Connect with us

জাতীয়

এই নির্বাচন আ. লীগের বিপুল জনসমর্থনের প্রমাণ দেয়: প্রধানমন্ত্রী

Published

on

আলিফ

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছেন, তাঁর দলের প্রতি জনগণের আস্থা ও বিশ্বাস থাকায় ৭ জানুয়ারির নির্বাচনে বিপুল জনসমর্থন পেয়েছেন।

তিনি বলেন, “আওয়ামী লীগের মতো একটি শক্তিশালী রাজনৈতিক দল থাকায় আমরা জনগণের সমর্থন, আস্থা ও বিশ্বাস অর্জন করতে সক্ষম হয়েছি। এবারের নির্বাচনে সে বাস্তবতার ব্যাপক প্রতিফলন ঘটেছে।”

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা আজ বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভেনিউস্থ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ৭ জানুয়ারির দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিপুল বিজয়ের পর দলের কেন্দ্রীয় কার্যনিবাহী সংসদ, উপদেষ্টা পরিষদ ও সহযোগী সংগঠনের যৌথ সভায় দেওয়া প্রারম্ভিক ভাষণে একথা বলেন।

তিনি বলেন, আজকে আওয়ামী লীগের মতো একটি শক্তিশালী সংগঠন আমার সাথে আছে বলেই জনগণের আওয়ামী লীগের প্রতি যে সমর্থন, বিশ্বাস ও আস্থা রয়েছে এবারকার নির্বাচনে তার ব্যাপক প্রতিফলন ঘটেছে। কারণ, একজন সাধারণ মানুষ তারা কিন্তু আওয়ামী লীগকে বিশ্বাস করে। অন্য কারো ওপর তাদের সেই বিশ্বাস ও আস্থা নাই। কাজেই তাদের যে আকাক্সক্ষা, সেটা আমাদের পূরণ করতে হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, সাধারণ মানুুষেরা-ওই যে খেটে খাওয়া মানুষ গরিব কৃষক, খেটে খাওয়া মানুষ, রিক্সাওয়ালার থেকে শুরু করে দিন মজুর তাদের ভাগ্য কিভাবে পরিবর্তন করব, তাদের জীবন মান কিভাবে উন্নত করব-সেটাই আমাদের মাথায় সবসময় রাখতে হবে।
তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদের সেটাই শিখিয়েছেন। আর সেভাবেই আমাদের চলতে হবে।

আওয়ামী লীগ একটি বড় দল এবং সংগঠন পাশে না থাকেলে কোনকিছু অর্জন সম্ভব ছিল না উল্লেখ করে দলটির সভাপতি বলেন, প্রত্যেকটা সাফল্যের পেছনে একটা শক্তি দরকার। আমার শক্তি বাংলাদেশের জনগণ, আওয়ামী লীগ এবং আমাদের সহযোগী সংগঠনগুলো।
তিনি বলেন, সকলের সঙ্গে আমরা নির্বাচন করেছি। কেউ হেরেছে অথবা কেউ জিতেছে। কারো কষ্ট আছে, আবার কারো আনন্দ আছে। কিন্তু ওই আনন্দ, দুঃখ, কষ্ট, হাসি, কান্না সবকিছু মিলিয়ে আমাদের চলতে হবে। জনগণের স্বার্থে, জনগণের কল্যাণে মানুষের জন্য সবাইকে আবার এক হয়ে, ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। মানুষের যে আস্থা ও বিশ্বাস আমরা অর্জন করেছি সেটা যেন কোন মতে হারিয়ে না যায়।
তিনি বলেন, অগ্নি সন্ত্রাসি ও জঙ্গিবাদি গোষ্ঠী যারা রেলগাড়িতে আগুন দিয়ে মা ও সন্তান শিশুকে পুড়িয়ে মারে, বাসে আগুন দিয়ে মানুষ মারে, রেলের ফিসপ্লেট খুলে রেল ফেলে দিয়ে মানুষ হত্যার জন্য ফাঁদ পাতে তাদের বিষয়ে সবাইকে সচেতন থাকতে হবে। তাদের মিথ্যাচার এবং এই সন্ত্রাসী কর্মকা- দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করে। যারা নির্বাচন বানচাল করতে চায় অর্থাৎ তারা গণতান্ত্রিক পরিবেশেই চায় না, গণতন্ত্র চায় না, নির্বাচন চায় না, তারা দেশের শত্রু, জনগণের শত্রু। তাদেরকে জনগণ প্রত্যাখ্যান করেছে। এদের কথা ছেড়ে দিয়ে আমাদের দেশের জন্য কাজ করতে হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, তারা লিফলেট বিলি করেছে মানুষ যাতে ভোটকেন্দ্রে না যায়। লিফট যত বেশি বিলি করেছে মানুষ তত বেশি ভোটকেন্দ্রে গিয়েছে। তাদের কথায় মানুষ সাড়া দেয়নি। এই যে মানুষের আস্থা ও বিশ্বাস সেটা আমাদেরকে ধরে রাখতে হবে।

