Connect with us

আন্তর্জাতিক

খাদ্যশস্যের বৈশ্বিক বাণিজ্য বাড়লেও কমতে পারে উৎপাদন

Published

on

লাভেলো

২০২৩-২৪ বিপণন মৌসুমে খাদ্যশস্যের বৈশ্বিক উৎপাদন পূর্বাভাস সংশোধন করেছে ইন্টারন্যাশনাল গ্রেইন কাউন্সিল (আইজিসি)। আগের পূর্বাভাসের তুলনায় উৎপাদন প্রায় ৬০ লাখ টন কমতে পারে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি। তবে বাণিজ্য বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সম্প্রতি সংশোধিত পূর্বাভাসটি নিজস্ব ওয়েবসাইটে প্রকাশ করে আইজিসি।

উৎপাদনের পাশাপাশি খাদ্যশস্যের ব্যবহারও আগের পূর্বাভাসের তুলনায় কমবে বলে জানিয়েছে আইজিসি। এতে মৌসুম শেষে শস্যের বৈশ্বিক মজুদ বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

সংশোধিত পূর্বাভাস অনুযায়ী, ২০২৩-২৪ মৌসুমে বিশ্বজুড়ে ২৩০ কোটি ৪০ লাখ টন খাদ্যশস্য উৎপাদন হতে পারে। আগের পূর্বাভাসে উৎপাদনের পরিমাণ ধরা হয়েছিল ২৩১ কোটি টন। তবে গত মৌসুমের তুলনায় উৎপাদন ২ শতাংশ বাড়বে বলেও জানিয়েছে আইজিসি।

সংস্থাটির পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী, দক্ষিণ গোলার্ধের দেশগুলোয় ভুট্টা উৎপাদন পরিস্থিতি খারাপের দিকে যাচ্ছে। অন্যান্য শস্যের তুলনায় ভুট্টার বৈশ্বিক উৎপাদন অনেক বেশি কমবে। বিষয়টিই মোট শস্য উৎপাদন পূর্বাভাস সংশোধন করতে সংস্থাটিকে উৎসাহিত করেছে।

এদিকে খাদ্যশস্যের বৈশ্বিক বাণিজ্য পূর্বাভাস বাড়িয়েছে আইজিসি। বাণিজ্যের পরিমাণ ধরা হয়েছে ৪২ কোটি ৪০ লাখ টন, যা আগের পূর্বাভাসে ছিল ৪১ কোটি ৯০ লাখ টন। অর্থাৎ বাণিজ্য ৫০ লাখ টন বাড়বে। রফতানি বাণিজ্য বৃদ্ধিতে প্রধান ভূমিকা পালন করবে যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, ইউক্রেন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও অস্ট্রেলিয়া।

আইজিসি গত মাসে বিশ্বজুড়ে ২৩১ কোটি ৭০ লাখ টন খাদ্যশস্য ব্যবহারের পূর্বাভাস দিয়েছিল। সংশোধিত পূর্বাভাসে তা কমিয়ে ২৩০ কোটি ৬০ লাখ টন ধরা হয়েছে। বিশ্ব অর্থনীতিতে চলমান সংকট ও মূল্যস্ফীতির ঊর্ধ্বগতির কারণে ভোক্তারা দৈনন্দিন ব্যয় সংকোচন করছেন। এ কারণেই মূলত শস্যের ব্যবহার কমার আশঙ্কা করছে আইজিসি।

এদিকে ব্যবহার কমলে মৌসুম শেষে মজুদও বেড়ে যাবে। নতুন পূর্বাভাস অনুযায়ী, ২০২৩-২৪ মৌসুমে বৈশ্বিক সমাপনী মজুদ দাঁড়াবে ৫৯ কোটি ৯০ লাখ টনে, আগের পূর্বাভাসে যা ছিল ৫৮ কোটি ৯০ লাখ টন।

