‘নতুন ট্রেক শেয়ারবাজারকে শক্তিশালী করবে’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, অর্থসংবাদ.কম, ঢাকা প্রকাশ: ২০২১-০৯-০৪ ১৮:১৮:২৭, আপডেট: ২০২১-০৯-০৪ ১৯:০০:৪৩

‘নতুন ট্রেক শেয়ারবাজারকে শক্তিশালী করবে’

ছবি: সংগৃহীত

‘আজকে আমাদের পরিবারে নতুন ৫২ জন ট্রেকহোল্ডার অন্তর্ভুক্ত হচ্ছে। এটা আমাদের শেয়ারবাজারকে আরো অনেক শক্তিশালী করবে। যেসব সদস্য অনেকদিন পরে আসলেন, একটা পরিবারের জন্য এটা আনন্দের সংবাদ।’

শনিবার (৪ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর নিকুঞ্জে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) নিকুঞ্জ টাওয়ারের মাল্টিপারপাস হলে নতুন ট্রেকহোল্ডারদের সনদ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলাম।

মোনার্ক হোল্ডিংসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী সাদিয়ার নিকট ট্রেক সনদ হস্তান্তর করছেন বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম।

সনদ বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ডিএসই চেয়ারম্যান ইউনুসুর রহমান। এসময় ডিএসইর পরিচালক মো. রকিবুর রহমান, শাহজাহান খান, সালমা নাসরিন, ব্যবস্থাপনা পরিচালক তারিক আমিন ভূঁইয়া ও ডিবিএ’র সভাপতি শরিফ আনোয়ার হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

ট্রেক সনদ হস্তান্তর করছেন বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম।

এছাড়া অনুষ্ঠানে ডিএসই’র বিভিন্ন ট্রেকহোল্ডাররাসহ নতুন সদস্য হওয়া ট্রেকের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলাম বলেন, ‘আজকে আমরা খুবই আনন্দিত। আমরা শেয়ারবাজারকে নিয়ে কাজ করছি। আমরা শেয়ারবাজারকে একটা উচ্চতায় নিয়ে যেতে চেষ্টা করছি। যে উচ্চতা বাংলাদেশের শেয়ারবাজার ডিজার্ভ করে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ অর্থনীতি একটি অনণ্য উচ্চতায় যাওয়র পথে রয়েছে। এখানে সবার স্বল্প বা বৃহৎ অবদান রয়েছে। তাই আমাদের সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে।’

ট্রেক সনদ হস্তান্তর করছেন বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম।

এসময় তিনি আরও বলেন, ‘পরিবারে যারা বয়জ্যেষ্ঠ বা পুরোনো সদস্য রয়েছেন, তারা নতুনদের সুন্দরভাবে দিকনির্দেশনা দেবেন, সাহায্য করবেন। আর যারা নতুন আসলেন, তারা শিখবেন, জানবেন এবং বুঝবেন। সবার সহযোগিতার মাধ্যমে নতুনরাও যেন মার্কেটে ভালো করতে পারে, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।’

বিএসইসি চেয়ারম্যান বলেন, ‘‘শেয়ারবাজারে দেশের অর্থনীতিতে বড় ধরনের ভূমিকা রাখে। শেয়ারবাজারকে অনেক সময় ভুল বুঝে অনুৎপাদনশীল খাত বলে থাকে। আমি অনেক জায়গায় বলেছি, আমাদের প্রাইমারি মার্কেট, সেকেন্ডারি মার্কেট, বন্ড মার্কেট, আমাদের ডেরিভিটিভ মার্কেট আছে। আমরা প্রাইমারি ও বন্ড মার্কেটের মাধ্যমে ব্যবসা সম্প্রসারণ ও বিভিন্ন রকমের সহযোগিতা করে উৎপাদনশীল খাতগুলোর কার্যক্রমে সহযোগিতা করছি। তাদের ব্যবসা বাণিজ্যকে দেশ থেকে দেশান্তরে এবং দেশের ভেতরে ব্যবসা সম্প্রসারণে সহযোগিতা করছি, যা সবই তো উৎপাদশীল খাতে যাচ্ছে। তাহলে এখানে অনুৎপাদনশীল কথাটা কেন আসছে?

‘তাই আমরা আমাদের কাজ করে যাবো। সমালোচকরা তাদের কাজ করে যাবে, এটাই স্বাভাবিক। আমাদের যেটুকু সময় আছে, বিবেকের কাছে জবাবদিহিতার সঙ্গে করে কাজ করে যাবো। কেউ যদি বাধা দেওয়ার চেষ্টা করে বা সমালোচনা করে বা না বুঝে কিছু বলে- সেদিকে কর্ণপাত করে আমরা সময় নষ্ট করবো না।”

ট্রেকহোল্ডারদের সাথে বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম।

ট্রেকহোল্ডারদের উদ্দেশ্যে বিএসইসি চেয়ারম্যান বলেন, ‘‘মানুষের অনেক কষ্টের সঞ্চয় রয়েছে। যেটা আপনাদের কাছে দিয়ে যায়। সেটাকে রক্ষা করা এবং তার বিনিময়ে যে তাদের রিটার্ন পাওয়ার অধিকার আছে। কিন্তু অনেক সময় দেখা অনেকে রিটার্ন তো পায় না। বরং প্রিন্সিপালটাও ফেরত পায় না। এ ঘটনা যদি কোথাও ঘটে তাহলে সে মার্কেটে আর কেউ আসবে না। আর তারা না আসলে এ মার্কেট আস্তে আস্তে ছোট হয়ে যাবে, মরে যাবে। তাই আমাদেরকে এ বিষয়ে অনেক কঠোর থাকতে হচ্ছে।’’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।