Connect with us

অর্থনীতি

করের আওতা বাড়লে হার কমানো সম্ভব

Published

on

আমাদের জিডিপিতে করের অবদান খুবই কম এবং যত বেশি করের আওতা বাড়ানো যাবে, ততই করের হার কমানো সম্ভব হবে এবং এটি আমাদের ব্যবসা পরিচালনা ব্যয় হ্রাসে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে। গত অর্থবছরে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড প্রায় ৫৫ হাজার নতুন করদাতাকে করের আওতায় নিয়ে আসতে পেরেছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগবিষয়ক উপদেষ্টা সালমান ফজলুর রহমান।

সম্প্রতি ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই) আয়োজিত ‘বাংলাদেশের প্রতিযোগিতার সক্ষমতা: ব্যবসা পরিচালন সূচকে অন্যতম অনুষঙ্গ’ শীর্ষক ওয়েবিনারে এ কথা বলেন তিনি। ওই ওয়েবিনারে আইন ও বিচার বিভাগের সচিব মো. গোলাম সারওয়ার বিশেষ অতিথি হিসেবে যোগদান করেন।

সালমান ফজলুর রহমান বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে দেশের সব বন্দরের সক্ষমতা বেড়েছে, তবে এক্ষেত্রে আরো উন্নয়নের জন্য আমাদের চেষ্টা অব্যাহত থাকবে। দেশে ব্যবসা-বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্প্র্রসারণে সরকার বেশকিছু প্রয়োজনীয় সংস্কারের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করেছে এবং আগামীতে তা অব্যাহত থাকবে। তিনি আশা প্রকাশ করেন, বিডার ওএসএস সেবা পুরোদমে চালু হলে ব্যবসা কার্যক্রম পরিচালনা আরো সহজতর হবে।

উপদেষ্টা আরো বলেন, সরকার গৃহীত বৃহৎ অবকাঠামো প্রকল্প যেমন বে টার্মিনাল, মাতারবাড়ী গভীর সমুদ্রবন্দর, কক্সবাজার দ্বিতীয় বৃহত্তম বিমানবন্দর, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রেল যোগাযোগসহ পদ্মা সেতুর মতো বৃহৎ প্রকল্পগুলোর কাজ সম্পন্ন হলে আমাদের অর্থনীতিতে যুগান্তকারী পরিবর্তন পরিলক্ষিত হবে। সামনের দিনগুলোতে বৈশ্বিক প্রতিযোগিতা মোকাবেলার জন্য সরকার মানবসম্পদের দক্ষতা উন্নয়নে এবং গবেষণা ও উন্নয়ন কার্যক্রমে আরো বেশি হারে গুরুত্বারোপসহ বিশেষ বরাদ্দ বৃদ্ধির পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে।

Nogod-22-10-2022

মামলা পরিচালনার দীর্ঘসূত্রতা নিরসনকল্পে ‘মামলার সময় ব্যবস্থাপনা’ উন্নয়নের প্রতি জোর দিয়ে তিনি বলেন, সরকার অনেক সময় বিভিন্ন সংস্কার কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা সত্ত্বেও ব্যাংক, ব্যবসায়ীসহ সংশ্লিষ্ট মহলের কাছে তা যথাসময়ে না পৌঁছানোর জন্য জরিপের সময় কম পয়েন্ট পেতে হয়। এতে সংস্কার করেও তেমন লাভ হয় না। তিনি এজন্য যেকোনো সংস্কারের সংবাদ দ্রুততম সময়ে ব্যবসায়ী মহলসহ সব স্তরে যেন সবাই প্রচার করে তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

ওয়েবিনারের স্বাগত বক্তব্যে ডিসিসিআই সভাপতি রিজওয়ান রাহমান বলেন, বাংলাদেশে বাণিজ্যবিষয়ক বিরোধ নিষ্পত্তিতে সাধারণ প্রায় চার বছর সময় লেগে যায়, তবে পৃথিবীর অনেক দেশ বাণিজ্যবিষয়ক আইনি প্রক্রিয়ার এ ধরনের দীর্ঘসূত্রতা হ্রাসকরণে সংশ্লিষ্ট আইনের যথাযথ প্রয়োগ, কোর্ট কার্যক্রমের অটোমেশন, ইলেকট্রনিক পেমেন্ট সিস্টেমের প্রবর্তন, বিশেষায়িত বাণিজ্যিক কোর্ট চালুকরণ এবং এডিআর কার্যক্রম সম্প্রসারণের ওপর অধিক হারে জোরারোপ করছে।

