জানুয়ারির মধ্যে বীমা শিক্ষার ভিডিও ক্লিপ না দেখালে জরিমানা

ডেস্ক রিপোর্টার প্রকাশ: ২০১৯-১২-২৭ ০১:৩৩:২৮

আগামী জানুয়ারির মধ্যে বীমা শিক্ষা ও বীমা পরিকল্প সম্পর্কিত ভিডিও ক্লিপ দেখাতে না পারলে সংশ্লিষ্ট বীমা কোম্পানিগুলোকে জরিমানা গুণতে হবে। বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। চলতি বছরের ৩ জুলাই এক মাসের বেশি সময় দিয়ে ভিডিও ক্লিপ তৈরির এ নির্দেশ জারি করে নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

গত ১৫ ডিসেম্বর বীমা কোম্পানিগুলোকে পাঠানো আইডিআরএ’র পৃথক কার্যবিবরণী অনুসারে, বীমা শিক্ষা ও বীমা পরিকল্প সম্পর্কে নাগরিকদের স্বচ্ছ ধারণা দিতে বেঁধে দেয়া সময়ের মধ্যে ভিডিও ক্লিপ তৈরি করতে পারেনি ১৯টি লাইফ ও নন-লাইফ বীমা কোম্পানি। এ ছাড়াও ১৮টির কোম্পানির তৈরি করা ভিডিও ক্লিপের মান গ্রহণযোগ্য হয়নি।

এদিকে ভিডিও ক্লিপ তৈরি করতে না পারা বীমা কোম্পানিগুলোর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, এরইমধ্যে তারা আইডিআরএ নির্দেশিত বীমা শিক্ষা ও বীমা পরিকল্প সম্পর্কিত ভিডিও ক্লিপ তৈরি করেছে। তবে বীমা কোম্পানিগুলোর তৈরি করা এসব ভিডিও মানসম্মত হয়েছে কিনা তা এখনো যাচাই করেনি নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইডিআরএ।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, বীমা শিক্ষা, বীমা পরিকল্পসমূহ সম্পর্কে স্বচ্ছ ধারণা এবং দাবি পরিশোধ বিষয়ক ভিডিও ক্লিপ তৈরি করতে গত ৩ জুলাই কোম্পানিগুলোকে নির্দেশ দেয় আইডিআরএ। ৭ আগস্টের মধ্যে এসব ভিডিও ক্লিপ তৈরি করতে বলা হয়। বাংলা ভাষায় তৈরি কোম্পানিগুলোর এসব ভিডিও স্ব স্ব ওয়েবসাইটে প্রদর্শন করার নির্দেশ দেয়া হয়। এরপর ৭টি বৈঠকে কোম্পানিগুলোর এসব ভিডিও ক্লিপ যাচাই করে আইডিআরএ।

গত ২৪ অক্টোবর থেকে ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত অনুষ্ঠিত এসব বৈঠকে বীমা কোম্পানিগুলোর ভিডিও মান যাচাই করা হয়। এ সময়ে দেশের ৭৮টি লাইফ ও নন-লাইফ বীমা কোম্পানির মধ্যে ৪১টির বীমা কোম্পানির তৈরি করা বীমা শিক্ষা বিষয়ক ভিডিও ক্লিপের মান গ্রহণযোগ্য বলে মনে হয়েছে। আর ১৮টি বীমা কোম্পানির ভিডিও ক্লিপের মান গ্রহণযোগ্য না হওয়ায় সেগুলোর মান আরো বাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছে আইডিআরএ।

তবে বাকী ১৯টি লাইফ ও নন-লাইফ বীমা কোম্পানি বীমা শিক্ষা ও বীমা পলিসি সম্পর্কিত কোন ভিডিও ক্লিপ তৈরি করেনি। অন্যদিকে বীমা পরিকল্প সম্পর্কিত ভিডিও ক্লিপ তৈরি করতে পেরেছে মাত্র ১৫টি বীমা কোম্পানি, যার মধ্যে ৭টি মানসম্পন্ন না হওয়ায় সেগুলো আরো ভালোভাবে প্রস্তুত করতে বলেছে আইডিআরএ। অর্থাৎ ৬৩টি লাইফ ও নন-লাইফ বীমা কোম্পানি নিজেদের বীমা পরিকল্প সম্পর্কিত কোন ভিডিও ক্লিপ তৈরি করেনি।