বাংলাদেশের উন্নয়নের বৃত্তান্ত তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ যদি তাকে ‘৮১ সালে না ডাকতো এবং দায়িত্ব না দিত তাহলে তিনি আজকের অবস্থানে পৌঁছতে বা দেশের উন্নতি করতে পারতেন না। কাজেই এই আওয়ামী লীগ অফিস এটাই তার মূল শেকড়। এজন্য দলের অগনিত নেতা-কর্মীর প্রতি তাঁর কৃতজ্ঞতা জানিয়ে এক সময়ের আন্দোলন-সংগ্রামের সারথী যারা আজকে নেই তাঁদেরও শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন।

“এখান থেকে আমাদের আন্দোলন সংগ্রাম সবকিছু শুরু। এই অফিসের সঙ্গে আমার জীবনের অনেক স্মৃতি জড়িত,” বলেন তিনি ।
ব্যাপক সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভের পর গত কয়েকদিনে তাঁর বিভিন্ন কর্মসূচির উল্লেখ করে তিনি বলেন, কর্মীদের নিয়ে গণভবনে বৈঠক করতে পারতেন কিন্তু ভেবেছেন না তাঁর যেখানে মূল শেকড় সেখানে তাকে আসতেই হবে, সেজন্যই এই অফিসে তার আগমন।

সভায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের স্বাগত বক্তৃতা করেন।
২০১৩ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত বিএনপি জামাতের আগুন সন্ত্রাসের উল্লেখ করে আওয়ামী লীগ সভাপতি তাঁর ভাষণে বলেন, তাদের সেই ভয়াল চেহারা, তাদের সেই চরিত্র আমরা আবার দেখতে পেলাম এই ২৮ অক্টোবর। পুলিশের উপর হামলা, একজন পুলিশ সদস্যকে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা, রাজারবাগে পুলিশ হাসপাতালে হামলা, অ্যাম্বুলেন্সে অগ্নিসংযোগ, বিচারপতির বাসভবনে হামলা, বিচারপতিদের কোয়ার্টারে হামলা, মহিলা আওয়ামী লীগের মিছিলে হামলা ও নির্যাতন, সাংবাদিকদের উপর হামলা, গাড়ি পোড়ানো, ভাঙচুর, কেউ তাদের হাত থেকে রেহাই পায়নি। এই ঘটনা ঘটিয়ে তারা আবার আন্তর্জাতিক পর্যায়ে গিয়ে কাঁদে। তিনি বলেন, তাদের কিছু মুরুব্বী আছে তাদের কথা মতোই চলে। তারা বলে উস্কানি ছিল কিন্তু উস্কানিটা দিল কে? তাদের সে প্রশ্নও করেন তিনি।
শেখ হাসিনা বলেন, আসলে উস্কানি দেওয়ার মত কেউ ছিল না, পুলিশের যথেষ্ট সহনশীলতা দেখিয়েছিল তখন। এরা এ ধরনের ঘটনা আরও ঘটাবে, ঘটাতেই থাকবে। কারণ, দুর্নীতি করা আর মানুষ খুন করা-এটাই বিএনপির চরিত্র। এটাই তারা পারে। আর তাদের নেতাও তো দুর্নীতির দায় সাজা প্রাপ্ত। কাজেই এই অবস্থার মধ্যেও আমরা এখন সরকার গঠন করেছি। জনগণের আস্থা ও বিশ্বাস আমরা পেয়েছি এই বিশ্বাসের মর্যাদা দিয়ে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে এবং যে উন্নয়নের কাজগুলো আমরা করে যাচ্ছিলাম সেগুলো আমাদের সম্পন্ন করতে হবে। প্রেক্ষিত পরিকল্পনা অনুযায়ী আমাদের দেশের উন্নয়নের ধারাকে আরও গতিশীল করতে হবে, দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে ।
তিনি বলেন, এখন মানুষের জন্য সবচেয়ে কষ্টকর হচ্ছে দ্রব্যমূল্য। হ্যাঁ, মূল্যস্ফীতি বেড়েছে এবং সেটা আমরা অনেকটা কমিয়ে এনেছি। সেখানেও কিছু কিছু মহল আছে চক্রান্ত করে মূল্যস্ফীতি বাড়ায়। তবে, মানুষের ক্রয় ক্ষমতা যে বৃদ্ধি পেয়েছে এটাও সত্যি কথা। এ সময় সীমিত আয়ের লোকজনদের সহযোগিতায় তাঁর সরকারের পারিবারিক কার্ডের মাধ্যমে বিভিন্ন নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য ক্রয়, অতি দরিদ্রদের জন্য বিনা পয়সা খাদ্য প্রদানসহ বিভিন্ন কর্মসূচির উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি বলেন, সামনে রোজা, মানুষের যেন কষ্ট না হয়। এই রমজান মাসে যা যা দরকার তার সবই আমরা আগাম ক্রয় করার চেষ্টা করেছি। পণ্য ক্রয়ে মানুষের যেন কষ্ট না হয় সেজন্য যথাযথ ব্যবস্থা আমরা করব। পাশাপাশি, মূল্যস্ফীতির যেন রাস টেনে ধরা যায় তার জন্য যথাযথ ব্যবস্থাও আমরা নেব।

