Connect with us

সারাদেশ

সাজেকে ভয়াবহ আগুন, ৫০ লাখ টাকার ক্ষতি

Published

on

লাফার্জ

রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেক ভ্যালির কংলাক পাহাড়ে আগুনের ঘটনায় দুটি রিসোর্ট, একটি বসতঘর ও একটি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। তাতে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ আনুমানিক অর্ধকোটি বা ৫০ লাখ টাকা।

বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) রাত সাড়ে ১১টার দিকে সাজেকের মেঘছোঁয়া রিসোর্টে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। মুহূর্তেই ওই আগুন আশপাশের রিসোর্ট, দোকান ও বসতঘরে ছড়িয়ে পড়ে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে, কংলাক পাহাড়ের মেঘছোঁয়া রিসোর্টের পাশে স্থানীয়রা কাঠ পুড়িয়ে আগুন পোহাচ্ছিলেন। এ সময় সেখান থেকে আগুন ছড়িয়ে পড়ে বলে ধারণা করা হচ্ছে। সেনাবাহিনী, বিজিবি, পুলিশ, রিসোর্ট-রেস্তোরা মালিক কর্মচারী ও স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় স্থানীয় ব্যবস্থাপনায় রাত ২টার দিকে প্রায় আড়াই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। ওই আগুনে ২টা রিসোর্ট, একটা বাড়ি ও একটি দোকান সম্পূর্ণ পুড়ে যায়। তবে রিসোর্টে অবস্থানরত পর্যটকদের নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হয়।

সাজেক কটেজ মালিক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক রাহুল চাকমা যম জানান, মেঘছোয়া রিসোর্ট থেকে আগুন লেগে পাশের ফড়িংগি রিসোর্ট, স্থানীয় ভূবন ত্রিপুরার বাড়ি ও একটি দোকান পুড়ে যায়। অবশ্য পর্যটকদের নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। পুলিশ ও স্থানীয়দের সহযোগিতায় সাজেক কটেজ মালিক সমিতির নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। আগুনে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ আনুমানিক অর্ধকোটি টাকার মতো বলেও জানান তিনি।

বাঘাইছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শিরীন আক্তার বলেন, আমি সাজেকের ঘটনাস্থলে এসেছি। এখানে গতকাল রাতে দুটি রিসোর্ট, একটি বসতঘর ও একটি দোকান পুড়ে গেছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরাও আছেন। এখানে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে যেকোনো প্রকারের সহযোগিতার প্রয়োজন হলে আমরা করবো।

অর্থসংবাদ/এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Click to comment

You must be logged in to post a comment Login

Leave a Reply

সারাদেশ

নিহতদের দাফনে ২৫ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী

Published

on

লাফার্জ

রাজধানীর বেইলি রোডের একটি ভবনে অগ্নিকাণ্ডে নিহতদের দাফনের জন্য আর্থিক সহায়তা দেবে সরকার। আজ শুক্রবার সকাল ১০টায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী মহিববুর রহমান এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, মর্মান্তিক এ ঘটনায় নিহতদের দাফনের জন্য মন্ত্রণালয় থেকে ২৫ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত সাংবাদিকদের প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, দাফন সহায়তার পাশাপাশি অগ্নিকাণ্ডে আহতদের চিকিৎসার ব্যয়ভারও সরকার বহন করবে।

নিহতদের পরিবারকে ভবিষ্যতে প্রয়োজন অনুযায়ী সহায়তা ও সহযোগিতার আশ্বাসও দেন তিনি।

এদিকে বেইলি রোডের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৪৬ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন। আজ শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউট থেকে এ তথ্য জানান তিনি।

ডা. সামন্ত লাল সেন জানান, এই ঘটনায় আহত ১২ জন বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাদের মধ্যে দুইজন ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন। বাকি ১০ জন শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন। ওই ১০ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাদের শ্বাসনালী পুড়ে গেছে। যারা মারা গেছেন, তাদের বেশিরভাগেরই শ্বাসনালীতে ধোয়া ঢোকায় মৃত্যু হয়েছে।

অর্থসংবাদ/এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

সারাদেশ

উত্তরবঙ্গের সঙ্গে ঢাকার রেল যোগাযোগ বন্ধ

Published

on

লাফার্জ

টাঙ্গাইলে ক‌মিউটার ট্রেনের ইঞ্জিন বিকল হয়ে পড়ায় ঢাকার সঙ্গে বি‌চ্ছিন্ন হয়েছে উত্তরাঞ্চলের রেল যোগাযোগ। আজ বৃহস্প‌তিবার (২৯ ফেব্রুয়া‌রি) সকাল ৮টার দি‌কে টাঙ্গাইল সদর উপ‌জেলার ক‌রো‌টিয়া এলাকায় এই ঘটনা ঘ‌টে।

