Connect with us

জাতীয়

এলপিজির দাম কমানোর সুযোগ নেই: প্রতিমন্ত্রী

Published

on

পুঁজিবাজার

আমদানি নির্ভর হওয়ায় আন্তর্জাতিক বাজারে এলপিজির দাম না কমালে রেগুলেটরি কমিশন থেকে এলপিজির মূল্য কমানোর সুযোগ নেই বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।

রবিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় সংসদের অধিবেশনে মুহাম্মদ সাইফুল ইসলামের এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি এ কথা বলেন। এ সময় স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন।

নসরুল হামিদ বলেন, দেশের বেসরকারি এলপিজি আমদানি নির্ভর হওয়ায় (মোট চাহিদার ৯৮ শতাংশ) আন্তর্জাতিক বাজারে এলপিজির মূল্য না কমালে রেগুলেটরি কমিশন কর্তৃক বেসরকারি এলপিজির মূল্য কমানোর সুযোগ নেই। প্রতি কেজি বেসরকারি এলপিজির মূল্য ১২২.৮৬ টাকা। সে অনুযায়ী বহুল ব্যবহৃত বেসরকারি ১২ কেজি এলপিজি সিলিন্ডারের মূল্য ১ হাজার ৪৭৪ টাকা।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, সারাদেশে এলপিজি গ্যাস আরো সাশ্রয়ী ও সহজলভ্য করার জন্য কক্সবাজার জেলার মহেশখালীর মাতারবাড়ি এলাকায় বৃহদাকার এলপিজি টার্মিনাল এবং চট্টগ্রামের লতিফপুর মৌজায় বটলিং প্ল্যান্ট নির্মাণের পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে। এছাড়া বেসরকারি উদ্যোক্তাদের এলপিজি বটলিং প্ল্যান্ট স্থাপনে উৎসাহ করতে নীতিমালা সংশোধনের কার্যক্রম চলছে। এতে এলপিজির পর্যাপ্ত সরবরাহ নিশ্চিত করার মাধ্যমে ভোক্তাপর্যায়ে মূল্য সহনীয় রাখা সম্ভব হবে।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

জাতীয়

জাহাজ ও নাবিকদের এত দ্রুত মুক্তির ঘটনা নজিরবিহীন: নৌ প্রতিমন্ত্রী

Published

on

পুঁজিবাজার

জলদস্যুদের কবল থেকে জাহাজ ও নাবিকদের এত অল্প সময়ে মুক্তির ঘটনা নজিরবিহীন বলে মন্তব্য করেছেন নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। আজ রোববার সকালে রাজধানীর মিন্টো রোডে নিজ বাসভবনে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ঈদের আগেই তাদের মুক্তি করতে চেয়েছিলাম কিন্তু পারিনি। তবে আশ্বাস পেয়েছিলাম এ মাসের মধ্যেই তারা মুক্ত হবেন।’

তিনি বলেন, ‘এবার নববর্ষের দিন তাঁরা মুক্তি পেলেন। ক্রুদের পরিবারের সদস্যদের পাশাপাশি পুরো বাংলাদেশ এখন খুশি।’

এমভি আবদুল্লাহ জাহাজটি এখন সংযুক্ত আরব আমিরাতের উদ্দেশে রওনা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

গণমাধ্যমকর্মীদের প্রশ্নের জবাবে খালিদ বলেন, ‘মুক্তিপণ বা টাকা-পয়সার সঙ্গে আমাদের কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই। এই ধরনের তথ্য আমাদের কাছে নেই যে টাকা দিয়ে তাদের ছাড়িয়ে আনা হয়েছে। অনেকেই ছবি দেখাচ্ছে বিভিন্ন ধরনের, এই ছবিগুলোরও কোনো সত্যতা নেই। কারণ ছবি কোথায় আসছে, কীভাবে আসছে আমরা জানি না।’

যেসব দেশ সহযোগিতা করেছে, তাদের ধন্যবাদ জানিয়ে নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা তাদের (জলদস্যু) সঙ্গে সমঝোতা করেছি, দীর্ঘ দিন কথা-বার্তা চলেছে। এখানে মুক্তিপণের কোনো বিষয় নেই। আলাপ-আলোচনা এবং বিভিন্ন ধরনের চাপ আছে এখানে, সেই চাপগুলো এখানে কাজে দিয়েছে। আন্তর্জাতিক জলসীমা থেকে এটা (জাহাজ) তাদের জলসীমায় নেওয়া হয়েছে। কাজেই জলদস্যুরা একদম সর্ব শক্তিমান ব্যাপারটা তা নয় তো!

