ইসলামের বিজয় কেতন ছিনিয়ে আনেন। বদর যুদ্ধে ৭০ জন কাফের নিহত ও ৭০ জন বন্দী হয়। অন্যদিকে মাত্র ১৪ জন মুসলিম বীর সেনা শহীদ হন; কাফেরদের বহু অস্ত্র ও রসদপত্র মুসলমানদের হস্তগত হলো।

বদর যুদ্ধের প্রাক্কালে রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেছিলেন, আজ যে ব্যক্তি কাফিরদের বিরুদ্ধে ধৈর্যের সঙ্গে সওয়াবের প্রত্যাশায় যুদ্ধ করবে, শহীদ হবে, আল্লাহ তাকে জান্নাত দান করবেন। (বায়হাকি)

১৭ রমজান বদর যুদ্ধ থেকেই শুরু হয় ইসলামের যাত্রা। তওহিদ ও ইমান যে এক অজেয় শক্তি, এর সামনে দুনিয়ার সব শক্তিই মাথা নত করতে বাধ্য, এ কথা মুসলমানরা পূর্ণভাবে উপলব্ধি করতে পারেন। বস্তুত, বদর যুদ্ধ ছিল ইমানের মহাপরীক্ষা। এতে রোজাদার সাহাবিরা যেভাবে সফলকাম হতে সক্ষম হয়েছেন, ইতিহাসে তার তুলনা নেই। সাফল্যের অপূর্ব বিজয়গাথা ইসলামের ত্যাগের শিক্ষায় সত্য ও ন্যায়ের পথে মুসলমানদের যুগ যুগ ধরে প্রাণশক্তি জুগিয়ে আসছে।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

ধর্ম ও জীবন

অবৈধভাবে উপার্জিত টাকা দান করলে সওয়াব হবে?

Published

on

ন্যাশনাল হাউজিং

উপার্জনের ক্ষেত্রে ইসলাম সবসময় হালাল-হারামে গুরুত্ব দিতে বলেছে। কারণ, হারাম পন্থায় উপার্জন করলে বরকত নষ্ট হয়ে যায়। যার উপার্জন হারাম তার সারা জীবনই ধ্বংসের মুখে। কারণ, তার খাবার-দাবার, পোশাক সবই হারাম উপার্জনের এমনকি সন্তান-সন্ততির শরীরও হারাম খাবারে পূর্ণ। এক কথায় তার পুরো জীবন প্রতিষ্ঠিত হারামের ওপর। এমন ব্যক্তি অঢেল সম্পদ উর্পাজন করলেও বরকত থেকে বঞ্চিত। আল্লাহর রহমত থেকে বিতাড়িত।

তাই হালাল উপার্জনে গুরুত্ব দিতে হবে। কারণ, এতে রয়েছে বরকত। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, যে ব্যক্তি সৎ পন্থায় সম্পদ উপার্জন করে থাকে তাকে এর মধ্যে বরকত দেওয়া হয়। (মুসলিম, হাদিস, ২৩১১)

হালাল রিজিক অনুসন্ধান করা আবশ্যক। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেন, অন্যান্য ফরজ কাজ আদায়ের সঙ্গে হালাল রুজি-রোজগারের ব্যবস্থা গ্রহণ করাও একটি ফরজ।’ (বায়হাকী, হাদিস, ৪৬০)।

অপর এক হাদিসে মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, আল্লাহ তায়ালা কেবল পবিত্র বস্তুই কবুল করেন। যে ব্যক্তি হালাল উপার্জন থেকে এক মুষ্টি খেজুরও দান করে, আল্লাহ তা নিজ হাতে গ্রহণ করেন। এরপর তা ওই ব্যক্তির জন্য পরিচর্যা করতে থাকেন- যেমন তোমাদের কেউ উটের বাচ্চার পরিচর্যা করে। ওই সামান্য পরিমাণ খেজুর বাড়তে বাড়তে এক সময় পাহাড় পরিমাণ হয়ে যায়। (বুখারি, হাদিস, ১৪১০; মুসলিম, হাদিস, ১০১৪)