ট্রেন বিকল হওয়ার ঘটনায় ক‌য়েক‌টি স্টেশ‌নে বি‌ভিন্ন গ‌ন্তব্যের ট্রেন আটকা প‌ড়ে‌ছে। বঙ্গবন্ধু পূর্ব রেল‌স্টেশ‌নের টি‌কেট মাস্টার রেজাউল ক‌রিম বিষয়টি নিশ্চিত ক‌রে‌ছেন।

এর আগে টাঙ্গাইল ক‌মিউটার ট্রেন‌টি ঘা‌রিন্দা স্টেশ‌ন থে‌কে ঢাকার উদ্দে‌শ্যে সকাল সা‌ড়ে ৭টার পর ছে‌ড়ে যায়।

মহেড়া রেলওয়ে স্টেশন অফিসার সোহেল মিয়া বলেন, সকাল ৭টা ১০ মিনিটে টাঙ্গাইল স্টেশন থেকে টাঙ্গাইল কমিউটার ট্রেন ছেড়ে আসে। ঘটনাস্থলে এলে ট্রেনের ইঞ্জিন বিকল হয়। ঢাকা থেকে রিলিফ ট্রেনের ইঞ্জিন আসছে। তারপর ট্রেনটি সরানো হলে চলাচল স্বাভাবিক হবে।

এদি‌কে ট্রেনের ইঞ্জিন বিকল হওয়ার ঘটনায় ঢাকাগামী সিরাজগঞ্জ এক্স‌প্রেস ট্রেন টাঙ্গাইলের ঘা‌রিন্দা স্টেশ‌নে, লোকাল নাইন‌টি নাইন ট্রেন ‌বঙ্গবন্ধ‌ু সেতুপূর্ব স্টেশনে, বনলতা এক্স‌েপ্রেস ট্রেন বঙ্গবন্ধ‌ু সেতু প‌শ্চিমপাড় স্টেশ‌নে আটকা প‌ড়ে‌ছে এবং ঢাকা থে‌কে উত্তরবঙ্গগামী নীলসাগর এক্স‌প্রেস ট্রেন‌টি মৌচাক স্টেশ‌নে আটকা প‌ড়ে‌ছে।

কাফি

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

সারাদেশ

সুন্দরবনে পথ হারানো ৩১ পর্যটককে উদ্ধার

Published

on

লাফার্জ

সুন্দরবনের করমজলে পথ হারানো ৩১ কিশোর পর্যটককে ৩ ঘণ্টা পর জাতীয় জরুরি সেবার হটলাইন নম্বর ৯৯৯-এ ফোন পেয়ে উদ্ধার করেছে মোংলা থানা পুলিশ। সোমবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে মোংলা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কে এম আজিজুল ইসলামের সহায়তায় তাদের উদ্ধার করা হয়।

জানা গেছে, পথ হারিয়ে প্রায় তিন ঘণ্টা ধরে সুন্দরবনের অভ্যন্তরে ঘুরছিলেন তারা। উদ্ধার করা দর্শনার্থীরা চিতলমারী উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী।

উদ্ধার দর্শনার্থী মো. ফেরদাউস বলেন, প্রথমে বুঝতে পারিনি আমরা পথ হারিয়ে ফেলেছি। দুই ঘণ্টা পরে বুঝলাম আমরা পথ হারিয়েছি। তারপরেও একঘণ্টা পথ খুঁজেছি, কোনো উপায় না পেয়ে ৯৯৯-এ ফোন করি। ফোন করার পরে মোংলা থানা পুলিশ আমাদের উদ্ধার করেছে।

মোংলা থানার ওসি কেএম আজিজুল ইসলাম বলেন, ৩১ জন পর্যটক বনে প্রবেশের কিছুক্ষণ পরেই তারা পথ হারিয়ে ফেলেন। এর মধ্যে ফেরদৌস নামের এক ছেলে বুদ্ধি খাটিয়ে তার মোবাইল থেকে ৯৯৯-এ খবর দেয়। সেখান থেকে তারা সরাসরি মোংলা থানায় কথা বলিয়ে দেয়।

অর্থসংবাদ/এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

সারাদেশ

ইতালির স্বপ্নে মাদারীপুরের শতাধিক যুবকের প্রাণহানি

Published

on

লাফার্জ

সুন্দর জীবনযাপনের আশায় আর দালালদের প্রলোভনে অবৈধ পথে ইতালি যাওয়ার সময় সাগরে ডুবে গত ১০ বছরে মাদারীপুরের শতাধিক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। নির্মম নির্যাতন সয়ে বাড়ি ফেরার সংখ্যাও কম নয়।