তিনি উল্লেখ করেন, ২০১৯ সালে প্রকাশিত ‘বৈশ্বিক প্রতিযোগিতার সূচক’-এ বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ১০৫ এবং প্রতিবেদনে এলডিসিভুক্ত দেশগুলোর সক্ষমতা বাড়ানোর ওপর জোরারোপ করা হয়। প্রতিযোগিতার সক্ষমতার সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান উন্নয়নে বেসরকারি খাতের অংশগ্রহণে উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন জাতীয় স্টিয়ারিং কমিটি গঠনের প্রস্তাব করেন ঢাকা চেম্বারের সভাপতি এবং বাণিজ্য বিরোধ নিষ্পত্তিতে আরো অধিক হারে এডিআর ব্যবহারকে উৎসাহিত করার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, প্রতিযোগী সক্ষমতায় উন্নতি প্রবৃদ্ধি, রফতানি বহুমুখীকরণ এবং কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে ভূমিকা রাখবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সচিব মো. গোলাম সারওয়ার বলেন, ব্যবসা পরিচালনার সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান উন্নয়নে সরকার এরই মধ্যে বেশকিছু পদক্ষেপ বাস্তবায়ন করেছে। আরবিট্রেশন, ব্যবসায়িক চুক্তি বাস্তবায়ন এবং দেউলিয়াত্ব প্রভৃতি বিষয়ে দেশের বেসরকারি খাতকে সরকারের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় নীতি সংস্কার সহায়তা প্রদান করা হবে। বাণিজ্য বিরোধবিষয়ক মামলা পরিচালনায় ই-জুডিশিয়ারি প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে, যার আওতায় ই-ফাইলিং, প্রমাণাদি সংরক্ষণে ডিজিটাল ব্যবস্থার প্রবর্তন করা হবে, ফলে এ ধরনের বিরোধ দ্রুততম সময়ে নিষ্পত্তি করা সম্ভব হবে।

ওয়েবিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন, সাত্তার অ্যান্ড কোং-এর প্রধান মো. সামির সাত্তার। তিনি বলেন, কোম্পানিগুলোর বাণিজ্য বিরোধ নিষ্পত্তির সময়সীমা কমানোর লক্ষ্যে ‘সিভিল প্রসিডিউর কোড (সিপিসি)’-এর সংস্কার একান্ত জরুরি, সেই সঙ্গে মামলার ক্ষেত্রে ই-ফাইলিং প্রক্রিয়া ও কোর্ট ফি প্রদানের ক্ষেত্রে ই-পেমেন্ট ব্যবস্থার প্রবর্তন, ইলেকট্রনিক কেস ম্যানেজমেন্ট প্রভৃতি চালু করা যেতে পারে। ব্যবসা পরিচালন সূচকে দেউলিয়ার বিরোধ নিষ্পত্তির বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে, সে লক্ষ্যে একটি রেগুলেটরি ফ্রেমওয়ার্ক গঠনের প্রস্তাব করেন। তিনি উল্লেখ করেন, বাংলাদেশে বাণিজ্য বিরোধ ইস্যুগুলোর সমাধানের গতি আনায়নের আরবিট্রেশন, মিডিয়েশন এবং লিটিগেশন প্রভৃতি বিষয়ের ওপর আরো অধিক হারে গুরুত্বারোপ করা প্রয়োজন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের ফরেন এক্সচেঞ্জ ইনভেস্টমেন্ট বিভাগের মহাব্যবস্থাপক জগন্নাথ চন্দ্র ঘোষ, বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) পরিচালক জীবন কৃষ্ণ সাহা রয়, জেট্রো বাংলাদেশের প্রতিনিধি কাজিমুরি ইয়ামাডা, প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের চেয়ারম্যান এবং সিইও আহসান খান চৌধুরী এবং ওরিক্স বায়ো-টেক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডেভিড বাও ওয়েবিনারে আলোচক ছিলেন।

