Connect with us

শিল্প-বাণিজ্য

এসএমই খাতকে টিকিয়ে রাখতে ব্যবস্থা নিতে হবে: বিসিআই সভাপতি

Published

on

লাফার্জ

বাংলাদেশ চেম্বার অব ইন্ডাস্ট্রিজের (বিসিআই) সভাপতি আনোয়ার-উল আলম চৌধুরীর পারভেজ বলেছেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে এসএমই খাত সব থেকে ক্ষতির মুখে পড়েছে। এসএমই খাতকে টিকিয়ে রাখতে ব্যবস্থা নিতে হবে।

রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আবদুর রউফ তালুকদারের সঙ্গে সাক্ষাৎকালে তিনি এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশ চেম্বার অব ইন্ডাস্ট্রিজের (বিসিআই) সভাপতি আনোয়ার-উল আলম চৌধুরী পারভেজের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আবদুর রউফ তালুকদারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন। এময় গভর্নরকে বিসিআই পরিচালনা পর্ষদের পক্ষ হতে বিসিআইয়ের ‘আমার পণ্য আমার দেশ’ লোগো সম্বলিত একটি ফ্রেম উপহার দেন।

সাক্ষাৎকালে বিসিআই সভাপতি বলেন, বিসিআই সমগ্র বাংলাদেশ ভিত্তিক একক এবং একমাত্র জাতীয় শিল্পচেম্বার বিসিআই স্থানীয় সকল শিল্পের উন্নয়নের পথে সর্বপ্রকার প্রতিবন্ধকতা নিরসনে কাজ করে চলেছে। শিল্প মালিকরা অনেক সময় অনেক পত্র-পত্রিকাসহ বিভিন্ন মাধ্যমে ভুল তথ্য পেয়ে থাকে যার ফলে অনেক সময় অনেকে ঘাবড়ে যান। আমরা আজ আপনার কাছে কিছু বিষয়ের সঠিক ব্যাখ্যা পাওয়ার জন্য এসেছি। দেশে বর্তমানে উচ্চ মুদ্রাস্ফীতির কারনে সব প্রতিষ্ঠানের সেলস ড্রপ করেছে, ঋনের উচ্চ সুদহার, বিদ্যুৎ ও গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি সবকিছু মিলিয়ে কোন প্রতিষ্ঠান তার পূর্ণ সক্ষমতায় চলতে পারছে না। ঋনের উচ্চ সুদের সাথে সাথে ব্যাংক সমূহ বন্ডে বিনিয়োগের দিকে ঝুকে যাচ্ছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে শিল্প প্রতিষ্ঠান সমূহের টিকে থাকাই এখন চ্যালেঞ্জ।

তিনি বলেন, শিল্পের কাঁচামাল আমদানির ক্ষেত্রে ঋণপত্র খুলতে পারছেনা শিল্প প্রতিষ্ঠান সমূহ এবং ডলার স্বল্পতার কারণে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্ধারণ করে দেওয়া রেট থেকে অনেক বেশি টাকায় ঋণপত্র খুলতে হচ্ছে। রপ্তানি মূখী শিল্পের উৎসাহিত করার জন্য যে নগদ সহায়তা প্রদান করা হয় সরকার থেকে সেটা ঠিক সময় মত পরিশোধ করা হচ্ছে না। যার ফলে শিল্প প্রতিষ্ঠান সমূহের সময়মত তাদের অপারেশন কর মেটানো কষ্টসাধ্য হয়ে যাচ্ছে। সময়মতো নগদ সহায়তা ছাড় না করা গেলে সময়মত প্রতিষ্ঠানসমূহ তাদের কর্মীদের বেতনাদি পরিশোধ করতে পারছে না। আমরা মনে করি নগদ সহায়তা দ্রুত ও সময়মত ছাড় করা উচিত।

