পূঁজিবাজারে বিনিয়োগ করতে পারবেন মার্চেন্ট ব্যাংকের এমডিরা

নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশ: ২০২০-০১-২৭ ১৫:২৩:১১, আপডেট: ২০২০-০১-২৭ ১৫:২৪:২৭

বেশকিছু পরিবর্তন এনে মার্চেন্ট ব্যাংকার অ্যান্ড পোর্টফোলিও ম্যানেজার বিধিমালা সংশোধনী সম্প্রতি বাংলাদেশ গেজেটে প্রকাশ করা হয়েছে। বিধিমালায় আনা সংশোধনী অনুসারে মার্চেন্ট ব্যাংকের এমডি ও সিইওরা ইস্যু ব্যবস্থাপক হিসেবে যে কোম্পানির প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) কাজ করবেন, সেই কোম্পানির শেয়ারে বিনিয়োগ করতে পারবেন না। তবে এছাড়া অন্যান্য কোম্পানির শেয়ারে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে বাধা নেই। আগে মার্চেন্ট ব্যাংকের এমডিদের শেয়ার ব্যবসায় বিধিনিষেধ ছিল।

বাংলাদেশ সিকিউরিটি অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন আইন, ১৯৯৩-এর ধারা ২৪-এর উপধারা (১)-এর ক্ষমতাবলে এ সংশোধনী আনা হয়েছে।

সংশোধনী অনুসারে, ব্যবস্থাপনা পরিচালক বা সিইও হিসেবে নিয়োগ পাওয়া ব্যক্তি কোনো স্টক এক্সচেঞ্জের বা স্টক এক্সচেঞ্জের কোনো ট্রেকহোল্ডারের বা কোনো সম্পদ ব্যবস্থাপক কোম্পানির বা কোনো ইস্যুয়ার কোম্পানির সিকিউরিটিজ ক্রয়-বিক্রয় ব্যতীত অন্য কোনো কিছুর সঙ্গে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ কোনোভাবে জড়িত থাকতে পারবেন না।

তবে শর্ত থাকে যে, কোনো মার্চেন্ট ব্যাংকার ইস্যু ব্যবস্থাপক হিসেবে যেই কোম্পানির ইস্যু ব্যবস্থাপনা করবেন, সেই কোম্পানির কোনো সিকিউরিটিজ সংশ্লিষ্ট মার্চেন্ট ব্যাংকার বা উহার ব্যবস্থাপনা পরিচালক বা সিইও ক্রয় বা অন্য কোনোভাবে গ্রহণ করতে পারবেন না। তাছাড়া ইস্যু ব্যবস্থাপকের দায়িত্ব পালনকারী মার্চেন্ট ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বা সিইও কোনো মার্চেন্ট ব্যাংকারের শেয়ারহোল্ডার বা উদ্যোক্তা বা পরিচালক হিসেবে থাকতে পারবেন না।

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।