Connect with us

ধর্ম ও জীবন

বিয়ে করা সুন্নত নাকি ফরজ, যা বলেছে ইসলাম

Published

on

বিয়ে

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের অন্যতম সুন্নত বিয়ে। তিনি বিয়েকে সুন্নত ঘোষণা দিয়েছেন। হাদিসে এসেছে, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, ‘বিয়ে আমার সুন্নত। অতএব যে আমার সুন্নত পালন থেকে বিরত থাকবে, সে আমার অনুসারীদের অন্তর্ভুক্ত নয়।’ (ইবনে মাজাহ)

পবিত্র কোরআনে আল্লাহ তায়ালা বলেন,

وَ اَنۡکِحُوا الۡاَیَامٰی مِنۡکُمۡ وَ الصّٰلِحِیۡنَ مِنۡ عِبَادِکُمۡ وَ اِمَآئِکُمۡ ؕ اِنۡ یَّکُوۡنُوۡا فُقَرَآءَ یُغۡنِهِمُ اللّٰهُ مِنۡ فَضۡلِهٖ ؕ وَ اللّٰهُ وَاسِعٌ عَلِیۡمٌ وَ لۡیَسۡتَعۡفِفِ الَّذِیۡنَ لَا یَجِدُوۡنَ نِکَاحًا حَتّٰی یُغۡنِیَهُمُ اللّٰهُ مِنۡ فَضۡلِهٖ ؕ

‘তোমাদের মধ্যে যারা বিবাহহীন, তাদের বিয়ে সম্পাদন করে দাও এবং তোমাদের দাস ও দাসীদের মধ্যে যারা সৎকর্মপরায়ন, তাদেরও। তারা যদি নিঃস্ব হয়, তবে আল্লাহ নিজ অনুগ্রহে তাদের সচ্ছল করে দেবেন। আল্লাহ প্রাচুর্যময়, সর্বজ্ঞ। যারা বিয়েতে সামর্থ্য নয়, তারা যেন সংযম অবলম্বন করে— যে পর্যন্ত না আল্লাহ নিজ অনুগ্রহে তাদের অভাবমুক্ত করে দেন। (সূরা নুর, (২৪), আয়াত, ৩২-৩৩)

তবে কোনো সামর্থ্যবান পুরুষ যদি বিয়ে না করলে গুনাহে জড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা করেন, তাহলে তার ওপর বিয়ে করা ওয়াজিব হয়ে যায়।

কুরতুবি (রহ.) বলেন, যে সক্ষম ব্যক্তি অবিবাহিত থাকলে গুনাহে জড়িয়ে পড়ার আশংকা করে এবং এই আশংকা বিয়ে ছাড়া অন্য কোনো মাধ্যমে দূরীভূত হওয়ার সম্ভাবনা না থাকে, তাহলে তার ওপর বিয়ে করা ফরজ; এতে কোন মতভেদ নেই।

বিয়ে না করার কারণে কেউ যদি হারাম দৃষ্টি, স্পর্শ বা চুমো খাওয়ার মাধ্যমে পাপে জড়িয়ে পড়ে, তার ওপর বিয়ে করা ফরজ। যদি কোনো পুরুষ বা নারী প্রবল আশংকা বোধ করে যে বিয়ে না করলে সে ব্যভিচারের মতো হারাম কাজে লিপ্ত হবে, তার ওপরও বিয়ে করা ফরজ। কেউ যদি মনে করে যে গুনাহে জড়িয়ে পড়ার আশংকা সে করছে, বিয়ে করলেও তা পুরোপুরি কাটবে না, তবুও গুনাহের সম্ভাবনা কমানোর জন্য বিয়ে করা তার ওপর ফরজ থাকবে।

