Connect with us

আন্তর্জাতিক

বিশ্ববাজারে তামার সাপ্তাহিক দামে বড় উল্লম্ফন

Published

on

তামা

আন্তর্জাতিক বাজারে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা দেখা দিয়েছে তামার দামে। সবশেষ শুক্রবার তিন মাসের মধ্যে সবচেয়ে বড় সাপ্তাহিক মূল্যবৃদ্ধি দেখেছে ধাতুটি। মজুদ কমে যাওয়ার পাশাপাশি শীর্ষ ব্যবহারকারী দেশ চীনে অর্থনীতিতে গতি ফেরার সম্ভাবনায় তামার দাম বাড়ছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

লন্ডন মেটাল এক্সচেঞ্জে (এলএমই) তামার তিন মাস সরবরাহ চুক্তির দাম আগের দিনের তুলনায় ১ দশমিক ১ শতাংশ বেড়েছে। প্রতি টনের মূল্য স্থির হয়েছে ৮ হাজার ৪০৭ ডলার ৫০ সেন্টে। এক সপ্তাহের ব্যবধানে দাম বেড়েছে ২ দশমিক ৮ শতাংশ। নভেম্বরের মাঝামাঝি সময়ের পর এটিই সবচেয়ে বড় মূল্যবৃদ্ধি।

চলতি মাসের এখন পর্যন্ত আন্তর্জাতিক বাজারে তামার দাম ২ দশমিক ৪ শতাংশ কমেছে। কারণ চন্দ্রবর্ষের ছুটি উপলক্ষে বাজারে বাণিজ্যিক কার্যক্রম ছিল ধীর। তবে ছুটি শেষ হওয়ায় ফের ধাতুটির বাজার চাঙ্গা হয়ে উঠছে।

ধাতুটিকে বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক স্বাস্থ্যের অন্যতম নির্দেশক হিসেবে ধরা হয়। বৈদ্যুতিক উপকরণ ও শিল্প খাতের যন্ত্রাংশ তৈরিতে ধাতুটির ব্যবহার ব্যাপক। বর্তমানে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির আভাসও তামার চাহিদা বৃদ্ধিতে বড় প্রভাব রাখছে।

চীন দেশটির অর্থনীতিকে গতিশীল করতে উদ্যোগ নেয়ায় তামার দাম অব্যাহত বাড়ছে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, প্রপার্টি খাতের বিদ্যমান চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা সম্ভব হলে তামার চাহিদা ব্যাপক হারে বাড়বে।

গত বছর চীনের বেসরকারি খাত ব্যাপক চাপের মুখে ছিল। তার ওপর সরকারের নানা পদক্ষেপের কারণে ভোক্তাদের মাঝে আত্মবিশ্বাসের ঘাটতি দেখা দেয়। তবে এ বছর সরকার অর্থনীতিতে স্থিতি ফেরাতে জোর দেয়ায় এ পরিস্থিতি ইতিবাচক দিকে মোড় নেবে বলে প্রত্যাশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এলএমইতে নিবন্ধিত ওয়্যারহাউজগুলোয় তামার মজুদ দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ৩২ হাজার ৫২৫ টনে, যা ছয় মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন। মজুদ কমে যাওয়ার কারণেও ধাতুটির দাম বাড়ছে। ফলে দীর্ঘমেয়াদি চুক্তিগুলোয় মূল্যছাড়ের হারও কমছে।

জলবায়ু পরিবর্তন রোধের অংশ হিসেবে নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যবহার বাড়াতে জোর দিচ্ছে বর্তমান বিশ্ব। ফলে এ খাতে অপরিহার্য ধাতু তামার চাহিদা বাড়ছে লাফিয়ে। কিন্তু বৈশ্বিক সরবরাহ সংকটের কারণে এ চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হচ্ছে না। সরবরাহ ও চাহিদার মধ্যে ক্রমবর্ধমান ব্যবধানের কারণে আকাশচুম্বী হয়ে উঠেছে দাম। আগামী দুই বছরের মধ্যে তামার বৈশ্বিক দাম ৭৫ শতাংশেরও বেশি বাড়তে পারে বলে মনে করছেন বাজার পর্যবেক্ষকরা।

