Connect with us

শিল্প-বাণিজ্য

প্লাস্টিক পণ্য মেলা শুরু আগামীকাল

Published

on

লাফার্জ

ঢাকায় শুরু হতে যাচ্ছে আন্তর্জাতিক প্লাস্টিক পণ্য মেলা। আগামীকাল বুধবার এই মেলার ১৬তম আসর বসবে রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি, বসুন্ধরায় (আইসিসিবি)। মেলা চলবে ৪ দিন। মেলায় দেশ-বিদেশের ৬৫৪টি প্রতিষ্ঠানের ৯৬১টি স্টল থাকবে বলে জানিয়েছে আয়োজক কর্তৃপক্ষ।

সোমবার (২২ জানুয়ারি) রাজধানীর পুরানা পল্টনে বিপিজিএমইএর প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান বাংলাদেশ প্লাস্টিক পণ্য প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক সমিতির (বিপিজিএমইএ) সভাপতি সামিম আহমেদ।

মেলাটি যৌথভাবে আয়োজন করেছে বাংলাদেশ প্লাস্টিক পণ্য প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক সমিতি (বিপিজিএমইএ) এবং ইয়র্কারস ট্রেড অ্যান্ড মার্কেটিং সার্ভিসেস কোম্পানি লিমিটেড।

লিখিত বক্তব্যে সামিম আহমেদ বলেন, শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন এই প্লাস্টিক মেলা উদ্বোধন করবেন। মেলায় বিভিন্ন ধরনের প্লাস্টিক পণ্যসামগ্রী ও প্লাস্টিক পণ্য উৎপাদনের প্রয়োজনীয় আধুনিক যন্ত্রপাতি প্রদর্শন করা হবে।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, মেলায় প্লাস্টিক খাতের যন্ত্রপাতি, মোল্ড, কাঁচামাল উৎপাদনকারী ও সরবরাহকারী দেশি-বিদেশি ৬৫৪টি প্রতিষ্ঠান অংশ নেবে। এর মধ্যে ২০টি দেশের ৬০০ কোম্পানির ৮০০ স্টল এবং দেশীয় ৫৪টি কোম্পানির ১৬১টি স্টল থাকবে। মেলায় মোট ১৫টি শ্রেণিতে ভাগ হয়ে প্রতিষ্ঠানগুলো অংশ নিচ্ছে। এর মধ্যে রয়েছে গৃহস্থালি পণ্য, ক্রোকারিজ, প্যাকেজিং উপকরণ, প্লাস্টিক মোল্ড, খেলনা, ফার্মাসিউটিক্যালস, আসবাব, মেলামাইন, তৈরি পোশাক উপকরণ, পিপি ওভেন ব্যাগ, অটোমোবাইল এবং ইলেকট্রিক ও ইলেকট্রনিক পণ্য।

তিনি আরও বলেন, অনেকের পক্ষেই বিদেশে গিয়ে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ও পণ্য দেখার সুযোগ হয় না। সে ক্ষেত্রে এই মেলা থেকে ব্যবসায়ীরা প্লাস্টিক খাতের বাজার, পণ্য ও প্রযুক্তি সম্পর্কে সরাসরি ধারণা লাভ করতে পারবেন।

বিপিজিএমইএর নেতারা জানান, বর্তমানে দেশের রপ্তানি বাণিজ্যে প্লাস্টিক পণ্যের অবস্থান ১২তম। গত ২০২১-২০২২ অর্থবছরে ১৬ কোটি ৬২ লাখ মার্কিন ডলারের প্লাস্টিক পণ্য রপ্তানি হয়। আর গত ২০২২-২০২৩ অর্থবছরে ২০ কোটি ৯৮ লাখ ডলারের প্লাস্টিক পণ্য রপ্তানি হয়েছে। অর্থাৎ এক বছরে প্লাস্টিক রপ্তানি বেড়েছে ২৬ দশমিক ২৩ শতাংশ। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ বিশ্বের ১২৬টি দেশে বাংলাদেশে তৈরি প্লাস্টিক পণ্য রপ্তানি হচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বিপিজিএমইএর সাবেক সভাপতি এ এস এম কামাল উদ্দিন, মো. ইউসুফ আশরাফ, ফেরদৌস ওয়াহেদ, শাহেদুল ইসলাম, বর্তমান জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি কে এম ইকবাল হোসেন, সাবেক জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি গিয়াসউদ্দিন আহমেদ, বর্তমান সহসভাপতি কাজী আনোয়ারুল হক, মো. এনামুল হক, পরিচালক এ টি এম সাঈদুর রহমান, নুর আলম বাচ্চু প্রমুখ।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

