Connect with us

সারাদেশ

চা শ্রমিকদের জন্য জেসিআই’র ‘প্রজেক্ট টিপ্যাড’

Avatar of ওয়ালিদ সাকিব, অর্থসংবাদ.কম

Published

on

ব্লকে

আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা জেসিআই বাংলাদেশ “প্রজেক্ট টিপ্যাড” নামে একটি নতুন প্রকল্প চালু করেছে। এ প্রকল্পের আওতায় সিলেটের একটি চা বাগানের প্রায় একশ’ সুবিধাবঞ্চিত মহিলা চা শ্রমিকের এক বছরের মাসিক স্বাস্থ্যবিধির সুবিধা নিশ্চিত করা হয়েছে।

জেসিআই ঢাকা ওয়েস্ট, জেসিআই সিলেট প্লাটিনাম, জেসিআই ঢাকা ইউনাইটেড, জেসিআই ঢাকা এইস, জেসিআই ঢাকা অ্যাস্ট্রাল, জেসিআই ঢাকা ইন্ডিপেন্ডেন্ট, সেভ সিলেট, বি পজেটিভ ফাউন্ডেশন এবং ঋতু এ প্রজেক্টের আয়োজন করেছে।

জেসিআই জানায়, বাংলাদেশ বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ চা উৎপাদনকারী দেশ এবং চা বাগানগুলোতে নারী শ্রমিকদের প্রাধান্য হলেও তারা শুরু থেকেই অপর্যাপ্ত স্যানিটেশন সমস্যায় ভুগছে। যদিও ইতিমধ্যেই বিভিন্ন সংস্থা সমস্যাগুলো নিরসনে নানাবিধ পদক্ষেপ নিয়েছে, তবে সেগুলো পর্যাপ্ত নয়। এসব দিক বিবেচনা করে ব্র্যান্ড ঋতু-র তৈরিকৃত রিইউজেবল স্যানিটারি ন্যাপকিন স্বল্প মূল্যে সরবরাহ করা হয়েছে। জেসিআই’র সদস্যরা স্যানিটারি ন্যাপকিনের অর্থায়ন করেছে। এছাড়াও এই ন্যাপকিনের ব্যবহার সম্পর্কে বিনামূল্যে চিকিৎসা শিবির, প্রশিক্ষণ ও সচেতনতামূলক অ্যাডভোকেসি প্রোগ্রামের মাধ্যমে কার্যক্রমটি সম্পন্ন হয়েছে।

ব্লকে

প্রজেক্ট টিপ্যাড এর বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সিলেট বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সাবেক সাধারণ সম্পাদক এবং সাবেক অ্যাথলেটিক খেলোয়াড় মারিয়ান চৌধুরী মাম্মী।

অর্থসংবাদের মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন জেসিআই ঢাকা ওয়েস্টের প্রেসিডেন্ট মুহাম্মাদ আলতামিশ নাবিল, জেসিআই ঢাকা এইস এর সভাপতি ফাহিম আহমেদ, জেসিআই সিলেট প্লাটিনামের সভাপতি মোহাম্মদ এহসানুর রহমান, সেভ সিলেটের প্রতিষ্ঠাতা আয়ান মুমিনুল হক, জেসিআই ঢাকা ইউনাইটেডের সভাপতি মোঃ এজাজুল হাসান খান, জেসিআই ঢাকা অ্যাস্ট্রালের সভাপতি সৈয়দা শাহ গুফতা নাজ, জেসিআই বাংলাদেশের জাতীয় পরিচালক সালেহীন মোহাম্মদ মাহদী।

জেসিআই ঢাকা ওয়েস্টের প্রেসিডেন্ট মোঃ আলতামিশ নাবিল জানান, “এই প্রকল্পের মূল লক্ষ্য ছিল এই সুবিধাবঞ্চিত মহিলাদের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি এবং পুনরায় ব্যবহারযোগ্য স্যানিটারি ন্যাপকিন সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি করা। এই পর্বে আমরা প্রায় শতাধিক মহিলা চা শ্রমিকদের প্রকল্পটির আওতায় আনতে সক্ষম হয়েছি তবে আমাদের আশাবাদ ভবিষ্যতে সিলেট অঞ্চলের বাকী সমস্ত বড় চা বাগানের মাধ্যমে এটিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া।”

