এবারের মিস ইউনিভার্স ক্যাটরিওনা

ডেস্ক রিপোর্টার প্রকাশ: ২০১৮-১২-২০ ০৭:৪২:৫৪

ফিলিপাইনের মেয়ে ক্যাটরিওনা এলিসা গ্রে এ বছর মিস ইউনিভার্স হয়েছেন। মিস দক্ষিণ আফ্রিকা প্রথম রানারআপ ও মিস ভেনেজুয়েলা দ্বিতীয় রানারআপ হয়েছেন। থাইল্যান্ডের ব্যাংককে বসা এবারের আসরের সেরা সুন্দরীর মাথায় মুকুট পরিয়ে দেন গত বছরের মিস ইউনিভার্স দক্ষিণ আফ্রিকার দেমি নেল-পিটার্স।

আজ সোমবার চূড়ান্ত পর্বে ক্যাটরিওনার কাছে বিচারকেরা জানতে চান, তাঁর জীবনে অর্জন করা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা কী? তিনি মিস ইউনিভার্স হলে কীভাবে এটা তাঁর জীবনে প্রয়োগ করবেন?
জবাবে মিস ফিলিপাইন বলেন, ‘আমি ম্যানিলার বস্তি নিয়ে কাজ করি। সেখানকার মানুষ অনেক গরিব। তাদের জীবন অনেক কষ্টের। আমি মিস ইউনিভার্স হলে এসব মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে কাজ করব। প্রতিকূলতা সব দূরে ঠেলে এসব শিশুর মুখে হাসি ফুটিয়ে তুলব।’

৯৩ সুন্দরীকে পেছনে ফেলে সেরা সুন্দরীর মুকুট জিতে নেওয়া ক্যাটরিওনা শিল্পকর্ম ভালোবাসেন। তাত্ত্বিক সংগীতে তিনি স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারী। এ ছাড়া তিনি এইচআইভি/এইডস সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টিতে কাজ করে যাচ্ছেন। এ রোগে আক্রান্ত হয়ে প্রিয় এক বন্ধুর মৃত্যু তাঁকে এইচআইভি/এইডস বিষয়ে সচেতনতার জন্য কাজ করতে অনুপ্রাণিত করেছে।

প্রথম রানারআপ মিস দক্ষিণ আফ্রিকা তামারিন গ্রিন চিকিৎসাশাস্ত্রে পড়াশোনা করছেন। আর দ্বিতীয় রানারআপ মিস ভেনেজুয়েলা স্টেফানি গুতেরেস আইন বিষয়ে পড়াশোনা করছেন।

ক্যাটরিওনার জয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আনন্দ প্রকাশ করেছেন ফিলিপাইনের নাগরিকেরা। বিশ্ব দরবারে ফিলিপাইনের সৌন্দর্য ও আভিজাত্য তুলে ধরে জয়ী হওয়ায় ক্যাটরিওনাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুতার্তে।

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।