বিশ্বজুড়ে তামার নতুন খনিগুলো নানা প্রতিবন্ধকতার মুখে পড়ছে। নিম্ন গ্রেড, অনুমোদন পেতে কঠোর প্রক্রিয়া, পরিবেশবাদীদের আন্দোলন, সামাজিক ও সরকারি নানা ইস্যু এবং ঊর্ধ্বমুখী করের মতো বিষয় খনিগুলোর উত্তোলনকে বাধাগ্রস্ত করছে। ফলে ধাতুটির সরবরাহ ঘাটতি নিয়ে উদ্বেগ তীব্র হচ্ছে।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

আন্তর্জাতিক

ইউরোপের বৃহত্তম গ্যাস ক্ষেত্রের উৎপাদন বন্ধ

Published

on

ডাচ-বাংলা

ইউরোপের সর্ববৃহৎ গ্যাসক্ষেত্র গ্রোনিংগেন আনুষ্ঠানিকভাবে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। ভূমিকম্পের ঝুঁকি সীমিত করার উদ্দেশ্যে সম্প্রতি নেদারল্যান্ডসের উত্তরাঞ্চলের গ্যাসক্ষেত্রটির খনন কার্যক্রম স্থায়ীভাবে বন্ধের অনুমতি দেয় দেশটির সরকার। খবর আরটি।

এর আগে গ্রোনিংগেন থেকে উত্তোলন সীমিত করা হয়েছিল। গত অক্টোবরে পূর্ণ সক্ষমতার চেয়ে উল্লেখযোগ্য পরিমাণ উত্তোলন কমিয়ে আনা হয়। ভূমিকম্পের ঝুঁকি কমিয়ে আনতে কয়েক বছর ধরে এ চেষ্টা করছিল গ্রোনিংগেন কর্তৃপক্ষ।

তবে গত দুই বছরের তীব্র শীত ও রাশিয়া-ইউক্রেন সংঘর্ষের কারণে সৃষ্ট জ্বালানি বাজারের অস্থিতিশীলতার কারণে এতদিন গ্যাসক্ষেত্রটির ১১টি কূপ উন্মুক্ত ছিল।

চলতি সপ্তাহের শুরুর দিকে গ্যাসক্ষেত্রটি বন্ধ করতে একটি আইনে অনুমোদন দেয় ডাচ সিনেট। দুই সপ্তাহ আগে আইনটি পাসে প্রাথমিক পরিকল্পনায় থাকলেও অভ্যন্তরীণ গ্যাসের সরবরাহ নিয়ে উদ্বেগের মুখে চূড়ান্ত ভোটাভুটি স্থগিত হয়েছিল।

ভোট স্থগিতের পর উত্তরাঞ্চলের প্রাদেশিক সরকারসহ স্থানীয় কর্মকর্তারা ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এমনকি শিগগিরই গ্রোনিংগেন গ্যাসক্ষেত্র বন্ধ করা না হলে পদত্যাগ করার ঘোষণাও দিয়েছিলেন নেদারল্যান্ডসের খনি সম্পদ বিষয়ক মন্ত্রী হান্স ভিজলব্রিফ।

গ্রোনিংগেন গ্যাসক্ষেত্র থেকে মুনাফা বাবদ নেদারল্যান্ডস সরকার ৬০ বছরের বেশি সময়ে আয় করেছে ৩৮ হাজার ৫০০ কোটি ডলার। একই সময়ে শেল ও এক্সনের লাভের পরিমাণ ছিল প্রায় ৬ হাজার ৬০০ কোটি ডলার।

এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

আন্তর্জাতিক

পাকিস্তানের শেয়ারবাজারে সূচকের রেকর্ড

Published

on

ডাচ-বাংলা

অর্থনৈতিক অস্থিরতার মাঝে পাগলা ঘোড়ার মত ছুটছে পাকিস্তানের শেয়ারবাজার। বাড়ছে বাজারের সব মূল্যসূচক। এ ধারাবাহিকতায় আজ এই বাজারে সূচকের রেকর্ড হয়েছে। সর্বোচ্চ অবস্থানে পৌঁছেছে স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান মূল্যসূচক কেএসই-১০০।

পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম ডনের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদন অনুসারে, আজ সোমবার (২২ এপ্রিল) পাকিস্তানের বেঞ্চমার্ক সূচক কেএসই-১০০ আজ রেকর্ড ৭১ হাজার ৪৬৫ পয়েন্টে পৌঁছেছে। সূচকটি আগের দিন বন্ধ হয়েছিলো ৭০ হাজার ৯০৯ পয়েন্টে। আজ দশমিক ৮৯ শতাংশ বা ৬৩১ পয়েন্ট বেড়ে ৭১ হাজার ৫৪১ পয়েন্টে উঠেছিলো। এরপর লেনদেন শেষে আগের দিনের তুলনায় দশমিক ৭৪ শতাংশ বা ৫২৩ পয়েন্ট বেড়ে ৭১ হাজার ৪৩৩ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

তথ্য অনুযায়ী, গত এক বছরে সূচকটি ৭৪ দশমিক ৩ শতাংশ বেড়েছে। এছাড়া চলতি বছরের এই সময়ের মধ্যে সূচকটি ১০ দশমিক ৫ শতাংশ।

করাচি ভিত্তিক টপলাইন সিকিউরিটিজ হাউজের সিইও সোহেল মোহাম্মদ বলেন, আগামী মে মাসে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) নতুন ঋণের রূপরেখা নিয়ে একমত হওয়ার আশা করছে পাকিস্তান। পাশাপাশি মার্চ প্রান্তিকে কোম্পানিগুলোর ভালো লভ্যাংশ শেয়ারের দর বৃদ্ধিতে সহায়তা করেছে।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

আন্তর্জাতিক

জনসন অ্যান্ড জনসনকে ফের ৪৫ মিলিয়ন ডলার জরিমানা

Published

on

ডাচ-বাংলা

বিশ্বব্যাপী পরিচিত মেডিকেল ডিভাইস ও প্রসাধন প্রস্তুত ও বিপণনকারী ফার্মাসিউটিক্যাল প্রতিষ্ঠান জনসন অ্যান্ড জনসনকে ফের ৪৫ মিলিয়ন ডলার জরিমানা করা হয়েছে। কোম্পানিটির ‘জনসন অ্যান্ড জনসন’ পাউডার ব্যবহার করায় মার্কিন এক নারীর মৃত্যুর অভিযোগে এ জরিমানা করা হয়। জনসন অ্যান্ড জনসন এবং তার স্পিন অফ তথা সহযোগী সংস্থা কেনভিউকে এ জরিমানা প্রদানের নির্দেশ দিয়েছে শিকাগোর আদালত।

জানা যায়, ল্যাব টেস্টে জনসন অ্যান্ড জনসনের বেবি পাউডারে অ্যাসবেস্টসের নমুনা পাওয়া যায়। অ্যাসবেস্টস শিশু শরীরের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য তা ডেকে আনতে পারে বিপদ। ফলে শিকাগোয় বিচারকরা রায় দেন, টেরেসা গার্সিয়া নামে ওই নারীর মৃত্যুর জন্য ৭০ শতাংশ দায় কেনভিউ। বাকি ৩০ শতাংশ দায় জনসন অ্যান্ড জনসন ও তাদের একটি ইউনিটের।

২০২০ সালে ক্যান্সারে আক্রান্ত হন টেরেসা। তার মেসোথেলিওমা হয়েছিল। এটা এমন এক ক্যান্সার, যা অ্যাসবেস্টসের সংস্পর্শে এলে হয়। জনসন অ্যান্ড জনসন কেনভিউ ভালো করেই জানতো তাদের বেবি পাউডারে অ্যাসবেস্টস রয়েছে। তবুও তারা তা বিক্রি করছিল। ১৮৯৪ সাল থেকে ‘জনসন অ্যান্ড জনসন’ বেবি পাউডার বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে আমেরিকার ৩৫ হাজার নারী জরায়ুর ক্যান্সারের জন্য ওই সংস্থাকে দায়ী করে মামলা দায়ের করার পর থেকেই মার্কিন মুলুকে ক্রমেই কমতে শুরু করে পাউডারটির চাহিদা। জনসন অ্যান্ড জনসন- এর দাবি যে তাদের ট্যাল্ক-ভিত্তিক পণ্যগুলো ক্যান্সার সৃষ্টি করে না এবং এটি এক শতাব্দীরও বেশি সময় ধরে উপযুক্তভাবে তার বেবি পাউডার বাজারজাত করছে। কোম্পানির কর্মকর্তারা এই মাসের শুরুতে নিশ্চিত করেছে যে তারা আর ট্যালক তৈরি বা বিক্রি করে না। ‘জনসন অ্যান্ড জনসন’ এর আগে বলেছিলো যে ২০২০ সালের মধ্যে উত্তর আমেরিকার বাজার থেকে এবং ২০২৩ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে বিশ্বব্যাপী ট্যালকম পাউডারকে সরিয়ে ফেলবে।

