Connect with us

সারাদেশ

ঘন কুয়াশায় পদ্মায় ফেরি চলাচল বন্ধ

Published

on

পিপলস লিজিং

ঘন কুয়াশার কারণে মাঝ পদ্মায় আটকা পড়েছে ছোট-বড় আটটি ফেরি। এতে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। দুর্ঘটনা এড়াতে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া, আরিচা-কাজিরহাট ও ধাওয়াপাড়া-নাজিরগঞ্জ এই তিন নৌরুটে বুধবার ভোর থেকে ফেরী চলাচল বন্ধ রাখেন কর্তৃপক্ষ।

ঘাট কর্তৃপক্ষ জানান, মঙ্গলবার মাঝরাত থেকেই এ তিন নৌরুটে কুয়াশা পড়তে শুরু করে। এ সময় থেকেই এই নৌরুটগুলোতে ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছিল। পরে বুধবার ভোর ৫টার দিকে কুয়াশার মাত্রা আরো তীব্র আকার ধারণ করে। এতে ফেরি চলাচলের মার্কিং পয়েন্ট ও বিকনবাতির কিছুই দেখা যাচ্ছিল না।

দুর্ঘটনা এড়াতে রাতে নৌরুটগুলোতে ফেরি চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ ঘোষণা করেন বিআইডব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষ। এতে মাঝ পদ্মায় আটকা পড়েছে ছোট-বড় আটটি ফেরি। এ সময় দুর্ভোগ পোহান শতশত যানবাহনের শ্রমিক, ব্যবসায়ী ও যাত্রীরা।

এই তথ্য নিশ্চিত করে বিআইডব্লিউটিসি আরিচা অঞ্চলের উপমহাব‍্যবস্থাপক শাহ মো. খালেদ নেওয়াজ জানান, ঘনকুয়াশায় এই রুটগুলোতে দুর্ঘটনা এড়াতে রাত ১টার দিকে ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়। কুয়াশার মাত্রা কমে গেলে ফেরি চলাচল ফের স্বাভাবিক করা হবে।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

সারাদেশ

সুন্দরবনে পথ হারানো ৩১ পর্যটককে উদ্ধার

Published

on

পিপলস লিজিং

সুন্দরবনের করমজলে পথ হারানো ৩১ কিশোর পর্যটককে ৩ ঘণ্টা পর জাতীয় জরুরি সেবার হটলাইন নম্বর ৯৯৯-এ ফোন পেয়ে উদ্ধার করেছে মোংলা থানা পুলিশ। সোমবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে মোংলা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কে এম আজিজুল ইসলামের সহায়তায় তাদের উদ্ধার করা হয়।

জানা গেছে, পথ হারিয়ে প্রায় তিন ঘণ্টা ধরে সুন্দরবনের অভ্যন্তরে ঘুরছিলেন তারা। উদ্ধার করা দর্শনার্থীরা চিতলমারী উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী।

উদ্ধার দর্শনার্থী মো. ফেরদাউস বলেন, প্রথমে বুঝতে পারিনি আমরা পথ হারিয়ে ফেলেছি। দুই ঘণ্টা পরে বুঝলাম আমরা পথ হারিয়েছি। তারপরেও একঘণ্টা পথ খুঁজেছি, কোনো উপায় না পেয়ে ৯৯৯-এ ফোন করি। ফোন করার পরে মোংলা থানা পুলিশ আমাদের উদ্ধার করেছে।

মোংলা থানার ওসি কেএম আজিজুল ইসলাম বলেন, ৩১ জন পর্যটক বনে প্রবেশের কিছুক্ষণ পরেই তারা পথ হারিয়ে ফেলেন। এর মধ্যে ফেরদৌস নামের এক ছেলে বুদ্ধি খাটিয়ে তার মোবাইল থেকে ৯৯৯-এ খবর দেয়। সেখান থেকে তারা সরাসরি মোংলা থানায় কথা বলিয়ে দেয়।

অর্থসংবাদ/এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

সারাদেশ

ইতালির স্বপ্নে মাদারীপুরের শতাধিক যুবকের প্রাণহানি

Published

on

পিপলস লিজিং

সুন্দর জীবনযাপনের আশায় আর দালালদের প্রলোভনে অবৈধ পথে ইতালি যাওয়ার সময় সাগরে ডুবে গত ১০ বছরে মাদারীপুরের শতাধিক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। নির্মম নির্যাতন সয়ে বাড়ি ফেরার সংখ্যাও কম নয়।

