বড় পতনে সপ্তাহ শেষ, ১৩৭ কর্মদিবসের সর্বনিম্ন লেনদেন আজ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, অর্থ সংবাদ.কম, ঢাকা প্রকাশ: ২০২১-১১-২৫ ১৫:০৬:০২, আপডেট: ২০২১-১১-২৭ ১২:৪৭:১৮

ধারাবাহিক পতনের মধ্য দিয়েই সপ্তাহের শেষ কর্মদিবস পার করেছে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার। একই সঙ্গে ১৩৭ দিনের মধ্যে ( প্রায় সাত মাস) সর্বনিম্ন লেনদেনও হয়েছে আজ।

বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক আগের দিনের তুলনায় ৬৫ পয়েন্ট কমেছে। বর্তমানে ৬ হাজার ৮৫২ পয়েন্টে অবস্থান করছে ‘ডিএসই এক্স’।

প্রধান সূচকের ধারাবাহিক পতনেই শেষ হয়েছে সপ্তাহ। সপ্তাহের কর্মদিবসে (রোববার) বড় পতন শুরু হয়। সেদিন ‘ডিএসই এক্স’ হারিয়েছিল ৬৩ পয়েন্ট। গতকাল এ সূচক হারায় ৯৫ পয়েন্ট। চলতি সপ্তাহের পাঁচ কর্মদিবসে ধারাবাহিক পতনের কারণে ডিএসইর প্রধান সূচকটি মোট ২৩৯ পয়েন্ট হারিয়েছে।

প্রধান সূচকের সঙ্গে ডিএসইর অপর দুই সূচকেরও আজ পতন হয়েছে। শরীয়াহ ভিত্তিক কোম্পানিগুলো নিয়ে গঠিত ‘ডিএসই এস’ আজ ৯ পয়েন্ট কমেছে। আর বাছাই করা কোম্পানিগুলো নিয়ে গঠিত ‘ডিএসই ৩০’ কমেছে ২৮ পয়েন্ট।

আজ সূচকের পতনে বেশি অবদান ছিল ওয়ালটন হাই-টেক, বেক্সিমকো এবং ইউনাইটেড পাওয়ার গ্রিডের। এই তিন কোম্পানির কারণে সূচকের পতন হয়েছে ১৮ দশমিক ১৪ পয়েন্ট।

বেক্সিমকো ফার্মা, ডাচ-বাংলা ব্যাংক, ব্র‌্যাক ব্যাংক, স্কয়ার ফার্মা, আইএফআইস ব্যাংক, সিটি ব্যাংক ও পূবালী ব্যাংকের কারণে সূচক হারায় আরও ১৬ দশমিক ১৭ পয়েন্ট।

বড় পতনের দিন এই দশ কোম্পানি মিলে সূচক কমিয়েছে ৩৪ দশমিক ৩১ পয়েন্ট। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ব্যাংক খাতের পাঁচ কোম্পানির কারণে সূচক হারিয়েছে ১০ দশমিক ৬৭ পয়েন্ট।

সূচকের পতনের দিন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে টাকার অংকে লেনদেনও কমেছে। আগের দিনের তুলনায় লেনদেন কমেছে ২৮৯ কোটি টাকা। আজ ডিএসইতে ৮৪৯ কোটি ৭৭ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। দেশের প্রধান শেয়ারবাজারে টাকার অংকে এটি গত সাত মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন লেনদেন। এর আগে গত ২৭ এপ্রিল লেনদেন হয়েছিল ৯৪০ কোটি ৩২ লাখ টাকার। আর গতকাল (বুধবার) লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ১২৯ কোটি টাকার।

সপ্তাহের শেষ কর্মদিবসে দেশের প্রধান শেয়ারবাজারে মোট ৩৬২টি কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে ২৪১টি কোম্পানির শেয়ারদর আজ কমেছে। বেড়েছে ৮৯টির। আর ৩২টি কোম্পানির শেয়ারদর আজ অপরিবর্তিত ছিল।

বেশিরভাগ শেয়ারের দরপতনের দিন তিন কোম্পানির শেয়ারদর যতটুকু বৃদ্ধি পাওয়া সম্ভব ততটুকুই বেড়েছে। সেনাকল্যাণ ইন্স্যুরেন্সের শেয়ারদর আগের দিনের তুলনায় ৯ দশমিক ৯৪ পয়েন্ট বেড়েছে। একমি পেস্টিসাইডসের বেড়েছে ৯ দশমিক ৮৭ পয়েন্ট। আর সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজের শেয়ারদর বেড়েছে আগের দিনের তুলনায় ৯ দশমিক ৬৭ শতাংশ। গতকালও এই তিন কোম্পানির শেয়ারদর সর্বোচ্চ বৃদ্ধি পেয়েছিল। কোম্পানিগুলো আজ ডিএসইর টপটেন গেইনার তালিকার শীর্ষস্থানে জায়গা করে নিয়েছে।

বৃহস্পতিবার ডিএসইর টপটেন গেইনার তালিকার পাঁচ কোম্পানি

গেইনার তালিকার মধ্যে আনোয়ার গ্যালভানাইজিংয়ের ৬ দশমিক ৬৯ শতাংশ, নিউলাইন ক্লথিংয়ের ৬ দশমিক ০৪ শতাংশ, দেশ গার্মেন্টসের ৫ দশমিক ৮৬ শতাংশ, আমান ফিডের শেয়ারদর ৫ দশমিক ১৬ শতাংশ বেড়েছে।

এছাড়াও জেমিনি সি ফুড, সমতা লেদার এবং স্টাইল ক্রাফ্টও এদিন ডিএসই টপটেন গেইনার তালিকায় স্থান পেয়েছে।

দুই শতাধিক কোম্পানির দর পতনের দিন সবচেয়ে বেশি শেয়ারদর কমেছে এলআর গ্লোবাল ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ডের। এদিন শেয়ারটির দর আগের দিনের তুলনায় ৯ দশমিক ৮৭ শতাংশ কমেছে। শ্যামপুর সুগার মিলের শেয়ারদরও আজ ৯ দশমিক ৪১ শতাংশ কমেছে। কোম্পানি দুটি আজ ডিএসইর টপটেন লুজার তালিকার শীর্ষে অবস্থান করছে।

এছাড়াও ন্যাশনাল টি, কেডিএস এক্সেসরিজ, পেনিনসুলা চিটাগং, বেঙ্গল উইন্সর, ঢাকা ডাইং, বারাকা পাওয়ার, সিটি জেনারেল ইন্স্যুরেন্স এবং জনতা ইন্স্যুরেন্সও আজ টপপেন লুজার তালিকায় অবস্থান করছে।

প্রধান শেয়ারবাজারের মতো শেষ কর্মদিবসে অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) সূচকের পতনে লেনদেন শেষ হয়েছে। সিএসই সার্বিক সূচক ২০০ পয়েন্ট কমে বর্তমানে ২০ হাজার ৬৯ পয়েন্টে অবস্থান করছে। আজ সিএসইতে ৩৫ কোটি ৫৪ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।