‘বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক মন্দা চলছে এবং বাংলাদেশ তার থেকে দূরে নয়’, উল্লেখ করে দেশের প্রতি ইঞ্চি অনাবাদি জমিকে চাষের আওতায় আনার মাধ্যমে সার্বিক খাদ্য উৎপাদন বাড়ানোয় তাঁর আহ্বান পুনর্ব্যক্ত করেন এবং দেশের প্রাকৃতিক সম্পদ গ্যাস ও তেলকে দেশের প্রয়োজনে কাজে লাগানোর এবং আরো নতুন নতুন খনিজ সম্পদ আহরণের প্রচেষ্টা গ্রহণেরও উল্লেখ করেন।

জাতির পিতা যে বলেছিলেন, ‘ভিক্ষুক জাতির ইজ্জত থাকে না’ উল্লেখ করে তিনি বলেন, এটা একটা নীতির ব্যাপার। ’৯৬ সালে সরকারে আসার পর তিনি যখন প্রথম সংসদে খাদ্য স্বয়ংসম্পূর্ণ হবার ঘোষণা দিলেন, খালেদা জিয়ার উপস্থিতিতে তাঁর সাবেক অর্থমন্ত্রী সাইফুর রহমান বলেছিলেন-‘দেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হওয়া ভালো না, তাহলে বিদেশি সাহায্য পাওয়া যাবে না,’ উল্লেখ করে তিনি বলেন, কিন্তু আমরা চাই নিজের পায়ে দাঁড়াতে। কারো কাছে হাত পেতে চলবো না, কারো মুখাপেক্ষী হয়ে নয়। সে সময় দেশে ৪০ লাখ মেট্রিক টন খাদ্য ঘাটতি ছিল। কিন্তু আওয়ামী লীগ সরকারের উদ্যোগের ফলে ’৯৮ সালের মধ্যে বাংলাদেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করে।

প্রতি নির্বাচনের আগে দেওয়া তাঁর সরকারের নির্বাচনী ইশতেহার উল্লেখ করে তিনি বলেন, যখন বাজেট প্রণয়ন করা হয়, তখন এই নির্বাচনী ইশতেহার হাতে রেখেই বাজেট প্রণয়ন করা হয়। কেননা, তাঁর সরকার জনগণকে যে ওয়াদা দেয় তা রক্ষা করে।