কেনভিউয়ের মুখপাত্র মেলিসা উইট রায়ের বিষয়ে মন্তব্য করতে চাননি। তবে জনসনের ইন-হাউস মামলা বিভাগের প্রধান এরিক হাস বলেছেন, কোম্পানি জুরির অনুসন্ধানের বিরুদ্ধে আপিল করবে।

এর আগে ২০১৬ সালে জরায়ুর ক্যান্সারে ভুগে বার্মিংহামের বাসিন্দা জ্যাকুলিন ফক্স (৬২) মারা যাওয়ায় কোম্পানিটিকে ৫৬২ কোটি টাকা জরিমানা করা হয়েছিলো।

এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

আন্তর্জাতিক

বিশ্বজুড়ে স্বর্ণের দামে ঊর্ধ্বগতি, দায়ী যে দেশ

Published

on

ডাচ-বাংলা

বিশ্ববাজারে চলতি বছর প্রতি আউন্স (২৮ দশমিক ৩৫ গ্রাম) স্বর্ণের দাম উঠেছিল রেকর্ড ২ হাজার ৪০০ ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় ২ লাখ ৬৩ হাজার ৬২৫ টাকা) পর্যন্ত। বর্তমানে তার চেয়ে কিছুটা কম হলেও বাজারের চড়াভাব এখনও বজায় আছে এবং যেকোনো সময় ফের আগের রেকর্ডকে ছাড়িয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা কিংবা আশঙ্কা-উভয়ই রয়েছে।

স্বর্ণের আন্তর্জাতিক বাজার বিশ্লেষকদের মতে, স্বর্ণের দামের এই নাটকীয় ঊর্ধ্বগতি পুরোপুরি স্বাভাবিক নয়; কারণ এর মূলে রয়েছে মূল্যবান এই ধাতুটি ক্রয় এবং সঞ্চয়ের প্রতি চীনের লাগামহীন আগ্রহ। প্রসঙ্গত, চীন বিশ্বের সর্ববৃহৎ স্বর্ণ উৎপাদনকারী দেশ।

ভূরাজনৈতিক উত্তেজনা, মধ্যপ্রাচ্য ও ইউক্রেনে যুদ্ধ এবং ডলারের মূল্যের ওঠানামার কারণে সৃষ্ট অনিশ্চয়তা থেকে চীনে স্বর্ণ ক্রয় ও সঞ্চয়ের প্রতি আগ্রহ বাড়ছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গ। চীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক, বড় ব্যবসায়ী ও বিনিয়োগকারী থেকে শুরু করে খুচরা পণ্য বিক্রেতা, এমনকি সাধারণ লোকজনও যে যেভাবে পারছেন-স্বর্ণ কিনছেন ও মজুত করছেন। তাদের এই আগ্রহের প্রধান কারণ ভবিষ্যতে সম্ভাব্য অর্থনৈতিক অনিশ্চয়তা।

আন্তর্জাতিক বাজারে এতদিন পর্যন্ত যুগপৎভাবে স্বর্ণের সবচেয়ে বড় ক্রেতা ছিল চীন ও ভারত। কিন্তু গত বছর চাহিদার নিরিখে ভারতকে ছাড়িয়ে গেছে চীন। ২০২৩ সালে শতকরা হিসাবে যেখানে চীনা ক্রেতাদের মধ্যে স্বর্ণালঙ্কার কেনার প্রবণতা বেড়েছে ১০ শতাংশ, সেখানে ভারতীয় ক্রেতাদের মধ্যে স্বর্ণের অলঙ্কার কেনার প্রবণতা কমেছে ৬ শতাংশ।

স্বর্ণালঙ্কার কেনার প্রবণতার পাশাপাশি স্বর্ণকে মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করে বিনিয়োগের হারও বেড়েছে চীনে। ব্লুমবার্গের হিসাব বলছে-২০২৩ সালে স্বর্ণের মাধ্যমে বিনিয়োগের হার চীনে বেড়েছে ২৮ শতাংশ।

