Connect with us

খেলাধুলা

হঠাৎ ঢাকায় সাকিব-লিটন-মুস্তাফিজ

Published

on

বাজার মূলধন

আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ জয় ছাপিয়ে বাংলাদেশের ক্রিকেটাঙ্গনে এখন হট টপিক ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল)। অবশ্য এর কারণও রয়েছে। বাংলাদেশ থেকে এবারের আইপিএলে খেলার কথা রয়েছে তিন ক্রিকেটারের। সাকিব আল হাসান, মুস্তাফিজুর রহমানদের পাশাপাশি এবার প্রথমবারের মতো দল পেয়েছেন টাইগার ওপেনার লিটন দাস। অবশ্য বিসিবি থেকে ছাড়পত্র না পাওয়ায় কবে নাগাদ তারা আইপিএলে যোগ দিচ্ছেন সেটা এখনো নিশ্চিত নয়।

অর্থসংবাদের মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

আগামী ৩১ মার্চ থেকে মাঠে গড়াবে আইপিএল। সেসময় ঘরের মাঠে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট খেলবে বাংলাদেশ। আর সে কারণে ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগটির শুরুর দিকে খেলার অনুমতি পাচ্ছেন না সাকিব-লিটনরা। তবে সম্প্রতি গুঞ্জন ছড়িয়েছে, ইতোমধ্যে বিসিবি নিজেদের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে। আইপিএলের শুরু থেকেই খেলতে পারবে বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা।

আর সেই আইপিএলে যাওয়ার প্রস্তুতি হিসেবেই গতকাল (বুধবার) আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচ শেষেই এই তিন ক্রিকেটার ছুটেছেন ঢাকায়। আজ বৃহস্পতিবারই আবার তারা চট্টগ্রামে দলের সঙ্গে যোগ দেবেন। এমনটাই জানান বিসিবির মিডিয়া ম্যানেজার রাবিদ ইমাম।

ধারণা করা হচ্ছে তিন ক্রিকেটারই গেছেন ভারতের ভিসার কাজ সম্পন্ন করতে। এদিকে, গুঞ্জন রয়েছে আজই নাকি সিদ্ধান্ত হয়ে যাবে কবে নাগাদ সাকিব-লিটন কলকাতার বিমান ধরবেন। সেক্ষেত্রে বোর্ডের উচ্চমহলের সঙ্গেও একটা বৈঠক হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে। তবে সাকিব-লিটনের আইপিএল যাওয়া নিয়ে বিপত্তি থাকলেও মুস্তাফিজের জন্য সেরকম কোনো বিপত্তি নেই। কেননা টাইগার এই পেসার লাল বলের ক্রিকেটে না থাকায় নিদিষ্ট সময়েই যেতে পারবেন আইপিএলে।

আগামীকাল থেকেই মাঠে গড়াতে যাচ্ছে ১৬তম আইপিএল আসরের। একইসঙ্গে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচও আগামীকাল। এরপর টেস্ট শুরু হবে ৪ এপ্রিল থেকে।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

খেলাধুলা

ক্রিকেটারকে নিয়ে বাজি, মিলল ৫০ হাজার পাউন্ড

Published

on

বাজার মূলধন

লর্ডসে জেমস অ্যান্ডারসনের কাছ থেকে গতাকাল ইংল্যান্ডের ৭১১ নম্বর টেস্ট ক্যাপটি পেয়েছেন জশ টাং। ১৪ বছর আগে যাকে নিয়ে বাজি ধরা হয়েছিল। গতকালকের টেস্ট অবিষেকের মধ্য দিয়ে সেই বাজির অবসান ঘটলো। বাবা, মা, সঙ্গিনী, পুত্র—সবাই সাক্ষী হয়েছেন বিশেষ মুহূর্তটির। বাজি ধরা টিম পাইপার গ্যালারিতে ছিলেন কি না, ঠিক নিশ্চিত নয়। না থাকলেও হয়তো টেলিভিশনে দেখে থাকবেন টাংয়ের টেস্ট অভিষেকের মুহূর্তটি। এ মুহূর্ত যে পাইপারের কাছে একই সঙ্গে আবেগের এবং অর্থপ্রাপ্তির আনন্দেরও!