হাদিসের মাধ্যমে এ বিষয়টি স্পষ্ট যে, ইসলামে হারামে উপায়ে উপার্জনের কোনো স্থান নেই এবং একে বৈধতা দেওয়ার কোনো উপায় নেই। তবে কেউ যদি অবৈধভাবে উপার্জন করে ফেলে তাহলে তার জন্য এই সম্পদ নিজের কাছে রাখার অনুমতি নেই; প্রকৃত হকদারের কাছে পৌঁছে দিতে হবে। হকদারের খোঁজ না পেলে তা দান-সদকার নিয়ত না করে জনকল্যাণে ব্যয় করে দিতে হবে। এতে ওই ব্যক্তির কোনো সওয়াব হবে না। কারণ অবৈধ আয়ে ভালো কাজ করলে তা আল্লাহর কাছে গ্রহণযোগ্য হয় না। রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেন, আল্লাহ তায়ালা পবিত্রতা ছাড়া নামাজ কবুল করেন না এবং আত্মসাৎকৃত সম্পদের সদকা কবুল করেন না। (মুসলিম, হাদিস, ২২৪; তিরমিজি, হাদিস, ০১; নাসায়ি, হাদিস, ১৩৯)

ইবনে মাসউদ রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু বলেন, বান্দা হারাম পথে উপার্জন করবে, এরপর তা থেকে আল্লাহর পথে খরচ করবে এবং তাতে বরকত দেওয়া হবে বা সে তা থেকে সদকা করবে এবং তা কবুল করা হবে- এমন ধারণা অমূলক। বরং ওই ব্যক্তি মৃত্যুর পর সেই সম্পদ রেখে গেলে তা তাকে আরও বেশি জাহান্নামের দিকে নিয়ে যাবে। (আহমাদ, হাদিস, ৩৬৭২; বাজ্জার, হাদিস, ২০২৬)

অন্য এক হাদিসে এসেছে, আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু থেকে বর্ণিত, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এরশাদ করেন, যে ব্যক্তি হারাম উপার্জন করবে, এরপর তা সদকা করবে- সেই সদকায় কোনো সওয়াব হবে না; বরং অবৈধ উপার্জনের গুনাহের বোঝা তার ঘাড়ে চেপেই থাকবে। (ইবনে হিব্বান, হাদিস, ৩২১৬; হাকিম, হাদিস, ১৪৪০)

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

ধর্ম ও জীবন

হারাম উপার্জন দান করা নিয়ে যা বলেছে ইসলাম

Published

on

ন্যাশনাল হাউজিং

মহান আল্লাহ মানুষ সৃষ্টি করেছেন। দিয়েছেন সুন্দরতম অবয়ব। শিক্ষা দিয়েছেন হালাল-হারাম পথ। বলে দিয়েছেন, হালাল পথে রয়েছে, অফুরন্ত জান্নাতের নেয়ামত। আর হারাম উপার্জনে রয়েছে, জাহান্নামের মর্মন্তুদ শাস্তি। ইসলামে হালাল উপার্জনের গুরুত্ব অপরিসীম। ইসলামি শরিয়তের দিকনির্দেশনা হলো হালাল পথে জীবিকা উপার্জন করা।

অন্যায়, অবৈধ পন্থায় সব উপার্জন হারাম। সুদ-ঘুষ, চুরি-ডাকাতি, রাহাজানি, ছিনতাই, জুয়া, মিথ্যাচার, চাঁদাবাজি, জবরদখল, যৌতুক, প্রতারণা ও প্রশ্নফাঁসসহ যাবতীয় অসামাজিক অনাচারে লিপ্ত হয়ে জীবিকা উপার্জন করা হারাম। এসব পন্থায় উপার্জন করার ব্যাপারে মহান আল্লাহ নিষেধ করে বলেন, তোমরা নিজেদের মধ্যে একে অন্যের সম্পদ অবৈধ পন্থায় গ্রাস কোরো না এবং মানুষের ধনসম্পত্তির কিয়দাংশ জেনে-শুনে অন্যায়ভাবে গ্রাস করার উদ্দেশ্যে তা বিচারকদের কাছে নিয়ে যেয়ো না। (সুরা বাকারা, আয়াত: ১৮৮)

জীবন চলার পথে সুখ-দুঃখ আসবে। তবে সব সময় হালাল পথেই চলতে হবে। এ প্রসঙ্গে মহান আল্লাহ বলেন, হে ঈমানদাররা! তোমরা পবিত্র বস্তু আহার করো, যেগুলো আমি তোমাদের রিজিক হিসেবে দান করেছি এবং আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করো, যদি তোমরা একমাত্র তারই ইবাদত করে থাকো। (সুরা বাকারা, আয়াত: ১৭২)

