Connect with us

ধর্ম ও জীবন

ইরানে কোরআন প্রতিযোগিতায় প্রথম বাংলাদেশি হাফেজ বশির

Published

on

দরবৃদ্ধি

আন্তর্জাতিক কোরআন তেলাওয়াত প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশি হাফেজদের জয়রথ ছুটছেই। সেই ধারাবাহিকতায় এবার ইরানে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হলেন হবিগঞ্জের ছেলে হাফেজ বশির আহমদ।

স্থানীয় সময় সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) আন্তর্জাতিক হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতার আয়োজন করে পশ্চিম এশিয়ার মুসলিম দেশ ইরান।

মারকাজুত তাহফিজ ইন্টারন্যাশনাল মাদ্রাসার পরিচালক শায়েখ নেছার আহমাদ আন নাছিরী বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ইরানে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতায় ১১০টি দেশের মধ্যে ৩০ পারা গ্রুপে প্রথম স্থান অর্জন করেন হাফেজ বশির। প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় হয়েছে ইরান এবং তৃতীয় নাইজেরিয়া।

হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার বেগুনাই গ্রামের সহকারী অধ্যাপক মাওলানা মো. আবদুর রশিদ ও বুশরা চৌধুরীর ছেলে হাফেজ বশির আহমদ। তিনি ঢাকার মারকাজুত তাহফিজ ইন্টারন্যাশনাল মাদ্রাসার ছাত্র।

এর আগে ৯ ফেব্রুয়ারি আলজেরিয়ায় অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতায় তৃতীয় স্থান অর্জন করেন হাফেজ বশির। এবার ইরান থেকে পেলেন চ্যাম্পিয়ন পুরস্কার।

এর আগে গত বছর দুবাইতে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক কোরআন তেলাওয়াত প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হন টাঙ্গাইলের ছেলে হাফেজ সালেহ আহমাদ তাকরিম। ২০১২ সালে ভারতে অনুষ্ঠিত কোরআন প্রতিযোগিতায় প্রথম হন হাফেজ নাজমুস সাকিব।

এছাড়া বিভিন্ন সময়ে আরও কয়েকজন হাফেজ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের কোরআন প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে প্রথম, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় হয়ে দেশের জন্য সুনাম বয়ে এনেছেন। দেশ থেকেও হয়েছেন পুরস্কৃত এবং সম্মানিত।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

ধর্ম ও জীবন

তিন লাখ বৃক্ষ রোপনের ঘোষণা শায়খ আহমাদুল্লাহর

Published

on

দরবৃদ্ধি

চলতি বছর তিন লাখ গাছ লাগানোর ঘোষণা দিয়েছেন আস-সুন্নাহ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ও বিশিষ্ট দাঈ শায়খ আহমাদুল্লাহ।

মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) সকালে রাজধানীর আফতাবনগর ঈদগাহ মাঠে মুসল্লিদের নিয়ে সালাতুল ইস্তিসকার নামাজশেষে সাংবাদিকদের এ ঘোষণা দেন তিনি।

শায়খ আহমাদুল্লাহ বলেন, গতবছর আস-সুন্নাহর উদ্যোগে এক লাখ গাছ রোপন করা হয়, যার মধ্যে ৩০ হাজার লেবুর গাছ ছিল। কারণ গরমে লেবুর প্রয়োজন রয়েছে। এছাড়াও প্রচুর পেয়ারা গাছ ও আম গাছসহ দেশীয় ফল গাছ লাগানোর চেষ্টা করেছি। এ বছর আমরা তিন লাখ গাছ রোপন করার কাজ ইতিমধ্যে হাতে নিয়েছি এবং কর্মসূচি শুরু করেছি।

তিনি আরও বলেন, যখন অনাবৃষ্টির সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করে, যখন তীব্র গরমে মানুষের প্রাণ ওষ্ঠাগত হয় তখন মুসলমান হিসেবে আমাদের করণীয় হলো- আল্লাহর কাছে বৃষ্টি প্রার্থনার দোয়া করা। তিনি বলেন, বিগত কয়েকবছর ধরে দেশে গরমের তীব্রতা বেড়েছে।