অর্থসংবাদের মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে টাংয়ের টেস্ট অভিষেক পাইপারকে এনে দিয়েছে ৫০ হাজার পাউন্ড, বাংলাদেশি টাকায় যা প্রায় ৬৬ লাখ ৬৯ হাজার! সেটির জন্য অবশ্য ১৪ বছর অপেক্ষা করতে হয়েছে তাঁকে।

১৪ বছর আগে ১১ বছর বয়সী টাংকে খেলতে দেখে বাজি ধরেছিলেন পাইপার। তাঁর বাজির বিষয় ছিল, একদিন টাং ইংল্যান্ডের হয়ে টেস্ট খেলবেন। ৫০০-১ দরে তিনি বাজি ধরেছিলেন ১০০ পাউন্ড।

অর্থসংবাদ/এস.ইউ

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

খেলাধুলা

বেনজেমাকে সৌদি ক্লাবের ৪০০ মিলিয়ন ইউরোর প্রস্তাব

Published

on

বাজার মূলধন

শুধু ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডোকে নিয়েই সন্তুষ্ট থাকছে না সৌদি আরব। লিওনেল মেসিকেও বিশাল অঙ্কের প্রস্তাব দিয়েছে দেশটির ক্লাব আল-হিলাল।

অর্থসংবাদের মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

যদিও সেই প্রস্তাবে এখন পর্যন্ত রাজি হননি আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। তবে এবার শোনা যাচ্ছে, সৌদি আরবেরই আরেক ক্লাবের পক্ষ থেকে রিয়াল মাদ্রিদের ফরাসি সুপারস্টার করিম বেনজেমাকেও প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

ফরাসি সংবাদমাধ্যম ‘এএস’ দাবি করেছে, ২০৩০ বিশ্বকাপের আয়োজক হওয়ার জন্য মরিয়া চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে সৌদি আরব। সে জন্যই দেশটির ঘরোয়া লিগে বিশ্বের সেরা ফুটবলারদের সমাবেশ ঘটানোর পরিকল্পনা করেছে তারা। সেই লক্ষ্যেই তারা রোনাল্ডোর পর মেসি ও বেনজেমার দিকে হাত বাড়াচ্ছে। ব্যালন ডি’অরজয়ী রিয়াল তারকার জন্য নাকি দুই মৌসুমের জন্য প্রায় ৪০০ মিলিয়ন ইউরোর প্রস্তাব দিয়েছে সৌদি আরবের একটি ক্লাব। কিন্তু ক্লাবটির নাম এখনো জানা যায়নি।

এর আগে প্রো লিগের শীর্ষ ক্লাব আল-হিলাল মেসিকে ৪০০ মিলিয়ন ইউরোর প্রস্তাব দিয়েছে। যে প্রস্তাব নিয়ে এখনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাননি পিএসজি তারকা। তবে এ মৌসুম শেষেই যে তিনি প্যারিস ছাড়তে যাচ্ছেন তা একপ্রকার নিশ্চিত। ফলে তার সম্ভাব্য ঠিকানা হিসেবে আল-হিলালের নামও জোরেশোরেই উচ্চারিত হচ্ছে। এবার সৌদি লিগকে সম্ভাব্য ঠিকানা ভাবা হচ্ছে বেনজেমার ক্ষেত্রেও। তবে শুধু খেলোয়াড় হিসেবে নয়, মেসি ও বেনজেমা উভয়কেই ২০৩০ বিশ্বকাপের আয়োজক স্বত্ব পাওয়ার লক্ষ্যে কাজে লাগাতে চায় সৌদি আরব।

বেনজেমার সৌদি আরবে পাড়ি জমানোর সম্ভাবনা কতটুকু তা সময় হলেও জানা যাবে। তবে রিয়ালে নাকি আর মন টিকছে না এই ফরাসি স্ট্রাইকারের। গত মৌসুমে লস ব্লাঙ্কোসদের জার্সিতে ব্যক্তিগত ও দলীয় সাফল্যে ভেসেছেন তিনি। লা লিগা ও চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতার পাশাপাশি প্রথমবারের মতো পেয়েছেন ব্যালন ডি’অরও। এর জেরে তার চুক্তির মেয়াদ এক বছর বৃদ্ধি করা হয়।

তবে এবারের মৌসুমটা রিয়ালের হয়ে শুধু কোপা দেল রে জিতেই সন্তুষ্ট থাকতে হচ্ছে তাকে। তা ছাড়া এখন পর্যন্ত রিয়ালের সঙ্গে চুক্তি নবায়নের ব্যাপারেও কোনো সিদ্ধান্তে আসতে পারেননি তিনি। ফলে আগামী রোববার অ্যাটলেটিক বিলবাওয়ের বিপক্ষে ম্যাচটিই হতে পারে রিয়ালের জার্সিতে তার বিদায়ী ম্যাচ। এর পর জানা যাবে তার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা।

