চীনে বাংলাদেশি শিক্ষার্থী ছাইয়েদুলের সাফল্য

নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশ: ২০২১-০১-০৩ ১৩:৫৩:৩৭, আপডেট: ২০২১-০১-০৩ ১৪:০৩:২৮

ছোটবেলা থেকেই বেশ মনযোগী ছিলেন পড়াশোনায়। মেধা তালিকায় প্রথম অথবা দ্বিতীয় যেন তার জন্যই থাকত। শৈশবের দিনগুলোয় খেলাধুলার সময় তেমন পাননি। অবসর বলে তার জীবনে কিছুই ছিল না। কখনো ছুটতেন মাঠে । কখনো বা ক্ষেতের পরিচর্যায় সোনালি শৈশব কাটিয়েছেন ছাইয়েদুল ইসলাম।

চীনের হুবেই প্রদেশের থংছাং কাউন্টির স্থানীয় সরকারের ‘ইন্টারন্যাশনাল ইনভেস্টমেন্ট অ্যাট্রাক্ট অ্যাম্বাসেডর’ হলেন চায়নায় স্কলারশিপে অধ্যয়নরত বাংলাদেশি মেধাবী ছাত্র মোহাম্মদ ছাইয়েদুল ইসলাম। আগামী এক বছরের জন্য তিনি এই পদে নিযুক্ত হয়েছেন।

গত ২৮ ডিসেম্বর সকালে ওয়ানয়া গ্রুপের সার্বিক সহযোগিতায় ওয়ানয়া ইন্টারন্যাশনাল ইমপোর্ট কমোডিটি প্যাভিলিয়ন ফেস-টু-ইনভেস্টমেন্ট প্রমোশন সাইনিং কনফারেন্সে তাকে এই সম্মানে ভূষিত করা হয়।

কনফারেন্সটি থংছাং-এ ওয়ানয়া আন্তর্জাতিক বাণিজ্য কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। শিয়াননিং মিউনিসিপাল পিপলস কংগ্রেসের স্থায়ী কমিটির উপ-পরিচালক এবং থংছাং কাউন্টি পার্টি কমিটির সেক্রেটারি শিয়ং ইয়াফিং অনুষ্ঠান শেষে তার হাতে ক্রেস্টসহ প্রশংসাপত্র তুলে দেন।

ছাইয়েদুল ইসলাম যার চাইনিজ নাম উডি বর্তমানে চীনের চিয়াংশি প্রদেশের নানচাং শহরে অবস্থিত চিয়াংশি ইউনিভার্সিটি অব ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইকোনেমিক্স বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি প্রোগ্রামে ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড মেজরে অধ্যয়ন করছেন। উচ্চতর শিক্ষা গ্রহণের জন্য ২০১৮ সালে চায়না সরকারে স্কলারশিপে মার্স্টাস প্রোগ্রামে ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস মেজরে ভর্তি হন ছাইয়েদুল।

ছাইয়েদুল ইসলামের বাবার নাম মোহাম্মদ লুৎফর রহমান বারিক। তার গ্রামের বাড়ি নরসিংদী জেলার মনোহরদী উপজেলার চন্দনবাড়ী ইউনিয়নের নলুয়া গ্রামে। দুই ভাই বোনের মধ্যে তিনি সবার বড়।

 

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।