বিবাহিত জীবনব্যবস্থা যে শুধু কামনা-বাসনা দমন করে তা নয়, জাতীয় সত্তার পবিত্রতা অক্ষুণ্ন রাখার সঙ্গে সঙ্গে জাতীয় গুণাবলিকেও দুর্বার গতিতে উজ্জীবিত ও উদ্দীপ্ত করে তোলে। বৈবাহিক যোগসূত্র ছাড়া নারী-পুরুষের অবাধ মেলামেশা ইসলাম কখনই অনুমতি দেয় না।

আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যুবকদের বিয়ের প্রতি গুরুত্ব দিয়ে বলেন, ‘হে যুব সম্প্রদায়! তোমাদের মধ্যে যে বিয়ের সামর্থ্য রাখে, সে যেন বিয়ে করে নেয়, কেননা তা চক্ষুকে সংযত রাখে এবং লজ্জাস্থান রক্ষা করে। (বুখারি, হাদিস, ৫০৬৬; মুসলিম, হাদিস, ১৪০০)

বিয়ের খুতবা কখন, কীভাবে পড়তে হয়?

বিয়ের অন্যতম অনুষঙ্গ বিয়ের খুতবা। সাক্ষীর উপস্থিতিতে ইজাব-কবুলের আগে বিয়ের খুতবা পড়া সুন্নত। তবে খুতবা পড়া ফরজ কিছু নয়। এজন্য শরীয়ত নির্ধারিত সাক্ষীর উপস্থিতিতে যদি বিশুদ্ধভাবে বিয়ের ইজাব-কবুল হয়ে যায় এবং উপস্থিত সাক্ষীরা ইজাব-কবুলের শব্দগুলো শুনে তাহলে বিয়ে শুদ্ধ হয়ে যাবে।

ইজাব-কবুলের আগে খুতবার শব্দগুলো পড়া না হলেও এতে বিয়ে শুদ্ধ হওয়ার ক্ষেত্রে কোনও প্রভাব পড়বে না। (ফতোয়ায়ে দারুল উলুম দেওবন্দ, ৬১২২৫৩ ফতোয়া, ১২৬২-৯৫৩)

এই খুতবা দাঁড়িয়ে দেওয়া সুন্নত। তবে বসে দিলেও কোনো গুনাহ নেই। তাতে বিবাহের কোনো ক্ষতি হবে না। (জামেউল ফাতাওয়া,ইসলামী ফিক্হ ও ফাতওয়া বিশ্বকোষ) তবে অবশ্যই খুতবা আরবীতে দিতে হয়।

এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

ধর্ম ও জীবন

এক বৈঠকে পুরো কোরআন মুখস্ত শোনালো রাহাতুল ইসলাম

Published

on

পুঁজিবাজার

শবে বরাতে এক বৈঠকে পুরো কোরআন নির্ভুলভাবে মুখস্ত শুনিয়েছে রাহাতুল ইসলাম নামের এক হাফেজ। তার বয়স ১২ বছর। সে নোয়াখালীর মারকাজুল কোরআন ইন্টারন্যাশনাল মাদরাসার হিফজ বিভাগের ছাত্র।

গতকাল রবিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) পবিত্র শবে বরাতে রাত ১১টায় তার শুনানি শেষ হয়েছে। এর আগে শুক্রবার মাগরিবের নামাজের পর থেকে মুখস্ত তিলাওয়াত শুরু করে সে। তিলাওয়াতের সময় উপস্থিত ছিলেন একাধিক শিক্ষক ও ছাত্র। দীর্ঘ এ সময়ে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া রাহাতুল ইসলাম কোনো বিরতি নেয়নি।

এ তথ্য জানিয়েছেন মাদরাসাটির পরিচালক মুফতি আবু ইউসুফ কাসেমী।

রাহাতুল ইসলাম ফেনীর দাগনভূঁইয়া উপজেলার নেজাম টাওয়ারের স্বত্তাধিকারী নেজামুদ্দিনের ছেলে ও নোয়াখালী শহরের মারকাজুল কোরআন ইন্টারন্যাশনাল মাদরাসার হিফজ বিভাগের ছাত্র।

