কেন্দ্র দখলের আশঙ্কা, প্রতিকার চেয়ে নির্বাচন কমিশনে তাবিথের চিঠি

ডেস্ক রিপোর্টার প্রকাশ: ২০২০-০১-৩১ ০১:৫০:২৫

ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ ভোটকেন্দ্র দখল ও নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারে জানিয়ে এবং প্রতিকার চেয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) বরাবর চিঠি দিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটির বিএনপি সমর্থিত মেয়রপ্রার্থী তাবিথ আউয়াল।

বৃহস্পতিবার (৩০ জানুয়ারি) রাতে এ চিঠি দেন তাবিথ আউয়াল।

এ ছাড়া বৃহস্পতিবার রাতে আরেক চিঠিতে উত্তর সিটির রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আবুল কাসেমের কাছে তাবিথ আউয়াল নিজের নিরাপত্তার জন্য একজন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পোশাক পরিহিত অস্ত্রধারী সদস্য চেয়েছেন। ভোটগ্রহণের দিন তিনি ও তার নির্বাচনী এজেন্টদের নিরাপত্তার জন্য পৃথক পৃথক গাড়িসহ পুলিশি নিরাপত্তা চেয়েছেন।

সিইসি কে এম নূরুল হুদা বরাবর দেয়া চিঠিতে তাবিথ আউয়াল লিখেন, ‘আজ ৩০ জানুয়ারি দৈনিক ‘প্রথম আলো’পত্রিকায় প্রকাশিত ‘ভোটকেন্দ্র পুরো নিয়ন্ত্রণে রাখতে চায় আ.লীগ’ এবং ইংরেজি দৈনিক ডেইলি স্টার-এ ‘অকোপাই, কন্ট্রোল পোলিং সেন্টার্স’ শীর্ষক দুটি সংবাদের প্রতি আমার দৃষ্টি আকৃষ্ট হয়েছে। সংবাদে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আবদুর রহমান বুধবার (২৯ জানুয়ারি) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় নির্বাচনী সভায় বক্তৃতাকালে ভোটের দিন সকাল থেকে ভোটকেন্দ্র দখল ও নিয়ন্ত্রণে রাখতে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের প্রতি আবহ্বান জানিয়েছেন।’

এ জাতীয় কোনো খারাপ দৃষ্টান্ত যাতে না ঘটে সেজন্য জরুরি সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ অত্যন্ত জরুরি বলে উল্লেখ করেন তাবিথ আউয়াল।

রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবর চিঠিতে তবিথ আউয়াল লিখেন, ‘আমি তাবিথ আউয়াল, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত মেয়রপ্রার্থী। ইতিপূর্বে অনুষ্ঠিত নির্বাচনেও আমি মেয়র পদে প্রার্থী ছিলাম। তখন আমার নিরাপত্তায় একজন ইউনিফর্ম গানম্যান (আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পোশাক পরিহিত অস্ত্রধারী) নিয়োজিত ছিল। প্রার্থী হিসেবে আগের মতো ভোটগ্রহণের আগেরদিন ও পরবর্তী কয়েকদিন একজন ইউনিফর্ম গানম্যান এবং ভোটগ্রহণের দিন আমি ও আমার নির্বাচনী এজেন্টদের নিরাপত্তার জন্য পৃথক পৃথক গাড়িসহ পুলিশ প্রোটেকশন (পুলিশি নিরাপত্তা) নিয়োজিত করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো।’

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।