এ মৌসুমে গমের বৈশ্বিক উৎপাদন দাঁড়াতে পারে ৭৮ কোটি ৯০ লাখ টনে, যা আগের পূর্বাভাসের তুলনায় ১০ লাখ টন বেশি। এটির ব্যবহার ৮০ কোটি ৩০ লাখ টনেই অপরিবর্তিত থাকবে। তবে বাণিজ্য আগের পূর্বাভাসের চেয়ে ১০ লাখ টনে বেড়ে ২০ কোটি ১০ লাখ টনে উন্নীত হতে পারে।

ভুট্টা উৎপাদনের পরিমাণ দাঁড়াতে পারে ১২২ কোটি ৭০ লাখ টনে, যা আগের পূর্বাভাসে ছিল ১২৩ কোটি ৪০ লাখ টন। অর্থাৎ শস্যটির উৎপাদন ৭০ লাখ টন কমতে পারে। এটির ব্যবহার কিছুটা কমলেও বাণিজ্য লক্ষণীয় মাত্রায় বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানায় আইজিসি।

অন্যদিকে ২০২৩-২৪ মৌসুমে চালের বৈশ্বিক উৎপাদন পূর্বাভাস আগের মতোই অপরিবর্তিত রেখেছে আইজিসি। উৎপাদনের পরিমাণ ধরা হয়েছে ৫১ কোটি ১০ লাখ টন। শস্যটির বাণিজ্য ও ব্যবহার পূর্বাভাসে কোনো পরিবর্তন আনা হয়নি।

সয়াবিন উৎপাদন পূর্বাভাস ১০ লাখ টন কমিয়ে ধরা হয়েছে ৩৯ কোটি টন। বাণিজ্যের পরিমাণ ধরা হয়েছে ১৬ কোটি ৬০ লাখ টন। এ মৌসুমে তেলবীজটির ব্যবহার দাঁড়াতে পারে ৩৮ কোটি ৩০ লাখ টনে।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

আন্তর্জাতিক

ওমরাহ ভিসার মেয়াদ নিয়ে সৌদির নতুন নির্দেশনা

Published

on

লাভেলো

ওমরাহ ভিসার মেয়াদ নিয়ে নতুন নির্দেশনা দিয়েছে সৌদি আরব। দেশটির হজ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, আগে ওমরাহ ভিসার ৯০ দিন মেয়াদ গণনা শুরু হতো সৌদিতে প্রবেশের পর। বর্তমানে এই নিয়ম পরিবর্তন করে ভিসা ইস্যুর দিন থেকে ৯০ দিন সৌদিতে অবস্থানের অনুমতি দেয়া হয়েছে।

বর্তমানে ওমরাহ ভিসায় যারা সৌদি আরবে অবস্থান করছেন তাদের আগামী ১৫ জিলকদ তথা ২৩ মে ২০২৪-এর আগেই সৌদি আরব ত্যাগ করতে হবে। সৌদিতে আসার পর ৯০ দিন পূর্ণ হোক বা না হোক।

এসময়ের পরেও যারা ৯০ দিন পূর্ণ হয়নি বলে রয়ে যাবেন তারা আইনি জটিলতার পড়তে পারেন বলে সতর্ক করেছে হজ মন্ত্রণালয়।

গত কয়েক বছর ধরে ওমরাহ ভিসা প্রক্রিয়া সহজ করায় পবিত্র ওমরা পালনকারীর সংখ্যা অনেক বেড়েছে। এ বছর পবিত্র রমজানে ৩০ মিলিয়ন (তিন কোটি) মুসলমান ওমরাহ পালন করেছেন।

আগামী জুনের শুরুতে পালিত হবে এবারের হজ। অস্বাভাবিক খরচ বেড়ে যাওয়ায় হজযাত্রীর সংখ্যা অনেক কমে গেছে। অনেকে হজের পরিবর্তে ওমরায় যাচ্ছেন। এ কারণেও আগের তুলনায় ওমরাযাত্রীর সংখ্যা কয়েক গুণ বেড়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

