Connect with us

স্বাস্থ্য

ডেঙ্গুতে আরও দুইজনের মৃত্যু

Published

on

পিপলস লিজিং

দেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও দুই জন মারা গেছেন। এ সময়ের মধ্যে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছেন আরও ৩৮ জন। এ নিয়ে চলতি বছর মশাবাহিত রোগটিতে আক্রান্ত হয়ে ৭ জনের মৃত্যু হলো।

রোববার (১৪ জানুয়ারি) স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, চলতি জানুয়ারি মাসের ১৪ দিনে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ডেঙ্গু নিয়ে ভর্তি হওয়া রোগীর সংখ্যা বেড়ে ৬৭০ হয়েছে। এদের মধ্যে ঢাকায় ১২১ জন এবং দেশের অন্যান্য হাসপাতালে ২৩৯ জন ভর্তি রয়েছেন। আক্রান্ত মোট রোগীদের মধ্যে হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে ফিরেছেন ৪২৪ জন।

গত বছর দেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ১ হাজার ৭০৫ জনের মৃত্যু হয়েছিল। আক্রান্ত রোগীর মোট সংখ্যা ছিল ৩ লাখ ২১ হাজার ১৭৯ জন।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

স্বাস্থ্য

করোনায় নতুন শনাক্ত ৪৭ জন

Published

on

পিপলস লিজিং

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৪৭ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত দেশে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২০ লাখ ৪৮ হাজার ৪০৭ জনে।

আজ বুধবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো করোনা বিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, সারাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ৮৮৫টি পরীক্ষাগারে ৭৩৭ টি নমুনা পরীক্ষায় ৪৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়। তাদের মধ্যে ৩৯ জনই ঢাকার রোগী। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ৬ দশমিক শূন্য ৩৮ শতাংশ। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৩ দশমিক শূন্য ৮ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্তদের মধ্যে থেকে সুস্থ হয়েছেন ৪০ জন। এ নিয়ে মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২০ লাখ ১৫ হাজার ৪১০ জনে। সুস্থতার হার ৯৮ দশমিক ৩৯ শতাংশ।

২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত প্রথম রোগী শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ করোনায় প্রথম কোনো রোগীর মৃত্যুর তথ্য জানায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

স্বাস্থ্য

ছয় বেসরকারি হাসপাতাল বন্ধ করে দিলো স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

Published

on

পিপলস লিজিং

নানা অনিয়মের কারণে রাজধানীর ছয়টি হাসপাতাল বন্ধ করে দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীজুড়ে লাইসেন্সবিহীন হাসপাতালের বিরুদ্ধে অভিযানের পর এসব হাসপাতাল বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এছাড়াও অভিযানে আরও ১২টি হাসপাতালে নানা অসঙ্গতি ধরা পড়ে। সেগুলোর বিরুদ্ধেও শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। মঙ্গলবার রাজধানীজুড়ে ১৮টি হাসপাতালে এ অভিযান চালানো হয়।

অধিদপ্তরের পরিচালক (হাসপাতাল ও ক্লিনিক) ডা. আবু হোসেন মো. মইনুল আহসান বলেন, আমরা রাজধানীর বিভিন্ন এলাকার ১৮টি হাসপাতাল পরিদর্শন করেছি। এর মধ্যে দু’টির লাইসেন্স নেই, দু’টি মানহীন এবং দু’টিতে গিয়ে কাউকে পাওয়া যায়নি। এই ছয়টি হাসপাতাল বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অন্য ১২টি হাসপাতালেও সেবার মান, যন্ত্রপাতি ও পরিচ্ছন্নতাসহ বিভিন্ন ত্রুটি রয়েছে। এদেরও শাস্তির আওতায় আনা হবে। বুধবার (আজ) আমরা অফিস আদেশের মাধ্যমে এ বিষয়ে বিস্তারিত সিদ্ধান্ত জানাব।

এসময় অবৈধ হাসপাতালগুলোর বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, রাজধানীর বাড্ডার সাতাকুল এলাকার ইউনাইটেড মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় শিশু আয়ানের মৃত্যুর ঘটনার অভিযোগের পর লাইসেন্সবিহীন হাসপাতাল নিয়ে আলোচনা শুরু হয়। এরই মধ্যে গত সপ্তাহে মালিবাগ চৌধুরীপাড়ার জে এস ডায়াগনস্টিক অ্যান্ড মেডিক্যাল চেকআপ সেন্টারে আরেক শিশু আহনাফ তাহমিদের মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। এর পর লাইসেন্সবিহীন হাসপাতালগুলোর বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে নিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

স্বাস্থ্য

ওষুধ ও হার্টের রিংয়ের দাম কমাতেই হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

Published

on

পিপলস লিজিং

স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন বলেছেন, হৃদরোগীদের জীবনদায়ী চিকিৎসা সামগ্রী করোনারি স্টেন্টের (হার্টের রিং) দাম কমাতে হবে। একইসঙ্গে ওষুধের দাম কমানোর কথা বলেছেন তিনি।

মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সচিবালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ওষুধ ও হার্টের রিং উভয়ের দাম নির্ধারণেই বৈঠক বসেছে। তবে দাম কমাতেই হবে। এ বিষয়টি নিয়েই বৈঠকে বসতে হয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, স্বাস্থ্যখাতে এত অসংগতি, এর কোনোটাই মন্ত্রী হিসেবে এড়ানো সম্ভব না। দায় মাথায় নিয়েই কাজ করা হবে।

অবৈধ কোনো কাজ হবে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, অবৈধ হাসপাতাল-ক্লিনিক-ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিরুদ্ধে অভিযান চলবে, যেকোনো দিন মন্ত্রী হিসেবে পরিদর্শন করব।

অভিযানে অবৈধ প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে চিকিৎসাসেবা নেওয়া মানুষের ভোগান্তি প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, ভুল জায়গায় চিকিৎসা নেওয়ার চেয়ে চিকিৎসা না নেওয়া ভালো এবং সঠিক জায়গায় চিকিৎসা নেওয়া উচিত।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

স্বাস্থ্য

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর অ্যাকশনে হাসপাতাল-ক্লিনিকে ঝুলছে লাইসেন্স

Published

on

পিপলস লিজিং

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেনের নির্দেশনা ও বেসরকারি হাসপাতাল, ক্লিনিক, ডায়াগনস্টিক সেন্টার পরিচালনায় সরকারের ১০ দফা নির্দেশনা অনুযায়ী হাসপাতাল-ক্লিনিকগুলোতে লাইসেন্সের কপি ও তথ্য কর্মকর্তার নাম প্রদর্শন করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হাসপাতাল ও ক্লিনিক শাখার পরিচালক ডা. আবু হোসেন মো. মঈনুল আহসান এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, প্রাইভেট ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিকের জন্য সরকারের জারি করা ১০ দফা নির্দেশনা অনুযায়ী লাইসেন্সের কপি ও তথ্য কর্মকর্তার নাম প্রদর্শন করা হচ্ছে, যা আগে ছিল না।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) বেসরকারি হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের লাইসেন্স প্রবেশপথে টানানো, তথ্য কর্মকর্তা নিয়োগ ও লেবার রুম প্রটোকল বাধ্যবাধকতাসহ ১০ দফা নতুন নির্দেশনা দেয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। একইসঙ্গে এসব নির্দেশনা আবশ্যিকভাবে পালন করতে হবে বলেও জানায় নিয়ন্ত্রক প্রতিষ্ঠানটি।

নির্দেশনাগুলো হলো–
১. বেসরকারি ক্লিনিক হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিককে লাইসেন্সের কপি প্রতিষ্ঠানের মূল প্রবেশ পথের সামনে দৃশ্যমান স্থানে অবশ্যই স্থায়ীভাবে প্রদর্শন করতে হবে;

২. সব বেসরকারি স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠানের যাবতীয় তথ্য সংরক্ষণ ও সরবরাহের জন্য একজন নির্ধারিত দায়িত্বপ্রাপ্ত তথ্য কর্মকর্তা-কর্মচারী থাকতে হবে। একইসঙ্গে তার ছবি ও মোবাইল নম্বর দৃশ্যমান স্থানে প্রদর্শন করতে হবে;

৩. যেসব প্রতিষ্ঠানের নাম ডায়াগনস্টিক ও হাসপাতাল হিসেবে আছে কিন্তু শুধু ডায়াগনস্টিক অথবা হাসপাতালের লাইসেন্স রয়েছে তারা লাইসেন্স প্রাপ্তি ছাড়া কোনোভাবেই নামে উল্লিখিত সেবা দিতে পারবে না;

৪. ডায়াগনস্টিক সেন্টার, প্যাথলজিক্যাল ল্যাবরেটরির ক্ষেত্রে যে ক্যাটাগরিতে লাইসেন্সপ্রাপ্ত শুধু সে ক্যাটাগরিতে নির্ধারিত পরীক্ষা-নিরীক্ষা ছাড়া কোনোভাবেই অন্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা যাবে না। ক্যাটাগরি অনুযায়ী প্যাথলজি বা মাইক্রোবায়োলজি, বায়োকেমিস্ট্রি ও রেডিওলজি বিশেষজ্ঞ নিয়োগ করতে হবে।

৫. বেসরকারি ক্লিনিক, হাসপাতালের ক্ষেত্রে লাইসেন্সের প্রকারভেদ ও শয্যা সংখ্যা অনুযায়ী সব শর্তাবলি বাধ্যতামূলকভাবে বাস্তবায়ন করতে হবে;

৬. হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিয়োজিত সব চিকিৎসকের পেশাগত ডিগ্রির সনদ, বিএমডিসির হালনাগাদ নিবন্ধন ও নিয়োগপত্রের কপি অবশ্যই সংরক্ষণ করতে হবে;

