সুপরিকল্পিত নগরায়ণে আধুনিক সভ্যতাকে এগিয়ে নিতে হবে

ডেস্ক রিপোর্টার প্রকাশ: ২০১৯-১২-২৭ ০২:৫৪:৪৯

গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, এমপি বলেছেন, “সুপরিকল্পিত নগরায়ণের মধ্য দিয়ে আধুনিক সভ্যতাকে এগিয়ে নিতে হবে। বিশ্বের কাছে বাংলাদেশের স্থাপত্য উন্নত ও সমৃদ্ধ হিসেবে তুলে ধরতে হবে।”

মঙ্গলবার (২৬ নভেম্বর ২০১৯) বিকেলে সচিবালয়ে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান কর্তৃক গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রীর নিকট পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্পের ‘এশিয়ান টাউনস্কেপ জুরি’স অ্যাওয়ার্ড ২০১৯’-এর ক্রেস্ট ও সনদপত্র হস্তান্তর অনুষ্ঠানে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ শহীদ উল্লা খন্দকার, অতিরিক্ত সচিব মোঃ হেমায়েত হোসেন, মোঃ ইয়াকুব আলী পাটওয়ারী, ড. মোঃ আফজাল হোসেন, মোঃ মনিরুজ্জামান ও মোঃ ইমরুল চৌধুরী, রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সদস্যবৃন্দ, সংশ্লিষ্ট প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক উজ্জ্বল মল্লিকসহ মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাগণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

গণপূর্ত মন্ত্রী আরো বলেন, “আন্তর্জাতিক অঙ্গণে প্রাপ্ত এ অ্যাওয়ার্ড বাংলাদেশের জন্য অত্যন্ত গুরত্বপূর্ণ অর্জন। অপূর্ব স্থাপত্য নকশার পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্প বহির্বিশ্বে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছে। এ প্রকল্প পরিকল্পিত নগরায়ণের ক্ষেত্রে মাইলফলক হয়ে থাকবে।”

অনুষ্ঠানে গণপূর্ত সচিব বলেন, “এ অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্তির মাধ্যমে বোঝা যায় আমরা সঠিক পথে আছি। এটি দেশের জন্য অত্যন্ত গৌরব ও সম্মানের। অপূর্ব স্থাপত্য নকশায় পূর্বাচল মডেল টাউন গড়ে উঠছে, যার স্বীকৃতি এ অ্যাওয়ার্ড।”

উল্লেখ্য, এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলে প্রতিবছর যে সকল শহর এবং প্রতিষ্ঠান টেকসই উন্নয়ন অভীষ্টসমূহ অর্জন এবং নিজস্ব ইতিহাস ও সংস্কৃতি রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে তাদের প্রচেষ্টাকে সম্মান জানানোর লক্ষ্যে এশিয়ান টাউনস্কেপ অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়। এ বছর এশিয়া প্যাসিফিকের ০৮টি দেশ হতে সর্বমোট ৩৬টি প্রকল্প এ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে।

গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্পটি ২০১৯ সালে এশিয়ান টাউনস্কেপ জুরি’স অ্যাওয়ার্ড অর্জন করেছে। অ্যাওয়ার্ড প্রদানের ক্ষেত্রে এ প্রকল্পের ভূমি ব্যবহার পরিকল্পনায় সুপরিকল্পিত প্লট বিন্যাস, পরিকল্পিত অবকাঠামোগত (রাস্তা, ব্রীজ, লেক) উন্নয়ন চিত্র, সামাজিক ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানসমূহের উন্নয়ন চিত্র ইত্যাদি বিষয়কে গুরুত্ব দেওয়া হয়। এছাড়াও এ প্রকল্পে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষার ক্ষেত্রে বনভূমি সংরক্ষণ, বৃক্ষরোপণ ও পার্ক, খেলার মাঠসহ উন্মুক্ত স্থানসমূহ এবং সর্বোপরী স্থানীয় জনগণকে সম্পৃক্ত করে পরিকল্পিত উন্নয়নের উপর গুরুত্বারোপ করা হয়।

এ প্রতিযোগিতায় চীন ০৩ (তিন) টি, জাপান ০৩ (তিন) টি, কোরিয়া ০৩ (তিন) টি ইন্দোনেশিয়া, ভারত ও মালয়েশিয়া ০১ (এক) টি করে অ্যাওয়ার্ড অর্জন করে। অ্যাওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠানটি ২২-২৩ নভেম্বর ২০১৯ তারিখে আয়োজক সংস্থা দি এসোসিয়েশন অব ল্যান্ডস্কেপ কনসালটেন্ট, হংকং কর্তৃক টেকনিক্যাল এন্ড হায়ার এডুকেশন ইনস্টিটিউট, হংকং এ অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোঃ ইয়াকুব আলী পাটওয়ারী, রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান ড. সুলতান আহমেদ এবং পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক উজ্জ্বল মল্লিক অংশগ্রহণ করেন।

প্রসঙ্গত, ফুকুওকা এশিয়ান আরবান রিসার্চ সেন্টার, এশিয়ান হ্যাবিটাট সোসাইটি এবং এশিয়ান টাউনস্কেপ ডিজাইন সোসাইটি এর সহায়তায় ইউএন-হ্যাবিটাট রিজিওনাল অফিস ফর এশিয়া এন্ড দি প্যাসিফিক প্রতি বছর এ অ্যাওয়ার্ড প্রদান করে।

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।