বৈধ-অবৈধ নিয়ে দুশ্চিন্তা নেই, চলবে সব হ্যান্ডসেট

নিউজ ডেস্ক, অর্থসংবাদ.কম, ঢাকা প্রকাশ: ২০২১-১০-২৪ ১০:৫৮:৫৬, আপডেট: ২০২১-১০-২৪ ১০:৫৯:৫১

বৈধ-অবৈধ নিয়ে দুশ্চিন্তা নেই, চলবে সব হ্যান্ডসেট

ছবি: সংগৃহীত

মোবাইল হ্যান্ডসেট বৈধ না অবৈধ, নেটওয়ার্কে চলবে কি চলবে না- এই দুশ্চিন্তা আর থাকছে না। এখন হতে দেশের মোবাইল নেটওয়ার্কে আসা কোনো হ্যান্ডসেট বন্ধ হচ্ছে না। বিটিআরসির ন্যাশনাল ইকুইপমেন্ট আইডেন্টিটি রেজিস্টারে (এনইআইআর) সব হ্যান্ডসেট স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিবন্ধন হয়ে যাবে। ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ এই সিদ্ধান্ত নিয়ে বিটিআরসিকে তা দ্রুত বাস্তবায়ন করতে বলেছে। ইতোমধ্যে বিটিআরসি তা কার্যকরের উদ্যোগ নিয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেওয়া এক পোস্টেও এমনটাই জানিয়েছেন। তিনি একটি ওয়েব লিংক শেয়ার করেন, যার শিরোনাম ছিল- “বৈধ-অবৈধ নিয়ে দুশ্চিন্তা নেই, দেশের মোবাইল নেটওয়ার্কে চলবে সব হ্যান্ডসেট”।

ছবি: সংগৃহীত

এর আগে ১ অক্টোবর হতে বিটিআরসি অবৈধ হ্যান্ডসেটের সংযোগ বিচ্ছিন্নকরণের চূড়ান্ত নোটিশ দিয়েছিলো।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার জানান, ডিজিটাল বাংলাদেশে প্রযুক্তি ডিভাইস ব্যবহারে জনগণের কোনো ভোগান্তি হতে দেওয়া যায় না।

তিনি বলেন, দেশের মোবাইল নেটওয়ার্কে কোনো হ্যান্ডসেট চালু হলে তা বন্ধ করে দেয়া হবে না। বিটিআরসির কাজ ছিলো দেশে সচল সব হ্যান্ডসেটের বিস্তারিত ডেটাবেইজ রাখা, সেটা সফলভাবে করা হচ্ছে।‘দেশের বাইরে হতে কেনো হ্যান্ডসেট এলে সেটি হতে ভ্যাট-ট্যাক্স আদায়ের কাজটি এনবিআরের। এনবিআর চাইলে বিটিআরসি ভ্যাট-ট্যাক্স ফাঁকি দিয়ে আনা হ্যান্ডসেটের তালিকা দিয়ে দেবে।’ বলছিলেন মন্ত্রী।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, এছাড়া হ্যান্ডসেটটি কীভাবে এসেছে সেটি প্রয়োজন মনে করলে এনবিআর-আইনশৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনী দেখতে পারে।

প্রসঙ্গত, বর্তমানে দেশে মোবাইল ফোন গ্রাহক প্রায় ১৭ কোটি ৪১ লাখ। প্রতিবছর প্রায় দেড় কোটি মোবাইল হ্যান্ডসেট আমদানি এবং প্রায় দুই কোটি মোবাইল ফোন দেশেই সংযোজিত হচ্ছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।