এক বৈঠকে সম্পূর্ণ কোরআন মুখস্থ শোনানো হাফেজ রাহাতুল ইসলামের এই সফলতায় গর্বিত মাদরাসাটির প্রতিষ্ঠাতা হাফেজ কারি মাঈনুদ্দিন ও মুফতি আবু ইউসুফ কাসেমী। তারা রাহাতসহ সকল ছাত্র ও মাদরাসার জন্য দোয়া চেয়েছেন।

এক বৈঠকে পুরো কোরআন মুখস্ত শোনানোর ঘটনায় উচ্ছ্বসিত রাহাতের বাবা। আবেগাপ্লুত কণ্ঠে তিনি বলেন, আমার ছেলে খুবই মেধাবী ও বিনয়ী। তার এ অর্জনে আমি খুবই আনন্দিত। সে কখানো আমাকে টাকা-পয়সা দেওয়ার জন্য বায়না করেনি।

এ সময় কান্নাজড়িত কণ্ঠে ছেলের শিক্ষকদের প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতা জানান তিনি। একই সঙ্গে মারকাজুল কোরআন ইন্টারন্যাশনাল মাদরাসার সফলতার জন্য দেশবাসীর দোয়া চেয়েছেন হাফেজ রাহাতুল ইসলামের বাবা এবং সবাই যেন নিজের সন্তানদের পবিত্র কোরআনের হাফেজ বানিয়ে আল্লাহর প্রিয় বান্দা হিসেবে গড়ে তোলেন- এ আহ্বান জানান তিনি।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

ধর্ম ও জীবন

পবিত্র রমজান মাস শুরু কবে?

Published

on

পুঁজিবাজার

বিশ্বের ধর্মপ্রাণ মুসলিমরা রমজান মাসের জন্য অপেক্ষায় রয়েছেন। তবে, কবে দেখা যাবে পবিত্র রমজানের চাঁদ? এ নিয়ে অনেক দেশ সূক্ষ্ম হিসাব কষতে শুরু করেছে। সোমবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) গালফ নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত ১১ ফেব্রুয়ারি শাবান মাস শুরু হয়েছিল এমন বেশিরভাগ ইসলামী দেশে আগামী ১০ মার্চ পবিত্র রমজান মাসের চাঁদ দেখার প্রস্তুতি শুরু হয়েছে।

জ্যোতির্বিজ্ঞান সংক্রান্ত সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল সেন্টারের (আইএসি) তথ্য অনুযায়ী, আগামী ১০ মার্চ ইসলামী বিশ্বের সব অঞ্চলে শাবান মাস শেষ হয়ে যেতে পারে। সে অনুযায়ী, সোমবার (১১ মার্চ) থেকে এসব দেশে পবিত্র রমজান মাস শুরু হতে পারে।

তবে অনেক গবেষক বলছেন, ওইদিন আরব ও ইসলামিক বিশ্বের কোথাও খালি চোখে কিংবা টেলিস্কোপ ব্যবহার করেও রমজান মাসের নতুন চাঁদ দেখা যাবে না। এ ক্ষেত্রে টেলিস্কোপ ব্যবহার করে যুক্তরাষ্ট্রের কিছু অংশ থেকে বিশেষ করে পশ্চিমাঞ্চলে নতুন চাঁদ দেখা যেতে পারে। সে অনুযায়ী ইসলামী বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আগামী ১২ মার্চ (মঙ্গলবার) রমজান মাস শুরু হতে পারে বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে।

যদিও পবিত্র রমজান মাস কবে থেকে শুরু হবে, গত ডিসেম্বরেই সংযুক্ত আরব আমিরাত সম্ভাব্য সেই তারিখ ঘোষণা করে। দেশটির ইসলামিক অ্যাফেয়ার্স অ্যান্ড চ্যারিটেবল অ্যাক্টিভিটিস ডিপার্টমেন্টের (আইএসিএডি) ওয়েবসাইটে ১২ ডিসেম্বর বলা হয়, আগামী ১২ মার্চ সংযুক্ত আরব আমিরাতে রমজান মাস শুরু হতে পারে।