আনোয়ার-উল আলম চৌধুরী বলেন, ব্যাংকের সিঙ্গেল বরোয়ার এক্সপোজার ৩৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২৫ শতাংশ করা হয়েছে এবং তারা টাকার অবমূল্যায়নকেও আমলে নিচ্ছে না। আমার মনে হয় এটা আগের মত রাখা উচিত। আমরা ঋণ ক্লাসিফাইডের ক্ষেত্রে (এসএমএ) ৩ মাসে না এনে ৬ মাস রাখার প্রস্তাব করছি। প্রছন্ন রপ্তানির ক্ষেত্রে দেখা যায় এক্সসেপটেন্স পেতে এবং এলসি ম্যাচিউইর হতে ৪-৫ সপ্তাহ লেগে যায় যার ফলে তাদের লায়াবিলিটি বেড়ে যাচ্ছে। আমরা মনে করি প্রচ্ছন্ন রপ্তানির ক্ষেত্রেও একটি নিদের্শনা থাকা জরুরী যে, স্বাভাবিক রপ্তানির মতই প্রচ্ছন্ন রপ্তানির ক্ষেত্রেও একই ব্যবস্থা রাখতে হবে। সিঙ্গেল কোম্পানি একটি সিঙ্গেল আইডেনটিটি, আন্তর্জাতিক প্রাকটিস হচ্ছে কেউ যদি গ্রুপ অব কোম্পানি হিসেবে নিবন্ধন করে তবে তাদের গ্রুপ হিসেবে দেখা হয়। কিন্তু আমাদের দেশে গ্রুপ হিসেবে নিবন্ধন না করা হলেও ৩-৪ জন পরিচালক কমন হলে তাদেরকে গ্রুপ হিসেবে দেখা হয়। এবং কোন একজন পরিচালক কোম্পানি থেকে বের হয়ে গেলেও সে অন্য কোথাও যদি কোন ভাবে সিক হয়ে যায় তবে তার লায়াবিলিটি নিতে হয়। এটার একটি ক্লারিফিকেশন দরকার।

তিনি আরও বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে এসএমই খাত সব থেকে ক্ষতির মুখে পড়েছে। আমাদের এসএমই খাতকে টিকিয়ে রাখতে ব্যবস্থা নিতে হবে। আমরা কিছু দিন আগে পত্র-পত্রিকায় দেখলাম অগ্রিম ডলার বুকিং দিলে প্রায় ১২৩-১২৪ টাকা নির্ধারন করা হয়েছে। এটা সম্পর্কে আমরা জানতে চাই।

এসময় বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আবদুর রউফ তালুকদার বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংক মুদ্রাস্ফীতি কমানোর জন্য বিকল্প সকল পদ্ধতি প্রয়োগ করেছে কিন্তু মুদ্রাস্ফীতি কমেনি। পরে আমরা মুদ্রাস্ফীতি কমানোর জন্য ব্যাংক ঋণ বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আমরা আশা করি খুব দ্রুত মুদ্রাস্ফীতি কমে আসবে কারণ আমাদের এখন প্রধান কাজ মুদ্রাস্ফীতি কমানো। ঋণপত্র খোলার বিষয়ে বলতে চাই আমরা কোন ব্যাংকে ঋণপত্র খুলতে না করিনি এবং এখন প্রতি দিন ৩ হাজার থেকে ৩ হাজার দুইশত ঋণপত্র খোলা হচ্ছে। আমরা কঠোর হাতে ওভার এবং আন্ডার ইনভয়েসিং বন্ধ করার চেষ্টা করছি। আমরা আশা করি জানুয়ারি ২০২৫ থেকে আর ডলারের স্বল্পতা থাকবে না। এসএমই খাতের জন্য ২৫ হাজার কোটি টাকার ফান্ড রয়েছে যেখান থেকে ৭% হারে এবং নারী উদ্যোক্তরা ৫% হারে ঋণ নিতে পারে। আমরা জানি আপনাদের কষ্ট হচ্ছে, আমাদের অগ্রাধিকার হচ্ছে খাদ্য পণ্য, সার, জ্বালানি আমদানির পরে অন্য কিছু। অগ্রিম ডলার বুকিংয়ের বিষয়ে ভূলভাবে সংবাদ এসেছির আমরা পরবর্তিতে এর ব্যাখ্যা প্রদান করেছি। এটা ৫% সুদে ৩মাস মেয়াদে বুকিং দিতে হবে সেক্ষেত্রে ১.৭৫% সুদ হবে।

