‘কস্ট অডিট বাস্তবায়িত হলে কমবে পণ্যের উৎপাদন ব্যয়’

নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশ: ২০২০-১০-১০ ১৪:৪৮:১৭

ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান ও শিল্পকারখানাগুলোতে কস্ট অডিট বাস্তবায়িত হলে পণ্যের উৎপাদন ব্যয় কমবে, যার সুবিধা পাবেন ভোক্তারা।

সম্প্রতি ফাইন্যান্সিয়াল রিপোর্টিং কাউন্সিলের (এফআরসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. হামিদ উল্লা ভূঁইয়ার সঙ্গে সাক্ষৎ করেন ইনস্টিটিউট অব কস্ট অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট অ্যাকাউন্ট্যান্টস অব বাংলাদেশ (আইসিএমএবি) প্রেসিডেন্ট মো. জসিম উদ্দিন আকন্দের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল।

সাক্ষৎকালে আইসিএমএবি প্রেসিডেন্ট দেশের ব্যবসা ও শিল্পপ্রতিষ্ঠানের প্রাতিষ্ঠানিক ব্যবস্থাপনা, ব্যয় নিয়ন্ত্রণ এবং কর্মদক্ষতা মূল্যায়নে কস্ট অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট অ্যাকাউন্ট্যান্টসদের ভূমিকা সম্পর্কে এফআরসি চেয়ারম্যানকে অবহিত করেন।

পেশাগত বিষয়াদি আলোচনার পাশাপাশি আইসিএমএবি প্রেসিডেন্ট বলেন, দেশের আর্থ-সামাজিক ব্যবস্থার উন্নয়নের স্বার্থে বিভিন্ন ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান ও শিল্পকারখানায় কস্ট অডিট বাস্তবায়িত হলে পণ্যের উৎপাদন ব্যয় হ্রাস পাবে, যার সুবিধা ভোক্তারা পাবেন।

তাছাড়া কস্ট অডিট সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে জারিকৃত সরকারি সিদ্ধান্তের আলোকে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কস্ট অডিট বাস্তবায়ন করার বিষয়টি গুরুত্ব দেয়া হয়।

এফআরসি চেয়ারম্যান সরকারি সিদ্ধান্ত মোতাবেক ক্রমান্বয়ে কস্ট অডিট বাস্তবায়নের ব্যাপারে প্রতিনিধিদলকে আশ্বস্ত করেন এবং আইসিএমএবির সঙ্গে সহযাগিতার ক্ষেত্রসমূহ চিহ্নিতকরণের লক্ষ্যে যথাযথ গুরুত্বারোপ করেন।

প্রতিনিধিদলে ছিলেন আইসিএমএবির সাবেক প্রেসিডেন্ট ও সাউথ এশিয়ান ফেডারেশন অব অ্যাকাউন্ট্যান্টসের (সাফা) ভাইস প্রেসিডেন্ট এ কে এম দেলোয়ার হোসেন এফসিএমএ, কোষাধ্যক্ষ মো. আলী হায়দার চৌধুরী এফসিএমএ এবং নির্বাহী পরিচালক মো. মাহবুব উল আলম এফসিএমএ।

 

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।