সংযুক্ত আরব আমিরাত কর্তৃপক্ষ রমজান মাস শুরুর বিষয়ে প্রত্যেক বছর আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করে থাকে। জ্যোতির্বিজ্ঞানের গণনায় কেবল ইসলামী ক্যালেন্ডারের প্রত্যেক মাসের শুরুর সম্ভাব্য তারিখের পূর্বাভাস দেওয়া হয়।

অর্থসংবাদ/এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

ধর্ম ও জীবন

বিশ্বজয়ী হাফেজ বশিরকে সংবর্ধনা দিলো ছাত্রলীগ

Published

on

পুঁজিবাজার

বিশ্ব কুরআন প্রতিযোগিতায় ৮০টি দেশকে হারিয়ে প্রথম হওয়া বাংলাদেশের বিশ্বজয়ী হাফেজ বশির আহমেদকে সংবর্ধনা দিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। সোমবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৪টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিন প্রাঙ্গণে তাকে এ সংবর্ধনা দেওয়া হয়। ইরানে আয়োজিত কুরআন প্রতিযোগিতায় শীর্ষস্থান অর্জন করেন তিনি।

সংবর্ধনায় হাফেজ বশিকে একটি গিফট বক্স তুলে দেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাদ্দাম হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক শেখ ওয়ালী আসিফ ইনান। ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে এমন সম্মাননা পেয়ে আনন্দিত বশির ও তার শিক্ষক মাওলানা হাফেজ নেছার আহমেদ নেছারী।

অনুভূতি প্রকাশ করে হাফেজ বশির বলেন, আলহামদুলিল্লাহ দেশবাসীর দোয়ায় আমি ইরানে কুরআন প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অর্জন করেছি। কিছুদিন আগে আমি আলজেরিয়াতেও ৩য় স্থান অর্জন করেছিলাম। হাফেজদেকে সম্মানিত করার উদ্যোগ গ্রহণ করায় ছাত্রলীগকে ধন্যবাদ জানাই।

বশিরের শিক্ষক মাওলানা হাফেজ নেছার আহমেদ নেছারী বলেন, বশির মাত্র পাঁচ মাসে হিফজ সম্পন্ন করেছে। সে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করার আগে খুব ভয় পাচ্ছিলো। আমি তাকে বলেছি তুমি ১৮ কোটি মানুষের ভার নিয়ে এসেছো। যেকোনো মূল্যে বাংলাদেশের পতাকাকে সম্মানিত করতেই হবে। তার স্বপ্ন হচ্ছে ইসলামিক স্কলার হওয়া এবং পবিত্র কাবা শরীফের ইমাম হওয়া।

তিনি আরও বলেন, বশির সারা বিশ্বে বাংলাদেশকে সম্মানিত করায় তাকে দেশের বিভিন্ন মহল থেকে সম্মানিত করা হচ্ছে। এই ধারা অব্যাহত রাখলে হাফেজরা আরও অনুপ্রাণিত হবে। বাংলাদেশের শিক্ষাব্যবস্থা উন্নত হবে, বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশের সম্মান বাড়বে।

ছাত্রলীগ সভাপতি সাদ্দাম হোসেন বলেন, আমরা চাই দেশে একটি ইনক্লুসিভ শিক্ষা ব্যবস্থা ও ছাত্ররাজনীতি গড়ে উঠুক। মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের পাশে থাকার জন্য আমরা মাদ্রাসা শিক্ষা বিষয়ক কার্যক্রম চালু করেছি। তারা যেন প্রযুক্তির সুযোগ সুবিধা, কর্মসংস্থানের নিশ্চয়তা এবং দক্ষতা অর্জন করতে পারে সেজন্য বাংলাদেশ সরকার তাদের বিশ্বস্ত বন্ধু হয়ে কাজ করবে।