২০২২ সালের বিশ্বকাপের পর আন্তর্জাতিক ফুটবলকে বিদায় বলে দেওয়া বেনজেমা যদি সৌদি আরবে পাড়ি জমান তা হলে স্প্যানিশ ফুটবল মাতানো তিন মহাতারকা একই লিগের অংশ হতে পারেন। ২০২২ সালে রোনাল্ডোকে ২০০ মিলিয়ন ইউরোর চুক্তিতে দলে ভিড়িয়েছে আল-নাসর। তবে ২০২৫ সাল পর্যন্ত খেলা চালিয়ে গেলে নাকি এই অঙ্কটা হতে পারে ৪০০ মিলিয়ন ইউরো। অর্থাৎ মেসি ও বেনজেমাকে যে পরিমাণ অর্থের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে, একই পরিমাণ অর্থ আয় করবেন পর্তুগিজ উইঙ্গার। আর তাদের তিনজনকে বিশ্বকাপের আয়োজনের প্রচারে কাজে লাগাবে সৌদি আরব।

আগামী ২০২৪ সালের সেপ্টেম্বরে ২০৩০ বিশ্বকাপের আয়োজক স্বত্বের ভোটাভুটি হবে। যেখানে স্পেন, পর্তুগাল, মরক্কোর মতো দেশ আয়োজন হওয়ার লড়াইয়ে নামবে।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

খেলাধুলা

১৪ বছর পর আবাহনীকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন মোহামেডান

Published

on

বাজার মূলধন

ফেডারেশন কাপের শ্বাসরুদ্ধকর ফাইনালে টাইব্রেকারে আবাহনী লিমিটেডকে হারিয়ে ১৪ বছর পর চ্যাম্পিয়ন মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব।

অর্থসংবাদের মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

কুমিল্লার শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্টেডিয়ামে বিকেল সোয়া ৩টায় শুরু হওয়া ম্যাচে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করে দেশের ঐতিহ্যবাহী দুই ক্লাব আবাহনী-মোহামেডান। নির্ধারিত ৯০ মিনিটে খেলা ৩-৩ ড্র হওয়ায় ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত (৩০ মিনিট) সময়ে। অতিরিক্ত সময়েও খেলা ৪-৪ ড্র হয়।

যে কারণে খেলা গড়ায় টাইব্রেকারে। পেনাল্টি শুটআউটে আবাহনীকে ৪-২ ব্যবধানে হারিয়ে ১৪ বছর পর শিরোপার উল্লাসে মেতে ওঠে মতিঝিলের ক্লাব আবাহনী।

ম্যাচের শুরুতে অবশ্য আাধিপত্য বিস্তার করে আবাহনী। প্রথমার্ধে তারা ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে ছিল। ম্যাচের ১৫ মিনিটে ফয়সাল আহমেদ ফাহিমের গোলে এগিয়ে যায় আবাহনী। খেলার ৪৩তম মিনিটে কোস্টারিকার ড্যানিয়েল কলিন্দ্রেসের গোলে ব্যবধান দ্বিগুণ করে ধানমণ্ডির ক্লাবটি।

ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে বদলে যায় দৃশ্যপট। চার মিনিটের ব্যবধানে অধিনায়ক সুলেমান দিয়াবাতের জোড়া গোলে সমতায় ফেরে মোহামেডান।

মোহামেডান সমতা আনার মিনিট পাঁচেক তথা খেলার ৬৫ মিনিটে নাইজেরিয়ান এমেকার গোলে আবাহনী ফের (৩-২) ব্যবধানে এগিয়ে যায়।

৮৩ মিনিটে ফেডারেশন কাপের ফাইনালে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন মোহামেডানের অধিনায়ক সোলেমান দিয়াবাতে। তার কল্যাণে মোহামেডান আবারও (৩-৩) সমতায় ফেরে।

খেলার ১০৫ মিনিটে সোলেমান দিয়াবাতে গোলের জন্য এগিয়ে যান। আবাহনীর গোলরক্ষক শহিদুল আলম সোহেলকে একা পেয়ে নিজের চতুর্থ গোলের জন্য মরিয়া ছিলেন তিনি।

