একদিনে ৫২০০ পয়েন্ট রিটার্ন

ভারতের শেয়ারবাজারে ঐতিহাসিক উত্থান

নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশ: ২০২০-০৩-১৩ ১২:৪৬:১০, আপডেট: ২০২০-০৩-১৩ ১৭:১৯:৫৪

ভারতের শেয়ারবাজারে স্মরণকালের পতনের পর রেকর্ড উত্থান। দিনের লেনদেনের শুরুতে একদিনে সর্বোচ্চ পতনের রেকর্ড গড়ে সানসেক্স। তারপর ৪৫ মিনিট বন্ধ থাকে লেনদেন। তখন সূচক নেমে এসেছিল ২৯৩৮৮ পয়েন্টে। আবার লেনদেন চালু হবার পর ধীরে ধীরে সূচক বেড়ে সর্বোচ্চ ৩৪৮০০ পর্যন্ত উঠে রেকর্ড সৃষ্টি করে।

এ দিন আমেরিকার শেয়ার বাজারে ছিল ১৫ মিনিট। ভারতে করোনাভাইরাসের ধাক্কায় বাজারের পতন এতটাই যে ৪৫ মিনিটের জন্য বন্ধ রাখতে হল শেয়ার কেনাবেচা। সেনসেক্স ও নিফটি দুই সূচকই ‘লোয়ার সার্কিট’-এ পৌঁছে যাওয়ায় বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল বম্বে স্টক এক্সচেঞ্জ (বিএসই) এবং ন্যাশনাল ফিফটি (নিফটি)। তবে সেই ৪৫ মিনিট কাটতেই ঘুরে দাঁড়াল শেয়ার বাজার। ৩০০০ পয়েন্টেরও বেশি নেমে যাওয়া সেনসেক্স পতন তো রোখা গেলই, বরং গতকালের চেয়ে উপরেও উঠে এখন ১৫০০ পয়েন্ট বেশিতে অবস্থান করছে সানসেক্স সূচক।

শুক্রবার সকালে ১৫০০ পয়েন্ট নীচে নেমে খোলে সেনসেক্স। কয়েক মিনিটের মধ্যেই সেই পতন ছাড়িয়ে যায় ৩০০০ পয়েন্টেরও বেশি। বর্তমানে ৩৪২১৪ পয়েন্ট ছাড়িয়ে উর্ধ্বগতির পথে সেনসেক্স। নিফটিও খোলে প্রায় ৫০০ পয়েন্ট নীচে। ৯৬৬ পয়েন্ট নেমে ৮৬২৪ পয়েন্টে থেমেছিল নিফটির সূচক। তবে সেই ৪৫ মিনিট কাটার পর ফের কেনাবেচা শুরু হতেই ঊর্ধ্বমুখী বাজার। বর্তমানে সূচক অবস্থান করছে ৯৯৮১, বেড়েছে ৩৯১ পয়েন্ট।

কয়েক দিন আগে করোনাভাইরাসের আতঙ্কে শেয়ার বাজারে ব্যাপক পতনের জেরে আমেরিকার শেয়ার বাজারেও একই ভাবে ১৫ মিনিটের জন্য বন্ধ রাখতে হয়েছিল শেয়ার কেনাবেচা। এ বার ভারতকেও সেই পথে হাঁটতে হল এবং তার তিন গুণ অর্থাৎ ৪৫ মিনিটের জন্য বন্ধ রাখতে হল শেয়ার কেনাবেচা। এর আগে ২০০৪, ২০০৮ এবং ২০০৯ সালে এই ভাবে বাজারে পতনের জেরে বন্ধ রাখতে হয়েছিল শেয়ার কেনাবেচা। এর মধ্যে ২০০৯ সালে অবশ্য উল্টো পরিস্থিতি ছিল। ওই সময় বাজার ব্যাপক হারে উপরে ওঠার জন্য় বন্ধ রাখতে হয়েছিল।

গত কাল বৃহস্পতিবারই এক দিনে সর্বনিম্ন পতনের রেকর্ড দেখেছিল শেয়ার বাজার। আজ সেই নজিরও ছাপিয়ে গেল। ২০০৮ সালে বিশ্বজোড়া আর্থিক মন্দার সময়ে শেয়ার বাজারে যে ভাবে ধস নেমেছিল, করোনা ভাইরাসের জেরেও বাজারের পরিস্থিতি সেই জায়গায় পৌঁছে যেতে পারে বলে মনে করছেন অনেকেই।

ভারতের ক্যাপিটাল মার্কেট এক্সপার্টরা মনে করছেন, গুজবে পতন অবশ্যই থেমে যাবে।

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।