আইএইচপি নেটওয়ার্ক সংযোগে সমস্যা: দাবি ডিএসইর

নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশ: ২০২০-১০-০৪ ১৬:২৯:২৩

আজ রোববার (০৪ অক্টোবর) সকাল থেকেই ডিএসইর ওয়েবসাইট জটিলতা দেখা দেয়। ওয়েবসাইটে একাধিকবার প্রবেশ করার চেষ্টা করা হলেও বার বার ব্যর্থ হন বিনিয়োগকারীরা।

ওয়েবসাইটের কোনো জটিলতা নয়, নেটওয়ার্ক সমস্যার কারণে বিনিয়োগকারীরা ভোগান্তিতে পড়েছেন বলে দাবি ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই)।

অভিযোগ প্রেক্ষিতে ডিএসইর একাধিক কর্মকর্তা জানান, ডিএসইর আইটি বিভাগের ওয়েবসাইটে কোন সমস্যা নেই। আমরা মতিঝিল অফিস থেকে দেখেছি ডিএসইর সার্ভারে কোনো ত্রুটি নেই।

ডিএসইর কর্মকর্তারা বলেন, ব্রোকার হাউসগুলো থেকে বিডিআইএক্স (বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল এক্সচেঞ্জ) এবং আইএইচপি নেটওয়ার্কে মাধ্যমে ডিএসইর ওয়েবসাইটে প্রবেশ করা হয়। সেই আইএইচপি নেটওয়ার্ক সংযোগে সমস্যা হয়েছে।

এর আগে গত (১৯ আগস্ট) নতুন ওয়েবসাইট চালুর পর থেকেই অচলাবস্থা চলছে ডিএসইতে। কিছু দিন পররই এমন ভোগান্তিতে পড়তে হয় বিনিয়োগকারীদের।

পুঁজিবাজারের বৃহত্তর স্বার্থে বিষয়টি খতিয়ে দেখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। এ লক্ষ্যে ৬ সদস্যের একটি শক্তিশালী তদন্ত কমিটি গঠন করা হয় গত ২৪ আগস্ট।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মো. মোস্তাফিউর রহমানকে আহ্বায়ক করে গঠিত কমিটির অন্য সদস্যরা হচ্ছেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিটি সেলের প্রধান প্রফেসর ড. মো. আসিফ হোসেন খান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. মো. শরীফুল ইসলাম, বিএসইসির পরিচালক রাজিব আহমেদ, বিএসইসির উপ-পরিচালক মো. নজরুল ইসলাম এবং বিএসইসির সহকারী পরিচালক মো. শহিদুল ইসলাম। এদের মধ্যে শহিদুল ইসলাম কমিটির সদস্য সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

তদন্ত কমিটিকে আগামী ৭ কার্যদিবসের মধ্যে তাদের রিপোর্ট জমা দিতে হবে।ডিএসই কর্তৃপক্ষকে বিএসইসি নির্দেশ দিয়েছে তদন্ত কমিটিকে সব ধরনের সহায়তা দেওয়ার জন্য।

 

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।