Connect with us

অর্থনীতি

মোবাইল আর্থিক সেবার নিবন্ধিত অ্যাকাউন্ট ২২ কোটি

Published

on

লেনদেন

মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেসের (এমএফএস) নিবন্ধিত অ্যাকাউন্ট সংখ্যা প্রথমবারের মতো ২২ কোটি ছাড়িয়েছে। শুরু থেকে গত নভেম্বর পর্যন্ত নিবন্ধিত অ্যাকাউন্ট দাঁড়িয়েছে ২২ কোটি ৮৬ হাজার। এর মধ্যে সচল ছিল ৮ কোটি ২৫ লাখ হিসাব। আগের মাস অক্টোবর পর্যন্ত ২১ কোটি ৭৭ লাখ অ্যাকাউন্টের মধ্যে সচল ছিল ৮ কোটি ৪ লাখ।

সোমবার বাংলাদেশ ব্যাংক প্রকাশিত হালনাদাগ প্রতিবেদনে এমন তথ্য উঠে এসেছে।

দেশের মোট জনসংখ্যার চেয়ে নিবন্ধিত অ্যাকাউন্ট বেশি হওয়া নিয়ে অনেকের মধ্যে প্রশ্ন রয়েছে। মূলত একই ব্যক্তির একাধিক এমএফএস প্রতিষ্ঠানে অ্যাকাউন্ট থাকায় মোট জনসংখ্যার চেয়ে নিবন্ধিত হিসাব বেশি। শুরুর দিকে একই প্রতিষ্ঠানে একাধিক হিসাব খোলা যেত। পরে একই আইডি কার্ডে একই প্রতিষ্ঠানে একাধিক হিসাব খোলার সুযোগ বন্ধ করা হয়েছে। যদিও ভিন্ন ভিন্ন প্রতিষ্ঠানে খোলার সুযোগ রয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে কার্যক্রমে থাকা ১৩টি এমএফএস প্রতিষ্ঠানের সারাদেশে এজেন্ট রয়েছে ১৭ লাখ ২ হাজার। অক্টোবর শেষে ছিল ১৬ লাখ ৭৮ হাজার। নভেম্বর মাসে ১ লাখ ১৯ হাজার ৬৬৯ কোটি টাকা লেনদেন হয়েছে। দৈনিক লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ৯৮৯ কোটি টাকা। আগের মাসে দৈনিক লেনদেনের পরিমাণ ছিল ৩ হাজার ৮৯১ কোটি টাকা। দৈনিক গড় লেনদেন বাড়লেও অক্টোবরে মোট লেনদেনের পরিমাণ ছিল ১ লাখ ২০ হাজার ৬৩৪ কোটি টাকা।

সংশ্লিষ্টরা জানান, ব্যাংকিং ভীতির কারণে একটি সময় মানুষ আনুষ্ঠানিক চ্যানেলে লেনদেন করত খুবই কম। তবে ঘরের কাছেই দোকানে এমএফএস এজেন্ট থেকে লেনদেনের সুযোগের কারণে সে ভীতি কেটেছে। অনেক মানুষ এখন আনুষ্ঠানিক আর্থিক সেবার আওতায় এসেছে। এখন মুহূর্তেই এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় তাৎক্ষণিক টাকা পাঠানো, বিল পরিশোধ, মোবাইল রিচার্জ, বেতন-ভাতা দেওয়াসহ বিভিন্ন আর্থিক লেনদেন হচ্ছে। অবশ্য অনেকে এর অপব্যবহার করছে। এমএফএসের এজেন্টশিপের আড়ালে হুন্ডির টাকা বিতরণে জড়িত থাকায় সাম্প্রতিক সময়ে কয়েক হাজার এজেন্টশিপ বাতিল হয়েছে। বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ) হুন্ডির সুবিধাভোগী অনেকের এমএফএস হিসাব জব্দসহ বিভিন্ন ব্যবস্থা নিয়েছে।