সামনের বছরগুলোতে অর্থের পরিবর্তে স্বর্ণের মাধ্যমে ব্যবসায়িক বিনিয়োগের প্রবণতা চীনে আরও বাড়বে বলে পূর্বাভাস দিয়েছেন হংকংভিত্তিক বাজার বিশ্লেষণকারী সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফিলিপ ক্ল্যাপউইজিক।

অভ্যন্তরীণভাবে বিশ্বের সর্বোচ্চ স্বর্ণ উৎপাদনকারী দেশ হলেও চাহিদার সঙ্গে সঙ্গতি রাখতে স্বর্ণ আমদানির মাত্রাও ব্যাপকভাবে বাড়িয়েছে চীন। গত দুই বছরে ২ হাজার ৮০০ টনেরও বেশি স্বর্ণ আমদানি করেছে চীন, যা যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভ সিস্টেমে থাকা স্বর্ণের মজুতের এক তৃতীয়াংশের সমান।

এছাড়া চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে মার্চ মাস পর্যন্ত যে পরিমাণ স্বর্ণ আমদানি করেছে বেইজিং, তা গত বছরের জানুয়ারি থেকে মার্চের তুলনায় ৩৪ শতাংশ বেশি।

চীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক দ্য পিপলস ব্যাংক অব চায়না টানা ১৭ মাস ধরে স্বর্ণ কিনছে। আন্তর্জাতিক বাজারের পাশাপাশি অন্যান্য দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকেও স্বর্ণ কিনছে পিপলস ব্যাংক অব চায়না। ২০২৪ সাল জুড়েও এই ধারা অব্যাহত থাকবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বাজার বিশ্লেষকদের মতে, চীনের ক্রেতাদের একটি সাধারণ প্রবণতা হলো, যখন স্বর্ণের দাম বাড়বে তখন তা কেনা বন্ধ রাখা এবং যখন দাম কমবে-তখন ফের কেনা শুরু করা।

চীনের সরকার অবশ্য সম্প্রতি একটি বিবৃতি জারি করে বেসরকারি বিনিয়োগকারী ও সাধারণ ক্রেতাদের সতর্কবার্তা দিয়েছে। সেই বার্তায় বলা হয়েছে, ক্রেতারা যদি তাদের চাহিদায় লাগাম না টানেন, তাহলে অদূর ভবিষ্যতে জাতীয় অর্থনীতিতে এর ক্ষতিকর প্রভাব পড়বে।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

আন্তর্জাতিক

শক্তিশালী ভূমিকম্পে কাঁপলো তাইওয়ান

Published

on

ডাচ-বাংলা

শক্তিশালী ভূমিকম্পে কেঁপে উঠেছে তাইওয়ানের রাজধানী তাইপে। দেশটির স্থানীয় সময় সোমবার (২২ এপ্রিল) বিকেলে ৫ দশমিক ৫ মাত্রার ভূকম্পন অনুভূত হয়।

কেন্দ্রীয় আবহাওয়া প্রশাসন জানিয়েছে, ৫ দশমিক ৫ মাত্রার ভূমিকম্প আঘাত হেনেছে। এর উৎপত্তি পূর্ব হুয়ালিয়েনে। তবে, মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপের তথ্যানুসারে, ভূমিকম্পের মাত্রা ৫ দশমিক ৩। এর উৎপত্তিস্থল ভূপৃষ্ঠের ৮ দশমিক ৯ কিলোমিটার গভীরে।

বার্তাসংস্থা এএফপির এক সাংবাদিক বলেছেন, এই মাসের শুরুতে হওয়া ভয়াবহ ভূমিকম্পের পর এটিই সবচেয়ে শক্তিশালী ভূমিকম্প বা আফটারশক।

হুয়ালিয়েনের ফায়ার ডিপার্টমেন্ট তার অফিসিয়াল সোশ্যাল মিডিয়া চ্যানেলে একটি পোস্টে বলেছে, ভূমিকম্পের কারণে কোনো হতাহত বা ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে কি না তা পরিদর্শনের জন্য তারা টিম পাঠিয়েছেন।

চলতি মাসের ৩ তারিখে তাইওয়ানে ৭ দশমিক ৪ মাত্রার ভূমিকম্প আঘাত হানে। এতে অন্তত ১৭ জনের প্রাণহানি হয়।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন
ডাচ-বাংলা
পুঁজিবাজার7 mins ago