‘ফলে পশু-পাখি, প্রাণীকুল ও ফসলের ক্ষতি হচ্ছে। ফসলের জমি ফেটে চৌচির হয়ে যাচ্ছে। খেটে খাওয়া দিনমজুর মানুষেরা কাজ করতে গিয়ে অনেকে অসুস্থ হয়ে যাচ্ছেন। এ অবস্থায় আমাদের সবার উচিত হবে- তাওবা-ইস্তেগফার করা। নিজেদের সংশোধন করা এবং আত্মশুদ্ধির জন্য আল্লাহ তাআলার কাছে দোয়া করা।’

এসময় তিনি ইমামদের প্রতি যার যার এলাকায় সালাতুল ইসতিসকা নামাজের জন্য অনুরোধ করেন। পাশাপাশি পরিবেশ সুরক্ষায় সবাইকে গাছ লাগানোর আহবান জানান।

শায়খ আহমাদুল্লাহ বলেন, আমরা প্রত্যেকে অন্তত ৫টি করে গাছ লাগানোর দায়িত্ব নিতে পারি। কারণ দেশে যে পরিমাণ মানুষ রয়েছে সে পরিমাণ উদ্ভিদ নেই। সেই অভাবটা দূর করতে হবে। চারাগুলোর পরিচর্যারও আহ্বান করেন তিনি। বলেন, শুধু চারা রোপন করা নয়, সেগুলোর পরিচর্যাও করতে হবে। আমরা নানাভাবে পরিবেশকে ধ্বংস করেছি, এর প্রায়শ্চিতস্বরূপ তাওবা-ইস্তেগফার ও প্রচুর পরিমাণে বৃক্ষরোপণ করা উচিত।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

ধর্ম ও জীবন

নয় বছর পর ইরানিদের ওমরাহ পালনের সুযোগ

Published

on

দরবৃদ্ধি

দীর্ঘ ৯ বছর পর পবিত্র ওমরাহ পালনের সুযোগ পেয়েছেন ইরানের নাগরিকেরা। ইরানের ওপর সৌদি আরবের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের পর প্রথম দফায় ৮৫ জন ইরানি ধর্মীয় এ বিধান পালনের সুযোগ পেলেন। ওমরাহযাত্রীদের বহনকারী উড়োজাহাজটি সোমবার (২২ এপ্রিল) তেহরানের ইমাম খামেনি বিমানবন্দর থেকে রওনা দেয়। ২০১৬ সালের পর এটিই প্রথম কোনো ফ্লাইট।

তেহরানের বিমানবন্দরে ওমরাহযাত্রীদের বিদায় অনুষ্ঠানে ইরানে নিযুক্ত সৌদি আরবের রাষ্ট্রদূত আবদুল্লাহ বিন সৌদ আল-আনজি উপস্থিত ছিলেন। তিনি আল্লাহর দরবারে তাদের সফলতার দোয়া করেন।

ইরানের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা ইরনার বরাতে রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, ইরান ও সৌদি আরবের মধ্যে ২০১৬ সাল থেকে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিল না। ওই বছর সৌদি আরব এক শিয়া নেতার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করে। পরে তেহরানের সৌদি দূতাবাসে হামলা হয়। এ ঘিরে দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা বাড়ে।

পরে গত বছর দুই দেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক পুনঃপ্রতিষ্ঠা হয়। এর প্রেক্ষিতে গত বছরের ডিসেম্বরে ইরানিদের ওমরাহ পালনে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয় সৌদি আরব। কিন্তু এরপরও ওমরাহযাত্রীদের নিয়ে তেহরান থেকে কোনো ফ্লাইট সৌদি আরবে যায়নি। ইরান এর জন্য কারিগরি সমস্যার কথা বলে আসছিল।

রয়টার্স বলছে, গত বছর সম্পর্ক পুনরায় শুরু হওয়ার আগে ইরানিরা শুধু হজ পালন করতে সৌদিতে যেতে পারতেন। তবে এবার নয় বছর পরে ওমরাহ পালনের সুযোগ পেলেন তারা।

এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

ধর্ম ও জীবন

তীব্র গরমে যেসব আমল করবেন

Published

on

দরবৃদ্ধি

বাংলাদেশে এখন গ্রীষ্মকাল। তীব্র গরম অনুভূত হচ্ছে। গরমের মধ্যে ইবাদত বন্দেগি সহজ করেছে ইসলাম। হযরত আবু জার রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, এক সফরে আমরা আল্লাহর রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সঙ্গে ছিলাম।