জেসিআই একটি অলাভজনক আন্তর্জাতিক বেসরকারি সংস্থা যেখানে ১৮ থেকে ৪০ বছর বয়সী তরুণ সদস্যগণ সমাজে ইতিবাচক প্রভাব তৈরি করতে কাজ করে। ১২০ টিরও বেশি দেশে সংস্থাটির কার্যক্রম রয়েছে। বাংলাদেশে জেসিআই এর ২৮টি স্থানীয় শাখা কাজ করছে।

শেয়ার করুন:
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

সারাদেশ

উপহারের গাড়ি আনতে গিয়ে মামলার কবলে হিরো আলম!

Published

on

ব্লকে

বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানোর অভিযোগে আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলমকে জরিমানা ও মামলা করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ২টায় হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে তাকে এ জরিমানা ও মামলা করে হাইওয়ে পুলিশ।

জেলার চুনারুঘাট উপজেলার এক শিক্ষকের দেওয়া উপহারের গাড়ি আনতে যাচ্ছিলেন হিরো আলম। পথে বেপারোয়া গতিতে গাড়ি চালানোর কারণে মামলার আওতায় এলেন তিনি।

শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাঈনুল ইসলাম জানান, শায়েস্তাগঞ্জ থানার সামনে মহাসড়কে সর্বোচ্চ গতিসীমা ঘণ্টায় ৮০ কিলোমিটার। কিন্তু হিরো আলমের টয়োটা ফিল্ডার গাড়িটি ৯০ কিলোমিটার গতিতে যাচ্ছিল। এ সময় গাড়িটি আটকের পর ২৫ হাজার টাকার মামলা দেওয়া হয়েছে।

অর্থসংবাদ/কেএ

শেয়ার করুন:
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

সারাদেশ

বছরের শুরুর মাসে দুর্ঘটনায় প্রাণ ঝরল ৬৪২ জনের

Published

on

ব্লকে

বছরের শুরুর মাসেই দেশে সড়ক, রেল ও নৌ-পথে প্রাণ হারিয়েছেন ৬৪২ জন। এ ছাড়াও দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন ৯৭৮ জন। জানুয়ারি মাসে ৬৫০টি দুর্ঘটনায় এসব হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির দুর্ঘটনা মনিটরিং সেলের দুর্ঘটনা পর্যবেক্ষণ প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

শনিবার(৪ ফেব্রুয়ারি) সকালে সংগঠনটির মহাসচিব মো. মোজাম্মেল হক চৌধুরী স্বাক্ষরিত এই প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, জানুয়ারী মাসে ৬৫০ দুর্ঘটনার মধ্যে সড়কে ৫৯৩, রেলপথে ৪৪ এবং নৌ-পথে ১৩টি দুর্ঘটনা ঘটেছে। এসব দুর্ঘটনায় সড়কে প্রাণ হারিয়েয়েছেন ৫৮৫ এবং আহত হয়েছেন ৮৯৯ জন যাত্রী। একই সঙ্গে রেল দুর্ঘটনায় ৪৬ জন নিহত ও নৌ-পথে ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে।

দেশের জাতীয়, আঞ্চলিক ও অনলাইন সংবাদপত্রে প্রকাশিত সড়ক, রেল ও নৌ-পথে দুর্ঘটনার সংবাদ মনিটরিং করে এই প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে। এতে দেখা গেছে, ২০২২ সালের জানুয়ারি মাসের চেয়ে এ বছরের জানুয়ারিতে সড়কে দুর্ঘটনা ৫.৩ শতাংশ ও দুর্ঘটনায় আহত ১০.০৪ শতাংশ বাড়লেও প্রাণহাণী ৪.৬ শতাংশ কমেছে।

অর্থসংবাদের মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

প্রতিবেদন থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, সড়ক দুর্ঘটনা সবচেয়ে বেশি সংগঠিত হয়েছে ১৭ জানুয়ারি। এই দিনে ৩৫টি সড়ক দুর্ঘটনায় ২০ জন নিহত ও ৩১ জন আহত হয়েছেন। আর সবচেয়ে কম সড়ক দুর্ঘটনা সংগঠিত হয়েছে ২ জানুয়ারি। এই দিনে ১২টি সড়ক দুর্ঘটনায় ১০ জন নিহত ও ২১ জন আহত হয়েছিলেন।

বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি জানিয়েছে, বিপজ্জনক অভারটেকিং, বেপরোয়া গতি, ফিটনেসবিহীন যানবাহন, রাস্তায় ফুটপাত না থাকা বা ফুটপাত বেদখলে থাকা, রেলক্রসিং ও মহাসড়কে হঠাৎ যানবাহন উঠে আসা, ছোট যানবাহন ক্রমশ বৃদ্ধি, বিভিন্ন জাতীয় ও আঞ্চলিক মহাসড়কে সার্ভিস লেন না থাকায় ইজিবাইক, রিকশা, অটোরিকশা মহাসড়কে নেমে আসা, গুরুত্বপূর্ণ জংশনে, রাস্তার মোড় ও বাস স্টপেজগুলোতে যানজট তৈরি করায় দুর্ঘটনার ঝুঁকি অনেকাংশ বাড়িয়ে দিচ্ছে।

এ ছাড়াও যাত্রী ও পথচারীদের অসতর্কতা, চালকের অদক্ষতা, চালকের বেপরোয়া মনোভাব, চলন্ত অবস্থায় মোবাইল বা হেডফোন ব্যবহার, মাদক সেবন করে যানবাহন চালানো, রাস্তায় ফুটপাত না থাকা বা ফুটপাত বেদখলে থাকা, ট্রাফিক আইনের দুর্বল প্রয়োগ ও ট্রাফিক আইন অমান্য করা, ছোট যানবাহনের ব্যাপক বৃদ্ধি, সড়কে চাঁদাবাজি ও রাস্তার পাশে হাট-বাজারও বাড়িয়েছে দুর্ঘটনার পরিমাণ।

অর্থসংবাদ/এসএম

শেয়ার করুন:
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

সারাদেশ

৭২ ঘণ্টার মধ্যে শীত বাড়ার পূর্বাভাস

Published

on

ব্লকে

সারাদেশে শীতের প্রকোপ অনেকটাই কমে গেছে। কোথাও বইছে না শৈত্যপ্রবাহ। তবে আগামী ৭২ ঘণ্টা বা তিন দিনের মধ্যে তাপমাত্রা ফের কিছুটা কমে শীত বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর।

শুক্রবার (২৭ জানুয়ারি) সকালে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে পঞ্চগড়ের তেতুলিয়ায় ১০ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যায একদিন আগে ছিল ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

ঢাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৭ দশমিক ৬ থেকে বেড়ে হয়েছে ১৮ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এখন মাঘ মাসের মাঝামাঝি হলেও ঢাকায় শীত নেই বললেই চলে।

আবহাওয়াবিদ মো. ওমর ফারুক জানিয়েছেন, উপমহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ বিহার ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হয়েছে। এর বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে।

অর্থসংবাদের মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে তিনি বলেন, অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। মাঝরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের কোথাও কোথাও হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে।

তিনি আরও জানান, এসময়ে সারাদেশে রাত ও দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে এবং আগামী তিন দিনের মধ্যে রাতের তাপমাত্রা হ্রাস পেতে পারে।

অর্থসংবাদ/এসএম

শেয়ার করুন:
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

সারাদেশ

বিশ্ব ইজতেমায় দ্বিতীয় পর্বে পাঁচ মুসল্লির মৃত্যু!

Published

on

ব্লকে

গাজীপুরে টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বে শুক্রবার (২০ জানুয়ারি) আরও চার মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে। এই নিয়ে দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে পাঁচজনে।

তারা হলেন- ঢাকার কদমতলী থানার পূর্ব জুরাইন এলাকায় মুসল্লি আব্দুল জব্বারের ছেলে আব্দুল হান্নান (৪৫), রাজধানীর গুলিস্তানের বঙ্গবাজার এলাকার ব্যবসায়ী মো. বোরহান (৪৮), গাইবান্ধার শুক্কুর মণ্ডলের ছেলে আব্দুল হামিদ মণ্ডল (৫৫) ও ঢাকার সাভারের বাসিন্দা আব্দুল আলীমের ছেলে মফিজুল ইসলাম (৫৪)।