শিল্প-বাণিজ্য

স্থলবন্দর ও শুল্ক স্টেশনের চার্জ সহনীয় করার দাবি ব্যবসায়ীদের

Published

on

লাফার্জ

দেশের স্থলবন্দর এবং শুল্ক স্টেশনসমূহে আমদানিকৃত পণ্যের বিদ্যমান লেবার হ্যান্ডেলিং চার্জ, পণ্য লোড-আনলোড চার্জ, ইকুইপমেন্ট চার্জ কমানোর দাবি জানিয়েছেন আমদানি ও রপ্তানিকারকরা।

বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে মতিঝিলে এফবিসিসিআই কার্যালয়ে সিলেট বিভাগের ল্যান্ড পোর্ট, বর্ডার ট্রেড, ট্রানজিট অ্যান্ড ট্রান্সশিপমেন্ট বিষয়ক স্ট্যান্ডিং কমিটির এক সভায় এ আহ্বান জানানো হয়।

কমিটির চেয়ারম্যান আহমেদ শাখাওয়াত সেলিম চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন এফবিসিসিআইর সভাপতি মাহবুবুল আলম।

এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, ব্যবসা-বাণিজ্য ও শিল্প সম্প্রসারণের সাথে সাথে স্থলবন্দর ও শুল্ক স্টেশনসমূহ গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। শুধু ভারত থেকেই আমরা বছরে প্রায় ১৬ বিলিয়ন ডলারের পণ্য আমদানি করে থাকি। যার সিংহভাগই আসে স্থল বাণিজ্যের মাধ্যমে। এমন পরিস্থিতিতে, আন্তর্জাতিক বাণিজ্য সম্প্রসারণে স্থলবন্দর এবং শুল্ক স্টেশনসমূহের সক্ষমতা বৃদ্ধি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

স্থলবন্দর, শুল্ক স্টেশনসহ আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যের বিদ্যমান সমস্যা সমাধানে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে লিখিত আকারে সুনির্দিষ্ট মতামত ও প্রস্তাবনা আহ্বান করেন এফবিসিসিআই সভাপতি। তিনি বলেন, এসব যৌক্তিক প্রস্তাবনা নিয়ে এফবিসিসিআই সরকারের সঙ্গে আলোচনা করবে।

স্ট্যান্ডিং কমিটির কমিটির ডিরেক্টর ইন-চার্জ এবং এফবিসিসিআই পরিচালক ফালাহ উদ্দিন আলী আহমেদ জানান, সিলেটের তামাবিল ও শেওলা স্থলবন্দর দিয়ে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত থেকে পাথর, চুনাপাথর, কয়লা, ফলসহ বিভিন্ন পণ্য আমদানি হয়ে থাকে। বাংলাদেশ থেকে রপ্তানি করা হয় সিমেন্ট, প্লাস্টিক পণ্য, ফার্নিচার, পাটসহ প্রক্রিয়াজাত কৃষিপণ্য। বন্দরসমূহে কয়লা ও পাথর আমদানি-রপ্তানির ক্ষেত্রে লোড-আনলোড চার্জ অনেক বেশি, যা বাস্তবে বাজারমূল্যের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। এর সঙ্গে যুক্ত হয় ১৫ শতাংশ ভ্যাট, যা আমদানিকারকদের ওপর অতিরিক্ত চাপ সৃষ্টি করছে।

তিনি বলেন, আমদানিকৃত কয়লা ও পাথর দীর্ঘদিন রেখে বিক্রি করতে হয় বিধায় আমদানিকারককে এক বছর মেয়াদী ভাড়া বন্দোবস্ত প্রদান ও বন্দরে ডাম্পিং এরিয়া বৃদ্ধির করতে হবে।

স্থলবন্দর ও শুল্ক স্টেশনগুলোতে সড়ক পরিবহন ও যোগাযোগ অবকাঠামো উন্নয়নের প্রস্তাবনা তুলে ধরেন আহমেদ শাখাওয়াত সেলিম চৌধুরী। তিনি বলেন, যোগাযোগের উন্নয়ন হলে পণ্য পরিবহনের ব্যয় কমবে। এর ফলে ব্যবসায়ীদের প্রতিযোগিতা সক্ষমতা বাড়বে।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক, কমিটির কো-চেয়ারম্যান ও সদস্যরা ব্যবসায়ীরা।