৭. হাসপাতাল, ক্লিনিকের ক্ষেত্রে যেকোনো ধরনের অপারেশন বা প্রসিডিউরের জন্য অবশ্যই রেজিস্ট্রার্ড চিকিৎসককে সার্জনের সহকারী হিসেবে রাখতে হবে;

৮. কোনো অবস্থাতেই লাইসেন্সপ্রাপ্ত বা নিবন্ধিত হাসপাতাল ও ক্লিনিক ব্যতীত চেম্বারে অথবা ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অ্যানেস্থেশিয়া প্রদান করা যাবে না। বিএমডিসি স্বীকৃত বিশেষজ্ঞ ছাড়া যেকোনো ধরনের অপারেশন/সার্জারি/ইন্টারভেনশনাল প্রসিডিউর করা যাবে না;

৯. সব বেসরকারি নিবন্ধিত লাইসেন্সপ্রাপ্ত হাসপাতাল, ক্লিনিকে লেবার রুম প্রটোকল অবশ্যই মেনে চলতে হবে;

১০. নিবন্ধিত বা লাইসেন্সপ্রাপ্ত হাসপাতাল, ক্লিনিকের অপারেশন থিয়েটারে অবশ্যই ‘Operation Theatre Etiquette’ মেনে চলতে হবে।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

স্বাস্থ্য

স্বাস্থ্যখাতকে প্রধানমন্ত্রী জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন: মন্ত্রী

Published

on

পিপলস লিজিং

স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী আমাকে স্বাস্থ্যখাতে জিরো টলারেন্স নীতি করে দিয়েছেন। যদি কোনো ভুল চিকিৎসা বা চিকিৎসায় গাফলতি হয়, তাহলে অবশ্যই তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে।

সোমবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সকালে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর কুমুদিনি কমপ্লেক্স পরিদর্শনের সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, যদি কোনো ভুল চিকিৎসা বা চিকিৎসায় গাফলতি হয়, তাহলে অবশ্যই তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। সব চিকিৎসক খারাপ নয়, ভালো চিকিৎসকও আছে। চিকিৎসকরা কেন গ্রামে থাকতে চায় না, এবিষয়ে তাদের সঙ্গে কথা বলতে হবে। গ্রামে চিকিৎসকদের সিকিউরিটি কতটুকু আছে, গ্রামে চিকিৎসকদের সিকিউরিটি দিতে পারলে তারা অবশ্যই থাকবে। সে বিষয়ে আমরা কাজ করছি।

তিনি বলেন, আমার প্রথম লক্ষ্য হচ্ছে, চিকিৎসা সেবা যেন সারা বাংলাদেশের গ্রামগঞ্জে ছড়িয়ে দিতে পারি। আমি যদি প্রতিটি হেলথ কমপ্লেক্স বা জেলার হাসপাতালগুলোকে স্বাবলম্বী করে গড়ে তুলতে পারি, তাহলে গ্রামগঞ্জের কোনো রোগী চিকিৎসা নিতে ঢাকা শহরে ভিড় করবে না।

কাফি

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন
পিপলস লিজিং
ব্যাংক8 mins ago

বাংলাদেশ ব্যাংকের নতুন ডেপুটি গভর্নর হাবিবুর রহমান ও খুরশীদ আলম

পিপলস লিজিং
কর্পোরেট সংবাদ17 mins ago

ইসলামী ব্যাংকের এক্সিকিউটিভ ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম অনুষ্ঠিত

পিপলস লিজিং
পুঁজিবাজার28 mins ago

পিপলস লিজিংয়ের লেনদেন বন্ধের মেয়াদ আরও বাড়লো

পিপলস লিজিং
আন্তর্জাতিক57 mins ago

অস্ত্রসরঞ্জাম উৎপাদনে নাম লেখাল আদানি গ্রুপ

পিপলস লিজিং
ক্যাম্পাস টু ক্যারিয়ার1 hour ago

চবি’র ভর্তি পরীক্ষা শুরু ২ মার্চ

পিপলস লিজিং
স্বাস্থ্য1 hour ago

করোনায় নতুন শনাক্ত ৪৭ জন

পিপলস লিজিং
আন্তর্জাতিক1 hour ago

বিটকয়েনের বিনিময় হার দুই বছরের সর্বোচ্চে

পিপলস লিজিং
পুঁজিবাজার2 hours ago

দরপতনে লেনদেন কমেছে এসএমই মার্কেটে

পিপলস লিজিং
লাইফস্টাইল2 hours ago

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে উপকারী চার ফল

পিপলস লিজিং
অর্থনীতি2 hours ago

বিমা দিবসে উদ্বোধন হচ্ছে ব্যাংকাস্যুরেন্স সেবা

Advertisement
Advertisement

ফেসবুকে অর্থসংবাদ

২০১৮ সাল থেকে ২০২৩

অর্থসংবাদ আর্কাইভ

তারিখ অনুযায়ী সংবাদ

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