ইজতেমার মিডিয়া সমন্বয়কারী মোহাম্মদ আবু সায়েম জানান, শুক্রবার এশার নামাজের সময় জিকির করছিলেন আব্দুল হান্নান। সেখানে অচেতন হয়ে তিনি মারা যান। একই রাত ১১টার দিকে ইজতেমা ময়দানে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান মো. বোরহান। সন্ধ্যায় আব্দুল হামিদ মন্ডল ও মফিজুল ইসলাম মারা যান।

এর আগে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে ইজতেমা ময়দানে বরগুনার আব্দুল আলীর ছেলে মফিজুল ইসলাম বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগে মারা গেছেন।

অর্থসংবাদের মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

অর্থসংবাদ/এসএম

শেয়ার করুন:
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

সারাদেশ

তুরাগতীরে দেশের বৃহত্তম জুমার জামাত অনুষ্ঠিত

Published

on

ব্লকে

বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বের প্রথম দিন শুক্রবার হওয়ায় ইজতেমা মাঠে বৃহৎ জুমার নামাজের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার দুপুর ১টা ৫০ মিনিটে জামাত শুরু হয়। নামাজে ইমামতি করেন দিল্লি নিজামুদ্দিন মারকাজের মাওলানা সাদের বড় ছেলে মাওলানা ইউসুফ বিন সাদ কান্দলভী।

ইজতেমায় যোগদানকারী মুসল্লি ছাড়াও জুমার নামাজে অংশ নিতে রাজধানী ঢাকা-গাজীপুরসহ আশপাশের এলাকার লাখ লাখ মুসল্লি ইজতেমাস্থলে হাজির হন। ভোর থেকেই রাজধানীসহ আশপাশের এলাকা থেকে ইজতেমা মাঠের দিকে মানুষের ঢল নামে। দুপুর ১২টার দিকে ইজতেমা মাঠ উপচে আশপাশের খোলা জায়গাসহ সবস্থান জনসমুদ্রে পরিণত হয়।

এছাড়া টঙ্গীর বিভিন্ন উঁচুভবনের ছাদে থেকেও মুসল্লিরা জুমার নামাজে শরিক হন। বাস-ট্রাকসহ বিভিন্ন যানবাহনে করে মুসল্লিরা ইজতেমা মাঠের দিকে ছুটে আসেন জুমার নামাজ আদায় করার জন্য। মাঠে স্থান না পেয়ে মুসল্লিরা মহাসড়ক ও অলিগলিসহ যে যেখানে পেরেছেন হোগলা পাটি, চটের বস্তা, খবরের কাগজ বিছিয়ে জুমার নামাজে শরিক হন।

শুক্রবার বাদ ফজর পাকিস্তানের মাওলানা ওসমানের আম বয়ানের মধ্যদিয়ে ইজতেমার আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়। তাৎক্ষণিকভাবে তা বাংলায় তরজমা করবেন মাওলানা জিয়া বিন কাসিম।

অর্থসংবাদের মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

আজ জুমার পর সংক্ষিপ্ত বয়ান করবেন কাকরাইলের শুরা সৈয়দ ওয়াসিফুল ইসলাম, আসরের পর বয়ান করবেন মাওলানা সাদের মেঝ ছেলে মাওলানা সাঈদ বিন সাদ কান্দলভী, মাগরিবের পর বয়ান করবেন মাওলানা ইউসুফ বিন সাদ কান্দলভী।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার মোল্যা নজরুল ইসলাম জানান, বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বের মতো দ্বিতীয় পর্বেও ব্যাপক নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। আগত মুসল্লিদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে পুরো ইজতেমা ময়দানকে কয়েকটি সেক্টরে ভাগ করে নিরাপত্তা কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। এ উপলক্ষে ময়দানের আশপাশে প্রায় ১০ হাজার আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন। ইজতেমাকে কেন্দ্র করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী প্রথম পর্বে যেসব নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছিল এবারও ঠিক আগের মতোই নিরাপত্তা ব্যবস্থা অটুট থাকবে।

শেয়ার করুন:
অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনো সংবাদ বা কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন
Advertisement

ফেসবুকে অর্থসংবাদ

তারিখ অনুযায়ী খবর

রবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্রশনি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