হারাম উপার্জন থেকে দান করে নেকির আশা করাটাও গুনাহের কাজ। অনেকের ধারণা অবৈধ উপার্জন করে কিছু দান করে দিলে আর হজ সম্পাদন করলে সব সম্পদ বৈধ হয়ে যায়! অথচ বিষয়টি মোটেও সত্য নয় । অবৈধ উপার্জনের জন্য অবশ্যই কিয়ামতের দিন জবাবদিহির সম্মুখীন হতে হবে।

নবীজি সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, কিয়ামতের দিনে কোনো মানুষ নিজের স্থান থেকে এক বিন্দুও সরতে পারবে না, যতক্ষণ না তার কাছ থেকে চারটি প্রশ্নের উত্তর নিয়ে নেয়া হবে। তন্মধ্যে একটি প্রশ্ন হচ্ছে, নিজের ধন-সম্পদ কোথা থেকে উপার্জন করেছে এবং কোথায় ব্যয় করেছে? (তিরমিজি: ২৪১৭)

এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

ধর্ম ও জীবন

হজ পালনে সৌদির আবাসন নিবন্ধন শুরু

Published

on

ন্যাশনাল হাউজিং

আগামী বছরের জন্য হজের প্রস্তুতি শুরু করেছে সৌদি আরব। দেশটি জানিয়েছে, আজ থেকে মদিনায় হাজিদের জন্য আবাসন নিবন্ধন শুরু হবে। শনিবার (০৬ জুলাই) গালফ নিউজের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

হাজিদের আবাসন সংক্রান্ত সৌদি কমিটি জানিয়েছে, রোববার থেকে মদিনায় আবাসনের অনুমতির জন্য আবেদন গ্রহণ করা শুরু হবে। আগামী বছর হজের প্রস্তুতির অংশ হিসেবে এ কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

গালফ নিউজ জানিয়েছে, আবাসন সংক্রান্ত এ কমিটি জমির মালিক ও বিনিয়োগকারীদেরকে হাজিদের আবাসন সংক্রান্ত অনুমোদনের জন্য সকল শর্ত ও মানদণ্ড পূরণের জন্য আহ্বান জানিয়েছে। রেজিস্ট্রেশন চলাকালে সকল প্রক্রিয়া নিশ্চিত করার জন্য বলা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রোববার তথা আরবি হিজরি ১৪৪৬ ক্যালেন্ডারের প্রথম দিন থেকে এ সব প্রক্রিয়া শুরু হবে, যা রজব মাসের শেষ তারিখ পর্যন্ত চলবে। এ মাসটি আরবি ক্যালেন্ডারের অষ্টম মাস।

সৌদি আরব জানিয়েছে, সদ্য সমাপ্ত হজের মৌসুমে সারাবিশ্ব থেকে ১৮ লাখ মুসল্লি হজ পালন করেছেন। এ সব মুসল্লিদের মধ্যে ১৬ লাখই সৌদির বাইরে বিভিন্ন দেশের নাগরিক। এ ছাড়া এবছর হজের মৌসুমে রেকর্ডসংখ্যক হজযাত্রীর মৃত্যু হয়েছে বলেও জানিয়েছে তারা। এজন্য বৈধভাবে হজের ভিসা ও অনুমোদনহীন ভ্রমণ বন্ধ করার ওপর জোর দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

জাতীয়

পবিত্র আশুরা ১৭ জুলাই

Published

on

ন্যাশনাল হাউজিং

বাংলাদেশের আকাশে শনিবার (৬ জুলাই) সন্ধ্যায় পবিত্র মহররম মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। সোমবার (৮ জুলাই) শুরু হচ্ছে মহররম মাস ও নতুন বছর ১৪৪৬ হিজরি। আগামী ১৭ জুলাই বুধবার (১০ মহররম) দেশে পবিত্র আশুরা পালিত হবে।

রাজধানীর বায়তুল মোকাররমে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সভাকক্ষে শনিবার সন্ধ্যায় জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মু.আ. আউয়াল হাওলাদার।