শিক্ষার্থীদের আরবি ভাষা শেখার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আরবি ভাষা আমাদের জন্য একটি সম্ভাবনার দরজা খুলে দিতে পারে। আরবি ভাষা শিখতে পারলে মধ্যপ্রাচ্যের অনেক দেশেই শিক্ষার্থীদের কর্মসংস্থান নিশ্চিত হবে যা দেশের অর্থনীতিকে সমৃদ্ধ করবে।

আরবি ভাষাকে সবার মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে শর্ট কোর্স চালুর গুরুত্বও তুলে ধরেন তিনি।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে ছাত্রলীগের মাদ্রাসা বিষয়ক সম্পাদক জহিরুল ইসলামের সঞ্চালনায় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক শেখ ওয়ালী আসিফ ইনানসহ ছাত্রলীগের বিভিন্ন শাখার নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অর্থসংবাদ/এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

ধর্ম ও জীবন

রোজার আগেই উদ্বোধন হলো বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম মসজিদ

Published

on

পুঁজিবাজার

পবিত্র রমজান মাস আসার আগেই বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম মসজিদ উদ্বোধন করা হয়েছে। আলজেরিয়ার রাজধানী আলজিয়ার্সে অবস্থিত এই মসজিদ বিশ্বে তৃতীয় হলেও এটি আফ্রিকার সবচেয়ে বড় মসজিদ। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দ্য গ্রেট মস্ক অব আলজিয়ার্সের নামাজের জায়গায় ১ লাখ ২০ হাজার মানুষ নামাজ পড়তে পারবেন। আলজিয়ার্সের গ্রেট মসজিদে বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু মিনার রয়েছে—যার উচ্চতা ২৬৫ মিটার (৮৬৯ ফুট)। রাষ্ট্রীয় খরচে ২০১০ এর প্রায় পুরো দশক ধরেই একটি চীনা নির্মাণ সংস্থা দ্বারা চলেছে এই মসজিদ তৈরির কাজ।

মসজিদটির নকশায় রয়েছে আধুনিকতা ও ঐতিহ্যের সমন্বিত ছোঁয়া। এতে আলজেরিয়ার ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে তুলে ধরার সঙ্গে সঙ্গে আরব এবং উত্তর আফ্রিকার সমৃদ্ধিকে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। মসজিদটিতে রয়েছে হেলিকপ্টার অবতরণের একটি প্যাড। একটি লাইব্রেরিও আছে এখানে। সেখানে রাখা যাবে প্রায় ১০ লাখ বই।

মসজিদের উদ্বোধন মুসলিমদের ভালো ও পরিমিতিবোধের দিকে ধাবিত করবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন মুসলিম ওলামাদের বিশ্ব ইউনিয়নের জেনারেল সেক্রেটারি আলী মোহাম্মদ সালাবি।

আলজেরিয়ার রাষ্ট্রপতি আবদেলমাদজিদ টেবোউন মসজিদটি আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেছেন। তবে মসজিদটি প্রায় পাঁচ বছর ধরেই পর্যটক এবং রাষ্ট্রীয় দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত ছিল। কেবল বিলম্বিত হয়েছে এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন। আসন্ন রমজানে নামাজ আদায় যাতে সম্ভব হয় সে কারণে মসজিদটি আনুষ্ঠানিকভাবে জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করা হলো।

তবে প্রকল্পটির বিলম্ব ঘিরে ছিল নানা বিতর্ক। সাত বছর ধরে নির্মাণাধীন এই মসজিদ যে স্থানে অবস্থিত সে জায়গাকে বিশেষজ্ঞরা ভূমিকম্পের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ বলে সতর্ক করেছিলেন। তবে এই সতর্কতার ব্যাপারটি গতকাল রোববার রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা এপিএসে প্রকাশিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে স্বীকার করা হয়নি।