দালালদের প্রলোভনে ইতালি পাঠাতে গিয়ে সন্তান হারানোর পাশাপাশি নিঃস্ব হচ্ছে জেলার অসংখ্য পরিবার। এই ১০ বছরে মাদারীপুরে ৩২৯টি মানবপাচার মামলা হয়েছে। তবে মামলার একটিরও বিচার হয়নি বলে অভিযোগ রয়েছে।

ভুক্তভোগী পরিবার সূত্র ও খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দুর্ঘটনায় প্রাণহানির মতো ঘটনা ঘটলেও অবৈধপথে ইতালী যাওয়ার প্রবণতা কমেনি। ফলে ভূমধ্যসাগর নৌকাডুবিতে বাড়ছে প্রাণহানি।

এই সময়ে তিউনিসিয়ায় নৌকাডুবিতে মারা যাওয়াদের মধ্যে মাদারীপুরের রয়েছে শতাধিক যুবক। এখনো নিখোঁজ অনেকে। সবশেষ গত ১৪ ফেব্রুয়ারি তিউনিসিয়ায় নৌকায় আগুন ধরে মারা যাওয়া আট বাংলাদেশির মধ্যে পাঁচজনই মাদারীপুরের বাসিন্দা।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, এলাকার অল্প বয়সী তরুণ ও যুবকেরা পড়েন দালালের খপ্পরে। দালালদের প্রলোভনে ভিটেমাটি বিক্রি করার পাশাপাশি সুদে টাকা এনেও সন্তানদের অবৈধভাবে বিদেশে পাঠায় অভিভাবকরা। দুর্ঘটনায় আদরের সন্তান মারা যাওয়ায় নিঃস্ব হয় পরিবারগুলো।

মানবাধিকার কর্মীরা বলছেন, দালালচক্রকে নির্মূল না করায়, একের পর এক নৌকাডুবিতে মারা যাচ্ছে মানুষ। প্রতিরোধে প্রয়োজন জনপ্রতিনিধিদের আন্তরিকতা আর সচেতনতা বৃদ্ধি করা।

একাধিক সূত্র জানিয়েছে, রাজনৈতিক নেতাদের ছত্রছায়ায় জেলাজুড়ে গড়ে উঠেছে একাধিক দালালচক্র।

জেলা পুলিশের তথ্য মতে, গত ১০ বছরে মাদারীপুরে ৩২৯টি মানবপাচার মামলা হয়েছে। এর মধ্যে মীমাংসা হয়েছে ১১১টি মামলার। বিচার হয়নি একটিরও। এমন দুর্ঘটনায় নিহতের স্বজনদের অনেক সময় মামলাও করতে দেয়নি দালালচক্র। সামান্য কিছু টাকা দিয়ে মীমাংসার চেষ্টা চালায় তারা। এতে কমছে না এমন দুর্ঘটনায় প্রাণহানির সংখ্যা।

একাধিক সূত্র জানায়, ২০১৩-২০২৩ এই ১০ বছরে মাদারীপুরে আদালত ও থানায় মানবপাচারের মোট মামলা হয়েছে ৩২৯টি। এর মধ্যে জেলার বিভিন্ন থানায় মামলার সংখ্যা ২৯২টি ও আদালতে ৩৭টি মামলা দায়ের হয়। মামলায় মোট আসামি ১৪৬৬ জন হলেও গ্রেপ্তার হয় মাত্র ২৮৭ জন। আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেওয়া হয় ৯৬টি মামলার, আর আদালতে চূড়ান্ত রিপোর্ট জমা পড়ে ৮৭টি মামলার। এছাড়া এখন পর্যন্ত ১১১টি মামলা মীমাংসা হওয়ায় বাদী মামলা প্রত্যাহার করেছেন। গত ১০ বছরে অবৈধপথে ইতালি পাড়ি জমিয়েছেন ৫ হাজার ৫০০ জন।

বিভিন্ন মামলা, ভুক্তভোগী স্বজন ও জেলা পুলিশ সূত্রে বেশ কয়েকজন দালালের নাম পাওয়া গেছে।

মানবাধিকার কর্মী মশিউর রহমান পারভেজ জানান, দীর্ঘদিন ধরে অবৈধপথে ইতালীতে যাওয়ার সময় মাদারীপুরের যুবকরা মৃত্যুর মুখে পড়ে যায়। অনেক সময় মারাও গেছে অনেকেই। দালালদের বিচার না হওয়ার কারণে এই অপরাধ কমছে না। মানবপাচারের ঘটনায় দালালদের কঠিন বিচার হলে সমাজ থেকে এই অপরাধ কমিয়ে আনা সম্ভব।