নির্বাচনী ইশতেহারে আগে কি ওয়াদা করা হয়েছিল এবং তার কতটুকু পূরণ হয়েছে, ভবিষ্যতে আমরা কতটুকু অর্জন করার লক্ষ্য স্থির করেছি, তাঁর বিশদ বর্ণনা রয়েছে উল্লেখ করে দলের প্রতিটি সদস্যকে তিনি এই নির্বাচনী ইশতেহার ও দলের ঘোষণাপত্র পড়ে দেখার আহ্বান জানান।
“তাহলে আওয়ামী লীগ কোন আদর্শ নিয়ে কিসের ভিত্তিতে রাজনীতি করে তা সঠিকভাবে উপলব্ধি করতে পারবেন এবং সে মোতাবেক কাজ করতে পারবেন,” বলেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশের কল্যাণ আওয়ামী লীগের হাতে। কারণ, এই আওয়ামী লীগই এদেশের স্বাধীনতা এনে দিয়েছে। এই আওয়ামী লীগই এদেশের মানুষকে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা এনে দিয়েছে। শতভাগ মানুষকে বিদ্যুৎ দিয়েছে, সাক্ষরতার হার বাড়িয়েছে, চিকিৎসা সেবা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিয়েছে এবং সব থেকে বড় কথা সরকার বিনামূল্যে ভূমিহীন গৃহীনকে ঘর প্রদান করে তাদের জীবনমান উন্নত করার ব্যবস্থা করে দিচ্ছে। ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের বাংলায় একটি মানুষও ভূমিহীন গৃহহীন থাকবে না’, প্রধানমন্ত্রী তাঁর এই অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করেন।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

অর্থনীতি

সাত মাসে রেমিট্যান্স এসেছে প্রায় দেড় লাখ কোটি টাকা

Published

on

ঘরে বসে উপার্জন করার ৮ উপায়

অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী জানিয়েছেন, চলতি অর্থবছরের (২০২৩-২৪) প্রথম সাত মাসে প্রবাসীদের থেকে রেমিট্যান্স এসেছে এক হাজার ২৯০ কোটি ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় এ অর্থের পরিমাণ এক লাখ ৪১ হাজার ৯০০ কোটি টাকা (প্রতি ডলার ১১০ টাকা ধরে)।

বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) দ্বাদশ জাতীয় সংসদ অধিবেশনের প্রশ্নোত্তর পর্বে ঢাকা-১৯ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ সাইফুল ইসলামের করা প্রশ্নে তিনি এ তথ্য জানান।

অধিবেশনে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী সভাপতিত্ব করেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে দুই হাজার ৪২৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, যুক্তরাজ্য থেকে এক হাজার ৬১০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, সৌদি আরব থেকে এক হাজার ৬০১ মার্কিন মিলিয়ন ডলার, যুক্তরাষ্ট্র থেকে এক হাজার ৩৩২ মিলিয়ন ডলার, ইতালি থেকে ৯০০ মিলিয়ন ডলার, কুয়েত থেকে ৮৫০ মিলিয়ন, মালয়শিয়া থেকে ৮৪১ মিলিয়ন, কাতার থেকে ৬৩৭ মিলিয়ন, ওমান থেকে ৫৩৫ মিলিয়ন, সিঙ্গাপুর থেকে ৩৩২ মিলিয়ন ও অন্যান্য দেশ থেকে আরও এক হাজার ৮৫৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স এসেছে।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

জাতীয়

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি ডিগ্রির অনুমতি দেওয়া হবে: শিক্ষামন্ত্রী

Published

on

এসএসসির কেন্দ্র পরিদর্শনে যাবেন না শিক্ষামন্ত্রী

ইস্ট ওয়েস্টসহ দেশের কয়েকটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে এমফিল-পিএইচডি ডিগ্রির অনুমোদন দেওয়ার সময় এসেছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

বুধবার রাজধানীর আফতাবনগর খেলার মাঠে ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৩তম সমাবর্তনে বক্তব্যে দেওয়ার সময় তিনি এ কথা জানান।

সমাবর্তনে রাষ্ট্রপতির প্রতিনিধি হিসেবে শিক্ষামন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী শিক্ষার্থীদের ডিগ্রি প্রদান করেন। এ সমাবর্তনে আন্ডার গ্র্যাজুয়েট ও গ্র্যাজুয়েট প্রোগ্রামের দুই হাজার ৮৬১ জন শিক্ষার্থীকে সনদ দেওয়া হয়। এছাড়া অনন্য মেধাবী চারজন শিক্ষার্থীকে স্বর্ণপদক দেওয়া হয়।

