আইপিও ফান্ড ব্যবহারে কয়েক দফায় সময় বৃদ্ধি সত্ত্বেও বোনাস ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশ: ২০২০-১১-১৯ ১৫:৩৩:৫০

ব্যবসা সম্প্রসারণের লক্ষ্যে ২০১৫ সালে শেয়ারবাজার থেকে ১২৫ কোটি টাকা সংগ্রহ করে রিজেন্ট টেক্সটাইল। যা ব্যবহারের জন্য কয়েক দফায় সময় বাড়ানো হলেও সেই ফান্ডের ৩৬ শতাংশ অব্যবহৃত রয়েছে এখনো। এরপরেও কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ বুধবার (১৮ নভেম্বর) ২০১৯-২০ অর্থবছরের ব্যবসায় বোনাস শেয়ার ঘোষণা করেছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র মতে, রিজেন্ট টেক্সটাইল আইপিওতে শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে শেয়ারবাজার থেকে ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে প্রতিটি শেয়ার ২৫ টাকা (১৫ টাকা প্রিমিয়ামসহ) দরে ইস্যুর মাধ্যমে ১২৫ কোটি টাকা সংগ্রহ করে। যা ব্যবহারের জন্য ১৭ মাস বা ২০১৭ সালের ১৯ জুন পর্যন্ত সময়সীমা ছিল। কিন্তু ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর মাস শেষেও ৪৫ কোটি ৫১ লাখ টাকা বা ৩৬ শতাংশ অব্যবহৃত রয়েছে। যা ব্যবহারের জন্য কয়েক দফা সময় বাড়িয়েও শেষ করা যায়নি।

এই দীর্ঘসময়ে আইপিও ফান্ড ব্যবহার করতে না পারার কারনে ওই ফান্ডের উপর এফডিআরজনিত সুদবাবদ আয় হয়েছে ৩৭ কোটি ৮৬ লাখ টাকা। যাতে করে এখন মোট আইপিওর অব্যবহৃত ফান্ডের পরিমাণ বেড়ে দাড়িঁয়েছে ৮৩ কোটি ৫০ লাখ টাকায়।

এ বিষয়ে রিজেন্ট কর্তৃপক্ষ ডিএসইকে জানিয়েছে, ব্যবসা সম্প্রসারন ও ওয়ার্কিং ক্যাপিটালের জন্য রিটেইন আর্নিংস থেকে বোনাস শেয়ার ঘোষণা করা হয়েছে।

অর্থসংবাদ/ এমএস/১৫: ৩৩/ ১১: ১৯: ২০২০

 

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।