পর্ষদ সভার তারিখ জানালো ডাচ-বাংলা ব্যাংক

ডাচ-বাংলা
জাতীয়7 mins ago

বাংলাদেশ-কাতারের মধ্যে ১০ চুক্তি ও সমঝোতা সই

ডাচ-বাংলা
পুঁজিবাজার12 mins ago

পর্ষদ সভা করবে মোজাফফর হোসেন স্পিনিং

ডাচ-বাংলা
পুঁজিবাজার13 mins ago

মালেক স্পিনিংয়ের পর্ষদ সভার তারিখ ঘোষণা

ডাচ-বাংলা
পুঁজিবাজার17 mins ago

পর্ষদ সভা করবে বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল

ডাচ-বাংলা
পুঁজিবাজার19 mins ago

পর্ষদ সভার তারিখ জানালো কেডিএস এক্সেসরিজ

Delta Spinners
পুঁজিবাজার23 mins ago

ডেল্টা স্পিনার্সের পর্ষদ সভার তারিখ ঘোষণা

ডাচ-বাংলা
পুঁজিবাজার27 mins ago

পর্ষদ সভা করবে ক্রাউন সিমেন্ট

ডাচ-বাংলা
পুঁজিবাজার38 mins ago

আড়াই ঘণ্টায় লেনদেন ৩১১ কোটি টাকা

ডাচ-বাংলা
পুঁজিবাজার40 mins ago

এডিএন টেলিকমের পর্ষদ সভার তারিখ নির্ধারণ

ডাচ-বাংলা
পুঁজিবাজার57 mins ago

বিএসআরএম লিমিটেডের পর্ষদ সভার তারিখ ঘোষণা

ডাচ-বাংলা
পুঁজিবাজার1 hour ago

পর্ষদ সভা করবে সাভার রিফ্র্যাক্টরিজ

ডাচ-বাংলা
পুঁজিবাজার1 hour ago

পর্ষদ সভার তারিখ জানালো বিএসআরএম স্টিলস

ডাচ-বাংলা
পুঁজিবাজার1 hour ago

পর্ষদ সভার তারিখ জানালো পেনিনসুলা

ডাচ-বাংলা
পুঁজিবাজার1 hour ago

সিভিও পেট্রোকেমিক্যালের পর্ষদ সভা ৩০ এপ্রিল

ডাচ-বাংলা
পুঁজিবাজার1 hour ago

রিপাবলিক ইন্স্যুরেন্সের পর্ষদ সভা ২৯ এপ্রিল

ডাচ-বাংলা
পুঁজিবাজার2 hours ago

পর্ষদ সভার তারিখ জানালো রানার অটোমোবাইলস

ডাচ-বাংলা
অর্থনীতি2 hours ago

কমোডিটি এক্সচেঞ্জ ও সুকুকে বিনিয়োগে আগ্রহী কাতার: সালমান এফ রহমান

ডাচ-বাংলা
পুঁজিবাজার2 hours ago

সায়হাম টেক্সটাইলের পর্ষদ সভার তারিখ নির্ধারণ

ডাচ-বাংলা
ব্যাংক2 hours ago

উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থীদের ঋণের তথ্য জানতে চায় কেন্দ্রীয় ব্যাংক

Saiham cotton
পুঁজিবাজার2 hours ago

সায়হাম কটনের পর্ষদ সভার তারিখ ঘোষণা

ডাচ-বাংলা
পুঁজিবাজার2 hours ago

আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজের পর্ষদ সভা ২৮ এপ্রিল

ডাচ-বাংলা
পুঁজিবাজার2 hours ago

পর্ষদ সভা করবে আলিফ ম্যানুফেকচারিং

ডাচ-বাংলা
পুঁজিবাজার2 hours ago

পর্ষদ সভা করবে সামিট অ্যালায়েন্স

ডাচ-বাংলা
পুঁজিবাজার2 hours ago

দেশবন্ধু পলিমারের পর্ষদ সভার তারিখ ঘোষণা

ফেসবুকে অর্থসংবাদ

২০১৮ সাল থেকে ২০২৩

অর্থসংবাদ আর্কাইভ

তারিখ অনুযায়ী সংবাদ

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০