সমাবর্তন অনুষ্ঠানে ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান উপদেষ্টা ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের অবদানের কথা উল্লেখ করে এমফিল এবং পিএইচডি গবেষণার সুযোগ দেওয়ার দাবি জানান।

এর জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, সরকার সরকারি বা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে কোনো পার্থক্য করে না। ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির মতো দেশের কয়েকটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এখন এমন মানে উত্তীর্ণ হয়েছে যে তাদের আরও উচ্চতর গবেষণা অর্থাৎ এমফিল/পিএইচডি ডিগ্রির অনুমতি দেওয়ার সময় এসেছে। একই সঙ্গে দেশের উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মূল্যবোধ, দক্ষতা এবং জ্ঞানের সমন্বয়ে এমন গ্র্যাজুয়েট তৈরি করতে হবে যেন তারা সারা পৃথিবীর যে কোনো জায়গায় কাজ করার সামর্থ্য রাখে।

সরকার আরো বেশি কর্মসংস্থান তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে বলেও অনুষ্ঠানে জানান শিক্ষামন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে সমাবর্তন বক্তা জার্মানির কুহনে লজিস্টিকস ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক অ্যালান ম্যাককিনন বলেন, বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনে তেমন ভূমিকা না থাকলেও অনেক বেশি ক্ষতির স্বীকার হচ্ছে বাংলাদেশ। তাই সমস্যা ও সংকট মোকাবিলার জন্য সাপ্লাই চেইন বিষয়ে জ্ঞান ও দক্ষতা রাখে এমন যোগ্য গ্র্যাজুয়েট তৈরির ওপর গুরুত্ব দেন তিনি।

অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন বলেন, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার উদ্ভাবন ও প্রয়োগ, রোবোটিক্সের ব্যবহার, ব্লক চেইন, মেশিন লার্নিং পৃথিবীকে নিয়ে যাচ্ছে পঞ্চম শিল্পবিপ্লবের যুগে। অচিরেই আমরা এসব বিষয়ে পাঠ্যক্রম চালু করব।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের সভাপতি সৈয়দ মঞ্জুর এলাহী বলেন, আজকের বিশ্বে কাজ করতে সমস্যা সমাধান, সমালোচনামূলক চিন্তা, উদ্ভাবনী ক্ষমতার মতো দক্ষতা অর্জন করতে হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক শামস রহমান বলেন, আমরা শিক্ষা ও গবেষণার মধ্যে ভারসাম্য আনার চেষ্টা করছি। পাশাপাশি, গবেষণার মাধ্যমে পাওয়া নতুন জ্ঞানও শিক্ষা ক্রমে যুক্ত করছি।

সমাবর্তন অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্যরা, উপ-উপাচার্য, কোষাধ্যক্ষ, বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারপার্সন, শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী, গ্র্যাজুয়েট ও তাদের অভিভাবকরা অংশ নেন। শিক্ষা জীবন শেষে যথাসময়ে সনদ হাতে পাওয়ায় উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন শিক্ষার্থীরা।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

অর্থনীতি

বিমা দিবসে উদ্বোধন হচ্ছে ব্যাংকাস্যুরেন্স সেবা

Published

on

আলিফ

জাতীয় বিমা দিবসে তথা আগামী ১ মার্চ উদ্বোধন হতে যাচ্ছে ব্যাংকাস্যুরেন্স সেবা। তাতে আগামী সপ্তাহ থেকেই দেশের ব্যাংকে বিমাপণ্য বেচাকেনার সেবা প্রাথমিকভাবে কয়েকটি বেসরকারি ব্যাংকের কিছু শাখায় মিলবে। পর্যায়ক্রমে এই সেবা আরও বিস্তৃত হবে।

এর আগে আগামী ১ মার্চ জাতীয় বিমা দিবসে ব্যাংকাস্যুরেন্স সেবার উদ্বোধন হবে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী। এবার জাতীয় বিমা দিবসের প্রতিপাদ্য ‘করব বিমা গড়ব দেশ, স্মার্ট হবে বাংলাদেশ’।