কাফি

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

আন্তর্জাতিক

ইন্দোনেশিয়ায় ভূমিধসে নিহত ১৫

Published

on

লাভেলো

ইন্দোনেশিয়ার সুলাওয়েসি দ্বীপে ভূমিধসে ১৫ জন নিহত হয়েছেন। বৈরী আবহাওয়ার কারণে শনিবার রাতে দেশটির সুলাওয়েসি দ্বীপের পাহাড়ি অঞ্চল তানা তরাজায় ভূমিধসের এই ঘটনা ঘটে। ভূমিধসের ঘটনায় অন্তত ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় নিখোঁজ রয়েছেন আরও দুজন। এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে আলজাজিরা।

বৈরী আবহাওয়া ও রাস্তা-ঘাটের ব্যাপক ক্ষতি হওয়ায় ঠিকমতো উদ্ধারকাজ চালানো যাচ্ছে না। তবে এরই মধ্যে ঝুঁকি নিয়ে বিশেষ পদ্ধতিতে ধসে যাওয়া এলাকায় প্রাণে সন্ধান চালিয়ে যাচ্ছেন উদ্ধারকর্মীরা।

তানা তরাজা ও এর আশপাশের এলাকায় গত সপ্তাহজুড়ে ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে এ ভূমিধস ঘটে বলে সংবাদমাধ্যমটির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

ঘটনার বিষয়ে স্থানীয় পুলিশ প্রধান গুনার্দি মুন্দু বলেন, শনিবার মধ্যরাতের কিছু সময় আগে গ্রামের একটি ঘরে পারিবারিক আয়োজন চলছিল। এসময় পাহাড় থেকে ধসে আসা কাদামাটিতে গ্রামের কিছু অংশ একদম চাপা পড়ে যায়।

ইন্দোনেশিয়ার দুর্যোগ প্রশমন সংস্থার মুখপাত্র আবদুল মুহারি এক বিবৃতিতে বলেছেন, অতি বৃষ্টির কারণে এই ভূমিধসের ঘটনা ঘটেছে। ভূমিধসে তানা তরাজা এলাকার দুটি গ্রাম ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ও চারটি ঘর বিধ্বস্ত হয়েছে। দুর্যোগ আক্রান্ত ওই এলাকাটি পাহাড়ি হওয়ার কারণে উদ্ধারকারীদের সেখানে পৌঁছানো কষ্টকর হয়ে যাচ্ছে। এর মধ্যেই উদ্ধারকারীরা ধ্বংসস্তূপের মধ্য থেকে প্রাণের সন্ধানে বিশেষ পদ্ধতিতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

স্থানীয় দুর্যোগ প্রশমন সংস্থার প্রধান সুলায়মান মাইলা রোববার এএফপি এজেন্সিকে জানিয়েছেন, ভূমিধসের ঘটনায় মোট ১৭ জনকে উদ্ধার করা হয়েছিল। তাদের মধ্যে ১৫ জনকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়।

এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

আন্তর্জাতিক

বিশ্বের সবচেয়ে বড় ১০ অর্থনীতির দেশ যেগুলো

Published

on

লাভেলো

মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) মাপকাঠিতে যুক্তরাষ্ট্র এখনো বিশ্বের বৃহত্তম অর্থনীতি। বিশ্বের বৃহত্তম এই অর্থনীতি এমনকি দ্বিতীয় স্থানে থাকা চীনের চেয়েও দেড় গুণেরও বড়। ফোর্বস ইন্ডিয়া ডটকমের সদ্য প্রকাশিত ‘বিশ্বের শীর্ষ ১০ অর্থনীতি ২০২৪’ শীর্ষক তালিকায় যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের পরে রয়েছে যথাক্রমে জার্মানি, জাপান ও ভারত।

