‘শনিবার বিকেল’ মুক্তির জন্য অভিনব উদ্যোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশ: ২০২১-০১-০৫ ১৬:৩৫:০০

রাজধানীতে ঘটা সন্ত্রাসী হামলাকে উপজীব্য করে বছর দু-এক আগে নির্মিত হয়েছে মোস্তফা সরয়ার ফারুকী ‘শনিবার বিকেল’ তথা ‘স্যাটারডে আফটারনুন’।গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে ঘটা ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলাকে উপজীব্য করে নির্মিত এই চলচ্চিত্র দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করতে পারে, এমন আশঙ্কায় গেল বছরের জানুয়ারিতে এই ছবির ছাড়পত্র স্থগিত রেখেছে সেন্সর বোর্ড।

এরপর সেন্সর বোর্ডের এমন সিদ্ধান্তের বিপরীতে গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে আপিল করে সিনেমাটির অন্যতম প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়া। আপিলের পরও ছাড়পত্রের বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি সেন্সর বোর্ড। বাংলাদেশে সিনেমাটি মুক্তি না পেলেও এরই মধ্যে মিউনিখ, মস্কো, সিডনি, বুসান, প্যারিসের ভেসুল ফিল্ম ফেস্টিভ্যালসহ বিশ্বের বিভিন্ন চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত এবং প্রশংসিত হয়েছে। যার মধ্যে মস্কো চলচ্চিত্র উৎসবে অংশ নিয়ে সিনেমাটি দুটি ইনডিপেনডেন্ট জুরি পুরস্কার অর্জন করেছে।

‘শনিবার বিকেল’ বাংলাদেশে মুক্তির পক্ষে জনমত গঠনের জন্য অভিনব উদ্যোগ নিয়েছে হাতির ঝিলের সিনেমা ক্যাফে ঝিল কুটুম। নতুন বছরের প্রথম দিন অর্থাৎ শুক্রবার থেকে ৮ জানুয়ারি তারা সব অতিথিকে চলচ্চিত্রটির অফিশিয়াল টি-শার্ট উপহার হিসেবে দিচ্ছে।

এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছেন কুটুম এক্সপ্রেসের প্রধান বিপণন কর্মকর্তা এবং স্বাধীন চলচ্চিত্র নির্মাতা সিজু খান।

তিনি বলেন, টি-শার্টের ডিজাইনে প্রদর্শিত প্রতিবাদী কনসেপ্টটি আমরা ‘শনিবার বিকেল’-এর প্রযোজক, পরিচালকের অনুমতি নিয়েই বানিয়েছি; এবং শুধু এই টি-শার্টই নয় এর পাশাপাশি আমরা নুরুল আলম আতিকের ‘নতুন সিনেমা, সময়ের প্রয়োজন’ শীর্ষক একটি সিনেমার বই এবং এক মাসের নেটফ্লিক্স সাবস্ক্রিপশনও বিনামূল্যে উপহার দেবো নিজেদের সব অতিথিদেরকে।

এই ক্যাম্পেইনে যুক্ত হয়েছেন দেশবরেণ্য চলচ্চিত্র এবং বিজ্ঞাপন নির্মাতা অমিতাভ রেজা চৌধুরী, আদনান আল রাজীব, আশফাক নিপুণ এবং কানের ফিপ্রেস্কি জুরিবোর্ডের সদস্য ও চলচ্চিত্র সমালোচক সাদিয়া খালিদ রীতি।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়েছে, আজ সিনেমাটির নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী, অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারবিজয়ী নির্মাতা এবং ওটিটি প্ল্যাটফর্ম চরকির সিইও রেদোয়ান রনি ওই টি-শার্ট পরে ক্যাম্পেইনে অংশ নেবেন।

থ্রিলার চলচ্চিত্র ‘শনিবার বিকেল’-এ অভিনয় করেছেন ফিলিস্তিনের অভিনেতা ইয়াদ হুরানি, ইউরোপের এলি পুসো, সেলিনা ব্ল্যাক, বাংলাদেশি অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা, জাহিদ হাসান, মামুনুর রশীদ এবং ভারতের অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়সহ অনেকে। সিনেমাটি বাংলাদেশ, ভারত ও জার্মানির যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত।

 

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।