এদিকে ইন্টারনেট ব্যাংকিং ও অ্যাপসে মানুষের আর্থিক লেনদেন নিয়মিত বেড়েই চলছে। হালনাগাদ প্রতিবেদন অনুযায়ী, ইন্টারনেট ব্যাংকিং ও অ্যাপস ব্যবহার করে এপ্রিল-সেপ্টেম্বর সময়ে প্রতি মাসের গড় লেনদেন ছিল ৪৫ হাজার কোটি টাকা। এর মধ্যে গত জুলাই মাসে লেনদেনের পরিমাণ ছিল ৪৬ হাজার ২৪৩ কোটি টাকা। আর নভেম্বরে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮২ হাজার ৮৬৬ কোটি টাকা।

অর্থাৎ মাত্র চার মাসের ব্যবধানে ইন্টারনেট ব্যবহার করে লেনদেন বেড়েছে ৭৯.১৯ শতাংশ। মূলত গত অক্টোবরে হঠাৎ করে লেনদেন দ্বিগুণ হয়ে যায়, নভেম্বরেও তা অব্যাহত রয়েছে।

অর্থসংবাদ/এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

অর্থনীতি

বিমা দিবসে উদ্বোধন হচ্ছে ব্যাংকাস্যুরেন্স সেবা

Published

on

লেনদেন

জাতীয় বিমা দিবসে তথা আগামী ১ মার্চ উদ্বোধন হতে যাচ্ছে ব্যাংকাস্যুরেন্স সেবা। তাতে আগামী সপ্তাহ থেকেই দেশের ব্যাংকে বিমাপণ্য বেচাকেনার সেবা প্রাথমিকভাবে কয়েকটি বেসরকারি ব্যাংকের কিছু শাখায় মিলবে। পর্যায়ক্রমে এই সেবা আরও বিস্তৃত হবে।

এর আগে আগামী ১ মার্চ জাতীয় বিমা দিবসে ব্যাংকাস্যুরেন্স সেবার উদ্বোধন হবে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী। এবার জাতীয় বিমা দিবসের প্রতিপাদ্য ‘করব বিমা গড়ব দেশ, স্মার্ট হবে বাংলাদেশ’।

ব্যাংকাস্যুরেন্স সেবা চালুর জন্য ইতিমধ্যে একটি নীতিমালা প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এতে বলা হয়েছে, ব্যাংকগুলো করপোরেট এজেন্ট হিসেবে বিভিন্ন বিমাপণ্য ও সেবা বিক্রি করতে পারবে।

এ জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে অনুমোদন নিতে হবে। একটি ব্যাংক একই সঙ্গে সর্বোচ্চ তিনটি জীবনবিমা ও তিনটি সাধারণ বিমার পণ্যসেবা বিক্রি করতে পারবে। যেসব ব্যাংকের প্রকৃত খেলাপি ঋণ ৫ শতাংশের কম, তারাই শুধু এই সেবায় যুক্ত হতে পারবে। ব্যাংকগুলোকে বিমাপণ্য বিক্রির পর গ্রাহকের বিমা দাবি পাওয়ার ক্ষেত্রেও সহযোগিতা করতে হবে।

জানা গেছে, কয়েকটি দেশি-বিদেশি ব্যাংক নীতিমালা মেনে ব্যাংকাস্যুরেন্স সেবা দিতে ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে অনুমোদন নিয়েছে। গত মাসে প্রথম ব্যাংক হিসেবে সেবাটি চালুর অনুমতি পায় বেসরকারি সিটি ব্যাংক। এরপর ধীরে ধীরে অন্য ব্যাংকগুলো কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে অনুমতি নেয়।

অর্থসংবাদ/এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

অর্থনীতি

কোল্ড স্টোরেজে বিনিয়োগের আহ্বান সালমান এফ রহমানের

Published

on

লেনদেন

শাকসবজি এবং ফলমূলের মানসম্মত সংরক্ষণ ব্যবস্থার অভাবে প্রতিবছর আড়াই বিলিয়ন ডলারের আর্থিক ক্ষতি গুণতে হয়। তাই এই খাতে ব্যক্তি উদ্যোক্তাদের বিনিয়োগে আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প এবং বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান।