তারা বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংক এরই মধ্যে বেশকিছু সংস্কার কার্যক্রম গ্রহণ করেছে, যার মধ্যে বিদেশী কোম্পানিগুলোর মুনাফা নিজ দেশে নিয়ে যাওয়ার অনুমোদন, বাংলাদেশে ইন্টারন্যাশনাল ফ্যাক্টরিংয়ের কার্যক্রম চালুকরণ প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য। আলোচকরা ভ্যাট ব্যবস্থাপনা, বন্দরগুলোর সক্ষমতা বৃদ্ধি ও কাস্টমস ব্যবস্থাপনার উন্নয়ন, বন্ড প্রবর্তন প্রভৃতি বিষয়ের ওপর জোরারোপ করেন। পাশাপাশি বাণিজ্যবিষয়ক আইনগুলোর প্রয়োজনীয় সংস্কার, স্থলবন্দরগুলোতে সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি এবং ব্যাংক পরিষেবা বাড়ানোর প্রস্তাব করেন।

মুক্ত আলোচনায় চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের চেয়ারম্যান আসিফ ইব্রাহীম বলেন, ব্যবসা-বাণিজ্য ও বিনিয়োগসংশ্লিষ্ট সব মন্ত্রণালয় ও সংস্থার সমন্বয় খুবই জরুরি, সেই সঙ্গে ব্যবসা পরিচালনার সূচকের উন্নয়নে সরকার ও বেসরকারি খাতকে একযোগে কাজ করতে হবে।

ডিসিসিআইয়ের ঊর্ধ্বতন সহসভাপতি এনকেএ মবিন এফসিএস, এফসিএ ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। ঢাকা চেম্বারের সহসভাপতি মনোয়ার হোসেনসহ ঢাকা চেম্বারের পরিচালনা পর্ষদের সদস্যরা এ ওয়েবিনারে যোগদান করেন।

শেয়ার করুন:
বিজনেস নিউজ পোর্টাল অর্থসংবাদে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Advertisement

অর্থনীতি

এডিবি থেকে ২ হাজার কোটি টাকা পেল বাংলাদেশ

Published

on

এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি) বাংলাদেশকে ২০ কোটি মার্কিন ডলার ঋণ দিয়েছে। বাংলাদেশি মুদ্রায় এর পরিমাণ ২ হাজার ৭৩ কোটি ৮০ লাখ টাকা।

মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) নগরীরর শেরে বাংলানগর এনইসি সম্মেলন কক্ষে বাংলাদেশ সরকার এবং এডিবির মধ্যে এ ঋণচুক্তি সই হয়েছে।

মাইক্রো এন্টারপ্রাইজ ফাইন্যান্সিং অ্যান্ড ক্রেডিট অ্যানহ্যান্সমেন্ট প্রকল্পের আওতায় ২০ কোটি ডলারের ঋণচুক্তি ও প্রকল্পচুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে ঋণচুক্তিতে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সচিব শরিফা খান এবং এডিবির পক্ষে প্রতিষ্ঠানটির কান্ট্রি ডিরেক্টর এডিমন গিনটিং চুক্তিতে সই করেন।

Nogod-22-10-2022

বাংলাদেশ আবাসিক মিশন প্রকল্পচুক্তিতে সরকার কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত শীর্ষ আর্থিক প্রতিষ্ঠান পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশনের (পিকেএসএফ) ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. নমিতা হালদার এবং এডিবির কান্ট্রি ডিরেক্টর এডিমন গিন্টিং স্বাক্ষর করেন।

এ প্রকল্পের মাধ্যমে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা বিশেষ করে নারী উদ্যোক্তাদের ঋণ দেওয়া হবে। এ প্রকল্প ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের কাছে ঋণ সহজলভ্য করা এবং নারী উদ্যোক্তাদের অর্থনৈতিক ক্ষমতায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। এ প্রকল্পের কার্যক্রম ৩১ ডিসেম্বর ২০২৭ সালে শেষ হবে।

