ট্রাম্পের অভিশংসনে প্রস্তুত ডেমোক্র্যাটরা

নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশ: ২০২১-০১-১১ ১১:৩৯:১৪

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই তাকে পদ থেকে সরিয়ে দিতে চাপ তৈরি করতে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন ডেমোক্র্যাটিক দলের সদস্যরা। গত সপ্তাহে মার্কিন পার্লামেন্ট ভবন ইউএস ক্যাপিটলে ট্রাম্প সমর্থকদের হামলার পর এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে ডেমোক্র্যাটদের সমর্থন দিচ্ছেন রিপাবলিকান দলের কিছু নেতাও।

আগামী ২০ জানুয়ারি নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের অভিষিক্ত হওয়ার কথা রয়েছে। এর আগেই ঐতিহাসিক দ্বিতীয় অভিশংসনের সম্মুখীন হতে পারেন ট্রাম্প।

প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ও কংগ্রেসের শীর্ষ নেত্রী ন্যান্সি পেলোসি বলেছেন, দায়িত্ব পালনে অযোগ্য হওয়ায় সংবিধানের ২৫তম সংশোধনী অনুসারে ট্রাম্পকে পদ থেকে সরিয়ে দেয়ার জন্য সোমবার মন্ত্রীসভায় সমাধান আহ্বান করা হবে।

তিনি বলেন, যদি ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স সংশোধনী প্রয়োগে রাজি না হন তাহলে ‘আমরা অভিশংসন আইন প্রণয়নের প্রক্রিয়া তৈরির দিকে অগ্রসর হব’।

তিনি আরও বলেন, ‘দিন যত গেছে, এই প্রেসিডেন্টের দ্বারা আমাদের গণতন্ত্র আক্রমণের শিকার হওয়ার ভয়াবহ পরিস্থিতি তত বেশি তীব্র হয়েছে। এজন্যই দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া প্রয়োজন।’

এর আগে ২০১৯ সালে ট্রাম্প প্রথমবারের মতো প্রতিনিধি পরিষদে অভিশংসনের সম্মুখীন হন। বাইডেনের ওপর রাজনৈতিক বিদ্বেষ ছড়াতে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টকে উস্কানী দেয়ার অভিযোগে তখন তাকে অভিশংসিত করা হয়। তবে সিনেটে সংখ্যাগরিষ্ঠ রিপাবলিকানদের কারণে সেবার তিনি রক্ষা পান।

এবার দ্বিতীয় অভিশংসনে ডেমোক্র্যাটরা রিপাবলিকানদের সমর্থনও পেতে যাচ্ছেন। তবে ট্রাম্পকে দায়িত্ব থেকে সরাতে ১০০ সদস্যের সিনেটে দুই তৃতীয়াংশ ভোট প্রয়োজন; ডেমোক্র্যাটরা তা পাবেন সে সম্ভাবনা কম।

২০ জানুয়ারি জো বাইডেনের অভিষেক অনুষ্ঠানে ট্রাম্প উপস্থিত থাকবেন না বলে জানিয়েছেন। তবে ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করবেন। যদিও ট্রাম্পকে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দিতে পেন্স ২৫তম সংশোধনী প্রয়োগ করবেন এমন কোনো লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। সূত্র এএফপি।

 

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।