মাদারীপুর আদালতের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আব্দুলাহ আল মামুন জানান, এলাকাভিত্তিক গড়ে উঠেছে দালালচক্র। এই চক্রটি শক্তিশালী হওয়ায় বাদীকে অনেক সময় মামলা তুলে নিতে ভয়ভীতি দেখায়। এতে আরও বেপরোয়া হয়ে ওঠে দালালরা।

মাদারীপুরের পুলিশ সুপার মাসুদ আলম বলেন, শুধু আইনের প্রয়োগ করেই দালালকে নির্মূল করা সম্ভব নয়। এক্ষেত্রে প্রয়োজন সামাজিক আন্দোলন, পাশাপাশি জনপ্রতিনিধিদের সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে। তাহলে সমাজ থেকে দালাল নির্মূল হবে। এ ছাড়া মানবপাচার মামলায় অনেক দালাল গ্রেপ্তারের পর জামিনে বেরিয়ে এসে আবারো একই কাজে লিপ্ত হচ্ছে। সবকিছু মিলিয়ে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুললেই এই ঘটনার আর পুনরাবৃত্তি হবে না। সূত্র: ফ্রান্সবিডিনিউজ২৪

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

সারাদেশ

এবারও রমজানে ১ টাকা লাভে পণ্য বেচবেন চাঁদপুরের শাহ আলম

Published

on

লাফার্জ

আর কয়েকদিন পরই পবিত্র রমজান মাস। রমজানকে সামনে রেখে পৃথিবীর বেশিরভাগ দেশেই খাদ্যপণ্যে দাম কমলেও বাংলাদেশে এর উল্টো চিত্র দেখা যায়। অসাধু কিছু ব্যবসায়ী খাদ্যের মজুদ করে দাম বাড়িয়ে দেয়। এতে ভোগান্তিতে পড়েন নিম্ন আয়ের মানুষেরা। তবে এসব অসাধু ব্যবসায়ীর মাঝেও আছে ব্যতিক্রম। তেমনই একজন ব্যবসায়ী শাহ আলম। যিনি গতবছরও রমজানে মাত্র ১ টাকা লাভে পণ্য বিক্রি করেছিলেন। এবারও নিম্নবিত্ত ও দরিদ্র মানুষের কথা বিবেচনায় রেখে ১ টাকা লাভে পণ্য বিক্রি শুরু করেছেন তিনি।

ব্যবসায়ী শাহ আলম চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের চরকুমিরা গ্রামের কাজল হক মালের ছেলে। ইতিমধ্যে তিনি রমজান উপলক্ষ্যে ১ টাকায় পণ্য বিক্রি শুরু করেছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শাহ আলম পণ্য কেনা ও পরিবহন খরচ বাদ দিয়ে মাত্র এক টাকা লাভে বিক্রি করেন। তার পণ্য বিক্রির শুরুর দিন থেকে ব্যাপক সাড়া পেয়েছেন। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, স্থানীয়রা রমজান মাসের জন্য আগাম পণ্য ক্রয় করছেন। পণ্যের মূল্য তালিকাও দোকানে টানিয়ে দিয়েছেন তিনি।

গত বছরের ন্যায় এবারও পুরো রমজান মাসে শাহ আলম যে-সব পণ্য বিক্রি করবেন তার মধ্যে আছে মুড়ি, ছোলা (বুট), খেজুর, খেসারির ডাল, বেসন, সয়াবিন তেল, চিড়া ইত্যাদি। এসব পণ্য কেজিতে মাত্র ১ টাকা লাভে বিক্রি করবেন তিনি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শাহ আলম বলেন, আমি এখানে ব্যবসা করি প্রায় পনেরো বছর ধরে। গত বছর গরিব ও অসহায় মানুষের কথা চিন্তা করে ১ টাকা লাভে ইফতার বিক্রি শুরু করি। এতে ক্রেতাদের ব্যাপক সাড়া পাই। তাই এবছরও রমজানকে সামনে রেখে ১ টাকায় পণ্য বিক্রি শুরু করেছি।

