মেসি-রোনালদোকে নতুন চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলেন পেলে

নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশ: ২০২১-০১-০৫ ১২:২১:০০

ফুটবলার হিসেবে পেলের ক্ষমতা কিংবা সামর্থ্য নিয়ে প্রশ্ন তোলার অবকাশ নেই মোটেও। কিন্তু কয়েক দিন ধরে পেলে ও তাঁর ক্লাব সান্তোস যা করছে, তাতে বলা যায়, ফুটবলের পাশাপাশি পরিসংখ্যান বিষয়টাতেও আগ্রহের কমতি নেই ব্রাজিলীয় কিংবদন্তির। ফুটবল ছাড়ার পর সেটা নিয়েই বেশ ব্যস্ত আছেন বোধ হয়!

খোলাসা করেই বলা যাক। আগে বলা হতো, প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে সান্তোসের জার্সিতে পেলে করেছেন ৬৪৩ গোল। আর প্রীতি টুর্নামেন্ট ও ম্যাচগুলোতে করেছেন ৪৪৮ গোল। স্বাভাবিকভাবেই, প্রীতি ম্যাচে করা গোলগুলোকে হিসাবে নেওয়া হয় না, পেলের ক্ষেত্রেও করা হয়নি। তাই বলা হতো, আনুষ্ঠানিক ম্যাচে সান্তোসের হয়ে ৬৪৩ গোলই এক ক্লাবের হয়ে করা কারও সর্বোচ্চ গোল।

আবার ফুটবল পরিসংখ্যানে ‘রেফারেন্স’ হিসেবে বিবেচিত ‘ফুতদাদোস’ ওয়েবসাইট ও আরএসএসএসএফের মতে, অফিশিয়াল ম্যাচে পেলের গোলসংখ্যা ৭৬৭। লাতিন সংবাদকর্মী রদলফো রদ্রিগেজের মতে, অফিশিয়াল ম্যাচে পেলের গোলসংখ্যা ৭৬২। কিন্তু ২০১৯ সালের এপ্রিলে প্লাকারের প্রকাশিত সংখ্যায় পেলের গোলসংখ্যা ৭৫৭ বলা হয়েছিল। সান্তোসের হয়ে ৬৪৩, ব্রাজিলের হয়ে ৭৭ ও কসমসের হয়ে ৩৭ গোল। সম্প্রতি যে রেকর্ডগুলো ভেঙেছেন লিওনেল মেসি আর ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো।

কিন্তু পেলে সেটা মেনে নেবেন কেন? সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রামে গতকাল তাঁর অ্যাকাউন্ট ঘুরে দেখা গেল, নিজেই নিজের ‘বায়ো’ (সংক্ষিপ্ত পরিচিতি) তে লিখে রেখেছেন, ‘সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা (১২৮৩)।’ ইঙ্গিতটা স্পষ্ট, মেসি-রোনালদোর কাছে হেরে যেতে মোটেও রাজি নন এই কিংবদন্তি। এ যেন, বিনা যুদ্ধে নাহি দিব সূচ্যগ্র মেদিনী!

কিছুদিন আগেই এক ক্লাবের হয়ে ইতিহাসের সবচেয়ে বেশি গোলের রেকর্ড নিজের করে নিয়েছেন লিওনেল মেসি। রিয়াল ভায়াদোলিদের বিপক্ষে গোল করে এই কীর্তি গড়েছেন মেসি। সান্তোসের হয়ে পেলের করা ৬৪৩ গোলের রেকর্ডটা এত দিন সবার নাগালের বাইরে বলেই মনে হচ্ছিল। কিন্তু বার্সেলোনার জার্সিতে মেসি সে রেকর্ডটাও নিজের করে নিয়েছেন।

মজার ব্যাপার হলো, বার্সেলোনার হয়ে ৬৪৪ গোল করার পর স্বয়ং পেলে মেসিকে অভিনন্দন জানিয়েছিলেন। নিজের রেকর্ড ভাঙার পরও পেলের এমন ভালোবাসা মুগ্ধ করেছিল সবাইকে। পেলে সেবার কিছু না বললেও পেলের সাবেক ক্লাব সান্তোস সে পথে হাঁটেনি। সান্তোসের দাবি, পেলের রেকর্ড এখনো ভাঙতে পারেননি মেসি।

সাদাকালো জার্সিতে পেলের গড়া রেকর্ড ভাঙতে আরও বহুদূর পথ পাড়ি দিতে হবে মেসিকে। তাদের দাবি অনুযায়ী সান্তোসের জার্সিতে পেলের গোল ১০৯১টি। কারণ, সে যুগে স্বীকৃত ও প্রীতি ম্যাচ ফুটবলের মধ্যে কোনো পার্থক্য দেখা হতো না। সান্তোসের দাবি, প্রীতি ম্যাচে করা পেলের ৪৪৮ গোলকেও হিসেবে আনতে হবে, কেননা সে গোলগুলো সে সময়কার সেরা দল ও ক্লাবের বিপক্ষেই করা হয়েছে।

ওদিকে রোনালদোও পেলের আরেক রেকর্ড ভেঙেছেন। সিরি আ তে সব শেষ রাউন্ডে উদিনেসেকে ৪-১ গোলে হারায় জুভেন্টাস। জোড়া গোল করেন পর্তুগিজ তারকা। কিছু পরিসংখ্যান ও হিসাবমতে, রোনালদো এখন অফিশিয়াল ম্যাচের ইতিহাসে সর্বোচ্চ গোলদাতা। ২০১৯ সালের এপ্রিলে প্লাকারের প্রকাশিত সংখ্যায় পেলের গোলসংখ্যা ৭৫৭ বলা হয়েছিল। সান্তোসের হয়ে ৬৪৩, ব্রাজিলের হয়ে ৭৭ ও কসমসের হয়ে ৩৭ গোল। সে হিসাবে ৭৫৮ গোল করে পেলেকে টপকেছেন রোনালদো। সে রেকর্ডের সপক্ষে আবার টুইটও করেছেন গ্যারি লিনেকারের মতো তারকা, ‘৭৫৮তম গোল করে পেলের সর্বোচ্চ ক্যারিয়ার গোলের রেকর্ড ভাঙলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। অর্থাৎ ১৮ বছর ধরে প্রতি মৌসুমে প্রায় ৪২ গোল, মাথা ঘুরিয়ে দেয়!’

 

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।