তবে বিদ্যমান ব্যবস্থায় ১৩ শতাংশ সুদে ব্যবসায়ীরা এ খাতে বিনিয়োগ করবে না উল্লেখ করে নতুন ঋণ নীতির দাবি জানিয়েছেন কোল্ড স্টোরেজ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু।

বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) আগারগাঁওয়ের বিনিয়োগ ভবনে আয়োজিত বাংলাদেশ কোল্ড চেইন ইনভেস্টমেন্ট কনফারেন্সে এমন বিষয় উঠে আসে। বিডার সঙ্গে মার্কিন এগ্রিকালচার বিভাগের যৌথ উদ্যোগে এ কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হয়।

এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন লিক্সক্যাপ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক উইলিয়াম ফেলোস। তিনি বলেন, ২০৩১ সালের মধ্যে দেশের কোল্ড চেইন খাত ১১ শতাংশ বেড়ে ৪.৮ মিলিয়ন ডলারের বাজারে পরিণত হবে। এর সাথে স্টোরেজে, পরিবহন, প্যাকেজিং, লভেলিং মিলিয়ে প্রায় ৪৪০ মিলিয়ন ডলারের বাজার তৈরি হবে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সালমান এফ রহমান বলেন, দেশের অবকাঠামোখাত উন্নত হয়েছে। স্বাস্থ্য, শিক্ষা, আইসিটি সকল খাতেই বড় বিনিয়োগ হয়েছে। এখন এসব খাতে সফট স্কিল দরকার। আর কোল্ড স্টোরেজ এখন সময়োপযোগী একটি উদ্যোগ। রফতানি ছাড়া অভ্যন্তরীণ বাজারের জন্যও এটা গুরুত্বপূর্ণ। তাই বেসরকারি খাতের বিনিয়োগকারীদের এ খাতে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

আর সুদের হার কমানোর কথা থাকলেও এখনো কমেনি উল্লেখ করে তিনি বলেন, বৈশ্বিক কারণে সুদের হার বেড়েছে। তবে এর মধ্যেও কোল্ড স্টোরেজ নির্মাণে কিভাবে বিনিয়োগকারীদের সাবসিডি দেয়া যায় সেটা নিয়ে কাজ করা হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কোল্ড স্টোরেজ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু বলেন, দেশের কোল্ড স্টোরেজগুলো মূলত ৬০ এর দশকে তৈরি করা। সেগুলো আধুনিকায়ন হয়নি। ফরিদপুর পাবনা শহর দেশে বিভিন্ন জায়গায় পেঁয়াজের ভালো উৎপাদন হলেও সংরক্ষণের অভাবে তার ২৫ শতাংশ নষ্ট হয়ে যায়। ফলে ভারতীয় আমদানি বন্ধ হলেই পেঁয়াজের কেজি ১০০ টাকার ওপরে চলে যায়। তাছাড়া সংরক্ষণ ব্যবস্থা যুগোপযোগী না হওয়ায় ফরমালিনযুক্ত ফল খাচ্ছেন ভোক্তারা।

এমতাবস্থায় ১৩ শতাংশ সুদ দিয়ে কোনো ব্যবসায়ী কোল্ড স্টোরেজ নির্মাণ করতে আসবে না। তাই এখাতে নতুন ঋণনীতি দরকার। এতে ভোক্তারও সহনীয় মূল্যে পণ্য কিনতে পারবে।

অর্থসংবাদ/এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

অর্থনীতি

রিহ্যাব নির্বাচনে ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের নিরঙ্কুশ জয়

Published

on

লেনদেন

আবাসন খাতের সংগঠন রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড হাউজিং অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশের (রিহ্যাব) দ্বিবার্ষিক (২০২৪-২৬) নির্বাচনে নিরঙ্কুশ জয় পেয়েছে আবাসন ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদ।

ঢাকা ও চট্টগ্রাম মিলে ২৯টি পরিচালক পদের বিপরীতে ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদ ২৫টি পদে জয় পেয়েছে।