সভায় অতিরিক্ত সচিব জানান, সব জেলা প্রশাসন, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের প্রধান কার্যালয়, বিভাগীয় ও জেলা কার্যালয়, বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর, মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র ও দূর অনুধাবন কেন্দ্র থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী বাংলাদেশের আকাশে কোথাও হিজরি ১৪৪৬ সনের মহররম মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। রোববার (৭ জুলাই) জিলহজ মাসের ৩০ দিন পূর্ণ হবে। সোমবার থেকে মহররম মাস গণনা শুরু হবে। আগামী ১৭ জুলাই (১০ মহররম) বুধবার দেশে পবিত্র আশুরা পালিত হবে।

হিজরি সনের প্রথম মাস হচ্ছে মহররম। আশুরার দিন দেশে নির্বাহী আদেশে সরকারি ছুটি থাকে। শিয়ারা বিশেষভাবে আশুরা পালন করে থাকেন।

কারবালা প্রান্তরে হযরত মুহাম্মদ (স.) এর দৌহিত্র হযরত ইমাম হোসেন (রা.) এর শাহাদতবরণের শোকাবহ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মূলত আমাদের দেশে আশুরা উদযাপিত হয়। তবে ইসলামের ইতিহাসে পবিত্র আশুরা আরও কিছু তাৎপর্যময় ঘটনায় উজ্জ্বল হয়ে আছে। আশুরার রোজা (আশুরার দিন এবং আগে বা পরে একদিন) রাখার বিষয়ে বিশেষ ফজিলতের কথা বলা হয়েছে হাদিসে।

আশুরার দিনে ফেরাউনের হাত থেকে নবী মূসা (আ.) ও তার অনুসারীদের মুক্তি পাওয়া ছাড়া আর কোনো ঘটনা সহীহ হাদীস দ্বারা প্রমাণিত নয়। আশুরার দিনে হযরত আদমের (আ.) তাওবা কবুল, মহাপ্লাবনের পর নূহ (আ.) এর নৌকা জুদী পর্বতের ওপর থামা ও ঈসা (আ.) জন্মগ্রহণ করার কথা অনির্ভরযোগ্য সূত্রে কোন কোন সাহাবী-তাবিই থেকে বর্ণিত।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

ধর্ম ও জীবন

পবিত্র আশুরা কবে, জানা যাবে সন্ধ্যায়

Published

on

ন্যাশনাল হাউজিং

১৪৪৬ হিজরি সনের পবিত্র মহররম মাসের চাঁদ দেখা এবং পবিত্র আশুরার তারিখ নির্ধারণের লক্ষ্যে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হবে শনিবার (৬ জুলাই)। সন্ধ্যা ৭টা ১৫ মিনিটে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বায়তুল মোকাররম সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত হবে। সভায় সভাপতিত্ব করবেন ধর্মমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান।

শনিবার (৬ জুলাই) মহররম মাসের চাঁদ দেখা গেলে জিলহজ মাস ২৯ দিনের হবে এবং রোববার (৭ জুলাই) মহররম মাস শুরু হবে। সে ক্ষেত্রে আগামী ১৬ জুলাই আশুরা হবে। আর শনিবার মহররমের চাঁদ দেখা না গেলে জিলহজ মাস ৩০ দিনে পূর্ণ হবে এবং আগামী সোমবার থেকে মহররম মাস শুরু হবে। এ ক্ষেত্রে ১৭ জুলাই আশুরা হবে।

বাংলাদেশের আকাশে কোথাও মহররম মাসের চাঁদ দেখা গেলে তা ০২-২২৩৩৮১৭২৫, ০২-৪১০৫০৯১২, ০২-৪১০৫০৯১৬, ০২-৪১০৫০৯১৭ টেলিফোন ও ০২-২২৩৩৮৩৩৯৭, ০২-৯৫৫৫৯৫১ ফ্যাক্স নম্বরে বা সংশ্লিষ্ট জেলার জেলা প্রশাসক (ডিসি) বা উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে (ইউএনও) জানানোর অনুরোধ জানিয়েছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন।

কাফি

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

শেয়ারবাজারের সর্বশেষ

ন্যাশনাল হাউজিং ন্যাশনাল হাউজিং
পুঁজিবাজার5 hours ago

ফের ন্যাশনাল হাউজিং ফাইন্যান্সের এমডি শামসুল ইসলাম

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ন্যাশনাল হাউজিং ফাইন্যান্স পিএলসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) হিসেবে পুনরায় নিযুক্ত হয়েছেন মোহাম্মদ শামসুল ইসলাম। মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) থেকে...