১৯৭৩ সাল থেকে এডিবি বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান উন্নয়ন সহযোগী। এডিবি এ পর্যন্ত বাংলাদেশকে ২৭ দশমিক ২২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ঋণ সহায়তা এবং শূন্য দশমিক ৫৩৭ বিলিয়ন ডলারের অনুদান সহায়তা দিয়েছে।

শেয়ার করুন:
বিজনেস নিউজ পোর্টাল অর্থসংবাদে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

অর্থনীতি

স্মারক স্বর্ণমুদ্রার দাম বাড়ালো কেন্দ্রীয় ব্যাংক

Published

on

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে কেন্দ্রীয় ব্যাংক মুদ্রিত স্মারক স্বর্ণমুদ্রার দাম প্রতিটি মুদ্রায় ৪ হাজার টাকা বাড়িয়ে পুনর্নির্ধারণ করা হয়েছে। এ নিয়ে চলতি বছর তৃতীয় দফায় স্মারক স্বর্ণমুদ্রার দাম বাড়ানো হলো। যা মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) থেকে কার্যকর হবে।

সোমবার (৫ ডিসেম্বর) কেন্দ্রীয় ব্যাংক এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানিয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কেন্দ্রীয় ব্যাংক কর্তৃক মুদ্রিত ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০০০’, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জন্মশতবর্ষ ১৯২০-২০২০’ এবং ‘স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ১৯৭১-২০২১’ শীর্ষক স্মারক স্বর্ণমুদ্রার মূল্য পুনর্নির্ধারণ করা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরোও বলা হয়, ২২ ক্যারেট স্বর্ণ দিয়ে প্রস্তুত করা ১০ গ্রাম ওজনের ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০০০’, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জন্মশতবর্ষ ১৯২০-২০২০’ এবং ‘স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ১৯৭১-২০২১’ শীর্ষক স্মারক স্বর্ণমুদ্রা (বাক্সসহ) প্রতিটির বিক্রয়মূল্য ৭৫ হাজার টাকা পুনর্নির্ধারণ করা হলো।

Nogod-22-10-2022

আন্তর্জাতিক ও স্থানীয় বাজারে স্বর্ণের দরবৃদ্ধির কারণে স্মারক স্বর্ণমুদ্রার দরবৃদ্ধি করা হয়েছে। যা মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) থেকে কার্যকর হবে।

প্রতিটি স্মারক মুদ্রা ২২ ক্যারেট মানের ১০ গ্রাম ওজনের স্বর্ণ দিয়ে প্রস্তুত করা। প্রতিটি মুদ্রায় গত ৮ মার্চ দুই হাজার টাকা বাড়িয়ে ৬৮ হাজার এবং ২৪ মে চার হাজার টাকা বাড়িয়ে ৭২ হাজার করা হয়। এবার একই বছরে তৃতীয় দফায় ৪ হাজার টাকা দাম বাড়ানো হয়েছে।

অর্থসংবাদ/এসএম

শেয়ার করুন:
বিজনেস নিউজ পোর্টাল অর্থসংবাদে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

অর্থনীতি

অর্থপাচার-ঋণ খেলাপিতে খাদের কিনারে ব্যাংকিং খাত: টিআইবি

Published

on

ভারত, পাকিস্তান, নেপাল ও ভূটানের শেয়ারবাজারে পতন হয়েছে। তবে দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার শেয়ারবাজারে ভিন্ন চিত্র দেখা গেছে।

মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) ভারতে বোম্বে স্টক এক্সচেঞ্জের (বিএসই) সূচক ‘সেনসেক্স’ ২০৮ পয়েন্ট কমেছে। লেনদেন শেষে সূচকটি অবস্থান করছে ৬২ হাজার ২২৬ পয়েন্টে। এছাড়াও দেশটির ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জের (এনএসই) সূচক ‘নিফটি ৫০’ সূচকও ৫৮ পয়েন্ট কমেছে।