অর্থসংবাদ/এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

শিল্প-বাণিজ্য

বেড়েছে বিদ্যুতের দাম, ১ মার্চ থেকে কার্যকর

Published

on

লাফার্জ

গ্যাসের দাম বাড়ানোর পরই বিদ্যুতের দাম বাড়িয়েছে সরকার। ১ মার্চ থেকেই নতুন মূল্য কার্যকর হবে।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু।

তিনি বলেন, পাইকারিতে বিদ্যুতের দাম বেড়েছে ৫ দশমিক ০৭৪ শতাংশ। এতে প্রতি ইউনিটের গড় দর স্থির হয়েছে ৭ টাকা ০৪ পয়সায়। আগে যা ছিল ৬ টাকা ৭০ পয়সা। পাশাপাশি খুচরা পর্যায়ে মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে ৮ দশমিক ৪৮ শতাংশ। তাতে ইউনিটপ্রতি বিদ্যুতের গড় দাম নিষ্পত্তি হয়েছে ৮ টাকা ৯৫ পয়সা। আগে তা ছিল ৮ টাকা ২৫ পয়সা।

এর আগে নসরুল হামিদ জানিয়েছিলেন, ১ মার্চ থেকে বিদ্যুতের দাম বাড়বে। তবে আগেই তা বাড়ানো হলো। এর প্রভাব সম্পর্কে তিনি বলেন, যেকোনো সমন্বয়ের প্রভাব পড়বে। তবে গ্রাহক পর্যায়ে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দর ৩৪ থেকে ৭০ পয়সা বাড়ছে। সেটা খুব বেশি নয়।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, যারা কম বিদ্যুৎ ব্যবহার করেন, তাদের ক্ষেত্রে ৫ শতাংশ। আর যারা বেশি করেন, তাদের জন্য ৮ থেকে সাড়ে ৮ শতাংশ পর্যন্ত বাড়ছে। ২/১ দিনের মধ্যেই প্রজ্ঞাপন জারি হবে। উৎপাদন খরচের চেয়ে কম দরে বিদ্যুৎ বিক্রি করা হয়। ঘাটতি মেটাতে মূল্য সমন্বয় করা হচ্ছে। আগামী তিন বছর ধাপে ধাপে যা হবে।

নসরুল হামিদ বলেন, গত অর্থবছরে ৪৩ হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি দিতে হয়েছে। এখন উৎপাদন খরচ প্রায় ১২ টাকা। আর গ্রাহক দিচ্ছে ৮ টাকা ইউনিট। ঘাটতি অনেক, তাই দাম সমন্বয় করা হচ্ছে। তবে তা খুবই কম পরিমাণে।

তিনি বলেন, কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র করার সময় মার্কিন ডলারের দাম ৭০ থেকে ৮০ টাকা ধরে হিসাব করা হয়েছিল। এখন সেটার মান ৪০ টাকা বেড়ে গেছে। তাই বিদ্যুৎ উৎপাদন খরচ অনেক বেড়েছে। জ্বালানি খরচের ওপর ভিত্তি করে সারা বিশ্বেই দাম সমন্বয় করা হয়।

গত মঙ্গলবার বিদ্যুৎ উৎপাদনে ব্যবহৃত গ্যাসের দর প্রতি ঘনমিটারে ৭৫ পয়সা বাড়ায় সরকার। একইসঙ্গে কল-কারখানায় ব্যবহার করা ক্যাপটিভ বিদ্যুতের ঘনমিটারপ্রতি গ্যাসের মূল্য ৭৫ পয়সা বাড়ানো হয়।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

শিল্প-বাণিজ্য

রিহ্যাবের নতুন সভাপতি ওয়াহিদুজ্জামান

Published

on

লাফার্জ

আবাসন ব্যবসায়ীদের সংগঠন রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড হাউজিং অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (রিহ্যাব) নতুন সভাপতি হয়েছেন জাপান গার্ডেন সিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. ওয়াহিদুজ্জামান। একইসাথে জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি হয়েছেন ব্রিক ওয়ার্কস ডেভেলপমেন্টের চেয়ারম্যান লিয়াকত আলী ভূঁইয়া।

বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর সোনারগাঁও সড়কে রিহ্যাব কার্যালয়ে বেলা দুইটার দিকে সভাপতি, জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি ও পাঁচজন সহসভাপতি পদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে দুটি সহসভাপতি পদে নির্বাচন হয়। সহসভাপতি নির্বাচনে ভোট দেন গত মঙ্গলবার ভোটে জিতে আসা পরিচালকেরা। অন্যদিকে সভাপতি, জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি ও বাকি তিনজন সহসভাপতি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন।

সহসভাপতি পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন হাভেলি প্রপার্টি ডেভেলপমেন্টের এমডি এম এ আউয়াল। আর পরিচালকদের ভোটে সহসভাপতি হয়েছেন আক্তার প্রপার্টিজের এমডি মোহাম্মদ আক্তার বিশ্বাস ও বেসিক বিল্ডার্সের এমডি আবদুল লতিফ। সহসভাপতি (অর্থ) পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন আরমা রিয়েল এস্টেটের চেয়ারম্যান আবদুর রাজ্জাক। এ ছাড়া পর্ষদে চট্টগ্রামের প্রতিনিধি হিসেবে সহসভাপতি হয়েছেন আরএফ বিল্ডার্সের এমডি দেলোয়ার হোসেন।

জানা যায়, দুটি সহসভাপতি পদে নির্বাচন পরিচালনা করে নির্বাচন বোর্ডের চেয়ারম্যান ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব সুব্রত কুমার দে। সঙ্গে ছিলেন নির্বাচন বোর্ডের অপর দুই সদস্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মোহাম্মদ মশিউর রহমান ও নুসরাত আইরিন। আরও উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব ও রিহ্যাবের প্রশাসক জান্নাতুল ফেরদৌস।

নতুন সভাপতি মো. ওয়াহিদুজ্জামানের নেতৃত্বাধীন এ কমিটি ২০২৪-২৬ মেয়াদে রিহ্যাবের দায়িত্ব পালন করবে।

অর্থসংবাদ/এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

শিল্প-বাণিজ্য

বৈদ্যুতিক গাড়ি আমদানিতে শুল্ক সুবিধা চায় আমদানিকারকরা

Published

on

লাফার্জ

বৈদ্যুতিক গাড়ি শিল্প উন্নয়নে ২০৩০ সাল পর্যন্ত বৈদ্যুতিক গাড়ি আমদানির ওপর বিশেষ শুল্ক সুবিধা দেওয়ার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ অটোমোবাইল অ্যাসেম্বেলার্স অ্যান্ড ম্যানুফেকচারার্স অ্যাসোসিয়েশন (বামা)।

মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে (এনবিআর) আয়োজিত ২০২৪-২৫ অর্থবছরের প্রাক-বাজেট আলোচনায় এ দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি।

বামা তাদের প্রস্তাবনায় জানায়, বর্তমানে ইলেকট্রিক প্রোপালশন মোটরসাইকেলের ওপর আমাদানি শুল্ক ৩৭ শতাংশ, যা কমিয়ে ৩১ শতাংশ করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ইলেকট্রিক মোটরকারের শুল্ক ৮৯ দশমিক ৩২ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৩৭ শতাংশ, ইলেকট্রিক বাস ও ট্রাক আমদানিতে শুল্ক ৫৮ দশমিক ৬০ শতাংশ থেকে ৩১ শতাংশ করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া সিকেডিতে (কম্পিট নকড ডাউড) আমদানির ক্ষেত্রে কোনো এইচএস কোড নেই। সিকেডির জন্য আলাদা এইএস কোড নির্ধারণ ও শুল্কহার ১৫ দশমিক ২৫ শতাংশ করার দাবি জানিয়েছে বামা।

সংগঠনটি জানিয়েছে, প্রচলিত ইঞ্জিনচালিত গাড়ির চেয়ে বর্তমানে ইলেকট্রিক গাড়ির দাম বেশি। এছাড়া মানুষ এখনো ইলেকট্রিক গাড়ি ব্যবহারে অভ্যস্থ নয়। সাশ্রয়ী মূল্যে ইলেকট্রিক ভেহিকেল বাজারজাত করা সম্ভব হলে ভোক্তারা তা ব্যবহারে উৎসাহিত হবেন।

