ভ্যাট প্রক্রিয়া সহজতর করার আহ্বান

নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশ: ২০২০-১১-১৫ ০৯:৩৩:৩৮

ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই) আয়োজিত ‘অর্থ আইন ২০২০ এবং মূল্যসংযোজন কর ও সম্পূরক শুল্ক আইন ২০১২’ শীর্ষক অনলাইনভিত্তিক ওয়ার্কশপ গতকাল অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তারা ভ্যাট প্রক্রিয়া সহজতর করার আহ্বান জানান। ঢাকা চেম্বারের সদস্য ছাড়াও বিভিন্ন বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের প্রায় ১০০ প্রতিনিধি অংশ নেন। ওয়ার্কশপে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সদস্য (ভ্যাট নীতি) মো. মাসুদ সাদিক এবং সদস্য (আয়কর নীতি) মো. আলমগীর হোসেন বিশেষ অতিথি হিসেবে যোগ দেন।

ওয়ার্কশপের স্বাগত বক্তব্যে ডিসিসিআই সভাপতি শামস মাহমুদ বলেন, কভিড-১৯ মহামারীর কারণে এ বছর সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশের অর্থনীতিও বিপর্যস্ত হয়েছে, এমতাবস্থায় ২০২০-২১ অর্থবছরে জাতীয় বাজেটের মূল লক্ষ্য ছিল অর্থনীতিকে পুনরুদ্ধার করা এবং এ লক্ষ্যে এনবিআরের সঙ্গে ঢাকা চেম্বার একযোগে কাজ করছে। এনবিআর চলতি বছর রাজস্ব আহরণের লক্ষ্যমাত্রা ৩ লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকায় উন্নীত করেছে, যা গত বছরের সংশোধিত বাজেটের তুলনায় ৯ দশমিক ৮২ শতাংশ বেশি।

শামস মাহমুদ বলেন, সরকারের বিশাল ব্যয়ের জন্য অর্থসংস্থানের সুযোগ তৈরির পাশাপাশি এ বছর ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষতি সত্ত্বেও ব্যবসায়ীরা কর ও ভ্যাট প্রদান অব্যাহত রেখেছেন। বাংলাদেশকে উন্নত অর্থনীতির দেশে পরিণত করতে আমাদের কর-জিডিপি অনুপাত বাড়ানোর কোনো বিকল্প নেই এবং এজন্য করের আওতা বৃদ্ধি, ট্যাক্স ও ভ্যাট রিটার্ন পদ্ধতি সম্পূর্ণ অনলাইন করা, রিফান্ড পদ্ধতি সহজীকরণ করা একান্ত আবশ্যক।

তিনি শিল্প খাতের উন্নয়নের জন্য অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোয় স্থাপিত নিবন্ধিত কারখানাগুলোকে লিজ রেন্টের ওপর মূসক অব্যাহতি দেয়ার আহ্বান জানান এবং স্থানীয় ক্ষুদ্র ও মাঝারি খাতের উদ্যোক্তাদের বাজারে প্রবেশের সুযোগ করে দিতে কাঁচামাল আমদানিতে অগ্রিম কর হ্রাসের প্রস্তাব দেন। চেম্বার সদস্যদের পাশাপাশি অন্য করদাতাদের কর প্রদান প্রক্রিয়া বোধ্যগম্য ও সহজীকরণের লক্ষ্যে প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও ‘ট্যাক্স গাইড ২০২০-২১’ প্রকাশ করেছে।

মো. আলমগীর হোসেন বলেন, দেশের অগ্রগতির ধারাকে অব্যাহত রাখা, মানুষের জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন, ব্যবসায়িক কার্যক্রম চলমান রাখা এবং কভিড-১৯ মহামারী মোকাবেলার বিষয় মাথায় রেখেই জাতীয় রাজস্ব বোর্ড চলতি বছরের বাজেট প্রণয়ন করেছে। করদাতাদের স্বাচ্ছন্দ্য নিশ্চিত করতে সরকার কর কাঠামো সংস্কারের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে এবং আগামী বছর থেকে অনলাইনে ভ্যাট ও ট্যাক্স প্রদান প্রক্রিয়া চালু করা সম্ভব হবে বলে আশা করি।

ডিসিসিআইয়ের আহ্বায়ক এম শফিকুল আলম এবং ডিসিসিআই ট্যাক্স কনসালট্যান্ট স্নেহাশীষ বড়ুয়া যথাক্রমে ‘জাতীয় বাজেটে ঢাকা চেম্বারের প্রস্তাবনা ও ব্যবসায়িক খাতে এর প্রভাব’ এবং ‘ফাইন্যান্স অ্যাক্ট ২০২০-এর প্রধান প্রতিবন্ধকতা’ শিরোনামে দুটো মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। শফিকুল আলম অনলাইনে ভ্যাট প্রদান প্রক্রিয়া চালুকরণ এবং ভ্যাট প্রদান প্রক্রিয়া আরো সহজীকরণের জন্য আহ্বান জানান। স্নেহাশীষ বড়ুয়া অগ্রিম কর প্রদান প্রক্রিয়া অটোমেশনের প্রস্তাব করেন এবং কর রেয়াত নেয়ার সময়সীমা বাড়ানোর জন্য এনবিআরকে সাধুবাদ জানান।

ঢাকা চেম্বারের ঊর্ধ্বতন সহসভাপতি এনকেএ মবিন এফসিএ ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। ডিসিসিআই সহসভাপতি মোহাম্মদ বাশিরউদ্দিন এবং পরিচালনা পর্ষদের সদস্যরাও ওই ওয়ার্কশপে যোগ দেন।

অর্থসংবাদ/ এমএস

 

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।