পুঁজিবাজারে টানা দরপতন, আস্থাহীনতায় বিনিয়োগকারীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশ: ২০২০-০২-১০ ১৭:৪০:২৩, আপডেট: ২০২০-০২-১০ ১৭:৪১:৪৩

সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচকের পতনে লেনদেন শেষ হয়েছে। আজ লেনদেনের শুরুতে কিছুটা উর্ধ্বমুখী থাকলেও প্রথম ঘন্টা পর সেল প্রেসারে টানা নামতে থাকে সূচক। এরই ধারাবাহিকতায় টানা ৫ কার্যদিবস পুঁজিবাজারের সূচকের নিম্নমুখী প্রবণতা বিরাজ করছে। আর এতে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে আস্থাহীনতা পরিলক্ষিত হচ্ছে। সোমবার লেনদেন শেষে সূচকের পাশাপাশি কমেছে বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিটের দর। আর টাকার অংকেও লেনদেন আগের দিনের তুলনায় কিছুটা কমেছে। আজ দিন শেষে ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ২১ কোটি ৮ লাখ ৬ হাজার টাকা।

আজ দিন শেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ৩ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৪৩৮৫ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৩ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১০১৬ পয়েন্টে এবং ডিএসই ৩০ সূচক ০.৮৮ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১৪৯১ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ৩৫৩টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১২৪টির, কমেছে ১৭৭টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৬৩টির। আর দিন শেষে লেনদেন হয়েছে ৩৪০ কোটি ৮৯ লাখ ৬০ হাজার টাকা।

এর আগের কার্যদিবস দিন শেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স ৬৪ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ৪৩৮৮ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ১৪ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ১০১২ পয়েন্টে এবং ডিএসই ৩০ সূচক ২১ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ১৪৯২ পয়েন্টে। আর ওইদিন লেনদেন হয়েছিল ৩৬১ কোটি ৯৭ লাখ ৬৬ হাজার টাকা। সে হিসেবে আজ ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ২১ কোটি ৮ লাখ ৬ হাজার টাকা।

এদিকে দিন শেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সাধারণ মূল্য সূচক সিএসইএক্স ১৫ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৮ হাজার ১১৪ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ২৪০টি কোম্পানির ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৭৭টির, কমেছে ১১৮টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৫টির। আর দিন শেষে লেনদেন হয়েছে ১৭ কোটি ২৭ লাখ ৪৮ হাজার টাকা।

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।