সভায় বিসিআইয়ের সহ-সভাপতি প্রীতি চক্রবর্তী, সহ-সভাপতি মোহাম্মদ ইউনুস, পবিচালকবর্গ, রঞ্জন চৌধুরী, ড. দেলোয়ার হোসেন রাজা, আবুল কালম ভ্ইূয়া, জিয়া হায়দার মিঠু, মিজানুর রহমান, রুসলান নাসির, সোহানা রউফ চৌধুরী, মো. সেলিম জাহান, মো. মাহফুজুর রহমান এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের, ডেপুটি গভর্নর আবু ফারাহ মো. নাসের ও নুরুন নাহার এবং বৈদেশিক মুদ্রা নীতি বিভাগের পরিচালক মো. সারোয়ার হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

কাফি

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

শিল্প-বাণিজ্য

শুক্রবার রাতেই মেগা ক্যাম্পেইন নিয়ে আসছে ইভ্যালি

Published

on

লাফার্জ

প্রথম দুটি ক্যাম্পেইন সফলের পর এবার নতুন করে মেগা ক্যাম্পেইন নিয়ে আসছে দেশের আলোচিত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালি। শুক্রবার (১ মার্চ) রাতে নিয়ে আসছে মেগা ক্যাম্পেইন ‘বিগ ব্যাং-৩’।

শুক্রবার (১ মার্চ) এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে ইভ্যালি। এতে বলা হয়, ‘বিগ ব্যাং-৩’ ক্যাম্পেইনে সময়ের সর্বোচ্চ সেরা অফারে তানজিন শপে ৯৬ শতাংশ ছাড়ে থাকছে কটন পাঞ্জাবি। সম্পূর্ণ ক্যাশ অন ডেলিভারি নিয়মের বিগ ব্যাং-৩ ক্যাম্পেইন চলবে। রাত ১০টায় শুরু হবে ক্যাম্পেইন অফার।

বিগ ব্যাং-৩ ক্যাম্পেইনে যে কোনো অর্ডারে ফ্রিতে থাকছে ইউনিক টাইলস এবং ১০০ গ্রাম বাথরুম ক্লিনিং পাউডার। ৪টি অর্ডার করলে পাওয়া যাবে ১৪০ টাকা মূল্যের ৫০০ গ্রাম মূল্যের টাইমস প্রিমিয়াম ডিটারজেন্ট পাউডার। এ ছাড়াও ৭টি অর্ডার করে পাওয়া যাবে ৩০০ টাকা মূল্যের ২০০ গ্রাম রোজ গার্ডেন পাম।

পণ্য রিটার্ন করতে চাইলে ৭ দিনের মধ্যে ইভ্যালি অ্যাপ থেকে কুরিয়ার চার্জ ছাড়াই পণ্যটি ফেরত পাওয়া যাবে।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

শিল্প-বাণিজ্য

বেইলি রোডের ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের পাশে থাকবে এফবিসিসিআই

Published

on

লাফার্জ

রাজধানীর বেইলি রোডে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন দ্য ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার্স অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (এফবিসিসিআই) সভাপতি মাহবুবুল আলম। পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের পাশে থাকার কথা জানিয়েছেন তিনি।

আজ শুক্রবার সংগঠনটি থেকে পাঠানো এক বিবৃতিতে এমনটাই জানানো হয়েছে।

বিবৃতিতে এফবিসিসিআই সভাপতি বেইলি রোডের অগ্নিকাণ্ডে নিহত, হতাহত ব্যক্তিবর্গের পরিবার ও ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। আহত ব্যক্তিদের দ্রুত সুস্থতা কামনা করেন তিনি। এই দুর্ঘটনায় নিহত, হতাহত ব্যক্তিবর্গের পরিবার ও ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের জন্য অপূরণীয় ক্ষতি বলেও উল্লেখ করেন এফবিসিসিআই সভাপতি।

অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ভবন পরিদর্শনে ইলেকট্রনিকস সেফটি অ্যান্ড সিকিউরিটি অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ইসাব), এফবিসিসিআই ফায়ার সেফটি কাউন্সিলসহ সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দিয়েছেন বলে জানান এফবিসিসিআই সভাপতি।

