করোনার প্রকোপে একের পর এক ম্যাচ স্থগিত

স্পোর্টস ডেস্ক প্রকাশ: ২০২১-১২-১৭ ১১:৩৩:১৬

করোনার প্রকোপ আবারও বেশ ভালোভাবেই ফিরে এসেছে ফুটবলে। একের পর এক ম্যাচ স্থগিত হচ্ছে। গত সপ্তাহে টটেনহাম টানা দুই ম্যাচ বাতিল করতে বাধ্য হয়েছে। একই পথে হাঁটতে হয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকেও। ব্রেন্টফোর্ডের পর সূচিতে আগামীকালের জন্য নির্ধারিত ব্রাইটন ম্যাচটিও স্থগিত হয়ে গেছে তাদের। একই কারণে স্থগিত হয়েছে বার্নলি-ওয়াটফোর্ড ম্যাচটাও। প্রতিটি দলেই করোনা আঘাত হেনেছে।

বাদ পড়েনি লিভারপুলও। জানা গেছে, মূল একাদশের তিন গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় ভার্জিল ফন ডাইক, কার্টিস জোনস আর ফাবিনিও কোভিড-১৯ পজিটিভ হয়েছেন। তাই বলে লিভারপুলের ম্যাচটা যে স্থগিত হয়েছে, তা নয়। গত রাতে নিউক্যাসলের বিপক্ষে মাঠে নেমেছিল তারা। ফন ডাইক-ফাবিনিওরা না খেললেও বেশ হেসেখেলেই ম্যাচটা জিতে এসেছে অল রেডরা। জিতেছে ৩-১ গোলে। গোল করেছেন মোহাম্মদ সালাহ, দিয়োগো জোতা আর ট্রেন্ট আলেক্সান্ডার-আরনল্ড। তবে জয়টাতে বিতর্কমুক্ত থাকল না রেফারির দোষে।

এই জয়ের মাধ্যমে ইংল্যান্ডের শীর্ষ পর্যায়ের লিগে দুই হাজার ম্যাচ জেতা হয়ে গেল লিভারপুলের। এত বেশি ম্যাচ আর অন্য কোনো দল জেতেনি। দ্বিতীয় স্থানে থাকা আর্সেনাল জিতেছে ১৯২৭টি ম্যাচ। লিভারপুলের কোচ হিসেবে ১৫০ ম্যাচও জেতা হয়ে গেল ইয়ুর্গেন ক্লপের। লিভারপুলের আর কোনো কোচ এত দ্রুত ১৫০ ম্যাচ জয়ের স্বাদ পাননি।

তবে প্রথমে নিজেদের সাবেক এক খেলোয়াড়ের গোলে পিছিয়েই পড়েছিল লিভারপুল। আট মিনিটে নিউক্যাসলের ইংলিশ মিডফিল্ডার জনজো শেলভি দূর পাল্লার এক শট থেকে গোল করে এগিয়ে দেন দলকে। রয় হজসন আর কেনি ডালগ্লিশের অধীনে লিভারপুলেই খেলেছেন শেলভি।

তবে বেশিক্ষণ পিছিয়ে থাকতে হয়নি লিভারপুলকে। ২১ মিনিটেই দলকে সমতায় ফেরান পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড দিয়োগো জোতা। সাদিও মানের ক্রস থেকে জোতার হেড প্রথমে নিউক্যাসলের গোলকিপার মার্টিন দুবরাভকা আটকে দিলেও পরে জোতার দ্বিতীয় শট আটকাতে পারেননি এই স্লোভাক গোলকিপার। তবে এই গোল নিয়ে বিতর্কও ছড়িয়েছে বেশ।

লিভারপুলের কর্নার সামলাতে গিয়ে সতীর্থ সুইস ডিফেন্ডার ফাবিয়ান শার আর লিভারপুলের ডিফেন্ডার ইব্রাহিমা কোনাতের সঙ্গে সংঘর্ষে মাথায় হাত দিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন নিউক্যাসলের ইংলিশ মিডফিল্ডার আইজ্যাক হেইডেন। কিন্তু রেফারি মাইক ডিন ম্যাচ থামাননি। সে সুযোগেই বল চলে যায় মানের কাছে, সেখান থেকে কয়েক সেকেন্ড পর জোতার গোল।

নিউক্যাসলের ম্যানেজার এডি হাউ অবশ্য রেফারির ওই সিদ্ধান্ত নিয়েই চটেছেন, ‘ম্যাচের মোড় ঘুরে গেছে ওই ঘটনাতেই। আমি বুঝলাম না মাইক (রেফারি) কেন ম্যাচটা থামালেন না তখন। হেইডেন সঙ্গে সঙ্গে ওর মাথায় হাত দিয়ে পড়ে গিয়েছিল। যা দেখছিলাম, সেটা বিশ্বাসই হচ্ছিল না। আমার মনে হয়েছে এই ম্যাচে আমাদের সঙ্গে অন্যায় হয়েছে।’

বিতর্ক ছাপিয়ে লিভারপুল গোলের সুযোগ অবশ্য কম তৈরি করেনি। তবে গোল এসেছে মাত্র তিনটিই। ২৪ মিনিটে আবারও সালাহ-ঝলক। সাদিও মানের শট দুবরাভকা আটকে দিলেও পেছনে থাকা সালাহর শটটার জবাব ছিল না তাঁর কাছে। ৮৭ মিনিটে রাইটব্যাক ট্রেন্ট আলেক্সান্ডার-আরনল্ডের দূরপাল্লার শট ম্যাচের ভাগ্য পুরোপুরি নির্ধারণ করে দেয়। এ নিয়ে লিভারপুল ক্যারিয়ারের ৭০ শতাংশ গোলই বক্সের বাইরে থেকে করলেন আলেক্সান্ডার-আরনল্ড।

ওদিকে কোভিডের প্রকোপ দেখা দিয়েছে চেলসি শিবিরেও। রোমেলু লুকাকু, ক্যালাম হাডসন-ওডোয়, বেন চিলওয়েল আর টিমো ভেরনার কোভিড পজিটিভ হয়েছেন বলে ঘোষণা দিয়েছে ক্লাবটি। এই চারজনকে ছাড়াই গত রাতে এভারটনের বিপক্ষে মাঠে নেমেছিল তাঁরা। ম্যাচটি ড্র হয়েছে ১-১ গোলে। চেলসির হয়ে গোল করেছেন ইংলিশ মিডফিল্ডার ম্যাসন মাউন্ট, এভারটনের গোলটি ডিফেন্ডার জ্যারড ব্রান্থওয়াইটের।

এই ড্রয়ে শিরোপাদৌড়ে একটু পিছিয়ে পড়ল চেলসি। ১৭ ম্যাচে ৩৭ পয়েন্ট নিয়ে লিগে তৃতীয় টমাস টুখেলের দল। সমান ম্যাচ শেষে পয়েন্ট তালিকার দুই নম্বরে থাকা লিভারপুলের পয়েন্ট ৪০, শীর্ষে থাকা ম্যানচেস্টার সিটির ৪১।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।