বিআইসিএমের ‘এক্সপেন্ডিং দ্য ইনভেস্টমেন্ট হরিজন: গ্রিন বন্ড এন্ড সুকুক’ শীর্ষক সেমিনার

নিউজ ডেস্ক, অর্থ সংবাদ.কম, ঢাকা প্রকাশ: ২০২১-১০-১২ ১১:২৯:৩৯

বিশ্ব বিনিয়োগকারী সপ্তাহ উপলক্ষে ‘এক্সপেন্ডিং দ্য ইনভেস্টমেন্ট হরিজন: গ্রিন বন্ড এন্ড সুকুক’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার (১১ অক্টোবর) সকালে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ক্যাপিটাল মার্কেট (বিআইসিএম) এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। ইনস্টিটিউটের নির্বাহী প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ড. মাহমুদা আক্তার এ আয়োজনের উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বিআইসিএম এর ডেপুটি রেজিস্ট্রার আসিফ ইমরান।

অনুষ্ঠানে ‘লাভারেজিং সাসটেইনেবল ফাইন্যান্স থ্রো ডেভলোপিং এ গ্রিন বন্ড ইকোসিস্টেম ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনা করেন বিআইসিএমের প্রভাষক সাগিরা সুলতানা প্রভাতি। এতে দেখানো হয় গত এক দশক ধরে টেকসই অর্থায়নের ক্ষেত্রে গ্রীন বন্ড অন্যতম একটি উদ্ভাবন এবং গ্রীন বন্ড বাংলাদেশের ভবিষ্যতের উন্নয়নে সবচেয়ে উপযুক্ত অর্থায়নের হাতিয়ার হিসাবে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করতে পারে। বর্তমান পলিসি পেপারটিতে বাংলাদেশের গ্রীন অর্থায়নের বর্তমান অবস্থা অনুসন্ধানের পাশাপাশি বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে গ্রীন বন্ড ইস্যু করার লক্ষে একটি সম্পূর্ণ পদ্ধতিগত কাঠামো প্রস্তাবন করা হয়। গবেষণায় বাংলাদেশে গ্রীন বন্ডের বাজার উন্নয়নের ক্ষেত্রে চ্যালেঞ্জসমূহ চিহ্নিত করা হয় এবং গ্রীন বন্ডের মাধ্যমে টেকসই অর্থায়ন সংক্রান্ত বেশ কয়েকটি নীতিমালা প্রণয়নের পরামর্শ দেয়া হয়। বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) পুঁজিবাজারে গ্রীন বন্ড ও ব্লু বন্ড চালু করার জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে, এমন সময়ে পলিসি পেপারটি বাংলাদেশে গ্রীন বন্ড ইস্যু সংক্রান্ত নীতিমালা প্রণয়নের ক্ষেত্রে কার্যকর ভুমিকা রাখতে পারে।

উপস্থাপনায় ‘সুকুক: এ নিউ ইনভেস্টমেন্ট এভিনিউ ফর ইনভেস্টর ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনা করেন ইনস্টিটিউটের প্রভাষক এস. এম. কালবীন ছালিমা। এই উপস্থাপনায় বিনিয়োগকারীদের দিক থেকে সুকুকে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে সম্ভাব্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলি তুলে ধরার সাথে সাথে প্রতিষ্ঠানগুলো কোন কোন প্রজেক্ট অর্থায়নের জন্য কেমন সুকুক ইস্যু করতে পারে সেই ব্যাপারে আলোকপাত করা হয়। নিজ দেশের নতুন প্রবর্তিত সুকুক মার্কেট নিয়ে কথা বলার সাথে সাথে প্রাসঙ্গিকতা দেখানোর জন্য বৈশ্বিক উদাহরণ তুলে ধরা হয়। সেই সাথে “টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য”-এর কোন কোন লক্ষ্য অর্জন সুকুক অর্থায়নের মাধ্যমে করা যায় সেই ব্যাপার নিয়ে আলোচনা করা হয়। বর্তমানে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) পুঁজিবাজারে টেকসই অর্থায়ন সংক্রান্ত কাজের অংশ হিসেবে সুকুক ইস্যুকেও উৎসাহিত করছে। উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ডিসেম্বরে বাংলাদেশে প্রথম সুকুক (সার্বভৌম সুকুক) ইস্যু করা হয় এবং সম্প্রতি প্রথম কর্পোরেট সুকুক (গ্রীন সুকুক) এর সাবস্ক্রিপশন চলমান।

এছাড়াও, উপস্থিত অতিথিদের প্রশ্নোত্তর পর্ব শেষে বিআইসিএমের পরিচালক (স্টাডিজ) ওয়াজিদ হাসান শাহ্‌ আয়োজনের সাথে জড়িত সকলকে এবং আমন্ত্রিতদের ধন্যবাদ জানিয়ে সেমিনারটির সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।