ব্যাংকাস্যুরেন্স সেবা চালুর জন্য ইতিমধ্যে একটি নীতিমালা প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এতে বলা হয়েছে, ব্যাংকগুলো করপোরেট এজেন্ট হিসেবে বিভিন্ন বিমাপণ্য ও সেবা বিক্রি করতে পারবে।

এ জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে অনুমোদন নিতে হবে। একটি ব্যাংক একই সঙ্গে সর্বোচ্চ তিনটি জীবনবিমা ও তিনটি সাধারণ বিমার পণ্যসেবা বিক্রি করতে পারবে। যেসব ব্যাংকের প্রকৃত খেলাপি ঋণ ৫ শতাংশের কম, তারাই শুধু এই সেবায় যুক্ত হতে পারবে। ব্যাংকগুলোকে বিমাপণ্য বিক্রির পর গ্রাহকের বিমা দাবি পাওয়ার ক্ষেত্রেও সহযোগিতা করতে হবে।

জানা গেছে, কয়েকটি দেশি-বিদেশি ব্যাংক নীতিমালা মেনে ব্যাংকাস্যুরেন্স সেবা দিতে ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে অনুমোদন নিয়েছে। গত মাসে প্রথম ব্যাংক হিসেবে সেবাটি চালুর অনুমতি পায় বেসরকারি সিটি ব্যাংক। এরপর ধীরে ধীরে অন্য ব্যাংকগুলো কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে অনুমতি নেয়।

অর্থসংবাদ/এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

জাতীয়

শপথ নিলেন সংরক্ষিত আসনের নারী সংসদ সদস্যরা

Published

on

আলিফ

জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের ৫০ সংসদ সদস্য শপথ গ্রহণ করেছেন। আজ বুধবার(২৮ ফেব্রুয়ারি) বিকাল ৩টা ৪০ মিনিটে জাতীয় সংসদ ভবনের শপথ গ্রহণ কক্ষে জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরিন শারমিন চৌধুরী তাদের শপথ বাক্য পাঠ করান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া সংসদে উপনেতা মতিয়া চৌধুরী, ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু, চিফ হুইপ নুর ই আলম চৌধুরী , হুইপ আবু সাঈদ স্বপন, ইকবালুর রহিম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রথমে আওয়ামী লীগ থেকে নির্বাচিত ৪৮ জন সংসদ সদস্যকে স্পিকার শপথ বাক্য পাঠ করান। এর পর জাতীয় পার্টির ২ জন শপথ নেন। শপথের পরে সংরক্ষিত সদস্যরা রীতি অনুযায়ী শপথ বইয়ে সই করেন। শপথ অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব কেএম আবদুস সালাম।

কাফি

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

অর্থনীতি

কোল্ড স্টোরেজে বিনিয়োগের আহ্বান সালমান এফ রহমানের

Published

on

আলিফ

শাকসবজি এবং ফলমূলের মানসম্মত সংরক্ষণ ব্যবস্থার অভাবে প্রতিবছর আড়াই বিলিয়ন ডলারের আর্থিক ক্ষতি গুণতে হয়। তাই এই খাতে ব্যক্তি উদ্যোক্তাদের বিনিয়োগে আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প এবং বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান।

তবে বিদ্যমান ব্যবস্থায় ১৩ শতাংশ সুদে ব্যবসায়ীরা এ খাতে বিনিয়োগ করবে না উল্লেখ করে নতুন ঋণ নীতির দাবি জানিয়েছেন কোল্ড স্টোরেজ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু।

বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) আগারগাঁওয়ের বিনিয়োগ ভবনে আয়োজিত বাংলাদেশ কোল্ড চেইন ইনভেস্টমেন্ট কনফারেন্সে এমন বিষয় উঠে আসে। বিডার সঙ্গে মার্কিন এগ্রিকালচার বিভাগের যৌথ উদ্যোগে এ কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হয়।

এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন লিক্সক্যাপ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক উইলিয়াম ফেলোস। তিনি বলেন, ২০৩১ সালের মধ্যে দেশের কোল্ড চেইন খাত ১১ শতাংশ বেড়ে ৪.৮ মিলিয়ন ডলারের বাজারে পরিণত হবে। এর সাথে স্টোরেজে, পরিবহন, প্যাকেজিং, লভেলিং মিলিয়ে প্রায় ৪৪০ মিলিয়ন ডলারের বাজার তৈরি হবে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সালমান এফ রহমান বলেন, দেশের অবকাঠামোখাত উন্নত হয়েছে। স্বাস্থ্য, শিক্ষা, আইসিটি সকল খাতেই বড় বিনিয়োগ হয়েছে। এখন এসব খাতে সফট স্কিল দরকার। আর কোল্ড স্টোরেজ এখন সময়োপযোগী একটি উদ্যোগ। রফতানি ছাড়া অভ্যন্তরীণ বাজারের জন্যও এটা গুরুত্বপূর্ণ। তাই বেসরকারি খাতের বিনিয়োগকারীদের এ খাতে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

আর সুদের হার কমানোর কথা থাকলেও এখনো কমেনি উল্লেখ করে তিনি বলেন, বৈশ্বিক কারণে সুদের হার বেড়েছে। তবে এর মধ্যেও কোল্ড স্টোরেজ নির্মাণে কিভাবে বিনিয়োগকারীদের সাবসিডি দেয়া যায় সেটা নিয়ে কাজ করা হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কোল্ড স্টোরেজ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু বলেন, দেশের কোল্ড স্টোরেজগুলো মূলত ৬০ এর দশকে তৈরি করা। সেগুলো আধুনিকায়ন হয়নি। ফরিদপুর পাবনা শহর দেশে বিভিন্ন জায়গায় পেঁয়াজের ভালো উৎপাদন হলেও সংরক্ষণের অভাবে তার ২৫ শতাংশ নষ্ট হয়ে যায়। ফলে ভারতীয় আমদানি বন্ধ হলেই পেঁয়াজের কেজি ১০০ টাকার ওপরে চলে যায়। তাছাড়া সংরক্ষণ ব্যবস্থা যুগোপযোগী না হওয়ায় ফরমালিনযুক্ত ফল খাচ্ছেন ভোক্তারা।

এমতাবস্থায় ১৩ শতাংশ সুদ দিয়ে কোনো ব্যবসায়ী কোল্ড স্টোরেজ নির্মাণ করতে আসবে না। তাই এখাতে নতুন ঋণনীতি দরকার। এতে ভোক্তারও সহনীয় মূল্যে পণ্য কিনতে পারবে।

অর্থসংবাদ/এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন
আলিফ
খেলাধুলা5 mins ago

লিটনের ম্যাচ ফি’র ১৫ শতাংশ জরিমানা

আলিফ
পুঁজিবাজার24 mins ago

দুই কোম্পানি কিনবে আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজ

আলিফ
ক্যাম্পাস টু ক্যারিয়ার32 mins ago

চাকরির সুযোগ দিচ্ছে ওয়ালটন

ঘরে বসে উপার্জন করার ৮ উপায়
অর্থনীতি54 mins ago

সাত মাসে রেমিট্যান্স এসেছে প্রায় দেড় লাখ কোটি টাকা

এসএসসির কেন্দ্র পরিদর্শনে যাবেন না শিক্ষামন্ত্রী
জাতীয়1 hour ago

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি ডিগ্রির অনুমতি দেওয়া হবে: শিক্ষামন্ত্রী

আলিফ
ব্যাংক1 hour ago

বাংলাদেশ ব্যাংকের নতুন ডেপুটি গভর্নর হাবিবুর রহমান ও খুরশীদ আলম

আলিফ
কর্পোরেট সংবাদ2 hours ago

ইসলামী ব্যাংকের এক্সিকিউটিভ ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম অনুষ্ঠিত

আলিফ
পুঁজিবাজার2 hours ago

পিপলস লিজিংয়ের লেনদেন বন্ধের মেয়াদ আরও বাড়লো

আলিফ
আন্তর্জাতিক2 hours ago

অস্ত্রসরঞ্জাম উৎপাদনে নাম লেখাল আদানি গ্রুপ

আলিফ
ক্যাম্পাস টু ক্যারিয়ার2 hours ago

চবি’র ভর্তি পরীক্ষা শুরু ২ মার্চ

Advertisement
Advertisement

ফেসবুকে অর্থসংবাদ

২০১৮ সাল থেকে ২০২৩

অর্থসংবাদ আর্কাইভ

তারিখ অনুযায়ী সংবাদ

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