‘এত দিন আমরা যে সময়টা নিয়েছি, ইউরোপীয়ান নেভাল ফোর্স থেকে শুরু করে অন্যান্য যারা আছেন; এরা (জলদস্যু) ভীষণ চাপের মধ্যে ছিল। বিশেষ করে সোমালিয়ান পুলিশের বিরাট চাপ ছিল- তারা চায়, জলদস্যুদের হাত থেকে সমুদ্র পথটা নিরাপদ করতে এবং এজন্য যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থনও তারা নিচ্ছে। তারা একটা পরিকল্পনা করছে যে, ভবিষ্যতে যেন এই রুটটা নিরাপদ থাকে। সারা বিশ্বে সোমালিয়ান জলদস্যুদের কারণে একটি দেশের ইমেজ নষ্ট হচ্ছে, এটা তারা উপলব্ধি করছে,’ বলেন তিনি।

আন্তর্জাতিক চাপের মাধ্যমে মুক্তিপণ ছাড়াই নাবিক ও ক্রুদের মুক্ত করা হয়েছে কি না স্পষ্ট করে জানতে চাইলে খালিদ গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আন্তর্জাতিক চাপ ও নেগোসিয়েশনও আছে; আলোচনা যেটা করেছি। তাদেরও জীবনের নিরাপত্তার ব্যাপার ছিল।’

তিনি বলেন, ‘তাদের ওপর চাপ সার্বক্ষণিক ছিল এবং চরম পর্যায়ে গেয়েছিল। সেই কারণেই তারা সেখান থেকে নেমে গেছে। চাপটা এত ছিল, তারা যখন জাহাজটা নিয়ন্ত্রণে নেয় সেখানে ২০ জন ছিল জলদস্যু। গতকাল যখন তারা জাহাজ ছেড়ে যায়, ইতোমধ্যে প্রায় ৬৫ জন জলদস্যু জাহাজে অবস্থান নিয়েছিল।’

এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

জাতীয়

রমনার বটমূলে শেষ হলো বর্ষবরণ অনুষ্ঠান

Published

on

পুঁজিবাজার

রাজধানীর রমনার বটমূলে মানুষের ঢল নেমেছে। বাংলা নতুন বছরকে বরণ করে নিতে প্রতি বছরের মতো এবারও আয়োজন করা হয় বর্ষবরণ অনুষ্ঠান। রোববার (১৪ এপ্রিল) সকাল সোয়া ৬টায় আহির ভৈরব রাগে বাঁশির সুরে শুরু হয় বর্ষবরণের এবারের অনুষ্ঠান।

একে একে পরিবেশন করা হয় মোট ২৯টি পরিবেশনা। জাতীয় সংগীত পরিবেশনার মধ্য দিয়ে সকালে শুরু হয় বর্ষবরণ অনুষ্ঠান। সবশেষ পরিবেশনাটি ছিল শচীন দেববর্মনের সুরে করা ‘টাকডুম টাকডুম বাজাই’ গানটি। এরপর ছিল নববর্ষ কথন।

নববর্ষ কথন শোনান ছায়ানটের নির্বাহী সভাপতি সারওয়ার আলী।

এবারের কথনের শেষ অংশে বলা হয়, ‘অমানবিক এই অস্বাভাবিকতা থেকে বেরোতে হবে। নইলে বাঙালির প্রাণপ্রিয় এই নববর্ষ উদযাপনও হয়ে পড়বে কেবল একটি দিনের জন্য বাঙালি সাজবার উপলক্ষ।’

সারওয়ার আলী আরও বলেন, ‘আজ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দের প্রথম প্রভাতের সুরবাণী আঁধার রজনী পোহালো, জগত পূরিল পুলকে। নববর্ষের নবীন আলোয়, নবীন আশায়, নবজীবন লাভ করে সবাই যেন স্বাভাবিকতায় ফিরি এবং সম্প্রীতির সাধনায় নিজেদের নিমগ্ন করি—এই হোক আমাদের প্রতিজ্ঞা। শুভ নববর্ষ।’