বীমা শিক্ষা ও বীমা পরিকল্পসমূহ সম্পর্কে স্বচ্ছ ধারণা দিতে ভিডিও ক্লিপ তৈরি করেনি যেসব লাইফ বীমা কোম্পানি- আলফা ইসলামী লাইফ, বায়রা লাইফ, গোল্ডেন লাইফ, এলআইসি অব বাংলাদেশ, স্বদেশ লাইফ, সোনালী লাইফ, সানফ্লাওয়ার লাইফ এবং সানলাইফ ইন্স্যুরেন্স। এ ছাড়াও জীবন বীমা করপোরেশন, ডেল্টা লাইফ, ডায়মন্ড লাইফ ও গার্ডিয়ান লাইফের ভিডিও ক্লিপ তৈরির কাজ চলছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

অন্যদিকে বীমা শিক্ষা ও বীমা পরিকল্পসমূহ সম্পর্কে স্বচ্ছ ধারণা দিতে ভিডিও ক্লিপ তৈরি করেনি যেসব নন-লাইফ বীমা কোম্পানি- এশিয়া প্যাসিফিক জেনারেল ইন্স্যুরেন্স, সেন্ট্রাল ইন্স্যুরেন্স, কন্টিনেন্টাল ইন্স্যুরেন্স, এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্স, ইসলামী কমার্শিয়াল ইন্স্যুরেন্স, ইসলামী ইন্স্যুরেন্স, রিপাবলিক ইন্স্যুরেন্স, সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্স, স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্স এবং পূরবী জেনারেল ইন্স্যুরেন্স।

এ ছাড়াও সাধারণ বীমা করপোরেশন, অগ্রণী ইন্স্যুরেন্স, এশিয়া ইন্স্যুরেন্স, বাংলাদেশ কো-অপারেটিভ ইন্স্যুরেন্স, বাংলাদেশ ন্যাশনাল ইন্স্যুরেন্স, ক্রিস্টাল ইন্স্যুরেন্স, ইস্টার্ন ইন্স্যুরেন্স, কর্ণফুলী ইন্স্যুরেন্স, মেঘনা ইন্স্যুরেন্স, রূপালী ইন্স্যুরেন্স, সাউথ এশিয়া ইন্স্যুরেন্স, তাকাফুল ইসলামী ইন্স্যুরেন্স, ইউনাইটেড ইন্স্যুরেন্স এবং নর্দার্ন জেনারেল ইন্স্যুরেন্সের ভিডিও তৈরি ও মানোন্নয়নের কাজ চলছে বলে জানিয়েছে।

এ বিষয়ে আইডিআরএ’র নির্বাহী পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) খলিল আহমদ বলেন, বেশিরভাগ বীমা কোম্পানি ভিডিও তৈরি করেছে। তবে অনেকের ভিডিও ক্লিপ সাধারণ মানুষের জন্য বোধগম্য মনে হয়নি। তাই তাদের ভিডিও ক্লিপ মানসম্মত করতে ১৫ দিন সময় দেয়া হয়েছিল। তবে সময়-সুযোগ না পাওয়ায় কোম্পানিগুলোর সঙ্গে আগামী জানুয়ারিতে বৈঠক করবে আইডিআরএ। তখন কোন কোম্পানি মানসম্মত ভিডিও ক্লিপ দেখাতে না পারলে জরিমানা করা হবে।

ভিডিও ক্লিপ তৈরির বিষয়ে সানলাইফ ইন্স্যুরেন্সের মূখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা একেএম শরীফুল ইসলাম বলেন, নানান কারণে আইডিআরএ নির্ধারিত সময়ের মধ্যে আমরা ভিডিও ক্লিপ তৈরি করতে পারিনি। তবে সময় বাড়ানোর পর আমাদের কোম্পানির বীমা পরিকল্প সমহূ এবং বীমা শিক্ষা বিষয়ে ভিডিও ক্লিপ তৈরি করা হয়েছে। আমাদের প্রতিষ্ঠানের আইটি বিভাগে যারা দায়িত্বে আছেন তারা এসব ভিডিও’র বিষয়ে ভালো বলতে পারবেন।