একসময় মুয়াজ্জিন জোহরের আজান দিতে চেয়েছিল। তখন নবিজি সাল্লাল্লাগু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, গরম কমতে দাও। কিছুক্ষণ পর আবার মুয়াজ্জিন আজান দিতে চাইলে নবিজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পুনরায় বলেন, গরম কমতে দাও। এভাবে তিনি (নামাজ আদায়ে) এত বিলম্ব করলেন যে আমরা টিলাগুলোর ছায়া দেখতে পেলাম। এরপর নবিজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, গরমের প্রচণ্ডতা জাহান্নামের উত্তাপ হতে। কাজেই গরম প্রচণ্ড হলে উত্তাপ কমার পর নামাজ আদায় করো। ’ (বুখারি ৫৩৯)

গরমে অল্প আমলে বেশি সওয়াব পাওয়া যায়। একজন মুমিন সে আমল করে সহজেই আল্লাহর নৈকট্য অর্জন করতে পারে। অল্প আমলে বেশি সওয়াব পাওয়ার বেশ কিছু আমল রয়েছে। তাহলো-

নফল রোজা
গরমের রোজা শীতের থেকে বেশি কষ্টকর। সে কষ্ট উপেক্ষা করে যদি নফল রোজা রাখা যায়, তাহলে আল্লাহ তাআলা বেশি নেকি দেবেন। সাহাবায়ে কেরাম রাদিয়াল্লাহু আনহুম আজমাঈন বেশি সওয়াবের আশায় গরমকালে রোজা রাখতেন।

পিপাসার্তকে পানি পান করানো
পিপাসার্তকে পানি পান করানো একটি উত্তম কাজ। আর যদি প্রচন্ড গরমে কাউকে ঠাণ্ডা পানি পান করানো হয়, তাহলে তো কাজটি আরো উত্তম হবে। এক ব্যক্তি রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে প্রশ্ন করলেন, ‘কোন দান উত্তম? তিনি বললেন, ‘পানি পান করানো। ’ (নাসাই ৫৪৫৬)

ইমাম কুরতুবি রহমাতুল্লাহি আলাইহি বলেন, ‘তৃষ্ণার্তের তৃষ্ণা নিবারণ সর্বোত্তম মহৎ কাজের একটি। ’

হাদিসের অন্য এক বর্ণনায় এসেছে, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, ‘সদকা বা দান জাহান্নামের আগুন নির্বাপণ করে। আর পানি পান করানো উত্তম সাদকা। ’ (আবু দাউদ ৭৪৩৫)

নফল নামাজ
অতিরিক্ত গরম হলো জাহান্নামের নিঃশ্বাস, তাই জাহান্নামের ভয়ে বেশি করে এবং লম্বা লম্বা সুরা দিয়ে নফল নামাজ আদায় করা উত্তম। হাদিসে পাকে এসেছে, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘যখন গরম বেশি পড়বে, তখন বেশি নামাজ আদায় করো। কারণ অতিরিক্ত গরম হলো জাহান্নামের নিশ্বাস। ’ (মেশকাত ৫৯১)

গরম থেকে শিক্ষা
গরমের তীব্রতা থেকে মুমিনের জন্য রয়েছে শিক্ষা। কেননা জাহান্নামের আগুনের উত্তাপ পৃথিবীর আগুনের চেয়ে ৭০ গুণ বেশি। তাই এ গরম থেকে জাহান্নমের তীব্রতা অনুমান করে গুনাহ থেকে মুক্ত থাকা। হাদিসে পাকে এসেছে- রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, ‘জাহান্নাম তার প্রতিপালকের কাছে এ বলে নালিশ করেছিল, হে আমার প্রতিপালক! (দহনের প্রচণ্ডতায়) আমার এক অংশ আরেক অংশকে গ্রাস করে ফেলছে। ফলে আল্লাহ তাকে দুইটি শ্বাস ফেলার অনুমতি দেন। একটি শীতকালে অপরটি গ্রীষ্মকালে। আর তাই তোমরা গ্রীষ্মকালে প্রচণ্ড উত্তাপ এবং শীতকালে তীব্র ঠাণ্ডা অনুভব করো। ’ (বুখারি ৫৪৫৫)

গরিবদের ফল বিতরণ
আল্লাহর নৈকট্য অর্জন করার আরও মাধ্যম হচ্ছে, গরিব-দুখীর মাঝে সুমিষ্ট ফল বিতরণ করা। ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্য করা। ঘামে ভেজা শরীরে জনসমাগমে গমন না করা। গরমের সময় প্রবাহিত ঘামের গন্ধ যেন অন্যের কষ্টের কারণ না হয়, সেদিকে দৃষ্টি রাখা। গ্রীষ্মকালকে গালমন্দ না করা বিষয়টিও খেয়াল রাখার নির্দেশ দেয় ইসলাম।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

ধর্ম ও জীবন

শাওয়ালের ছয় রোজা কি ধারাবাহিকভাবে রাখা জরুরি?