দালালদের প্রলোভনে ইতালি পাঠাতে গিয়ে সন্তান হারানোর পাশাপাশি নিঃস্ব হচ্ছে জেলার অসংখ্য পরিবার। এই ১০ বছরে মাদারীপুরে ৩২৯টি মানবপাচার মামলা হয়েছে। তবে মামলার একটিরও বিচার হয়নি বলে অভিযোগ রয়েছে।

ভুক্তভোগী পরিবার সূত্র ও খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দুর্ঘটনায় প্রাণহানির মতো ঘটনা ঘটলেও অবৈধপথে ইতালী যাওয়ার প্রবণতা কমেনি। ফলে ভূমধ্যসাগর নৌকাডুবিতে বাড়ছে প্রাণহানি।

এই সময়ে তিউনিসিয়ায় নৌকাডুবিতে মারা যাওয়াদের মধ্যে মাদারীপুরের রয়েছে শতাধিক যুবক। এখনো নিখোঁজ অনেকে। সবশেষ গত ১৪ ফেব্রুয়ারি তিউনিসিয়ায় নৌকায় আগুন ধরে মারা যাওয়া আট বাংলাদেশির মধ্যে পাঁচজনই মাদারীপুরের বাসিন্দা।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, এলাকার অল্প বয়সী তরুণ ও যুবকেরা পড়েন দালালের খপ্পরে। দালালদের প্রলোভনে ভিটেমাটি বিক্রি করার পাশাপাশি সুদে টাকা এনেও সন্তানদের অবৈধভাবে বিদেশে পাঠায় অভিভাবকরা। দুর্ঘটনায় আদরের সন্তান মারা যাওয়ায় নিঃস্ব হয় পরিবারগুলো।

মানবাধিকার কর্মীরা বলছেন, দালালচক্রকে নির্মূল না করায়, একের পর এক নৌকাডুবিতে মারা যাচ্ছে মানুষ। প্রতিরোধে প্রয়োজন জনপ্রতিনিধিদের আন্তরিকতা আর সচেতনতা বৃদ্ধি করা।

একাধিক সূত্র জানিয়েছে, রাজনৈতিক নেতাদের ছত্রছায়ায় জেলাজুড়ে গড়ে উঠেছে একাধিক দালালচক্র।

জেলা পুলিশের তথ্য মতে, গত ১০ বছরে মাদারীপুরে ৩২৯টি মানবপাচার মামলা হয়েছে। এর মধ্যে মীমাংসা হয়েছে ১১১টি মামলার। বিচার হয়নি একটিরও। এমন দুর্ঘটনায় নিহতের স্বজনদের অনেক সময় মামলাও করতে দেয়নি দালালচক্র। সামান্য কিছু টাকা দিয়ে মীমাংসার চেষ্টা চালায় তারা। এতে কমছে না এমন দুর্ঘটনায় প্রাণহানির সংখ্যা।

একাধিক সূত্র জানায়, ২০১৩-২০২৩ এই ১০ বছরে মাদারীপুরে আদালত ও থানায় মানবপাচারের মোট মামলা হয়েছে ৩২৯টি। এর মধ্যে জেলার বিভিন্ন থানায় মামলার সংখ্যা ২৯২টি ও আদালতে ৩৭টি মামলা দায়ের হয়। মামলায় মোট আসামি ১৪৬৬ জন হলেও গ্রেপ্তার হয় মাত্র ২৮৭ জন। আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেওয়া হয় ৯৬টি মামলার, আর আদালতে চূড়ান্ত রিপোর্ট জমা পড়ে ৮৭টি মামলার। এছাড়া এখন পর্যন্ত ১১১টি মামলা মীমাংসা হওয়ায় বাদী মামলা প্রত্যাহার করেছেন। গত ১০ বছরে অবৈধপথে ইতালি পাড়ি জমিয়েছেন ৫ হাজার ৫০০ জন।

বিভিন্ন মামলা, ভুক্তভোগী স্বজন ও জেলা পুলিশ সূত্রে বেশ কয়েকজন দালালের নাম পাওয়া গেছে।

মানবাধিকার কর্মী মশিউর রহমান পারভেজ জানান, দীর্ঘদিন ধরে অবৈধপথে ইতালীতে যাওয়ার সময় মাদারীপুরের যুবকরা মৃত্যুর মুখে পড়ে যায়। অনেক সময় মারাও গেছে অনেকেই। দালালদের বিচার না হওয়ার কারণে এই অপরাধ কমছে না। মানবপাচারের ঘটনায় দালালদের কঠিন বিচার হলে সমাজ থেকে এই অপরাধ কমিয়ে আনা সম্ভব।