এর মধ্যে ঢাকায় ২৬টি পরিচালক পদের মধ্যে ২৩টিতে জয় পেয়েছে মো. ওয়াহিদুজ্জামান এবং লিয়াকত আলী ভুইয়ার প্যানেল। চট্টগ্রামে তিনটি পরিচালক পদের মধ্যে দুটিতে জয় পেয়েছে তারা।

ভোট গণনা শেষে ফলাফল ঘোষণা করেন রিহ্যাব নির্বাচন বোর্ডের চেয়ারম্যান ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব সুব্রত কুমার দে।

নির্বাচন বোর্ডের চেয়ারম্যান বলেন, সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত সুষ্ঠুভাবে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়। নির্বাচন স্বচ্ছ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে হয়েছে।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

অর্থনীতি

কোম্পানি পর্যায়ে আয়কর রিটার্ন দাখিলের সময় বাড়লো

Published

on

লেনদেন

কোম্পানি পর্যায়ে আয়কর রিটার্ন দাখিলের সময় দুই মাস বাড়ানো হয়েছে। নতুন সময় অনুযায়ী, আগামী ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত কোম্পানি পর্যায়ে আয়কর রিটার্ন দেওয়া যাবে। মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের করনীতি উইং থেকে এ ব্যাপারে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

জারিকৃত প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে, কোম্পানি করদাতাদের ২০২৩-২০২৪ কর বর্ষের জন্য নির্ধারিত করদিবস ২৮ ফেব্রুয়ারির পরিবর্তে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত নির্ধারণ করা হলো।

এর আগে গত মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান বরাবর পাঠানো চিঠিতে ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের (এফবিসিসিআই) সভাপতি মো. মাহবুবুল আলম আয়কর রিটার্ন দেওয়ার জন্য দুই মাস বাড়ানোর অনুরোধ করেন।

সে সময় চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, কর ব্যবস্থাকে টেকসই, আধুনিক ও জনবান্ধব করতে অতি সম্প্রতি নতুন আয়কর আইন-২০২৩ প্রণয়ন করা হয়েছে। প্রণীত আয়কর আইন-২০২৩ সম্পর্কে ব্যবসায়ীদের মধ্যে পরিপূর্ণ ধারণা এখনও তৈরি হয়নি। এছাড়া বৈশ্বিক প্রতিকূল পরিস্থিতি, মূল্যস্ফীতি, ডলার সংকট ও আসন্ন রমজান উপলক্ষে ব্যবসায়ীরা নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের আমদানি-রপ্তানি নিয়ে ব্যস্ত থাকায় অডিট কার্যক্রমের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজ ও দলিলপত্রাদি প্রস্তুত করতে বিলম্ব হচ্ছে। তাছাড়া অডিট ফার্ম কর্তৃক ডিভিসি কোড (ডকুমেন্টস ভেরিফিকেশন কোড) প্রাপ্তিতে দীর্ঘ সময়ের প্রয়োজন হওয়ায় কোম্পানিগুলো অডিট রিপোর্ট পেতে দীর্ঘ সময়ের প্রয়োজন হচ্ছে। এফবিসিসিআইয়ের সদস্য বিভিন্ন সংগঠন থেকে অনুরোধ জানানোর পরিপ্রেক্ষিতে কোম্পানির রিটার্ন দাখিলের ক্ষেত্রে আরও দুই মাস সময়ের প্রয়োজন।

এফবিসিসিআই’র চাওয়া অনুযায়ী কোম্পানি পর্যায়ে আয়কর রিটার্ন দাখিলের সময় দুই মাস বাড়ালো জাতীয় রাজস্ব বোর্ড।

অর্থসংবাদ/এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

অর্থনীতি

রমজানের আগেই বাড়লো খেসারির ডালের দাম

Published

on

লেনদেন

রমজানে বাসাবাড়ি কিংবা রেস্তোরাঁয় ইফতারির অন্যতম জনপ্রিয় অনুষঙ্গ খাদ্য পেঁয়াজু। এই পেঁয়াজু বানানোর অন্যতম উপকরণ হলো খেসারির ডাল। কিন্তু রমজানের আগে সপ্তাহ ব্যবধানেই এই ডালের দাম কেজিতে ১০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে। ফলে ভোক্তাদের বাড়তি দামেই কিনতে হচ্ছে খেসারির ডাল। 