এদিকে, এভিয়েশন অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ তাদের প্রস্তাবে হেলিকপ্টারসহ উড়োজাহাজ, উড়োজাহাজের ইঞ্জিন, উড়োজাহাজের যন্ত্রাংশ, উড়োজাহাজের ইঞ্জিনের যন্ত্রাংশের ওপর আরোপিত আমদানি কর, মূসক, আগাম কর এবং অগ্রিম আয়কর প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে।

আর বাস-ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন তাদের প্রস্তাবে এসি বাসের ভাড়ার ওপর ১৫ শতাংশ বিদ্যমান ভ্যাট কমিয়ে ৫ শতাংশ নির্ধারণের দাবি জানিয়েছে। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-চলাচল সংস্থা তাদের প্রস্তাবে এসি কেবিনের ওপর ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে।

কোম্পানি করহার কমিয়ে ১০ শতাংশ করা, উৎসে করহার কমানো, মূলধনী যন্ত্রপাতি আমদানির ওপর অগ্রিম আয়কর বাতিলের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ ইনল্যান্ড কন্টেইনার ডিপোস অ্যাসোসিয়েশন।

এসময় এনবিআর চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম বিভিন্ন সংগঠনের প্রস্তাব শুনে তা যাচাই-বাছাই করে পর্যালোচনার আশ্বাস দেন।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

শিল্প-বাণিজ্য

ব্যবসাবান্ধব কাস্টমস ও ভ্যাট কাঠামোয় সংস্কার চান উদ্যোক্তারা

Published

on

লাফার্জ

দেশে ব্যবসা পরিচালনার ব্যয় কমানো, ব্যবসার পরিবেশ সহজীকরণ, প্রতিযোগিতা সক্ষমতা বৃদ্ধি, ব্যবসায়ীদের অহেতুক হয়রানি বন্ধ করাসহ আইনের স্বেচ্ছাচারিতা কমাতে কাস্টমস এবং ভ্যাট কাঠামোয় প্রয়োজনীয় সংস্কার আনার আহ্বান জানিয়েছেন ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তারা।

মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) শীর্ষ বাণিজ্য সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের কাস্টমস ও ভ্যাট বিষয়ক স্ট্যান্ডিং কমিটির এক সভায় এই আহ্বান জানানো হয়।

ব্যবসায়ীরা জানান, শিল্পের জন্য কাঁচামাল কিংবা যন্ত্রপাতি আমদানির ক্ষেত্রে অতিরিক্ত শুল্ক আরোপ, অযৌক্তিক জরিমানা, এইচএস কোড সংক্রান্ত জটিলতা এবং মিথ্যা ঘোষণার নামে নানাবিধ হয়রানির সম্মুখীন হতে হচ্ছে। এসব বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বহুবার আলোচনার পরও সুফল মিলছে না। যা ‘ইজ অব ডয়িং বিজনেস’ বাস্তবায়নে অন্তরায় বলে মনে করেন তারা।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে অংশগ্রহণ করেন এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি মাহবুবুল আলম। তিনি বলেন, ব্যবসায়ীদের জন্য ভ্যাট, আয়কর এবং কাস্টমস খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এসব বিষয়ে ব্যবসায়ী মহলকে প্রতি মুহূর্তে চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে হচ্ছে। পণ্যের এইচএস কোড ইস্যুতে রাজস্ব কর্তৃপক্ষের সঙ্গে একাধিকবার আলোচনা হলেও ফলাফল মিলছে না। আমরা সরকারকে অগ্রিম আয়কর দিচ্ছি, কিন্তু সেটি আর রিফান্ড হচ্ছে না। এসব বিষয় ব্যবসা-বাণিজ্যকে বাধাগ্রস্ত করছে, ব্যবসায়ীদের ওপর বাড়তি চাপ সৃষ্টি করছে।

ব্যবসায়ীরা ভ্যাট-ট্যাক্স প্রদানের বিপক্ষে নয় উল্লেখ করে মাহবুবুল আলম বলেন, আমরা ভ্যাট-ট্যাক্স দিতে চাই। তবে সেটি যেন অযৌক্তিক না হয়। এ সময় কাস্টমস এবং ভ্যাট কাঠামো সহজীকরণ বিষয়ে ব্যবসায়ীদের যৌক্তিক ও সুনির্দিষ্ট পরামর্শ চান এফবিসিসিআই সভাপতি।