তিনি আরও বলেন, বর্তমান বাজারে অনেক সিন্ডিকেট রয়েছে। তাদের কারণে পণ্যের দাম বেড়ে যায়। এতে মধ্যবিত্ত, নিম্ন মধ্যবিত্ত ও দরিদ্র পরিবারগুলো বিপাকে পড়েন। তাই গরিব, দুস্থ ও অসহায় পরিবারের কথা মাথায় রেখে গত বছরের ন্যায় এবারও রমজানের ইফতারের পণ্য বিক্রি শুরু করেছি। তাছাড়া এখান থেকে এলাকার স্থানীয় বাজারে যাতায়াতে প্রায় ৪০ টাকা ভাড়া লাগে। বাজারে ব্যবসায়ীরা প্রতি কেজি পণ্যে ৫ টাকার মতো লাভ করে থাকে। তাই আমি উদ্যোগ নিয়েছি সর্বনিম্ন লাভে পণ্য বিক্রি করার।

স্থানীয় বাসিন্দা রুবেল হোসেন বলেন, আমাদের গ্রামের শাহ আলম কাকা রমজান উপলক্ষ্যে ইফতার সামগ্রীর পণ্য মাত্র ১ টাকা লাভে বিক্রি করেন। তিনি এর আগে গত বছরও এভাবে পণ্য বিক্রি করেছিলেন। বাজারে দাম বেশি থাকায় শাহ আলমের দোকান থেকে পণ্য কিনি। তাছাড়া বাজারে যেতে সময় ও ভাড়ার খরচ লাগে।

আব্দুল মালেক নামে আরেকজন ক্রেতা বলেন, শাহ আলমের উদ্যোগকে স্বাগত জানাই। তিনি সুন্দর একটি উদ্যোগ নিয়েছেন। আমরা তার কাছে কেনাকাটা করি।

স্থানীয় আব্দুল ওহাব আলী নামে এক বৃদ্ধ বলেন, এখানে স্থানীয় বাজার থেকে ১-২ টাকা কমে পণ্য কেনা যায়। এখান থেকে বাজারে যাতায়াতে গাড়ি ভাড়া লাগে ৪০ টাকা। এখানে খেজুর, ডাল, তেল, চিনিসহ সব কিছু পাওয়া যায়। তাই আমরা বাজার থেকে পণ্য না কিনে ওনার কাছ থেকেই কিনি।

ফরিদগঞ্জ পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সাজ্জাদ হোসেন টিটু বলেন, আমার ওয়ার্ডের চরকুমিরা গ্রামের শাহ আলম মাল রমজান উপলক্ষ্যে ইফতার সামগ্রী প্রতি কেজিতে ১ টাকা লাভে বিক্রি শুরু করেছেন। তিনি এর আগে গত বছর একইভাবে পণ্য বিক্রি করেছেন। গত বছরের ন্যায় এবারও প্রতি কেজি পণ্যতে ১ টাকা লাভে পণ্য বিক্রি করাতে এলাকার মানুষ উপকৃত হচ্ছে। রমজান মাসে সাধারণ মানুষের পাশে এভাবে দাঁড়ানোর জন্য তাকে ধন্যবাদ জানাই।

অর্থসংবাদ/এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন
লেনদেন
পুঁজিবাজার10 mins ago

লেনদেন বাড়লেও বাজার মূলধন কমেছে শেয়ারবাজারে

লাফার্জ
ক্যাম্পাস টু ক্যারিয়ার35 mins ago

চাকরির সুযোগ দিচ্ছে এসিআই মটরস

লাফার্জ
রাজধানী1 hour ago

রাজধানীর যেসব এলাকায় গ্যাস থাকবে না শনিবার

লাফার্জ
জাতীয়2 hours ago

শপথ নিলেন নতুন সাত প্রতিমন্ত্রী 

লাফার্জ
জাতীয়2 hours ago

জলবায়ু অর্থায়নে বেসরকারি খাতের সম্পৃক্ততা জরুরি: সাবের হোসেন

ঘরে বসে উপার্জন করার ৮ উপায়
অর্থনীতি2 hours ago

সপ্তাহের ব্যবধানে রিজার্ভ বাড়লো ৩৭ কোটি ডলার

লাফার্জ
শিল্প-বাণিজ্য3 hours ago

শুক্রবার রাতেই মেগা ক্যাম্পেইন নিয়ে আসছে ইভ্যালি

লাফার্জ
খেলাধুলা3 hours ago

ফাইনালে টস জিতে ফিল্ডিংয়ে তামিমের বরিশাল

লাফার্জ
আন্তর্জাতিক3 hours ago

ভারতে ফের বাড়লো বাণিজ্যিক গ্যাসের দাম

লাফার্জ
জাতীয়4 hours ago

ক্রীড়া খাতের উন্নয়নে বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করবে চীন

Advertisement
Advertisement

ফেসবুকে অর্থসংবাদ

২০১৮ সাল থেকে ২০২৩

অর্থসংবাদ আর্কাইভ

তারিখ অনুযায়ী সংবাদ

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১