এ ছাড়া আগুন নিয়ন্ত্রণ এবং অগ্নিকাণ্ডে হতাহতদের উদ্ধারে যথেষ্ট আন্তরিক ও দায়িত্বপূর্ণ ভূমিকার জন্য ফায়ার সার্ভিসসহ সাহায্যকারী সকলের প্রতি ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা জানান মাহবুবুল আলম।

অর্থসংবাদ/এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

শিল্প-বাণিজ্য

স্থলবন্দর ও শুল্ক স্টেশনের চার্জ সহনীয় করার দাবি ব্যবসায়ীদের

Published

on

লাফার্জ

দেশের স্থলবন্দর এবং শুল্ক স্টেশনসমূহে আমদানিকৃত পণ্যের বিদ্যমান লেবার হ্যান্ডেলিং চার্জ, পণ্য লোড-আনলোড চার্জ, ইকুইপমেন্ট চার্জ কমানোর দাবি জানিয়েছেন আমদানি ও রপ্তানিকারকরা।

বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে মতিঝিলে এফবিসিসিআই কার্যালয়ে সিলেট বিভাগের ল্যান্ড পোর্ট, বর্ডার ট্রেড, ট্রানজিট অ্যান্ড ট্রান্সশিপমেন্ট বিষয়ক স্ট্যান্ডিং কমিটির এক সভায় এ আহ্বান জানানো হয়।

কমিটির চেয়ারম্যান আহমেদ শাখাওয়াত সেলিম চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন এফবিসিসিআইর সভাপতি মাহবুবুল আলম।

এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, ব্যবসা-বাণিজ্য ও শিল্প সম্প্রসারণের সাথে সাথে স্থলবন্দর ও শুল্ক স্টেশনসমূহ গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। শুধু ভারত থেকেই আমরা বছরে প্রায় ১৬ বিলিয়ন ডলারের পণ্য আমদানি করে থাকি। যার সিংহভাগই আসে স্থল বাণিজ্যের মাধ্যমে। এমন পরিস্থিতিতে, আন্তর্জাতিক বাণিজ্য সম্প্রসারণে স্থলবন্দর এবং শুল্ক স্টেশনসমূহের সক্ষমতা বৃদ্ধি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

স্থলবন্দর, শুল্ক স্টেশনসহ আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যের বিদ্যমান সমস্যা সমাধানে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে লিখিত আকারে সুনির্দিষ্ট মতামত ও প্রস্তাবনা আহ্বান করেন এফবিসিসিআই সভাপতি। তিনি বলেন, এসব যৌক্তিক প্রস্তাবনা নিয়ে এফবিসিসিআই সরকারের সঙ্গে আলোচনা করবে।

স্ট্যান্ডিং কমিটির কমিটির ডিরেক্টর ইন-চার্জ এবং এফবিসিসিআই পরিচালক ফালাহ উদ্দিন আলী আহমেদ জানান, সিলেটের তামাবিল ও শেওলা স্থলবন্দর দিয়ে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত থেকে পাথর, চুনাপাথর, কয়লা, ফলসহ বিভিন্ন পণ্য আমদানি হয়ে থাকে। বাংলাদেশ থেকে রপ্তানি করা হয় সিমেন্ট, প্লাস্টিক পণ্য, ফার্নিচার, পাটসহ প্রক্রিয়াজাত কৃষিপণ্য। বন্দরসমূহে কয়লা ও পাথর আমদানি-রপ্তানির ক্ষেত্রে লোড-আনলোড চার্জ অনেক বেশি, যা বাস্তবে বাজারমূল্যের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। এর সঙ্গে যুক্ত হয় ১৫ শতাংশ ভ্যাট, যা আমদানিকারকদের ওপর অতিরিক্ত চাপ সৃষ্টি করছে।

তিনি বলেন, আমদানিকৃত কয়লা ও পাথর দীর্ঘদিন রেখে বিক্রি করতে হয় বিধায় আমদানিকারককে এক বছর মেয়াদী ভাড়া বন্দোবস্ত প্রদান ও বন্দরে ডাম্পিং এরিয়া বৃদ্ধির করতে হবে।