এফবিসিসিআইয়ের সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. আমিন হেলালীর মতে, ব্যবসাবান্ধব কাস্টমস, ভ্যাট এবং কর কাঠামো বাস্তবায়ন করা গেলে সরকারের রাজস্ব আহরণ উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পাবে।

তিনি বলেন, গত ১৫ বছরে দেশের অর্থনীতির আকার কয়েকগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। কিন্তু রাজস্ব প্রশাসন পূর্বের মতোই রয়ে গেছে। এ সময় ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসারে উদ্ভাবনী ও সৃজনশীল নীতিমালা প্রণয়নের আহ্বান জানান তিনি।

প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে কুটির, ক্ষুদ্র এবং স্টার্ট-আপ প্রতিষ্ঠানের জন্য পৃথক নীতিমালা প্রণয়নসহ মাঝারি এবং বৃহৎ শিল্পের জন্য ভিন্ন ভিন্ন নীতিমালা প্রণয়নের পরামর্শ দেন মো. আমিন হেলালী।

কমিটির ডিরেক্টর ইন-চার্জ এবং এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক ড. মুনাল মাহবুব বলেন, সত্যিকারের ব্যবসাবান্ধব নীতিমালা বাস্তবায়নের জন্য কাস্টমস এবং ভ্যাট কর্তৃপক্ষকে বেসরকারি খাতের অসুবিধার কথা আন্তরিকতার সাথে শুনতে হবে। গবেষণালব্ধ ফলাফলের ভিত্তিতে বাস্তবসম্মত নীতি প্রণয়ন করতে হবে।

কমিটির চেয়ারম্যান এ.কে.এম আক্তার হোসেন বলেন, ব্যবসায়ী সম্প্রদায় দেশের অর্থনীতিকে সমৃদ্ধির পথে আরো এগিয়ে নিতে চায়। কিন্তু আমলাতান্ত্রিক জটিলতার কারণে তারা পিছিয়ে পরছে। আগামীর স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে অটোমেশন, ডিজিটালাইজেশন ও ইন্টিগ্রেশনের ওপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআইয়ের সহ-সভাপতি মো. মুনির হোসেন, পরিচালক, কমিটির কো-চেয়ারম্যান, সদস্য ও ব্যবসায়ী নেতা।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন
লাফার্জ
অর্থনীতি47 mins ago

পাবনায় কমেছে রসুনের দাম

সৌরবিদ্যুৎ
আন্তর্জাতিক1 hour ago

সৌরবিদ্যুৎ প্যানেল বসাতে লাখ টাকা প্রণোদনা দিবে ভারত

লাফার্জ
শিল্প-বাণিজ্য1 hour ago

স্থলবন্দর ও শুল্ক স্টেশনের চার্জ সহনীয় করার দাবি ব্যবসায়ীদের

লাফার্জ
টেলিকম ও প্রযুক্তি2 hours ago

রক্ষণাবেক্ষণের কাজ স্থগিত, স্বাভাবিক থাকবে ইন্টারনেট পরিষেবা

দেশে মূল্যস্ফীতি কমাতে নীতি সুদহার বৃদ্ধি
অর্থনীতি2 hours ago

আর্থিক প্রতিষ্ঠানে ১৫ পরিচালকের বেশি নয়

লাফার্জ
রাজধানী2 hours ago

বেইলি রোডের কাচ্চি ভাই রেস্তোরাঁর ভবনে আগুন

লাফার্জ
কর্পোরেট সংবাদ2 hours ago

ব্র্যাক ব্যাংক ও জেপি মরগান চেজ ব্যাংকের মধ্যে চুক্তি

লাফার্জ
আবহাওয়া2 hours ago

আগামী সপ্তাহে বৃষ্টিপাতের আভাস দিলো আবহাওয়া অফিস

লাফার্জ
জাতীয়3 hours ago

মন্ত্রিসভায় শিগগিরই আসতে পারে নতুন মুখ

লাফার্জ
জাতীয়3 hours ago

রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক পেলেন হামিদা পারভীন

Advertisement
Advertisement

ফেসবুকে অর্থসংবাদ

২০১৮ সাল থেকে ২০২৩

অর্থসংবাদ আর্কাইভ

তারিখ অনুযায়ী সংবাদ

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১