পাকিস্তান স্টক এক্সচেঞ্জের সূচক ‘কেএসই ১০০’ ৫৩৭ পয়েন্ট হারিয়ে অবস্থান করছে ৪১ হাজার ৬১২ পয়েন্টে। নেপাল স্টক এক্সচেঞ্জের সূচক ‘এনইপিএসই’ ৪ দশমিক ৮৭ পয়েন্ট কমেছে। দিন শেষে সূচকটি অবস্থান করছে ১ হাজার ৯৩৩ পয়েন্টে। এছাড়াও ভূটানের শেয়ারবাজারের সূচক ‘বিএসআই’ ০ দশমিক ০৮ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৪৭ দশমিক ৯৮ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

দক্ষিণ এশিয়ার শেয়ারবাজারে মঙ্গলবার ভিন্ন চিত্র দেখা গেছে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কায়। শ্রীলঙ্কার শেয়ারবাজার কলম্বো স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সূচক ‘এএসপিআই’ ৩৭ দশমিক ৫৯ পয়েন্ট বৃদ্ধি পেয়েছে। লেনদেন শেষে সূচকটির অবস্থান ৮ হাজার ৮৮১ পয়েন্টে।

Nogod-22-10-2022

এদিকে, সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) মূল্যসূচক বৃদ্ধি পেলেও গত ১৯ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন লেনদেন হয়েছে। আজ ডিএসইর প্রধান সূচক ‘ডিএসই এক্স’ ১৬ দশমিক ৪৫ পয়েন্ট বেড়েছে। এছাড়াও ‘ডিএস ৩০’ সূচকে ৭ পয়েন্ট এবং ‘ডিএসই এস’ সূচকে ৪ দশমিক ৫২ পয়েন্ট যোগ হয়েছে।

আজ ডিএসইতে ২৭১ কোটি ৯৭ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। গত ১৯ মাসের মধ্যে এটি সর্বনিম্ন লেনদেন। এর আগে গত বছরের (২০২১) ৫ এপ্রিল এক্সচেঞ্জটিতে ২৩৬ কোটি ৬০ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছিল।

শেয়ার করুন:
বিজনেস নিউজ পোর্টাল অর্থসংবাদে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

অর্থনীতি

তারল্য সুবিধা পাবে ইসলামিক ব্যাংকগুলো

Published

on

ব্যাংক

শরীয়াহ্ ভিত্তিক ব্যাংকগুলোকে তারল্য সুবিধা দেবে বাংলাদেশ ব্যাংক। তারল্য সংকট কাটাতে ব্যাংকগুলো ১৪ দিন মেয়াদে এ সুবিধা দেওয়া হবে বলে জানানো হয়।

সোমবার (৫ ডিসেম্বর) এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার দিয়ে সব শরীয়াহ্ ভিত্তিক ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সার্কুলারে বলা হয়, ইসলামিক আর্থিক ব্যবস্থাকে অধিকতর শক্তিশালী করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষে এ তারল্য সুবিধা দেওয়া হবে। আজ (৫ ডিসেম্বর) থেকেই এটি কার্যকর হবে। শরীয়াহ্ ভিত্তিক ব্যাংকগুলো সপ্তাহের প্রতি কার্যদিবসে নিয়মিতভাবে এই সুবিধা গ্রহণের জন্য একটি ফর্মে আবেদন করতে পারবে। প্রজ্ঞাপনের সঙ্গে এ ধরনের আবেদন ফর্মও যুক্ত করে দেওয়া হয়েছে।

অর্থসংবাদ/কেএ

Nogod-22-10-2022
শেয়ার করুন:
বিজনেস নিউজ পোর্টাল অর্থসংবাদে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

অর্থনীতি

মূল্যস্ফীতি কমেছে নভেম্বরে

Published

on

গত নভেম্বর মাসে দেশে মূল্যস্ফীতি কমে ৮ দশমিক ৮৫ শতাংশে নেমে এসেছে। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) সর্বশেষ প্রকাশিত তথ্যে বিষয়টি উঠে এসেছে। এর আগের মাসে (অক্টোবরে) মূল্যস্ফীতি ছিল ৮ দশমিক ৯১ শতাংশ। এছাড়াও সেপ্টেম্বরে এ হার ছিল ৯ দশমিক ১০ ও আগস্টে ছিল ৯ দশমিক ৫২ শতাংশ।

