গুজরাটে আম্বানির বিনিয়োগ বাংলাদেশের বাজেটের চেয়েও বেশি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক প্রকাশ: ২০২২-০১-১৮ ১৪:১৭:২৯

জ্বালানি, টেলিযোগাযোগ, প্রযুক্তিসহ নানা খাতে বিনিয়োগের পর পরিবেশবান্ধব শিল্পায়নে নজর দিয়েছেন ভারত ও এশিয়ার শীর্ষ ধনী মুকেশ আম্বানি। এবার গুজরাট রাজ্যে একটি পরিবেশবান্ধব প্রকল্পে ৫ লাখ ৯০ হাজার কোটি রুপি (বাংলাদেশের ৬ লাখ ৮৮ হাজার কোটি টাকা বা ৮ হাজার কোটি মার্কিন ডলার) বিনিয়োগ করবে এই ধনকুবেরের প্রতিষ্ঠান রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ।

এ বিনিয়োগ বাংলাদেশের চলতি ২০২১–২২ অর্থবছরের বাজেটের চেয়ে প্রায় ৮৫ হাজার কোটি টাকা বেশি। বাংলাদেশের চলতি বাজেটের আকার ৬ লাখ ৩ হাজার ৬৮১ কোটি টাকা।

নতুন বিনিয়োগের লক্ষ্যে গত বৃহস্পতিবার গুজরাট রাজ্য সরকারের সঙ্গে একটি সমঝোতা স্মারক সই করেছে রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ। এই বিনিয়োগ পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হলে ভারতের পশ্চিমাঞ্চলের রাজ্যটি ২০৩৫ সালের মধ্যে শূন্য কার্বন নিঃসরণ লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করবে।

সাম্প্রতিক সময়ে পরিবেশবান্ধব প্রকল্প স্থাপনে আগ্রহ দেখিয়ে আসছেন মুকেশ আম্বানি। গত বছরের জুনে রিলায়েন্স গ্রুপ নবায়নযোগ্য জ্বালানি খাতে এক হাজার কোটি ডলার (বাংলাদেশের ৮৬ হাজার কোটি টাকা) বিনিয়োগের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছিল। এখন নতুন বিনিয়োগের ঘোষণার মধ্য দিয়ে এ ধরনের প্রকল্পগুলো নিয়ে তাঁর উচ্চাকাঙ্ক্ষার বিষয়টি আবার সামনে এল।

রিলায়েন্স জানিয়েছে, নতুন বিনিয়োগের মাধ্যমে গুজরাটে ১০ থেকে ১৫ বছরের মধ্যে একটি ১০০ গিগাওয়াট নবায়নযোগ্য বিদ্যুৎকেন্দ্র এবং সবুজ হাইড্রোজেন ইকোসিস্টেম তৈরি করা হবে। পাশাপাশি এই প্রকল্পের মাধ্যমে রাজ্যটিতে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে ১০ লাখ লোকের কর্মসংস্থান হবে। প্রকল্পটি রাজ্যের ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের (এসএমই) নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবন ও গ্রহণে উৎসাহিত করার ক্ষেত্রে একটি ইকোসিস্টেম বা আন্তসংযোগ গড়ে তুলবে।

বর্তমানে ভারতের মোট ৩৯২ গিগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের সক্ষমতা রয়েছে। এর মধ্যে গত নভেম্বর পর্যন্ত নবায়নযোগ্য জ্বালানির মাধ্যমে ১৫০ গিগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের সক্ষমতা তৈরি হয়েছে। এটি মোট বিদ্যুৎ উৎপাদন সক্ষমতার প্রায় ৪০ শতাংশ। দেশটির নবায়নযোগ্য জ্বালানির মাধ্যমে ২০৩০ সালের মধ্যে ৫০০ গিগাওয়াট এবং ২০৭০ সালের মধ্যে শূন্য কার্বন নিঃসরণ লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের পরিকল্পনা রয়েছে। বিনিয়োগের মাধ্যমে সেই পরিকল্পনার একটি বড় অংশীদার হতে চলেছে রিলায়েন্স।

ব্লুমবার্গ বিলিয়নিয়ারস ইনডেক্স অনুসারে, তাঁর সম্পদের বর্তমান মূল্য ৯ হাজার ২৯০ কোটি ডলার। বদৌলতে তিনি ভারত ও এশিয়ার এক নম্বর এবং বিশ্বের ১১তম শীর্ষ ধনী। আর গত ২০২১ সালে ফোর্বসের প্রকাশিত ‘বিশ্বের বৃহত্তম কোম্পানি’ শীর্ষক তালিকায় রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ ৭ হাজার ৩৮০ কোটি ডলার বা ৬ লাখ ৩৫ হাজার কোটি টাকার সম্পদমূল্য নিয়ে বিশ্বে ৫৫তম হয়েছে। সেই সঙ্গে রিলায়েন্স যে ভারতেরও শীর্ষ কোম্পানি, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। সূত্র: ফোর্বস ও এনডিটিভি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।