অর্থসংবাদ/এমআই

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

ধর্ম ও জীবন

দিল্লি জামে মসজিদের নতুন শাহী ইমাম শাবান বুখারী

Published

on

পুঁজিবাজার

শবে বরাতে দিল্লি জামে মসজিদের নতুন ইমাম ঘোষণা করা হয়েছে। রবিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) পবিত্র এই রাতে মসজিদের আঙিনায় অনুষ্ঠিত দস্তরবন্দীর (পাগড়ি প্রদান অনুষ্ঠান) মাধ্যমে নতুন ইমাম ও উত্তরসূরির কথা জানান মসজিদটির বর্তমান শাহী ইমাম সৈয়দ আহমাদ বুখারি। নতুন ইমামের নাম সৈয়দ শাবান বুখারী।

দস্তরবন্দীর (পাগড়ি প্রদান অনুষ্ঠান) মাধ্যমে দিল্লি জামে মসজিদের শাহী ইমাম ঘোষণা করা হয়। যিনি পরবর্তীতে ঐতিহাসিক এই মসজিদে নামাজের দায়িত্ব পালন করেন। জামে মসজিদের নিয়ম অনুযায়ী ইমাম জীবদ্দশাতেই পরবর্তী ইমামের নাম ঘোষণা করেন।

অনুষ্ঠানে দিল্লি জামে মসজিদের বর্তমান শাহী ইমাম সৈয়দ আহমাদ বুখারী বলেন, আজ ইবাদতের রাত। এ রাতে গুনাহ মাফ করা হয় এবং রহমত বর্ষিত হয়। সবার উচিত এ রাতে ইবাদত করা।

তবে এই অনুষ্ঠানের পরও বর্তমান ইমামই জামে মসজিদের সব দায়িত্ব পালন করবেন। আগামীতে তিনি অসুস্থ হলে তার উত্তরাধিকারী জামে মসজিদের কার্যকরী ইমাম হিসেবে নিযুক্ত হবেন।

দিল্লির নিজামুদ্দিন দরগায় শবে রাত উদযাপন করা হয়েছে। এ রাতকে ঘিরে পবিত্র দরগাতে ঘিরে বিপুল সংখ্যক মানুষের উপস্থিতি দেখা গেছে। শবে বরাত ঘিরে অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্তা গ্রহণ করেছে দিল্লি পুলিশ। ভারতের জাতীয় রাজধানীর চারপাশে বিভিন্ন চেক পোস্টের ব্যবস্থা করা হয়েছিল।

মোগল সম্রাট শাহজাহান দিল্লি জামে মসজিদের নির্মাণকাজ শুরু করেন ১৬৫০ খ্রিস্টাব্দে। এ বিশাল ধর্মীয় স্থাপত্যশৈলী নির্মাণ সম্পন্ন হয় ১৬৫৬ খ্রিস্টাব্দে। সম্রাট শাহজাহান শাহী মসজিদের ইমামতির জন্য বুখারা নগরীর (বর্তমান উজবেকিস্থানের একটি শহর) সৈয়দ আব্দুল গফুর শাহ বুখারিকে নিয়ে আসেন। এবং তাকে ইমাম হিসেবে নিয়োগদান করেন। সৈয়দ আব্দুল গফুর শাহ বুখারী দিল্লী জামে মসজিদেরর প্রথম ইমাম, তার ইমামতিতে ১৬৫৬ সালের ২৩শে জুলাই প্রথম নামাজ আদায় করা হয়। সম্রাট শাহজাহান তাকে শাহী ইমাম উপাধী প্রদান করেন এবং ইমামত-এ-উজমার উচ্চ পদে নিয়োগ প্রদান করেন।