বাংলা নববর্ষের দিনটি বাঙালিদের জন্য সবচেয়ে আনন্দময়, সবচেয়ে রঙিন উৎসব। এদিন বাঙালি জাতি পুরোনো বছরকে বিদায় জানিয়ে নতুন বছরকে বরণ করে নেয় আনন্দ উৎসবের মাধ্যমে। তাইতো নববর্ষকে বরণ করতে ভোর থেকেই মানুষের ঢল নামে রমনায়।

এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

জাতীয়

গাবতলীতে ঢাকায় ফেরা মানুষের চাপ কম

Published

on

পুঁজিবাজার

পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন শেষে রাজধানী ঢাকায় ফিরতে শুরু করেছেন মানুষজন। তবে ঈদের চতুর্থ দিন রোববার (১৪ এপ্রিল) সকাল থেকে কর্মব্যস্ত মানুষের রাজধানীতে ফেরার তেমন চাপ লক্ষ্য দেখা যায়নি। আবার রাজধানী থেকে ছেড়ে যাওয়া পরিবহনগুলো যাত্রী সংকটে সিট ফাঁকা রেখেই গন্তব্যে ছুটছে। এ সময় বাসগুলোকে টিকিট কম দামে বিক্রি করতে দেখা যায়।

রোববার সকালে রাজধানীর গাবতলী বাস টার্মিনাল ঘুরে এমন চিত্র দেখা যায়।

সরেজমিনে দেখা যায়, ঢাকার বাইরে থেকে যে বাসই আসছে পরিপূর্ণ যাত্রী নিয়েই আসছে। তবে রাজধানীতে প্রবেশ করা বাসের সংখ্যা কম। আবার কিছু যাত্রী হলেও গাবতলী বাস টার্মিনাল থেকে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে নির্ধারিত সময়েই বাস ছেড়ে যাচ্ছে।

গাবতলী বাস টার্মিনালের কাউন্টারের কর্মচারী রুবেল বলেন, এখন মানুষ সেভাবে বাড়িতে যাচ্ছে না। আমাদের বেশিরভাগ গাড়ি ঢাকা থেকে ফাঁকা ছেড়ে যাচ্ছে। ঢাকা থেকে খুলনা সরকার নির্ধারিত আমাদের ভাড়া ৮০০ টাকা। কিন্তু আমরা ঈদের আগে যাত্রীদের কাছ থেকে ভাড়া নিয়েছি ৬৫০ টাকা থেকে ৭শ টাকা। এখন অর্ধেক দামেই টিকিট বিক্রি করছি। এখন তো বেশিরভাগ গাড়িই খালি যাচ্ছে। দু-একজন যাত্রী পেলেও প্রতিটি গাড়ি সময়মতো ছেড়ে যাচ্ছে।

শ্যামলী কাউন্টারের কর্মচারী মিনহাজ জানান, আজকে থেকে যাত্রী আসা শুরু হয়েছে। সকাল থেকে পরিবহনগুলোতে যাত্রীরা রাজধানীতে ঢুকছে। কিন্তু যাত্রীদের সংখ্যা খুব একটা বাড়েনি। ঢাকায় ফেরা মানুষদের চাপ বিকেল থেকে বাড়বে। ঢাকা থেকে বাড়িফেরা মানুষের সংখ্যা খুবই কম বলেও জানান তিনি।

এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

জাতীয়

ঢাবিতে মঙ্গল শোভাযাত্রায় মানুষের ঢল

Published

on

পুঁজিবাজার

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ থেকে ১৪৩১ সনের বাংলা নববর্ষের মঙ্গল শোভাযাত্রা শুরু হয়েছে। রোববার (১৪ এপ্রিল) সকাল ৯টা ১৫ মিনিটে এই শোভাযাত্রাটি শুরু হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড এ এস এম মাকসুদ কামালের নেতৃত্বে চারুকলা অনুষদ থেকে মঙ্গল শোভাযাত্রাটি শুরু হয়। সমাজকল্যাণ মন্ত্রী ডা. দীপু মনি, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম ও ডিএমপি কমিশনার শোভাযাত্রায় অংশ নেন।

বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের মঙ্গল শোভাযাত্রার ৩৫ বছর পূর্তি হলো এ বছর। এবারের মঙ্গল শোভাযাত্রার প্রতিপাদ্য করা হয়েছে ‘আমরা তো তিমিরবিনাশী’। শোভাযাত্রার স্লোগানটি কবি জীবনানন্দ দাশের ‘সাতটি তারার তিমির’ কাব্যগ্রন্থের ‘তিমিরহননের গান’ কবিতা থেকে নেওয়া।

এর আগে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে মঙ্গল শোভাযাত্রায় প্রদর্শনীর জন্য বিভিন্ন মুখোশ, পেঁচা, ঘোড়া, মূর্তি, ট্যাপা পুতুল, নকশি পাখি, বিভিন্ন প্রাণীর প্রতিকৃতি শোভাযাত্রার জন্য প্রস্তুত করা হয়।

এবারের মঙ্গল শোভাযাত্রার র‍্যালি প্রতি বছরের মতো চারুকলা অনুষদ থেকে বের হয়ে শাহবাগ মোড় হয়ে ঘুরে টিএসসি হয়ে আবার চারুকলায় গিয়ে শেষ হয়েছে।

এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

জাতীয়

বিএনপি বাঙালি সংস্কৃতি সহ্য করতে পারে না: কাদের

Published

on

পুঁজিবাজার

বিএনপি বাঙালি সংস্কৃতিকে সহ্য করতে পারে না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। রোববার (১৪ এপ্রিল) সকালে বাংলা নববর্ষ ১৪৩১ উদযাপন উপলক্ষে বাহাদুর শাহ পার্কে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনাসভায় এ মন্তব্য করেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি এ দেশের সাম্প্রদায়িকতার বিশ্বস্ত ঠিকানা, জঙ্গিবাদের পৃষ্ঠপোষক। কারা বৈশাখের চেতনাবিরোধী, তা আজ দেশে প্রতিষ্ঠিত সত্য। তারা বাঙালির সংস্কৃতিকে সহ্য করতে পারে না। তাদের চেতনা ও হৃদয়ে পাকিস্তান।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফীর সভাপতিত্বে আলোচনাসভায় আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মেহের আফরোজ চুমকি, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সজল কুন্ডু, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সভাপতি আক্তার হোসেন।

আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের উপদপ্তর সম্পাদক সায়েম খান। আলোচনাসভা পরিচালনা করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. হুমায়ুন কবির।

এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন
পুঁজিবাজার
আন্তর্জাতিক33 mins ago

ভারতের রিজার্ভ বেড়ে সর্বকালের সর্বোচ্চ

পুঁজিবাজার
জাতীয়1 hour ago

জাহাজ ও নাবিকদের এত দ্রুত মুক্তির ঘটনা নজিরবিহীন: নৌ প্রতিমন্ত্রী

পুঁজিবাজার
আন্তর্জাতিক1 hour ago

আমি প্রেসিডেন্ট থাকলে ইসরায়েলে হামলা হতো না: ট্রাম্প

পুঁজিবাজার
জাতীয়2 hours ago

রমনার বটমূলে শেষ হলো বর্ষবরণ অনুষ্ঠান

পুঁজিবাজার
আন্তর্জাতিক2 hours ago

জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের জরুরি বৈঠক

পুঁজিবাজার
জাতীয়2 hours ago

গাবতলীতে ঢাকায় ফেরা মানুষের চাপ কম

পুঁজিবাজার
জাতীয়3 hours ago

ঢাবিতে মঙ্গল শোভাযাত্রায় মানুষের ঢল

পুঁজিবাজার
খেলাধুলা3 hours ago

নববর্ষের শুভেচ্ছা জানালেন সাকিব

পুঁজিবাজার
আবহাওয়া3 hours ago

নববর্ষের দিনে বৃষ্টির শঙ্কা নেই, বাড়তে পারে গরম

পুঁজিবাজার
জাতীয়4 hours ago

বিএনপি বাঙালি সংস্কৃতি সহ্য করতে পারে না: কাদের

ফেসবুকে অর্থসংবাদ

২০১৮ সাল থেকে ২০২৩

অর্থসংবাদ আর্কাইভ

তারিখ অনুযায়ী সংবাদ

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০