গোল ঠেকাতে পা বাড়িয়ে দেন গোলরক্ষক সোহেল। রেফরি পেনাল্টির বাঁশি বাজান। পেনাল্টি শটে মোহামেডানের অধিনায়ক সোলেমান দিয়াবাতে গোল করে দলকে ৪-৩ এ এগিয়ে নেন।

১১৯ মিনিটে রহমতের দুর্দান্ত গোলে ফের সমতায় ফিরে আবাহনী। অতিরিক্ত সময়ে খেলা ড্র হওয়ায় খেলা গড়ায় টাইব্রেকারে।

টাইব্রেকারে আবাহনীর দুই বিদেশি খেলোয়াড় রাফায়েল এবং দানিয়েল কলিঞ্জ গোল মিস করায় জয়ের উল্লাসে মেতে ওঠে মোহামেডান।

অর্থসংবাদ/এসএম

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

খেলাধুলা

রুদ্ধশ্বাস ফাইনালে গুজরাটকে হারিয়ে পঞ্চমবার চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই

Published

on

বাজার মূলধন

শেষ ২ বলে চেন্নাই সুপার কিংসের জয়ের জন্য দরকার ১০ রান। নাটকীয় এক লড়াইয়ে শেষটায় এসে হতাশায় ডোবার মতো অবস্থা মহেন্দ্র সিং ধোনির দলের। কে জানতো, এরপরও নাটক বাকি আছে!

অর্থসংবাদের মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়াম রুদ্ধশ্বাস এক ফাইনালের সাক্ষী হলো। শেষ দুই বলে ছক্কা আর চার হাঁকিয়ে বৃষ্টি আইনে চেন্নাইকে ৫ উইকেটের নাটকীয় জয় এনে দিলেন রবীন্দ্র জাদেজা।

হার্দিক পান্ডিয়ার গুজরাট টাইটান্সের টানা দ্বিতীয় শিরোপার স্বপ্ন ভেঙে চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই সুপার কিংস। আইপিএলে এ নিয়ে পঞ্চমবারের মতো শিরোপা জিতলো ধোনির দল। তাদের সমান ৫টি শিরোপা কেবল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের।

এক ফাইনাল নিয়ে কত নাটক হলো! তার এমন সমাপ্তি, নাটকের চেয়েও যেন নাটকীয়। রোববার ছিল ফাইনালের নির্ধারিত দিন। কিন্তু বৃষ্টির কারণে টসই করা গেলো না। ফলে ম্যাচ গড়ায় রিজার্ভ ডেতে। সেই রিজার্ভ ডেতেও এক ইনিংস যাওয়ার পর বৃষ্টির হানা।

ফলে সোমবারের ম্যাচ সময়ের হিসেবে মঙ্গলবার চলে গেলো। আদতে একটা ফাইনাল শেষ করতে লাগলো তিনদিন! তবে এতটা অপেক্ষার পর হতাশ হতে হয়নি সমর্থকদের। এমন ম্যাচ দেখার সৌভাগ্য যে মেলে কালেভদ্রে!

বৃষ্টি হতে পারতো চেন্নাইয়ে অভিশাপ, সেটি হয়েছে আশীর্বাদ। অভিশাপ কিভাবে? এই ম্যাচটি যদি পরিত্যক্ত হতো, তবে গ্রুপপর্বে পয়েন্ট বেশি থাকার সুবাদে চ্যাম্পিয়ন হতো গুজরাট টাইটান্স।

কিন্তু বৃষ্টি এসে উল্টো আশীর্বাদ করে দিলো মহেন্দ্র সিং ধোনির দলকে। গুজরাট তাদের সামনে ২০ ওভারে ছুড়ে দিয়েছিল ২১৫ রানের বিশাল লক্ষ্য। ম্যাচ পুরোটা হলে কাজটা কঠিনই হতো।

কিন্তু বৃষ্টির কারণে ওভার কমে যায়। ফলে ১৫ ওভারে চেন্নাইয়ের সামনে বেঁধে দেওয়া হয় ১৭১ রানের লক্ষ্য। চেন্নাই অবশ্য রান তাড়ায় ভালোভাবেই ছিল। ওপেনার রুতুরাজ গাইকদের ১৬ বলে ২৬, ডেভন কনওয়ের ২৫ বলে ৪৭ আর আজিঙ্কা রাহানের ১৩ বলে ২৭ রানে বেশ ভালো অবস্থানে দাঁড়ায় ধোনির দল।