গতকাল সোমবার রাজধানীর মালিবাগ, মগবাজার ও কারওয়ান বাজারের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, এক সপ্তাহ আগে খুচরা বাজারে মান ভেদে প্রতি কেজি খেসারির ডালের দাম ছিল ১০০ থেকে ১১০ টাকা। এখন সেটি বিক্রি হচ্ছে ১১০ থেকে ১২০ টাকা কেজি দরে। এবার রমজানের বেশ আগেই ছোলার দাম বেড়েছে। অন্যান্য ডালের দামও বেশি। সর্বশেষ ইফতারির পদ পেঁয়াজু বানানোর অন্যতম উপকরণ খেসারির ডালের দামও বাড়ল।

কারওয়ান বাজারের মুদিদোকান লক্ষ্মীপুর স্টোরের স্বত্বাধিকারী কামরুল ইসলাম বলেন, গত সপ্তাহের শেষ দিক থেকে পাইকারিতে খেসারির ডালের দাম বাড়তে শুরু করে। খুচরা বাজারে তার প্রভাব পড়েছে। যাঁদের কাছে আগের কেনা খেসারির ডাল ছিল, তাঁরা প্রতি কেজি ১১০ টাকা দরে বিক্রি করতে পারছেন। নতুন যাঁরা কিনেছেন, তাঁরা বাড়তি দাম রাখছেন।

আমদানিকারকেরা বলছেন, রোজায় ছোলার চাহিদা যেমন বেশি থাকে, তেমনি খেসারির ডালের চাহিদাও বাড়ে। সে জন্য ব্যবসায়ীদের সাধারণত রোজাকেন্দ্রিক একটি প্রস্তুতি থাকে। কিন্তু ডলারের দাম বেশি থাকায় এবার আমদানি খরচ বেড়েছে। ছোলা ও বিভিন্ন পদের ডালের দামে ডলারের বিনিময় হারের প্রভাব পড়েছে বলে মনে করেন তাঁরা।

অন্যদিকে খুচরা ব্যবসায়ীদের দাবি, রমজানের আগে চাহিদা বেড়ে যাওয়ার সুযোগ নিতে পাইকারি ব্যবসায়ীরা দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন।

অর্থসংবাদ/এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন
লেনদেন
আন্তর্জাতিক12 mins ago

অস্ত্রসরঞ্জাম উৎপাদনে নাম লেখাল আদানি গ্রুপ

লেনদেন
ক্যাম্পাস টু ক্যারিয়ার17 mins ago

চবি’র ভর্তি পরীক্ষা শুরু ২ মার্চ

লেনদেন
স্বাস্থ্য26 mins ago

করোনায় নতুন শনাক্ত ৪৭ জন

লেনদেন
আন্তর্জাতিক39 mins ago

বিটকয়েনের বিনিময় হার দুই বছরের সর্বোচ্চে

লেনদেন
পুঁজিবাজার50 mins ago

দরপতনে লেনদেন কমেছে এসএমই মার্কেটে

লেনদেন
লাইফস্টাইল51 mins ago

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে উপকারী চার ফল

লেনদেন
অর্থনীতি1 hour ago

বিমা দিবসে উদ্বোধন হচ্ছে ব্যাংকাস্যুরেন্স সেবা

লেনদেন
কর্পোরেট সংবাদ1 hour ago

ওয়ালটনের পৃষ্ঠপোষকতায় বুয়েটে রিসার্চ ল্যাব উদ্বোধন

লেনদেন
আন্তর্জাতিক1 hour ago

দক্ষিণ কোরিয়ায় জন্মহার সর্বকালের সর্বনিম্নে

লেনদেন
জাতীয়1 hour ago

শপথ নিলেন সংরক্ষিত আসনের নারী সংসদ সদস্যরা

Advertisement
Advertisement

ফেসবুকে অর্থসংবাদ

২০১৮ সাল থেকে ২০২৩

অর্থসংবাদ আর্কাইভ

তারিখ অনুযায়ী সংবাদ

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