বছরের প্রথম পতনের দিন কমেছে লেনদেন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, অর্থসংবাদ.কম, ঢাকা প্রকাশ: ২০২২-০১-০৯ ১৫:০০:০৩, আপডেট: ২০২২-০১-০৯ ১৫:৫০:৫৩

সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে দেশের প্রধান শেয়ারবাজারে সূচকের পতনে লেনদেন শেষ হয়েছে। দর কমেছে বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারের। একই সঙ্গে লেনদেনও আগের কার্যদিবসের তুলনায় কমেছে।

চাঙাভাবে বছর শুরু করা শেয়ারবাজারে আজ সূচকের পতনে অবদান ছিল রবি আজিয়াটার। সঙ্গে ছিল আরও বেশ কয়েকটি কোম্পানি।

রোববার (৯ জানুয়ারি) ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সব সূচকেরই পতন হয়েছে। প্রধান সূচক ‘ডিএসই এক্স’ ৫৪ পয়েন্ট কমে বর্তমানে ৬ হাজার ৯৩২-এ অবস্থান করছে।

বাছাই করা কোম্পানিগুলোর সূচক ‘ডিএসই ৩০’ আজ কমেছে ২৩ পয়েন্ট। আর শরীয়াহভিত্তিক কোম্পানি নিয়ে গঠিত ‘ডিএসই এস’ কমেছে ৪ পয়েন্ট।

সব সূচকের পতনের দিন ডিএসইতে টাকার অংকে লেনদেনের পরিমাণও কমেছে। রোববার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে ১ হাজার ৪৬১ কোটি ৮ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। আগের দিন (বৃহস্পতিবার) লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ৬৮৩ কোটি ৪৭ লাখ টাকার।

সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে ডিএসইতে ৩৭৮টি কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এসব কোম্পানির মধ্যে দর বেড়েছে ৯৮টির, কমেছে ২৪৮টির। বাকি ৩২টি কোম্পানির শেয়ারদর আজ অপরিবর্তিত ছিল।

সূচকের পতনে অবদান যাদের
রোববার সূচকের পতনে সবচেয়ে বেশি ভূমিকা ছিল রবি আজিয়াটার। শুধুমাত্র এই প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারদর পতনের কারণে সূচক কমেছে ১৫ দশমিক ৯২ পয়েন্ট।

ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো, বেক্সিমকো এবং ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশের (আইসিবি) সূচক হারায় আরও ১২ দশমিক ৮১ পয়েন্ট।

ব্র্যাক ব্যাংক, ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স, পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি, বেক্সিমকো ফার্মা, জিপিএইচ ইস্পাত এবং এনআরবিসি ব্যাংকের কারণে সূচক কমেছে আরও ১১ দশমিক ৮৭ পয়েন্ট।

এই দশ কোম্পানির কারণে সূচক হারিয়েছে ৪০ পয়েন্ট।

বড় পতন ঠেকালো যারা
সূচকের পতনের দিনে বড় পতন ঠেকিয়েছে গ্রামীনফোন। কোম্পানিটির কারণে সূচকে যোগ হয়েছে প্রায় ৫ পয়েন্ট।

বসুন্ধরা পেপার মিলস্, ফরচুন সুজ এবং ওয়ালটন হাইটেকের কারণে সূচক পেয়েছে আরও ৪ দশমিক ০২ পয়েন্ট।

পদ্মা অয়েল, ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স, মেঘনা পেট্রোলিয়াম, আরএকে সিরামিকস,হাইডেলবার্গ সিমেন্ট এবং ইউনিলিভার কনজ্যুমার মিলে সূচক বাড়িয়েছে আরও ৪ দশমিক ৫৯ পয়েন্ট।

দরবৃদ্ধির শীর্ষে যারা
বেশিরভাগ কোম্পানির দরপতনের দিনও ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে চার কোম্পানির শেয়ারদর যতটুকু বৃদ্ধি পাওয়া সম্ভব ততটুকুই বেড়েছে। এর মধ্যে খুলনা প্রিন্টিংয়ের শেয়ারদর আজ ১০ শতাংশ বেড়েছে। কোম্পানিটি আজ ডিএসইর দরবৃদ্ধি তালিকার শীর্ষে জায়গা করে নিয়েছে।

দ্বিতীয় স্থানে থাকা বসুন্ধরা পেপারসের শেয়ারদর বেড়েছে ৯ দশমিক ৯৬ শতাংশ।

ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ৯ দশমিক ৯৫ শতাংশ এবং রংপুর ফাউন্ড্রির শেয়ারদর ৯ দশমিক ৯৪ শতাংশ বেড়েছে।

এছাড়াও, এমএমসিএল (প্রাণ), ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড, ন্যাশনাল টি, আনোয়ার গ্যালভানাইজিং, অ্যাপেক্স ফুড এবং লাভেলো আইস্ক্রিম আজ দরবৃদ্ধি তালিকার শীর্ষ দশে স্থান পেয়েছে।

দরপতনের শীর্ষে যারা
বেশিরভাগ কোম্পানির দরপতনের দিন সবচেয়ে বেশি কমেছে শ্যামপুর সুগার মিলের শেয়ারদর। আজ কোম্পানিটির শেয়ারদর কমেছে ৭ দশমিক ২৫ শতাংশ।

এছাড়াও আরএসআরএস স্টিল, এ আলম কোল্ডরোল্ড, ডেল্টা লাইফ, বিড়ি থাই, এনভয় টেক্সটাইল, সি পার্ল, জিবিবি পাওয়ার, ন্যাশনাল ফিড এবং মেঘনা পেট্রোলিয়াম আজ দরপতন তালিকায় শীর্ষ দশে অবস্থান করছে।

লেনদেনের শীর্ষে যারা

রোববার ডিএসইতে ১০৪ কোটি ৬৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে বেক্সিমকোর। কোম্পানিটি আজ ডিএসইর লেনদেনের শীর্ষস্থান দখল করে নিয়েছে।

তালিকার দ্বিতীয় স্থানে থাকা বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৮০ কোটি ৪৪ লাখ টাকার।

তৃতীয় স্থানে থাকা ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্সের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৬০ কোটি ১১ লাখ টাকার।

এছাড়াও লাফার্জ হোলসিমের ৫৫ কোটি ৪৩ লাখ টাকা এবং পাওয়ার গ্রিড কোম্পানির ৪৯ কোটি ২৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।