ন্যাশনাল হাউজিং ন্যাশনাল হাউজিং
পুঁজিবাজার9 hours ago

শেয়ারবাজারেও বড় বিনিয়োগ ছিল প্রধানমন্ত্রীর পিয়ন জাহাঙ্গীরের

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাবেক ব্যক্তিগত কর্মচারী জাহাঙ্গীর আলম নানান অপকর্মে লিপ্ত হয়ে ৪০০ কোটি টাকার মালিক হয়েছেন। গতকাল প্রধানমন্ত্রী শেখ...

ন্যাশনাল হাউজিং ন্যাশনাল হাউজিং
পুঁজিবাজার9 hours ago

ব্লকে ৫১ কোটি টাকার লেনদেন

সপ্তাহের দ্বিতীয় কর্মদিবসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ব্লকে ৪০টি কোম্পানি লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব কোম্পানির মোট ৫১ কোটি ১২ লাখ...

ন্যাশনাল হাউজিং ন্যাশনাল হাউজিং
পুঁজিবাজার11 hours ago

লিন্ডে বিডির সর্বোচ্চ দরপতন

সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেনে অংশ নেওয়া ৩৯৭টি কোম্পানির মধ্যে ১৯১ কোম্পানির শেয়ারদর কমেছে।...

ন্যাশনাল হাউজিং ন্যাশনাল হাউজিং
পুঁজিবাজার11 hours ago

দরবৃদ্ধির শীর্ষে ইনফরমেশন সার্ভিসেস নেটওয়ার্ক

সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবসে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেনে অংশ নেওয়া ৩৯৭ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১৪০টির শেয়ারদর বেড়েছে। এর...

Orion Infusion Orion Infusion
পুঁজিবাজার11 hours ago

লেনদেনের শীর্ষে ওরিয়ন ইনফিউশন

সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবসে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ৩৯৭টি কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিট হাতবদল হয়েছে। এদিন লেনদেনের শীর্ষে...

ন্যাশনাল হাউজিং ন্যাশনাল হাউজিং
পুঁজিবাজার11 hours ago

লেনদেন বেড়েছে শেয়ারবাজারে

সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবসে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) মূল্য সূচকের ইতিবাচক প্রবণতায় লেনদেন শেষে হয়েছে। একই সঙ্গে টাকার...

ন্যাশনাল হাউজিং ন্যাশনাল হাউজিং
পুঁজিবাজার12 hours ago

নগদ লভ্যাংশ পাঠিয়েছে প্রাইম ইন্স্যুরেন্স

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি প্রাইম ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড ৩১ ডিসেম্বর,২০২৩ সমাপ্ত হিসাববছরের ঘোষিত নগদ লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের কাছে পাঠিয়েছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ...

ন্যাশনাল হাউজিং ন্যাশনাল হাউজিং
পুঁজিবাজার12 hours ago

মঙ্গলবার স্পট মার্কেটে যাচ্ছে দুই কোম্পানি

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত দুই কোম্পানি রেকর্ড ডেটের আগে আগামীকাল মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) স্পট মার্কেট যাচ্ছে। কোম্পানি দুটি হচ্ছে- বাংলাদেশ জেনারেল লাইফ...

ন্যাশনাল হাউজিং ন্যাশনাল হাউজিং
পুঁজিবাজার12 hours ago

দেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্সের লেনদেন চালু আগামীকাল

রেকর্ড ডেটের পর আগামীকাল মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) শেয়ার লেনদেন চালু হবে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বিমা খাতের কোম্পানি দেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্স লিমিটেডের।...

ন্যাশনাল হাউজিং ন্যাশনাল হাউজিং
পুঁজিবাজার14 hours ago

সিঙ্গার বাংলাদেশের পর্ষদ সভার তারিখ ঘোষণা

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত সিঙ্গার বাংলাদেশ লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ সভার তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে। আগামী ২২ জুলাই বিকাল ৩টায় কোম্পানিটির পর্ষদ সভা...