এ বিষয়ে লাইফ ইন্স্যুরেন্স করপোরেশন অব বাংলাদেশের মূখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা অরুপ দাস গুপ্ত বলেন, আইডিআরএ নির্দেশিত ভিডিও ক্লিপগুলো প্রথমে তৈরি করতে পারিনি। তবে সময় বাড়ানোর পর সেগুলো তৈরি করা হয়েছে। ভিডিওগুলো এখন আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে। যেকেউ চাইলে আমাদের এসব ভিডিও দেখতে পারবে।

ভিডিও ক্লিপ তৈরির বিষয়ে এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্সের কোম্পানি সচিব লিয়াকত আলী বলেন, বীমা শিক্ষা এবং বীমা পরিকল্প সম্পর্কিত ভিডিও ক্লিপ আমরা তৈরি করা হয়েছে। তবে প্রথমে বেঁধে দেয়া সময়ে আমরা এই ভিডিও তৈরি করতে পারিনি। পরবর্তীতে সময় বাড়ানো হলে আমরা ভিডিও ক্লিপ তৈরি করেছি।

উল্লেখ্য, গত ৩ জুলাই বীমা কোম্পানিগুলোকে পাঠানো চিঠিতে ভিডিও ক্লিপে কী কী বিষয় থাকতে হবে তাও নির্ধারণ করে দেয় আইডিআরএ। এসব বিষয়ের মধ্যে রয়েছে- বীমা কী এবং কেন প্রয়োজন; বীমা করলে কী কী সুবিধা; বীমা করার ধাপসমূহ কী কী; প্রিমিয়াম কী; মোট বীমা অংক কী; প্রিমিয়ামের হার কিভাবে নির্ধারণ করা হয়; বীমা পরিকল্প কী;

লাভজনক/ অলাভজনক/ টার্ম পরিকল্প কী; আপনার প্রতিষ্ঠানে কী কী পরিকল্প রয়েছে; বীমা চুক্তি কী; বীমা প্রস্তাব কী; বীমা চুক্তি করতে হলে বীমা গ্রাহককে কী কী তথ্য ও কাগজপত্র দিতে হয়; বীমা গ্রাহককে কী কী বিষয় যাচাই করতে হয়; প্রিমিয়াম কেন বিনিয়োগ করা হয়; এজেন্ট কী এবং এজেন্টের কাজ কী; সার্ভেয়ার কী এবং কী কাজ করে; বীমাকারী কিভাবে বীমা দাবি পরিশোধ করে;

বীমাকারী কখন গ্রাহককে বীমা দাবির সাথে বোনাস প্রদান করে; তামাদি পলিসি কী এবং কেন তামাদি হয়; পলিসি তামাদি হলে গ্রাহকের কী ক্ষতি; সার্ভাইভাল বেনিফিট এবং পেইড-আপ পলিসি কী; কম্প্রিহেনসিভ ও থার্ডপার্টি মটর ইন্স্যুরেন্স কী এবং কোনটির কী কী সুবিধা রয়েছে; রিইন্স্যুরেন্স কী এবং এর সুবিধা কী; বীমা দাবি প্রাপ্তির আইনগত অধিকার কিভাবে প্রতিষ্ঠিত হয়;

বীমা দাবি প্রাপ্তির জন্য গ্রাহককে কী কী করতে হবে; ন্যায্য বীমা দাবি নির্দিষ্ট সময় সীমার মধ্যে পরিশোধ না করলে বীমকারী কী হারে সুদসহ দাবি পরিশোধ করবে; ক্ষতিগ্রস্ত গ্রাহক প্রতিকারের জন্য কোথায় কোথায় অভিযোগ দাখিল করবে এবং বীমাকারীকে তার প্রতিষ্ঠান হতে প্রদত্ত প্রত্যেক পলিসি/ পরিকল্পের সুবিধাসমূহের স্পষ্ট বর্ণনা করতে হবে ওই ভিডিও ক্লিপে।

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।