স্থলবন্দর ও শুল্ক স্টেশনগুলোতে সড়ক পরিবহন ও যোগাযোগ অবকাঠামো উন্নয়নের প্রস্তাবনা তুলে ধরেন আহমেদ শাখাওয়াত সেলিম চৌধুরী। তিনি বলেন, যোগাযোগের উন্নয়ন হলে পণ্য পরিবহনের ব্যয় কমবে। এর ফলে ব্যবসায়ীদের প্রতিযোগিতা সক্ষমতা বাড়বে।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক, কমিটির কো-চেয়ারম্যান ও সদস্যরা ব্যবসায়ীরা।

অর্থসংবাদ/এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

শিল্প-বাণিজ্য

বেড়েছে বিদ্যুতের দাম, ১ মার্চ থেকে কার্যকর

Published

on

লাফার্জ

গ্যাসের দাম বাড়ানোর পরই বিদ্যুতের দাম বাড়িয়েছে সরকার। ১ মার্চ থেকেই নতুন মূল্য কার্যকর হবে।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু।

তিনি বলেন, পাইকারিতে বিদ্যুতের দাম বেড়েছে ৫ দশমিক ০৭৪ শতাংশ। এতে প্রতি ইউনিটের গড় দর স্থির হয়েছে ৭ টাকা ০৪ পয়সায়। আগে যা ছিল ৬ টাকা ৭০ পয়সা। পাশাপাশি খুচরা পর্যায়ে মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে ৮ দশমিক ৪৮ শতাংশ। তাতে ইউনিটপ্রতি বিদ্যুতের গড় দাম নিষ্পত্তি হয়েছে ৮ টাকা ৯৫ পয়সা। আগে তা ছিল ৮ টাকা ২৫ পয়সা।

এর আগে নসরুল হামিদ জানিয়েছিলেন, ১ মার্চ থেকে বিদ্যুতের দাম বাড়বে। তবে আগেই তা বাড়ানো হলো। এর প্রভাব সম্পর্কে তিনি বলেন, যেকোনো সমন্বয়ের প্রভাব পড়বে। তবে গ্রাহক পর্যায়ে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দর ৩৪ থেকে ৭০ পয়সা বাড়ছে। সেটা খুব বেশি নয়।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, যারা কম বিদ্যুৎ ব্যবহার করেন, তাদের ক্ষেত্রে ৫ শতাংশ। আর যারা বেশি করেন, তাদের জন্য ৮ থেকে সাড়ে ৮ শতাংশ পর্যন্ত বাড়ছে। ২/১ দিনের মধ্যেই প্রজ্ঞাপন জারি হবে। উৎপাদন খরচের চেয়ে কম দরে বিদ্যুৎ বিক্রি করা হয়। ঘাটতি মেটাতে মূল্য সমন্বয় করা হচ্ছে। আগামী তিন বছর ধাপে ধাপে যা হবে।

নসরুল হামিদ বলেন, গত অর্থবছরে ৪৩ হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি দিতে হয়েছে। এখন উৎপাদন খরচ প্রায় ১২ টাকা। আর গ্রাহক দিচ্ছে ৮ টাকা ইউনিট। ঘাটতি অনেক, তাই দাম সমন্বয় করা হচ্ছে। তবে তা খুবই কম পরিমাণে।

তিনি বলেন, কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র করার সময় মার্কিন ডলারের দাম ৭০ থেকে ৮০ টাকা ধরে হিসাব করা হয়েছিল। এখন সেটার মান ৪০ টাকা বেড়ে গেছে। তাই বিদ্যুৎ উৎপাদন খরচ অনেক বেড়েছে। জ্বালানি খরচের ওপর ভিত্তি করে সারা বিশ্বেই দাম সমন্বয় করা হয়।

গত মঙ্গলবার বিদ্যুৎ উৎপাদনে ব্যবহৃত গ্যাসের দর প্রতি ঘনমিটারে ৭৫ পয়সা বাড়ায় সরকার। একইসঙ্গে কল-কারখানায় ব্যবহার করা ক্যাপটিভ বিদ্যুতের ঘনমিটারপ্রতি গ্যাসের মূল্য ৭৫ পয়সা বাড়ানো হয়।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