Published

on

দরবৃদ্ধি

শাওয়াল মাসে ছয়টি রোজা রাখা সুন্নত। আল্লাহর রাসুল (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) নিজে এ আমল করেছেন এবং আমল করার নির্দেশ দিয়েছেন। শাওয়ালের ছয় রোজার ফজিলত বর্ণনা করে আল্লাহর রাসুল (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বলেন, যারা রমজানে রোজা পালন করবে এবং শাওয়ালে আরও ছয়টি রোজা রাখবে; তারা যেন সারা বছরই রোজা পালন করল। (সহিহ মুসলিম)

শাওয়ালের ছয় রোজা একটানা না রেখে বিরতি দিয়ে আলাদা আলাদা রাখলেও আদায় হয়ে যাবে। কেউ যদি একটানা রোজা রাখে তাতেও আদায় হয়ে যাবে। হাদিসের কোনো বর্ণনায় শাওয়ালের ছয় রোজা একসঙ্গে রাখতে হবে এ রকম কিছু বলা হয়নি।

সাপ্তাহিক সুন্নত রোজা অর্থাৎ প্রতি সোম ও বৃহস্পতিবারের রোজার সাথে মিল রেখে সহজেই শাওয়ালের রোজাগুলো রাখা যায়। কেউ যদি শাওয়াল মাসের সপ্তাহগুলোয় প্রতি সোম ও বৃহস্পতিবার রোজা রাখে, তাহলে তিন সপ্তাহেই সহজে তার ছয়টি রোজা রাখা হয়ে যাবে।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

ধর্ম ও জীবন

বিপদ-আপদ থেকে মুক্তির দোয়া

Published

on

দরবৃদ্ধি

প্রতিটি মানুষের জীবনে বিপদ-আপদ আসতে পারে। অনেক সময় পাপের পরিণাম বেশি হলেও আসে বিপদ। তবে মাঝেমধ্যে আল্লাহর পক্ষ থেকে পরীক্ষা হিসেবেও আসতে পারে বিভিন্ন ধরনের বিপদ-আপদ এবং বালামসিবত। এ জন্য আল্লাহর রসুল (সা.) সব ধরনের বিপদ-মুসিবত থেকে মুক্তির জন্য দোয়া শিখিয়েছেন।

হযরত জাবির রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, আমি রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে বলতে শুনেছি, কোনো ব্যক্তি (আল্লাহর কাছে) কোনো কিছু প্রার্থনা করলে আল্লাহ তাআলা তাকে তা দান করেন। অথবা তদানুযায়ী তার থেকে কোনো অমঙ্গল প্রতিহত করেন। যতক্ষণ না সে কোনো পাপাচারে লিপ্ত হয় বা আত্মীয়তার সম্পর্ক ছিন্ন করার জন্য দোয়া করে। (তিরমিজি)

হযরত সালমান রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত যে, তিনি বলেন, রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, দোয়া ছাড়া আর কিছুই তাকদির পরিবর্তন করতে পারে না আর নেক আমল ছাড়া আর কিছুই বয়সে বৃদ্ধি ঘটায় না। (সহিহ ১৫৪, তিরমিজি ২১৩৯)

হযরত উসমান ইবনে আফফান (রা.) থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, আল্লাহর রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, যে ব্যক্তি প্রতিদিন সকাল-সন্ধ্যা তিনবার করে এই দোয়াটি পাঠ করবে, তাকে আসমান-জমিনের কোনো জিনিস ক্ষতি করতে পারবে না।

উচ্চারণ : বিসমিল্লাহিল্লাজি লা ইয়াদুররু মায়াস‌মিহি শাইউন ফিল আরদি ওয়ালা ফিসসামা-ই ওহুয়াস সামিউল আলিম

অর্থাৎ, আমি আল্লাহ‌র নামে আশ্রয় প্রার্থনা করছি, যার নামের সঙ্গে আসমান ও জমিনে কোনো কিছুই ক্ষতি করতে পারে না, আর তিনি সর্বশ্রোতা ও মহাজ্ঞানী। (তিরমিজি, হাদিস : ৩৪১০)

