অলিভ অয়েলের মজুদ কমতে পারে ১০ শতাংশ

নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশ: ২০২০-১১-১৫ ০৯:৩১:০৭

বিশ্বের চতুর্থ শীর্ষ অলিভ অয়েল উৎপাদনকারী দেশ তিউনিশিয়া। পণ্যটির রফতানিকারকদের বৈশ্বিক শীর্ষ তালিকায় দেশটি দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। চলতি বছর শেষে তিউনিশিয়ায় অলিভ অয়েলের সমাপনী মজুদ আগের বছরের তুলনায় ১০ শতাংশশের বেশি কমতে পারে। মার্কিন কৃষি বিভাগের (ইউএসডিএ) ফরেন এগ্রিকালচারাল সার্ভিসের সাম্প্রতিক প্রতিবেদনে এ সম্ভাবনার কথা জানানো হয়েছে। খবর অলিভ অয়েল টাইমস।

ইউএসডিএর পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, চলতি বছর শেষে তিউনিশিয়ায় অলিভ অয়েলের সমাপনী মজুদ দাঁড়াতে পারে ৫৩ হাজার টনে, যা আগের বছরের তুলনায় ১০ দশমিক ১৭ শতাংশ কম। ২০১৯ সাল শেষে দেশটিতে অলিভ অয়েলের সমাপনী মজুদ ছিল ৫৯ হাজার টন। সেই হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে দেশটিতে অলিভ অয়েলের সমাপনী মজুদ কমতে পারে সাত হাজার টন।

চলতি শতকে ২০১২ সালে তিউনিশিয়ার অলিভ অয়েল মজুদ সর্বোচ্চে পৌঁছেছিল। ওই বছর দেশটিতে পণ্যটির সমাপনী মজুদের পরিমাণ দাঁড়ায় এক লাখ টন।

এদিকে চলতি বছর তিউনিশিয়া থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে সব মিলিয়ে ১ লাখ ৩০ হাজার টন অলিভ অয়েল রফতানির সম্ভাবনা রয়েছে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে ইউএসডিএ, যা আগের বছরের তুলনায় ৩৯ দশমিক ৫৩ শতাংশ কম। গত বছর দেশটি থেকে মোট ২ লাখ ১৫ হাজার টন অলিভ অয়েল রফতানি হয়েছিল। সেই হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে তিউনিশিয়া থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে অলিভ অয়েল রফতানি কমতে পারে ৮৫ হাজার টন।

অর্থসংবাদ/এসএ

 

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।