শিল্প-বাণিজ্য

রিহ্যাবের নতুন সভাপতি ওয়াহিদুজ্জামান

Published

on

লাফার্জ

আবাসন ব্যবসায়ীদের সংগঠন রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড হাউজিং অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (রিহ্যাব) নতুন সভাপতি হয়েছেন জাপান গার্ডেন সিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. ওয়াহিদুজ্জামান। একইসাথে জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি হয়েছেন ব্রিক ওয়ার্কস ডেভেলপমেন্টের চেয়ারম্যান লিয়াকত আলী ভূঁইয়া।

বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর সোনারগাঁও সড়কে রিহ্যাব কার্যালয়ে বেলা দুইটার দিকে সভাপতি, জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি ও পাঁচজন সহসভাপতি পদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে দুটি সহসভাপতি পদে নির্বাচন হয়। সহসভাপতি নির্বাচনে ভোট দেন গত মঙ্গলবার ভোটে জিতে আসা পরিচালকেরা। অন্যদিকে সভাপতি, জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি ও বাকি তিনজন সহসভাপতি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন।

সহসভাপতি পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন হাভেলি প্রপার্টি ডেভেলপমেন্টের এমডি এম এ আউয়াল। আর পরিচালকদের ভোটে সহসভাপতি হয়েছেন আক্তার প্রপার্টিজের এমডি মোহাম্মদ আক্তার বিশ্বাস ও বেসিক বিল্ডার্সের এমডি আবদুল লতিফ। সহসভাপতি (অর্থ) পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন আরমা রিয়েল এস্টেটের চেয়ারম্যান আবদুর রাজ্জাক। এ ছাড়া পর্ষদে চট্টগ্রামের প্রতিনিধি হিসেবে সহসভাপতি হয়েছেন আরএফ বিল্ডার্সের এমডি দেলোয়ার হোসেন।

জানা যায়, দুটি সহসভাপতি পদে নির্বাচন পরিচালনা করে নির্বাচন বোর্ডের চেয়ারম্যান ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব সুব্রত কুমার দে। সঙ্গে ছিলেন নির্বাচন বোর্ডের অপর দুই সদস্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মোহাম্মদ মশিউর রহমান ও নুসরাত আইরিন। আরও উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব ও রিহ্যাবের প্রশাসক জান্নাতুল ফেরদৌস।

নতুন সভাপতি মো. ওয়াহিদুজ্জামানের নেতৃত্বাধীন এ কমিটি ২০২৪-২৬ মেয়াদে রিহ্যাবের দায়িত্ব পালন করবে।

অর্থসংবাদ/এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন
লাফার্জ
রাজধানী15 mins ago

রাজধানীর যেসব এলাকায় গ্যাস থাকবে না শনিবার

লাফার্জ
জাতীয়43 mins ago

শপথ নিলেন নতুন সাত প্রতিমন্ত্রী 

লাফার্জ
জাতীয়58 mins ago

জলবায়ু অর্থায়নে বেসরকারি খাতের সম্পৃক্ততা জরুরি: সাবের হোসেন

ঘরে বসে উপার্জন করার ৮ উপায়
অর্থনীতি1 hour ago

সপ্তাহের ব্যবধানে রিজার্ভ বাড়লো ৩৭ কোটি ডলার

লাফার্জ
শিল্প-বাণিজ্য2 hours ago

শুক্রবার রাতেই মেগা ক্যাম্পেইন নিয়ে আসছে ইভ্যালি

লাফার্জ
খেলাধুলা2 hours ago

ফাইনালে টস জিতে ফিল্ডিংয়ে তামিমের বরিশাল

লাফার্জ
আন্তর্জাতিক2 hours ago

ভারতে ফের বাড়লো বাণিজ্যিক গ্যাসের দাম

লাফার্জ
জাতীয়3 hours ago

ক্রীড়া খাতের উন্নয়নে বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করবে চীন

লাফার্জ
প্রবাস3 hours ago

ইতালিতে স্পন্সর ভিসার অনলাইন আবেদন শুরু

লাফার্জ
জাতীয়3 hours ago

ভাসানচরে আরও ১২৫০ রোহিঙ্গাকে স্থানান্তর

Advertisement
Advertisement

ফেসবুকে অর্থসংবাদ

২০১৮ সাল থেকে ২০২৩

অর্থসংবাদ আর্কাইভ

তারিখ অনুযায়ী সংবাদ

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১