মাদারীপুর আদালতের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আব্দুলাহ আল মামুন জানান, এলাকাভিত্তিক গড়ে উঠেছে দালালচক্র। এই চক্রটি শক্তিশালী হওয়ায় বাদীকে অনেক সময় মামলা তুলে নিতে ভয়ভীতি দেখায়। এতে আরও বেপরোয়া হয়ে ওঠে দালালরা।

মাদারীপুরের পুলিশ সুপার মাসুদ আলম বলেন, শুধু আইনের প্রয়োগ করেই দালালকে নির্মূল করা সম্ভব নয়। এক্ষেত্রে প্রয়োজন সামাজিক আন্দোলন, পাশাপাশি জনপ্রতিনিধিদের সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে। তাহলে সমাজ থেকে দালাল নির্মূল হবে। এ ছাড়া মানবপাচার মামলায় অনেক দালাল গ্রেপ্তারের পর জামিনে বেরিয়ে এসে আবারো একই কাজে লিপ্ত হচ্ছে। সবকিছু মিলিয়ে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুললেই এই ঘটনার আর পুনরাবৃত্তি হবে না। সূত্র: ফ্রান্সবিডিনিউজ২৪

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

সারাদেশ

এবারও রমজানে ১ টাকা লাভে পণ্য বেচবেন চাঁদপুরের শাহ আলম

Published

on

পিপলস লিজিং

আর কয়েকদিন পরই পবিত্র রমজান মাস। রমজানকে সামনে রেখে পৃথিবীর বেশিরভাগ দেশেই খাদ্যপণ্যে দাম কমলেও বাংলাদেশে এর উল্টো চিত্র দেখা যায়। অসাধু কিছু ব্যবসায়ী খাদ্যের মজুদ করে দাম বাড়িয়ে দেয়। এতে ভোগান্তিতে পড়েন নিম্ন আয়ের মানুষেরা। তবে এসব অসাধু ব্যবসায়ীর মাঝেও আছে ব্যতিক্রম। তেমনই একজন ব্যবসায়ী শাহ আলম। যিনি গতবছরও রমজানে মাত্র ১ টাকা লাভে পণ্য বিক্রি করেছিলেন। এবারও নিম্নবিত্ত ও দরিদ্র মানুষের কথা বিবেচনায় রেখে ১ টাকা লাভে পণ্য বিক্রি শুরু করেছেন তিনি।

ব্যবসায়ী শাহ আলম চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের চরকুমিরা গ্রামের কাজল হক মালের ছেলে। ইতিমধ্যে তিনি রমজান উপলক্ষ্যে ১ টাকায় পণ্য বিক্রি শুরু করেছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শাহ আলম পণ্য কেনা ও পরিবহন খরচ বাদ দিয়ে মাত্র এক টাকা লাভে বিক্রি করেন। তার পণ্য বিক্রির শুরুর দিন থেকে ব্যাপক সাড়া পেয়েছেন। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, স্থানীয়রা রমজান মাসের জন্য আগাম পণ্য ক্রয় করছেন। পণ্যের মূল্য তালিকাও দোকানে টানিয়ে দিয়েছেন তিনি।

গত বছরের ন্যায় এবারও পুরো রমজান মাসে শাহ আলম যে-সব পণ্য বিক্রি করবেন তার মধ্যে আছে মুড়ি, ছোলা (বুট), খেজুর, খেসারির ডাল, বেসন, সয়াবিন তেল, চিড়া ইত্যাদি। এসব পণ্য কেজিতে মাত্র ১ টাকা লাভে বিক্রি করবেন তিনি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শাহ আলম বলেন, আমি এখানে ব্যবসা করি প্রায় পনেরো বছর ধরে। গত বছর গরিব ও অসহায় মানুষের কথা চিন্তা করে ১ টাকা লাভে ইফতার বিক্রি শুরু করি। এতে ক্রেতাদের ব্যাপক সাড়া পাই। তাই এবছরও রমজানকে সামনে রেখে ১ টাকায় পণ্য বিক্রি শুরু করেছি।