বিবিএসের দাবি, সবজিসহ নানা খাদ্যপণ্যর দাম কমেছে। সংস্থাটি বলছে, নভেম্বর মাসে খাদ্যপণ্যের দাম কমে মূল্যস্ফীতি ৮ দশমিক ১৪ শতাংশ হয়েছে যা গত মাসে ছিল ৮ দশমিক ৫০ শতাংশ।

সোমবার (৫ ডিসেম্বর) পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান মূল্যস্ফীতির সর্বশেষ তথ্য প্রকাশ করেন।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, নভেম্বর মাসে অত্যন্ত ভালো খবর পেয়েছি। মূল্যস্ফীতি ডিসেম্বরে আরও কমার সম্ভাবনা আছে। লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী ধান, শাক সবজি হওয়ার পাশাপাশি তেল গ্যাসের দামও বিশ্বব্যাপী কমছে। সার্বিকভাবে প্রবৃদ্ধিও সাত শতাংশে যাবে বলে আশা করেন পরিকল্পনামন্ত্রী।

Nogod-22-10-2022

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বর্তমানে ৪২২টি পণ্যের উপর মূল্যস্ফীতি যাচাই করা হয়। এখন সেগুলো আবার পুনর্বিবেচনা করা হবে। কেননা এখানে সোনার দামও ধরা হয়েছে। সোনার দাম বাড়লে মূল্যস্ফীতিতে প্রভাব পড়ে। এছাড়া মাখন ও কফিসহ এরকম অনেক পণ্যের দামও ধরা হয়। এগুলো সংশোধন করা হবে।

বিবিএসের তথ্য অনুযায়ী, গ্রামে সার্বিক মূল্যস্ফীতি পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮ দশমিক ৯৪ শতাংশ যা তার আগের মাসে ছিল ৮ দশমিক ৯২ শতাংশ। খাদ্যপণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৮ দশমিক ২৩ শতাংশ যা আগের মাসে ছিল ৮ দশমিক ৩৮ শতাংশ। খাদ্য-বহির্ভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০ দশমিক ৩১ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৯ দশমিক ৯৮ শতাংশ।

শহরে সার্বিক মূল্যস্ফীতি পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে কমে দাঁড়িয়েছে ৮ দশমিক ৭০ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৮ দশমিক ৯০ শতাংশ। খাদ্যপণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৭ দশমিক ৯৫ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৮ দশমিক ৭৫ শতাংশ। খাদ্যবর্হিভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯ দশমিক ৫৪ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৯ দশমিক শূন্য ৭ শতাংশ।

নভেম্বরে মজুরি হার শতকরা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬ দশমিক ৯৮ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৬ দশমিক ৯১ শতাংশ। কৃষি খাতে মজুরি হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬ দশমিক ৯০ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৬ দশমিক ৮৫ শতাংশ। শিল্প খাতে মজুরি হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭ দশমিক শূন্য ৬ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৬ দশমিক ৯৭ শতাংশ। সেবা খাতে মজুরি হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭ দশমিক ১৭ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৭ দশমিক ১১ শতাংশ।

গত জুলাইয়ে মূল্যস্ফীতির হার ছিল ৭ দশমিক ৪৮ শতাংশ, আগস্টে ছিল ৯ দশমিক ৫২ শতাংশ, সেপ্টেম্বরে ছিল ৯ দশমিক ১০ শতাংশ।

গত জুলাইয়ে মজুরি হার ছিল ৬ দশমিক ৫৬ শতাংশ, আগস্টে ছিল ৬ দশমিক ৮০ শতাংশ এবং সেপ্টেম্বরে ছিল ৬ দশমিক ৮৬ শতাংশ।

শেয়ার করুন:
বিজনেস নিউজ পোর্টাল অর্থসংবাদে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন
Advertisement
December 2022
S M T W T F S
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031

কর্পোরেট সংবাদ

ক্যাম্পাস টু ক্যারিয়ার

ফেসবুকে অর্থসংবাদ