ন্যাশনাল হাউজিং ন্যাশনাল হাউজিং
পুঁজিবাজার14 hours ago

ব্যাংকাস্যুরেন্স চালুর অনুমতি পেলো পুঁজিবাজারের ৬ ব্যাংক

বেসরকারি সাত ব্যাংককে ব্যাংকাস্যুরেন্স চালুর অনুমতি দিয়েছে বিমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ)। এর মধ্যে দেশের পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত রয়েছে ছয়টি...

ন্যাশনাল হাউজিং ন্যাশনাল হাউজিং
পুঁজিবাজার14 hours ago

দুই ঘণ্টায় লেনদেন ৩২১ কোটি টাকা

সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবসে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় লেনদেন চলছে। এদিন লেনদেন শুরুর প্রথম দুই...

ন্যাশনাল হাউজিং ন্যাশনাল হাউজিং
অর্থনীতি15 hours ago

মিউচুয়াল ফান্ড-বন্ডে বিনিয়োগ হবে সর্বজনীন পেনশনের অর্থ

সর্বজনীন পেনশন স্কিম চালু হওয়ার প্রায় ১১ মাস পর এর তহবিল বিধিমালার গেজেট জারি করেছে অর্থ মন্ত্রণালয়। পেনশন কর্মসূচির আওতায়...

ন্যাশনাল হাউজিং ন্যাশনাল হাউজিং
পুঁজিবাজার16 hours ago

এনআরবি ব্যাংকের পর্ষদ সভার তারিখ ঘোষণা

পুঁজিবাজারের তালিকাভুক্ত ব্যাংক খাতের কোম্পানি এনআরবি ব্যাংক লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ সভার তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে। কোম্পানিটির পর্ষদ সভা আগামী ১৮...

ন্যাশনাল হাউজিং ন্যাশনাল হাউজিং
পুঁজিবাজার1 day ago

সোনালী লাইফের ৫ কর্মকর্তাকে বরখাস্তের আদেশ স্থগিত

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত সোনালী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের শীর্ষ পাঁচ কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করার আদেশ ৩ মাসের জন্য স্থগিত করেছেন উচ্চ আদালত। একই সঙ্গে...

ন্যাশনাল হাউজিং ন্যাশনাল হাউজিং
পুঁজিবাজার1 day ago

মতিউরের কোম্পানি এস কে ট্রিমসের ব্যাংক হিসাব জব্দ

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সদ্য সাবেক সদস্য মতিউর রহমানের মালিকানাধীন কোম্পানি এস কে ট্রিমসের ব্যাংক হিসাব জব্দ করা হয়েছে। রোববার...

ন্যাশনাল হাউজিং ন্যাশনাল হাউজিং
পুঁজিবাজার1 day ago

আইএফআইসির সব ব্যাংকিং কার্যক্রম বন্ধ ১৮ জুলাই

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ব্যাংকিং খাতের বেসরকারি প্রতিষ্ঠান আইএফআইসি ব্যাংক পিএলসির সব ধরনের ব্যাংকিং কার্যক্রম আগামী বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) বন্ধ থাকবে। রোববার...

ন্যাশনাল হাউজিং ন্যাশনাল হাউজিং
পুঁজিবাজার1 day ago

সিএসইতে টেকনো ড্রাগসের লেনদেন শুরু

পুঁজিবাজারে সদ্য তালিকাভুক্ত হওয়া টেকনো ড্রাগস লিমিটেডের চিটাগাং স্টক এক্সচেঞ্জ পিএলসিতে (সিএসই) লেনদেন শুরু হয়েছে। রোববার (১৪ জুলাই) সিএসইর প্লাটফর্মে...

ন্যাশনাল হাউজিং ন্যাশনাল হাউজিং
পুঁজিবাজার1 day ago

ব্লকে ৪৩ কোটি টাকার লেনদেন

সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ব্লকে মোট ৪৭টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিগুলোর মোট ২ কোটি ৩ লাখ...