তিনি আরও বলেন, বর্তমান বাজারে অনেক সিন্ডিকেট রয়েছে। তাদের কারণে পণ্যের দাম বেড়ে যায়। এতে মধ্যবিত্ত, নিম্ন মধ্যবিত্ত ও দরিদ্র পরিবারগুলো বিপাকে পড়েন। তাই গরিব, দুস্থ ও অসহায় পরিবারের কথা মাথায় রেখে গত বছরের ন্যায় এবারও রমজানের ইফতারের পণ্য বিক্রি শুরু করেছি। তাছাড়া এখান থেকে এলাকার স্থানীয় বাজারে যাতায়াতে প্রায় ৪০ টাকা ভাড়া লাগে। বাজারে ব্যবসায়ীরা প্রতি কেজি পণ্যে ৫ টাকার মতো লাভ করে থাকে। তাই আমি উদ্যোগ নিয়েছি সর্বনিম্ন লাভে পণ্য বিক্রি করার।

স্থানীয় বাসিন্দা রুবেল হোসেন বলেন, আমাদের গ্রামের শাহ আলম কাকা রমজান উপলক্ষ্যে ইফতার সামগ্রীর পণ্য মাত্র ১ টাকা লাভে বিক্রি করেন। তিনি এর আগে গত বছরও এভাবে পণ্য বিক্রি করেছিলেন। বাজারে দাম বেশি থাকায় শাহ আলমের দোকান থেকে পণ্য কিনি। তাছাড়া বাজারে যেতে সময় ও ভাড়ার খরচ লাগে।

আব্দুল মালেক নামে আরেকজন ক্রেতা বলেন, শাহ আলমের উদ্যোগকে স্বাগত জানাই। তিনি সুন্দর একটি উদ্যোগ নিয়েছেন। আমরা তার কাছে কেনাকাটা করি।

স্থানীয় আব্দুল ওহাব আলী নামে এক বৃদ্ধ বলেন, এখানে স্থানীয় বাজার থেকে ১-২ টাকা কমে পণ্য কেনা যায়। এখান থেকে বাজারে যাতায়াতে গাড়ি ভাড়া লাগে ৪০ টাকা। এখানে খেজুর, ডাল, তেল, চিনিসহ সব কিছু পাওয়া যায়। তাই আমরা বাজার থেকে পণ্য না কিনে ওনার কাছ থেকেই কিনি।

ফরিদগঞ্জ পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সাজ্জাদ হোসেন টিটু বলেন, আমার ওয়ার্ডের চরকুমিরা গ্রামের শাহ আলম মাল রমজান উপলক্ষ্যে ইফতার সামগ্রী প্রতি কেজিতে ১ টাকা লাভে বিক্রি শুরু করেছেন। তিনি এর আগে গত বছর একইভাবে পণ্য বিক্রি করেছেন। গত বছরের ন্যায় এবারও প্রতি কেজি পণ্যতে ১ টাকা লাভে পণ্য বিক্রি করাতে এলাকার মানুষ উপকৃত হচ্ছে। রমজান মাসে সাধারণ মানুষের পাশে এভাবে দাঁড়ানোর জন্য তাকে ধন্যবাদ জানাই।

অর্থসংবাদ/এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

সারাদেশ

১৮ কেজির কোরাল মাছ বিক্রি হলো যত টাকায়

Published

on

পিপলস লিজিং

লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে মেঘনা নদীতে স্থানীয় জেলে আওলাদ মাঝির জালে ১৭ কেজি ৭০০ গ্রাম ওজনের একটি কোরাল মাছ ধরা পড়েছে। শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সকালে উপজেলার চরকালকিনি ইউনিয়নের বাতিরখাল মাছঘাটের অদূরে মেঘনা নদীতে এ মাছটি ধরা পড়ে।

পরে বাতিরখাল মাছঘাটের আড়তে মাছটি নিয়ে গেলে ডাকের (নিলাম) মাধ্যমে মফিজুল ইসলাম ব্যাপারী নামের এক ব্যবসায়ী ২৫ হাজার ১০০ টাকায় মাছটি কিনে নেন। এত বড় মাছ দেখার কৌতূহল মেটাতে এ সময় কয়েকশ মানুষ ভিড় করেন।

জেলে আওলাদ মাঝি জানান, মেঘনা নদীর বাতিরখাল এলাকায় জাল ফেললে মাছটি ধরা পড়ে। সচরাচর এত বড় কোরাল ধরা পড়ে না।

ব্যবসায়ী মফিজুল ইসলাম জানান, তিনি মাছটি কিনে চাঁদপুর আড়তে পাঠিয়েছেন। সেখানে মাছটি আরও বেশি দামে বিক্রি হবে বলে প্রত্যাশা তার।