যুক্তরাষ্ট্র যুগ যুগ ধরে বিশ্বের বৃহত্তম অর্থনীতি হিসেবে তার স্থান পাকাপাকি করে রেখেছে। আরও সুনির্দিষ্টভাবে বলা যায়, যুক্তরাষ্ট্র সেই ১৯৬০ সাল থেকেই বিশ্বের বৃহত্তম অর্থনীতির মুকুট পরে আছে। গত ৬৪ বছরে শীর্ষ ১০–২০ অর্থনীতির তালিকায় বিভিন্ন দেশের উত্থান–পতন ঘটলেও যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থানে কোনো হেরফের ঘটেনি।

ফোর্বসের তথ্য মতে, বর্তমানে দেশটির জিডিপির ২৭ হাজার ৯৭৪ বিলিয়ন বা ২৭ লাখ ৯৭ হাজার ৪০০ কোটি মার্কিন ডলার। দ্বিতীয় স্থানে থাকা চীনের জিডিপির আকার হলো ১৮ হাজার ৫৬৬ বিলিয়ন বা ১৮ লাখ ৫৬ হাজার ৬০০ কোটি ডলার।

বিশ্বের অন্য বৃহৎ অর্থনীতিগুলো অবশ্য যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের চেয়ে যোজন যোজন পিছিয়ে রয়েছে। যেমন ফোর্বসের তালিকায় তৃতীয় স্থান পাওয়া জার্মানির জিডিপির আবার ৪ হাজার ৭৩০ বিলিয়ন বা ৪ লাখ ৭৩ হাজার কোটি ডলার। তালিকায় চতুর্থ ও পঞ্চম স্থানে রয়েছে যথাক্রমে জাপান ও ভারত। এর মধ্যে জাপানের জিডিপি ৪ হাজার ২৯১ বিলিয়ন ও ভারতের জিডিপি ৪ হাজার ১১২ বিলিয়ন ডলার।

ফোর্বসের তালিকা অনুযায়ী ষষ্ঠ থেকে দশম স্থানে থাকা দেশগুলোর জিডিপির আকার এ রকম: যুক্তরাজ্য ৩ হাজার ৫৯২ বিলিয়ন, ফ্রান্স ৩ হাজার ১৮২ বিলিয়ন, ইতালি ২ হাজার ২৮০ বিলিয়ন, ব্রাজিল ২ হাজার ২৭২ বিলিয়ন ও কানাডা ২ হাজার ২৪২ বিলিয়ন ডলার।

১১তম থেকে ২০ স্থানে রয়েছে মেক্সিকো (১,৯৯২ বিলিয়ন ডলার), রাশিয়া (১,৯২৪ বিলিয়ন ডলার), দক্ষিণ কোরিয়া (১,৭৮৪ বিলিয়ন ডলার), অস্ট্রেলিয়া (১,৬৯৬ বিলিয়ন ডলার), স্পেন (১,৬৮৫ বিলিয়ন ডলার), ইন্দোনেশিয়া (১,৫৪১ বিলিয়ন ডলার), তুরস্ক (১,৩৪০ বিলিয়ন ডলার), নেদারল্যান্ডস (১,১৬৭ বিলিয়ন ডলার, সৌদি আরব (১,১১২ বিলিয়ন ডলার) ও সুইজারল্যান্ড (৯৭৭.৯৫ বিলিয়ন ডলার)।

এবার বিশ্বের শীর্ষ ১০ অর্থনীতির দেশগুলোয় জনগণের মাথাপিছু জিডিপিও দেখে নেওয়া যাক। যুক্তরাষ্ট্র ৮৩ হাজার ৬০ ডলার, চীন ১৩ হাজার ১৬০ ডলার, জার্মানি ৫৬ হাজার ৪০ ডলার, জাপান ৩৪ হাজার ৫৫০ ডলার, ভারত ২ হাজার ৮৫০ ডলার, যুক্তরাজ্য ৫২ হাজার ৪৩০ ডলার, ফ্রান্স ৪৮ হাজার ২২০ ডলার, ইতালি ৩৮ হাজার ৯৩০ ডলার, ব্রাজিল ১১ হাজার ৩০ ডলার, কানাডা ৫৫ হাজার ৫৩০ ডলার।