Advertisement

ফেসবুকে অর্থসংবাদ

ন্যাশনাল হাউজিং
অর্থনীতি2 hours ago

গ্যাস সরবরাহ আগামী সপ্তাহে বাড়তে পারে: প্রতিমন্ত্রী

ন্যাশনাল হাউজিং
অর্থনীতি2 hours ago

বিজিএমইএ ও ক্যাসকেলের মধ্যে বৈঠক অনুষ্ঠিত

ন্যাশনাল হাউজিং
আন্তর্জাতিক3 hours ago

শ্রীলঙ্কায় কমেছে বিদ্যুতের দাম, দরিদ্র ভোক্তাদের অতিরিক্ত ছাড়

ন্যাশনাল হাউজিং
লাইফস্টাইল3 hours ago

হাত-পায়ের তালু ঘামলে যা করবেন

ন্যাশনাল হাউজিং
আন্তর্জাতিক3 hours ago

ভাগ্য বা ঈশ্বর আমাকে রক্ষা করেছেন: ট্রাম্প

ন্যাশনাল হাউজিং
জাতীয়3 hours ago

১৭২ ইউপি ভোট: প্রতি কেন্দ্রে ২২ জনের ফোর্স

ন্যাশনাল হাউজিং
ক্যাম্পাস টু ক্যারিয়ার4 hours ago

চাকরির সুযোগ দিচ্ছে এসিআই

ন্যাশনাল হাউজিং
আন্তর্জাতিক4 hours ago

ব্যাংকের চাকরি ছেড়ে দিয়ে ইউটিউবার, বছরে আয় ১১ কোটি টাকা

ন্যাশনাল হাউজিং
জাতীয়4 hours ago

কোটাবিরোধী শিক্ষার্থীদের নতুন কর্মসূচি ঘোষণা

ন্যাশনাল হাউজিং
জাতীয়4 hours ago

এপিএ স্বাক্ষর করেছে ২৬ হাজার সরকারি অফিস

ন্যাশনাল হাউজিং
ক্যাম্পাস টু ক্যারিয়ার4 hours ago

বহিরাগতদের বের করতে ক্যাম্পাসে পুলিশ মোতায়েন: ঢাবি প্রক্টর

ন্যাশনাল হাউজিং
পুঁজিবাজার5 hours ago

ফের ন্যাশনাল হাউজিং ফাইন্যান্সের এমডি শামসুল ইসলাম

ন্যাশনাল হাউজিং
আবহাওয়া5 hours ago

আট অঞ্চলে ৬০ কিমি বেগে ঝড় হতে পারে

ন্যাশনাল হাউজিং
অর্থনীতি5 hours ago

ক্রেডিট কার্ডে লেনদেন কমেছে বাংলাদেশিদের 

ন্যাশনাল হাউজিং
জাতীয়5 hours ago

প্রভোস্টদের বৈঠক শেষে যা জানালেন ঢাবি উপাচার্য

ন্যাশনাল হাউজিং
রাজধানী6 hours ago

তাজিয়া মিছিলে জঙ্গি হামলার শঙ্কা নেই: ডিএমপি কমিশনার

ন্যাশনাল হাউজিং
খেলাধুলা6 hours ago

বাংলাদেশ ছেড়ে পাকিস্তানে চাকরি নিলেন হেমিং

ন্যাশনাল হাউজিং
খেলাধুলা6 hours ago

নারী বিপিএল নিয়ে যা জানাল বিসিবি

ন্যাশনাল হাউজিং
জাতীয়6 hours ago

জুনে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৬৪৪ জন

ন্যাশনাল হাউজিং
আন্তর্জাতিক6 hours ago

নেপালে চতুর্থবার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন অলি

ন্যাশনাল হাউজিং
আন্তর্জাতিক7 hours ago

ভারতের নতুন পররাষ্ট্রসচিব বিক্রম মিশ্রি

ন্যাশনাল হাউজিং
আন্তর্জাতিক7 hours ago

জাপানি রাবারের দাম কমেছে

ন্যাশনাল হাউজিং
জাতীয়7 hours ago

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সৌ‌দি রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ

ন্যাশনাল হাউজিং
টেলিকম ও প্রযুক্তি7 hours ago

তারবিহীন ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট চালু করল গ্রামীণফোন

ন্যাশনাল হাউজিং
জাতীয়7 hours ago

নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ গ্রাহকদের অন্যতম চাহিদা: নসরুল হামিদ

২০১৮ সাল থেকে ২০২৩

অর্থসংবাদ আর্কাইভ

তারিখ অনুযায়ী সংবাদ

রবি সোম মঙ্গল বু বৃহ শুক্র শনি
 
১০১১১৩
১৫১৬১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
৩০৩১