অর্থসংবাদ/এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

সারাদেশ

নাটোরে বিয়ে করতে এসে ধরা দুই কিশোরী

Published

on

পিপলস লিজিং

ফেসবুকে প্রথম পরিচয়। এরপর গত সাত মাস ধরে চলে সেই প্রেম। তবে এই প্রেমের সম্পর্ক কোনো নারী পুরুষের মধ্যে নয়। বরং একডালা মডেল হাইস্কুলের এক ছাত্রীর সঙ্গে মাদ্রাসার এক দশম শ্রেণির ছাত্রীর। প্রেমের সূত্র ধরে সিলেটের ওই মাদ্রাসাছাত্রী স্কুল ছাত্রীর বাসায় চলে আসে। বিষয়টি জানাজানি হলে পুলিশ দুই ছাত্রীকে তাদের হেফাজতে নেয়। এ নিয়ে এলাকায় বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

শুক্রবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় সদর উপজেলার তেবাড়িয়া ইউনিয়ন এ চাঞ্চল্যকর ঘটনা ঘটে।

স্কুল ছাত্রীর মামা আকরাম (ছদ্ম নাম) বলেন, ফেসবুকের মাধ্যমে আমার ভাগ্নীর সঙ্গে একটি ছেলের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে এমনটা আমি আগে থেকেই জানতাম। বিষয়টি নিয়ে আমরা পারিবারিকভাবে তাকে কয়েকবার সতর্কও করেছি। কিন্তু আজ আমার ভাগ্নির কাছে একটি মেয়ে চলে এসেছে। তারা দুইজন বলছে, তারা বিয়ে করবে! এটা কি মেনে নেওয়া যায়। পরে পুলিশ এসে সিলেট থেকে আসা ওই মেয়েকে থানায় নিয়ে গেছে। আর আমার ভাগ্নীকে আমাদের কাছে হস্তান্তর করেছে‌।

সিলেট থেকে আসা মাদ্রাসা ছাত্রী জানান, ৭ মাস আগে তাদের ফেসবুকে পরিচয় হয়। এরপর ধীরে ধীরে ঘনিষ্ঠতা বাড়ে। পরে তারা সমকামী বিয়ের সিদ্ধান্ত নেয়। স্কুল ছাত্রী তাকে বিয়ে করার কথা বললে সে তাকে বিয়ে করতে আসে।

নাটোর সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান বলেন, শুক্রবার বিকেলে মাদ্রাসাছাত্রী স্কুল ছাত্রী মহিমা (ছ্দ্মনাম) বিয়ে করতে চাইলে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃস্টি হয়। স্থানীয়রা সন্ধ্যায় পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ তাদের থানায় নিয়ে আসে। অপ্রাপ্ত বয়স হওয়ায় তাদের অভিভাবকদের জিম্মায় দেওয়া হবে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন
এসএসসির কেন্দ্র পরিদর্শনে যাবেন না শিক্ষামন্ত্রী
জাতীয়14 mins ago

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি ডিগ্রির অনুমতি দেওয়া হবে: শিক্ষামন্ত্রী

পিপলস লিজিং
ব্যাংক27 mins ago

বাংলাদেশ ব্যাংকের নতুন ডেপুটি গভর্নর হাবিবুর রহমান ও খুরশীদ আলম

পিপলস লিজিং
কর্পোরেট সংবাদ36 mins ago

ইসলামী ব্যাংকের এক্সিকিউটিভ ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম অনুষ্ঠিত

পিপলস লিজিং
পুঁজিবাজার47 mins ago

পিপলস লিজিংয়ের লেনদেন বন্ধের মেয়াদ আরও বাড়লো

পিপলস লিজিং
আন্তর্জাতিক1 hour ago

অস্ত্রসরঞ্জাম উৎপাদনে নাম লেখাল আদানি গ্রুপ

পিপলস লিজিং
ক্যাম্পাস টু ক্যারিয়ার1 hour ago

চবি’র ভর্তি পরীক্ষা শুরু ২ মার্চ

পিপলস লিজিং
স্বাস্থ্য1 hour ago

করোনায় নতুন শনাক্ত ৪৭ জন

পিপলস লিজিং
আন্তর্জাতিক2 hours ago

বিটকয়েনের বিনিময় হার দুই বছরের সর্বোচ্চে

পিপলস লিজিং
পুঁজিবাজার2 hours ago

দরপতনে লেনদেন কমেছে এসএমই মার্কেটে

পিপলস লিজিং
লাইফস্টাইল2 hours ago

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে উপকারী চার ফল

Advertisement
Advertisement

ফেসবুকে অর্থসংবাদ

২০১৮ সাল থেকে ২০২৩

অর্থসংবাদ আর্কাইভ

তারিখ অনুযায়ী সংবাদ

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