মিয়ানমারে স্থল মাইন বিস্ফোরণে রোহিঙ্গা নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশ: ২০২০-১০-২৪ ১৪:২৮:৪৭

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুমের রেজু-আমতলী সীমান্তে মিয়ানমার অভ্যন্তরে স্থল মাইন বিস্ফোরণে এক রোহিঙ্গা নিহত হয়েছেন।

শনিবার (২৪ অক্টোবর) রাতের প্রথম প্রহর ২টায় ঘুমধুম ইউনিয়নের রেজু-আমতলী সীমান্ত সংলগ্ন মিয়ানমার অভ্যন্তরে এ ঘটনা ঘটে।
বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নাইক্ষ্যংছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন।

নিহত মোহাম্মদ জাবের (১৩) কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং লম্বাশিয়া ১-ডব্লিউ ক্যাম্পের ব্লক-ডি/৪-১৪ এর বাসিন্দা মো. এমদাদ হোসেনের ছেলে।

ওসি আলমগীর হোসেন জানান, কিছুদিন আগে উখিয়ার শরণার্থী ক্যাম্প থেকে কয়েকজন রোহিঙ্গা অবৈধভাবে সীমান্ত পেরিয়ে মিয়ানমারে সাগরে মাছ ধরতে গিয়েছিলেন। পরে শনিবার রাতের প্রথম প্রহর ২টায় ওই সীমান্ত দিয়ে ফিরে আসছিলেন তারা। এসময় বাংলাদেশের রেজু-আমতলী সীমান্তের ৪০ নম্বর পিলারের ১০০ গজ মিয়ানমারের অভ্যন্তরে স্থল মাইন বিস্ফোরণে মোহাম্মদ জাবের নামের ওই রোহিঙ্গা নিহত হন। শনিবার সকাল ৯টার দিকে কয়েকজন কাঁধে বহন করে কাপড় মোড়ানো অবস্থায় একটি বস্তু আনতে দেখে বিজিবির সদস্যরা তল্লাসি চালায়। এসময় এতে একটি ক্ষত-বিক্ষত লাশ পাওয়া যায়।

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম শূন্যরেখা রোহিঙ্গা শিবিরের চেয়ারম্যান দিল মোহাম্মদ বলেন, ‘মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গারা যাতে ফিরে যেতে না পারে, সেজন্য সীমান্তে বিজিপি স্থলমাইন পুঁতে রেখেছে। শনিবার এই স্থলমাইন বিস্ফোরণে ওই রোহিঙ্গা কিশোরের পা বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এতে সে ঘটনাস্থলেই মারা যায়।’

ওসি আলমগীর হোসেন আরও জানান, মাইন বিস্ফোরণে ওই রোহিঙ্গার পা উড়ে গেছে। তার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ব‌্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।