কাফি

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

আন্তর্জাতিক

বাংলাদেশি জাহাজ ছিনতাইয়ের ঘটনায় ৮ জলদস্যু গ্রেপ্তার

Published

on

লাভেলো

বাংলাদেশি জাহাজ এমভি আব্দুল্লাহ ছিনতাইয়ের সঙ্গে জড়িত ৮ জলদস্যুকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। জাহাজ ও নাবিকরা মুক্তি পাওয়ার পরপরই স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল পুন্টল্যান্ডের পূর্ব উপকূল থেকে দস্যুদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে সোমালিয়ার সংবাদমাধ্যম ‘গ্যারোয়ে অনলাইন’।

মুক্তিপণ পাওয়ার পর শনিবার (১৩ এপ্রিল) ২৩ নাবিকসহ জাহাজটি ছেড়ে দেয় দস্যুরা।

পুন্টল্যান্ডের এক উচ্চপদস্থ পুলিশ কর্মকর্তা সংবাদমাধ্যমটিকে জানিয়েছেন, বাংলাদেশি জাহাজ ও নাবিকদের জিম্মির সঙ্গে জড়িত এই ৮ দস্যুকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তবে তাদের কাছ থেকে মুক্তিপণের কোনো অর্থ উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে কি না সে বিষয়টি স্পষ্ট করেননি তিনি। গারোয়ে নামের অনলাইনে দস্যুদের গ্রেপ্তারের বিষয়টি জানানো হয়েছে।

এদিকে, ব্রিটিশ বার্তাসংস্থা রয়টার্সকে দুই দস্যু জানিয়েছে, দুই দিন আগে মুক্তিপণ হিসেবে তাদের ৫০ লাখ ডলার দেওয়া হয়। এই অর্থগুলো নকল কি না পরবর্তীতে সেটি যাচাই-বাছাই করে তারা। এরপর নিজেদের মধ্যে অর্থগুলো ভাগ করে তারা জাহাজ থেকে চলে যায়।

মুক্তিপণের মাধ্যমে জাহাজ ছাড়িয়ে নেওয়ার বিষয়টি দস্যুদের আরও জাহাজ ছিনতাইয়ে উদ্বুদ্ধ করতে পারে বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন পুন্টল্যান্ডের এক পুলিশ কর্মকর্তা।

গত তিন মাস ধরে ভারত মহাসাগরে সোমালি জলদস্যুদের তৎপরতা বৃদ্ধি পেয়েছে। এই দস্যুরা সশস্ত্র গোষ্ঠী আল-শাবাবের সঙ্গে এক হয়ে কাজ করছে বলে জানিয়েছে সোমালিয়ার সরকার। দস্যুতা বন্ধ করতে জলদস্যুদের গ্রেপ্তার এবং তাদের বিচারের মুখোমুখি করা হচ্ছে।

গত ১৭ এপ্রিল সোমালি দস্যুদের কাছ থেকে এমভি রুয়েন নামের একটি জাহাজ উদ্ধার করে ভারতীয় নৌবাহিনী। জাহাজটি উদ্ধারে তারা কমান্ডো অভিযান পরিচালনা করে।

বাংলাদেশি জাহাজটিও মুক্ত করতে ভারতীয় নৌবাহিনী সামরিক অভিযান চালানোর প্রস্তাব দিয়েছিল। কিন্তু নাবিকদের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে এতে সম্মতি দেয়নি বাংলাদেশ সরকার।

এর বদলে আলোচনার মাধ্যমে নাবিকদের ফিরিয়ে আনার পথ অনুসরণ করা হয়। এতে করে সব নাবিককে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে।