এরপর থেকে এই পদ বরাবরই বুখারি পরিবারের সদস্যরা দায়িত্ব পালন করছেন। মোগল শাসনের ইতি হওয়ার পরও বুখারি পরিবার বংশ পরম্পরায় নিজেরাই জামে মসজিদের ইমামের দায়িত্ব পালন করছেন।

সূচনালগ্ন থেকে এ পর্যন্ত জামে মসজিদের ইমামের দায়িত্ব পালন করা ইমামরা হলেন- সৈয়দ আব্দুল গফুর শাহ বুখারি, সৈয়দ আব্দুল শাকুর শাহ বুখারি, সৈয়দ আব্দুল রাহিম শাহ বুখারি, সৈয়দ আব্দুল গফুর শাহ বুখারি থানি, সৈয়দ আব্দুল রেহমান শাহ বুখারি, সৈয়দ আব্দুল কারিম শাহ বুখারি, সৈয়দ মীর জীবন শাহ বুখারি, সৈয়দ মীর আহমেদ আলী শাহ বুখারি, সৈয়দ মোহাম্মাদ শাহ বুখারি, সৈয়দ আহমেদ বুখারি, সৈয়দ হামিদ বুখারি, সৈয়দ আব্দুল্লাহ বুখারি, সৈয়দ আহমেদ বুখারি।

তবে সাম্প্রতিককালে দিল্লি জামে মসজিদের ইমাম পদ নিয়ে আপত্তি জানিয়েছে দিল্লির ওয়াকফ বোর্ড। বুখারি পরিবার জামে মসজিদকে নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রেখেছে এবং এই মসজিদকে পরিবারের সম্পত্তি হিসেবে দেখে বলে অভিযোগ দিল্লি ওয়াকফ বোর্ডের।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন
পুঁজিবাজার
ধর্ম ও জীবন6 hours ago

এক বৈঠকে পুরো কোরআন মুখস্ত শোনালো রাহাতুল ইসলাম

পুঁজিবাজার
সারাদেশ6 hours ago

সুন্দরবনে পথ হারানো ৩১ পর্যটককে উদ্ধার

বিআইসিএমে চাকরির সুযোগ, বেতন প্রায় দুই লাখ
ক্যাম্পাস টু ক্যারিয়ার7 hours ago

ইউনিয়ন পরিষদ সচিব পদে চাকরির সুযোগ

গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার সূচিতে ফের পরিবর্তন
ক্যাম্পাস টু ক্যারিয়ার7 hours ago

আগামীকাল শেষ হচ্ছে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার আবেদন

পুঁজিবাজার
ক্যাম্পাস টু ক্যারিয়ার7 hours ago

জনবল নিয়োগ দেবে মেঘনা গ্রুপ

পুঁজিবাজার
ক্যাম্পাস টু ক্যারিয়ার7 hours ago

ভিকারুননিসার গণিত শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত

পুঁজিবাজার
জাতীয়7 hours ago

বাংলাদেশকে সমৃদ্ধ ও নিরাপদে রাখতে পুলিশ সচেষ্ট থাকবে: রাষ্ট্রপতি

পুঁজিবাজার
অর্থনীতি7 hours ago

হিলিতে পাঁচ বছরে ৮৫ লাখ টন পণ্য আমদানি

পুঁজিবাজার
জাতীয়7 hours ago

সুগন্ধা সৈকতের নাম ‘বঙ্গবন্ধু বিচ’ করার প্রস্তাব বাতিল

পুঁজিবাজার
খেলাধুলা8 hours ago

ফের সাকিব-তামিম মহারণ, ফাইনালে কুমিল্লা

Advertisement
Advertisement

ফেসবুকে অর্থসংবাদ

২০১৮ সাল থেকে ২০২৩

অর্থসংবাদ আর্কাইভ

তারিখ অনুযায়ী সংবাদ

রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