কাফি

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন
দরবৃদ্ধি
পুঁজিবাজার10 mins ago

দরবৃদ্ধির শীর্ষে এডিএন টেলিকম

Orion Infusion
পুঁজিবাজার25 mins ago

লেনদেনের শীর্ষে ওরিয়ন ইনফিউশন

দরবৃদ্ধি
পুঁজিবাজার40 mins ago

শেয়ারদর কমার নতুন নিয়মের দিনে সূচকে নিম্নগতি

দরবৃদ্ধি
পুঁজিবাজার53 mins ago

ফরচুন সুজের পর্ষদ সভার তারিখ নির্ধারণ

দরবৃদ্ধি
পুঁজিবাজার1 hour ago

ইস্টার্ন ক্যাবলসের পর্ষদ সভার তারিখ ঘোষণা

দরবৃদ্ধি
পুঁজিবাজার1 hour ago

পর্ষদ সভার তারিখ জানালো রংপুর ফাউন্ড্রি

দরবৃদ্ধি
আন্তর্জাতিক1 hour ago

থাইল্যান্ডে হিট স্ট্রোকে ৩০ মৃত্যু

দরবৃদ্ধি
পুঁজিবাজার1 hour ago

শেয়ার কিনবেন এডিএন টেলিকমের উদ্যোক্তা পরিচালক

দরবৃদ্ধি
পুঁজিবাজার2 hours ago

রেকিট বেনকিজারের লেনদেন চালু রোববার

Central Insurance
পুঁজিবাজার2 hours ago

কাল স্পট মার্কেটে যাচ্ছে সেন্ট্রাল ইন্স্যুরেন্স

দরবৃদ্ধি
পুঁজিবাজার2 hours ago

ফার্স্ট সিকিউরিটি ব্যাংকের লভ্যাংশ ঘোষণায় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সম্মতি

দরবৃদ্ধি
পুঁজিবাজার2 hours ago

কোম্পানি সচিব নিয়োগ দিলো প্রাইম ফাইন্যান্স

দরবৃদ্ধি
পুঁজিবাজার2 hours ago

পর্ষদ সভার তারিখ জানালো জুট স্পিনার্স

দরবৃদ্ধি
পুঁজিবাজার2 hours ago

গ্লোবাল ইসলামী ব্যাংকের পর্ষদ সভার তারিখ পরিবর্তন

Beach Hatchery Ltd
পুঁজিবাজার2 hours ago

বিচ হ্যাচারির পর্ষদ সভার তারিখ নির্ধারণ

দরবৃদ্ধি
পুঁজিবাজার2 hours ago

এসবিএসি ব্যাংকের পর্ষদ সভার তারিখ পরিবর্তন

দরবৃদ্ধি
পুঁজিবাজার2 hours ago

এইচআর টেক্সটাইলের পর্ষদ সভার তারিখ ঘোষণা

দরবৃদ্ধি
পুঁজিবাজার2 hours ago

মূলধনভিত্তি শক্তিশালী করতে বন্ড ইস্যু করবে ইসলামী ব্যাংক

দরবৃদ্ধি
পুঁজিবাজার3 hours ago

ঢাকা ডাইংয়ের পর্ষদ সভা ৩০ এপ্রিল

দরবৃদ্ধি
পুঁজিবাজার3 hours ago

পর্ষদ সভার তারিখ জানালো হাওয়া ওয়েল টেক্সটাইলস

দরবৃদ্ধি
পুঁজিবাজার3 hours ago

আমরা টেকনোলজিসের পর্ষদ সভার তারিখ নির্ধারণ 

দরবৃদ্ধি
পুঁজিবাজার3 hours ago

বিডি থাই ফুডের পর্ষদ সভার তারিখ ঘোষণা

দরবৃদ্ধি
পুঁজিবাজার3 hours ago

পর্ষদ সভা করবে ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন

দরবৃদ্ধি
পুঁজিবাজার3 hours ago

দুই ঘণ্টায় লেনদেন ২৭৪ কোটি টাকা

দরবৃদ্ধি
পুঁজিবাজার3 hours ago

সেন্ট্রাল ফার্মার পর্ষদ সভা ৩০ এপ্রিল

ফেসবুকে অর্থসংবাদ

২০১৮ সাল থেকে ২০২৩

অর্থসংবাদ আর্কাইভ

তারিখ অনুযায়ী সংবাদ

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০