কাফি

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

আন্তর্জাতিক

ভারতের রিজার্ভ বেড়ে সর্বকালের সর্বোচ্চ

Published

on

লাভেলো

ভারতে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বা মজুত ২ দশমিক ৯৮ বিলিয়ন বা ২৯৮ কোটি মার্কিন ডলার বেড়েছে। ২০২৪-২৫ অর্থবছরের প্রথম সপ্তাহে দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক রিজার্ভ ব্যাংক অব ইন্ডিয়ায় (আরবিআই) রিজার্ভ বেড়ে ৬৪৮ দশমিক ৫৬ বিলিয়ন বা ৬৪ হাজার ৮৫৬ কোটি ডলারে উঠেছে, যা সর্বকালের সর্বোচ্চ। খবর বিজনেস লাইন

প্রধানত সোনার রিজার্ভ বা মজুত (২ দশমিক ৪০ বিলিয়ন) ও বৈদেশিক মুদ্রা সম্পদ (৫৪৯ মিলিয়ন ডলার) বৃদ্ধির ফলে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বৃদ্ধি পেয়েছে। এ ছাড়া রিজার্ভের অন্য দুটি উপাদানও বেড়েছে। সেগুলো হচ্ছে স্পেশাল ড্রয়িং রাইটস এবং আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলে (আইএমএফ) রিজার্ভের অবস্থার উন্নতি ঘটেছে। সব মিলিয়ে ভারতের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বেড়েছে।

বর্তমানে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের পরিমাণে বিশ্বে চতুর্থ অবস্থানে রয়েছে ভারত। এ ক্ষেত্রে তাদের সামনে রয়েছে কেবল চীন, সুইজারল্যান্ড ও জাপান। এর মধ্যে চীনের কাছে রয়েছে ভারতের প্রায় পাঁচ গুণ বেশি রিজার্ভ, যা পরিমাণে ৩ লাখ ২২ হাজার ৫৮১ কোটি ডলার। ১ লাখ ২৯ হাজার কোটি ডলারের রিজার্ভ নিয়ে জাপান আছে দ্বিতীয় স্থানে। আর তৃতীয় অবস্থানে থাকা সুইজারল্যান্ডের রয়েছে ৮৬ হাজার ৮৬৩ কোটি ডলার।

এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন
লাভেলো
জাতীয়6 hours ago

জানা গেল ঈদুল আজহার সম্ভাব্য তারিখ

লাভেলো
লাইফস্টাইল7 hours ago

হার্ট ভালো রাখতে যে মসলা খাবেন

লাভেলো
ক্যাম্পাস টু ক্যারিয়ার7 hours ago

চাকরি দেবে প্রাণ গ্রুপ, নেবে ১০০ জন

লাভেলো
জাতীয়8 hours ago

মিয়ানমার থেকে পালিয়ে এলো আরও দুই সেনা সদস্য

লাভেলো
জাতীয়9 hours ago

রাতেই যেসব এলাকায় ৬০ কিলোমিটার বেগে ঝড়ের আভাস

লাভেলো
আন্তর্জাতিক9 hours ago

ওমরাহ ভিসার মেয়াদ নিয়ে সৌদির নতুন নির্দেশনা

লাভেলো
জাতীয়10 hours ago

দুই যুদ্ধজাহাজের পাহারায় দুবাইয়ের পথে এমভি আবদুল্লাহ

লাভেলো
জাতীয়10 hours ago

সরকারের নির্দেশনা উপেক্ষা করে উদীচীর অনুষ্ঠান দুঃখজনক: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

লাভেলো
অর্থনীতি10 hours ago

১২ দিনে রেমিট্যান্স এলো ৯ হাজার ৬০৪ কোটি টাকা

লাভেলো
কর্পোরেট সংবাদ11 hours ago

এসইভিপি পদে পদোন্নতি পেলেন ব্র্যাক ব্যাংকের তিন কর্মকর্তা

ফেসবুকে অর্থসংবাদ

২০১৮ সাল থেকে ২০২৩

অর্থসংবাদ আর্কাইভ

তারিখ অনুযায়ী সংবাদ

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০