১২.৩ ওভার শেষে রান ছিল ৩ উইকেটে ১৪৯। অর্থাৎ শেষ ১৫ বলে চেন্নাইয়ের লাগতো ২২ রান, হাতে ৭ উইকেট। এমন সময়ে এসে জোড়া উইকেট শিকার করে ম্যাচ জমিয়ে তোলেন মোহিত শর্মা।

বিদায়ী ম্যাচ খেলতে নামা আম্বাতি রাইডুকে (৮ বলে ১৯) আর অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনিকে গোল্ডেন ডাকে (১ বলে ০) ফেরান এই পেসার। চাপে পড়ে চেন্নাই। ১৪তম ওভারে মোহাম্মদ শামি দেন মাত্র ৮ রান। ফলে শেষ ওভারে চেন্নাইয়ের দরকার পড়ে ১৪।

মোহিত প্রথম ৪ বলে মাত্র ৪ রান দিলে ম্যাচ ঝুলে যায় গুজরাটের দিকে। সেখান থেকে রবীন্দ্র জাদেজার অসাধ্য সাধন। পঞ্চম বলে লংঅনের ওপর দিয়ে ছক্কা, শেষ বলে মোহিতের লো ফুলটস শর্ট ফাইন লেগ দিয়ে চার। বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস জাদেজার। ধোনি যেন নিজের চোখকে বিশ্বাস করতে পারছিলেন না, অনেকটা সময় তিনি মাথা নিচু করে বসেছিলেন ডাগআউটে।

এর আগে সাই সুদর্শনের ৪৭ বলে ৯৬ রানের (৮ চার আর ৬ ছক্কা) বিধ্বংসী ইনিংসে ভর করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেটে ২১৪ রান তুলেছিল গুজরাট। এছাড়া ঋদ্ধিমান সাহা ৩৯ বলে ৫৪, শুভমান গিল ২০ বলে ৩৯ এবং হার্দিক পান্ডিয়া ১২ বলে করেন অপরাজিত ২১ রান।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

খেলাধুলা

বাংলাদেশে আসতে তর সইছে না মার্টিনেজের

Published

on

বাজার মূলধন

কাতার বিশ্বকাপে গোলরক্ষক এমিলিয়ানো মার্টিনেজের বুদ্ধিদীপ্ততায় টাইব্রেকারে ফ্রান্সকে হারিয়ে শিরোপা জিতে নেয় আর্জেন্টিনা।

অর্থসংবাদের মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

আর্জেন্টিনাকে বিশ্বকাপ শিরোপা উপহার দেওয়া গোলরক্ষক মার্টিনেজের স্বপ্ন বাংলাদেশ ঘুরে দেখা। তার ইচ্ছাপূরণ করতে যাচ্ছে স্পোর্টস প্রমোটার কোম্পানি শতদ্রু দত্ত অ্যাসোসিয়েটসের শতদ্রু দত্ত।

সোমবার সন্ধ্যায় ফেসবুকে এক পোস্টে ভারতে আসন্ন সফর নিয়ে মার্টিনেজ লিখেছেন- হ্যালো সবাই, আমি ৩ জুলাই থেকে ৫ জুলাই পর্যন্ত ভারতীয় উপমহাদেশে আমার প্রথম সফর করব এবং মোহনবাগান ক্লাবে একটি দাতব্য ফুটবল ম্যাচের প্রধান অতিথি হওয়া ছাড়াও অনেক দাতব্য কার্যক্রমে অংশ নেব। আমি জানি কলকাতা এবং বাংলাদেশে অগণিত আর্জেন্টিনার ভক্ত রয়েছেন এবং তাদের সঙ্গে দেখা করতে মুখিয়ে আছি।

এরপরই মার্টিনেজ লিখেছেন- আমি তোমাদের ভালোবাসি!

বাজার মূলধন
শতদ্রু দত্ত জানিয়েছেন, মার্টিনেজ নিজে থেকেই বাংলাদেশের কথা বলেছেন। যেহেতু তিনি কলকাতা আসছেনই তাই আমরাও চাই তার ইচ্ছাপূরণ হোক বাংলাদেশে ঘুরে এসে।

জানা যায়, ৩ জুলাই ঢাকায় আসতে পারেন মার্টিনেজ। সেদিন বাংলাদেশে থাকতে পারে অথবা সেদিন রাতে কলকাতায় চলে যেতে পারেন।

শেয়ার করুন:-
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন
Advertisement
Advertisement
June 2023
SMTWTFS
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
252627282930