ইউসিবি ক্যাপিটালের ২০ বীমায় মার্জিন বন্ধের সিদ্ধান্তে ভিত্তিহীন গুজব ছড়াচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশ: ২০২০-১০-১২ ২১:২১:৫৫, আপডেট: ২০২০-১০-১২ ২২:১৬:৪৪

হঠাৎ করেই ইউসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট বীমা খাতের ২০ কোম্পানির শেয়ারে মার্জিন ঋণ না দেওয়ার সিদ্ধান্তের ফলে শেয়ারবাজারে আতংক তৈরী হয়েছে। এই সিদ্ধান্তের উপর ভিত্তি করে পুরো শেয়ারবাজারে গুজব ছড়িয়ে পড়ে বীমা খাতের কোম্পানিতে মার্জিন ঋণ না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিচ্ছে বাংলাদেশ সিকিউনিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। যে গুজবে সোমবার (১২ অক্টোবর) শেয়ারবাজারে বড় নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। এদিন সব বীমা কোম্পানির শেয়ার ক্রেতা শূন্য হয়ে পড়ে।

ইউসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্টের বীমা খাতের ২০টি কোম্পানির শেয়ারে মার্জিন ঋণ না দেওয়ার সিদ্ধান্ত সোমবার সকালেই পুরো শেয়ারবাজারে পৌছে যায়। তবে খবরটি আরও অতিরঞ্জিত হয়ে বাজারে ছড়িয়ে পড়ে দুপুরের দিকে। পুরো বীমা খাতের শেয়ারে বিএসইসি মার্জিন ঋণ নিষিদ্ধ করবে বলে খবর ছড়ায়। যার কোন ভিত্তি নেই, বিএসইসির দায়িত্বশীল সূত্র অর্থসংবাদকে এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

এদিন বীমা খাত নিয়ে এমন গুজব বাজারে ছড়ানোর পরেই বিনিয়োগকারীদের মধ্যে আতঙ্ক তৈরী হয়। এক পর্যায়ে পুরো বীমা খাতের শেয়ার ক্রেতা শূন্য হয়ে পড়ে। একইসঙ্গে বীমা খাতের এই আতঙ্ক শেয়ারবাজারের অন্যসব খাতেও প্রভাব ফেলে। বিশেষ করে গত কয়েকদিন ধরে বাড়তে থাকা মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিটেও এর প্রভাব দেখা গেছে।

তবে ইউসিবি ছাড়াও আরও একাধিক ব্রোকারেজ হাউজ বীমা খাতের শেয়ারে মার্জিন ঋণ সুবিধা বন্ধ রেখেছে। যার ফলে পুরো বাজারে এক ধরনের আতংক ছড়িয়ে পড়ে। হঠাৎ ইউসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট এ ধরনের সিদ্ধান্ত কেন নিয়েছে তা জানা যায়নি।

এ বিষয়ে জানতে ইউসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও মোহাম্মদ রহমত পাশার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও কোন মন্তব্য পাওয়া যায়নি। ,

বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মূখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম অর্থসংবাদকে বলেন, বিএসইসি মার্জিনের বিষয়ে নতুন কোন সিদ্ধান্ত নেয়নি। কোন নির্দিষ্ট খাতের জন্য মার্জিন কমানো বা বৃদ্ধির বিষয় নেই। মার্জিন আগের মতোই থাকবে।

সোমবার বীমা খাতের ৪৮টি কোম্পানির মধ্যে ৪৬টির শেয়ার দর কমেছে। শেয়ার দর অপরিবর্তিত রয়েছে ২টি কোম্পানি। শেয়ার দর কমা কোম্পানিগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি অর্থাৎ ১০.৮০ টাকা কমেছে প্রগ্রেসিভ লাইফ ইন্স্যুরেন্সের। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৭ টাকা কমেছে ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্সের এবং তৃতীয় সর্বোচ্চ ৬.৮০ টাকা কমেছে পাইওনিয়ার ইন্স্যুরেন্সের।

এছাড়াও মিউচ্যুয়াল ফান্ড খাতের ৩৭টি কোম্পানির মধ্যে ৩৬টির বা ৯৭ শতাংশের ইউনিট দর কমেছে। এখাতের কোম্পানিগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি অর্থাৎ ১.১০ টাকা করে ইউনিট দর কমেছে এসইএমএল লেকচার ইক্যুইটি ম্যানেজমেন্ট ফান্ড ও এনএলআই ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ডের। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১ টাকা করে কমেছে সিএপিএম আইবিবিএল ইসলামিক মিউচ্যুয়াল ফান্ড ও প্রাইম ফাইন্যান্স ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ডের এবং তৃতীয় সর্বোচ্চ ০.৮০ টাকা করে ইউনিট্ দর কমেছে ভ্যানগার্ড এএমএল বিডি ফাইন্যান্স মিউচ্যুয়াল ফান্ড ওয়ান, এসইএমএল আইবিবিএল শরিয়াহ ফান্ড ও ইবিএল ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ডের। এদিন এখাতের একমাত্র রিলায়েন্স ওয়ান দ্যা ফার্স্ট স্কিম অব রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্স মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট দর ০.৩০ টাকা বেড়েছে।

 

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।