আইনের দুর্বলতার সুযোগে ওষুধের দাম চারগুণ

নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশ: ২০২০-১০-২৩ ১৮:৫৯:৫৬

করোনাকালেও দেশে জীবনরক্ষাকারীসহ বিভিন্ন ধরনের ওষুধের দাম সর্বোচ্চ চারগুণ বেড়েছে। সরকার নির্ধারণ করে দেয়ার পরও কোভিড-১৯ চিকিৎসায় ব্যবহৃত ওষুধের দাম বেড়েছে দেড় থেকে দুইগুণ।

ভিটামিনজাতীয় ওষুধের দাম তিন থেকে চারগুণ, শ্বাসকষ্ট ও হৃদরোগ ওষুধের দাম দেড় থেকে দ্বিগুণ বেড়েছে। পাশাপাশি বেড়েছে সর্দিজ্বর, মাথাব্যথা, কাশির ওষুধের দাম। বাদ যায়নি অ্যান্টিবায়োটিক ও রক্তচলাচল স্বাভাবিক করার ওষুধও।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, করোনাকে পুঁজি করে ওষুধের দাম বাড়িয়েছে দেশি-বিদেশি উৎপাদকরা। কৃত্রিম সংকট দেখিয়ে সর্বাধিক চাহিদাসম্পন্ন ওষুধ বেশি দামে বিক্রিতে পিছিয়ে নেই খুচরা বিক্রেতারাও। বিশেষ করে, করোনার প্রতিষেধক হিসেবে যে ওষুধের নাম এসছে, সেগুলোর দাম বাড়ানো হয়েছে ইচ্ছামতো। এছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক ও সাধারণ অনেক ওষুধ বিক্রি হচ্ছে দ্বিগুণ-চারগুণ দামে। এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ রোগীরা।

তবে নিয়ন্ত্রণকারী কর্তৃপক্ষ ঔষধ প্রশাসন অধিদফতরের দাবি, কোম্পানিগুলো দাম কিছুটা বাড়িয়েছিল। কিন্তু প্রশাসনের তৎপরতায় এখন তা অনেকটাই স্বাভাবিক। দেশে যেন ওষুধের দাম ও প্রাপ্যতা স্বাভাবিক থাকে, সেজন্য জানুয়ারি থেকেই ওষুধ উৎপাদকদের সব ধরনের সহযোগিতা ও পরামর্শ দেয়া হয়।

 

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।