সৌদি ফেরা অনিশ্চিত হাজার হাজার প্রবাসীর

নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশ: ২০২০-১০-০২ ০৮:১২:৫৫

বৈশ্বিক করোনা মহামারির কারণে ছুটিতে আটকে পড়া সৌদি প্রবাসী বাংলাদেশিদের ভিসা ও আকামার (কাজের বৈধ অনুমতিপত্র) মেয়াদ বাড়ানোর কোনো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা গতকাল বৃহস্পতিবার অবধি দেয়নি সৌদি সরকার। ফলে গত ৩০ সেপ্টেম্বর ভিসা ও আকামার মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়া হাজার হাজার প্রবাসীর সৌদি আরবে তাদের কর্মস্থলে ফেরা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

আকামার মেয়াদ অথবা কর্মচারীর জন্য কফিল বা চাকরিদাতার আবেদন না থাকলে রি-এন্ট্রি ভিসা দেবে না বলে জানিয়েছে ঢাকাস্থ সৌদি দূতাবাস। এতে করে গত এক সপ্তাহ যাবত্ যেসব প্রবাসী রাজপথে বিক্ষোভ করে আসছিলেন, তাদের বিক্ষোভ থামছে না। তারা বাংলাদেশ সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কোনো আশ্বাসবাণীতে আশ্বস্ত থাকতে পারছেন না। অনেকে হতোদ্যম হয়ে ঢাকা থেকে আবারও গ্রামে ফিরে গেছেন।

নতুন এক ঘোষণায় যাদের ভিসার মেয়াদ ৩০ সেপ্টেম্বরে শেষ হয়েছে, তাদের ভিসা নবায়নের সুযোগ দিয়েছে সৌদি কর্তৃপক্ষ। কিন্তু নবায়নের জন্য এমন কিছু কঠিন শর্ত রাখা হয়েছে, যেটি পূরণ করে একজন বাংলাদেশির সৌদি আরবে ফেরা একপ্রকার অসম্ভব হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ঢাকার সৌদি দূতাবাস থেকে ভিসা নবায়নে যেসব শর্ত পূরণের কথা বলা হয়েছে, তার মধ্যে নিয়োগকর্তা বা কফিলের আবেদনসংবলিত চিঠির কথা বলা হয়েছে, যা সৌদি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কর্তৃক সত্যায়িত হতে হবে। আকামার মেয়াদ লেখা থাকতে হবে সৌদি পাসপোর্ট অধিদপ্তরের (জাওয়াজাত) আবেদনের প্রিন্ট কপিতে। পাসপোর্ট ও রি-এন্ট্রি ভিসার মূল কপি রাখতে হবে সঙ্গে। থাকতে হবে মেয়াদসহ আকামার মূল কপি।

এ ছাড়া সৌদি আরব থেকে বের হওয়ার মূল কপি থাকার বাধ্যবাধকতাও রাখা হয়েছে ভিসা নবায়ন শর্তে। এর মধ্যেই দেশে এসে আটকে পড়া বাংলাদেশি, যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে, তাদের ভিসা নবায়নে আবেদন নেওয়া শুরু করেছে ঢাকার সৌদি দূতাবাস।

গত ২৩ সেপ্টেম্বর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছিল, বাংলাদেশে অবস্থানরত সৌদি প্রবাসী বাংলাদেশিদের আকামার মেয়াদ চলতি আরবি সফর মাসের শেষ দিন, অর্থাত্ আরো ১৭ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়াবে। তবে এ ধরনের কোনো ঘোষণা সৌদি সরকার গতকাল পর্যন্ত দেয়নি। আকামা আর ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর ঘোষণা সৌদির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দিয়ে থাকে। এখন পর্যন্ত তারা এমন কিছু বলেনি।

এ বিষয়ে ঢাকা থেকে সৌদির বিষয়ে বাংলাদেশ দূতাবাসের কাছে জানতে চেয়েছিল প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়। দূতাবাস মন্ত্রণালয়কে জানিয়েছে, সাধারণত এ ধরনের কোনো ঘোষণা সৌদি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয় না। বাংলাদেশিদের ক্ষেত্রে আকামার মেয়াদ ২৪ দিন বাড়িয়ে দেওয়া হবে এমন কোনো ঘোষণা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাওয়া যায়নি। এভাবে সরকারের পক্ষ থেকে আকামা কিংবা ভিসার মেয়াদ বৃদ্ধির অনুমোদন ও বাস্তবায়ন প্রক্রিয়াটি সর্বোচ্চ কর্তৃপক্ষসহ বিভিন্ন সংস্থা ও টেকনিক্যাল অথরিটির মাধ্যমে হয়ে থাকে।

 

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।