Connect with us

খেলাধুলা

পরিসংখ্যানে পর্তুগাল-ঘানার লড়াই

Published

on

বিশ্বকাপে এর আগেও পরস্পরের বিপক্ষে খেলার অভিজ্ঞতা আছে পর্তুগাল ও ঘানার। ২০১৪ সালের ওই লড়াইয়ে শেষ হাসি হেসেছিল ইউরোপের দলটি। কাতারে আবারও দেখা হতে যাচ্ছে তাদের।

স্টেডিয়াম ৯৭৪-এ বাংলাদেশ সময় আগামী বৃহস্পতিবার রাত ১০টায় মুখোমুখি হবে পর্তুগাল-ঘানা। বিশ্ব মঞ্চে যা তাদের দ্বিতীয় সাক্ষাৎ।

এর আগে দেখে নেওয়া যাক দুই দলের আরও কিছু পরিসংখ্যান।

* এখন পর্যন্ত একবারও বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলতে পারেনি পর্তুগাল। তাদের সেরা অর্জন তৃতীয় হওয়া। বিশ্ব মঞ্চে ১৯৬৬ সালে অভিষেক আসরে সেমি-ফাইনালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ২-১ গোলে হেরেছিল তারা। তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচে সোভিয়েত ইউনিয়নকে হারিয়েছিল একই ব্যবধানে।

Nogod-22-10-2022

* বিশ্বকাপে এই নিয়ে টানা ৬ আসরে খেলছে পর্তুগাল। আগের পাঁচবারের মধ্যে তারা তিনবার খেলেছে নকআউট পর্বে (২০০৬, ২০১০, ২০১৮)।

* এ নিয়ে চতুর্থবার বিশ্বকাপে খেলতে যাচ্ছে ঘানা। টানা তিনটি আসরে খেলেছিল দলটি-২০০৬, ২০১০ ও ২০১৪। কিন্তু ২০১৮ সালের রাশিয়া আসরে খেলতে পারেনি তারা বাছাই পর্ব উতরাতে না পারায়।

* প্রথম তিন আসরের দুইবারই নকআউট পর্বে খেলেছে ঘানা। তাদের সর্বোচ্চ অর্জন ২০১০ সালে কোয়ার্টার-ফাইনালে খেলা।

* আফ্রিকান দলগুলোর বিপক্ষে বিশ্বকাপে এর আগে পাঁচবার খেলেছে পর্তুগাল। যার তিনটিতে জয় তাদের, একটি হয় ড্র। একমাত্র হার ১৯৮৬ সালে, মরক্কোর বিপক্ষে ৩-১ গোলে।

* আফ্রিকার প্রথম দল হিসেবে বিশ্বকাপের সেমি-ফাইনালে খেলার সুবর্ণ সুযোগ পেয়েছিল ঘানা ২০১০ আসরে। কিন্তু সেটা কাজে লাগাতে পারেনি তারা। শেষ আটের লড়াইয়ে উরুগুয়ের বিপক্ষে শেষ সময়ে পেনাল্টি পেয়েছিল তারা। কিন্তু আসামোয়াহ গিয়ান স্পট কিক মিস করলে এগিয়ে যেতে পারেনি দলটি। নির্ধারিত সময় ১-১ গোলে ড্র হওয়ার পর টাইব্রেকারে ৪-২ ব্যবধানে হারে তারা।

* বিশ্বকাপে এর আগে একবারই মুখোমুখি হয়েছে পর্তুগাল ও ঘানা। ২০১৪ সালে ব্রাজিল আসরে গ্রুপ পর্বের ওই ম্যাচে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর গোল ও জন বোয়ির আত্মঘাতী গোলে ২-১ ব্যবধানে জেতে পর্তুগাল।

অর্থসংবাদ/কেএ

শেয়ার করুন:
(অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনও তথ্য পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।)
Advertisement

খেলাধুলা

বিশ্বকাপের শেষ ষোলতে মরক্কো

Published

on

মরক্কোর সামনে হিসাব ছিল পরিষ্কার; শেষ ষোলতে যেতে কানাডার বিপক্ষে জিততেই হবে। ড্র বা হার তাদের ফেলে দিতো অনিশ্চয়তায়। সমীকরণ মিলিয়েই কাতার বিশ্বকাপের শেষ ষোলতে উঠে গেছে মরক্কো।

বৃহস্পতিবার কাতারের আল থুমামা স্টেডিয়ামে ‘এফ’ গ্রুপের ম্যাচে মরক্কো ২-১ গোলে কানাডাকে হারিয়েছে। এই জয়ে ‘এফ’ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই নকআউট পর্বে উঠে গেলো আফ্রিকার দেশটি। তিনটি গোলই হয়েছে ম্যাচের প্রথমার্ধে।

প্রথমার্ধে মরক্কোর প্রাধান্য থাকলেও দ্বিতীয়ার্ধে ছিল কানাডার। গোল শোধে মরিয়া কানাডা একের পর এক আক্রমণ করে মরক্কোর রক্ষণে। কিন্তু কাজের কাজটি তারা করতে পারেনি। প্রথমার্ধের এগিয়ে থাকাটা ধরে রেখেই ারুণ এক জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে মরক্কো। এই জয়ে ৩ ম্যাচে ৭ পয়েন্ট নিয়ে তারাই গ্রুপসেরা। অন্য ম্যাচে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে গোলশূন্য ড্র করে প্রথম রাউন্ড থেকেই বিায় নিয়েছে বেলজিয়াম।

৫৬ মিনিটে সমতায় ফেরার সুযোগ এসেছিল কানাডার সামনে। তবে সেই সুযোগ কাজে লাগাতে পারেন লারিন। ডান দিক থেকে নেওয়া ফ্রিকিক লারিনের সামনে দিয়ে গেলেও তিনি বল-পায়ে সংযোগ ঘটাতে পারেনি।

Nogod-22-10-2022

৭১ মিনিটে আটিবা হাচিনসনের হেড ক্রসবারে লেগে ফিরে আসলে আরেকটি সুযোগ হাতছাড়া হয় কানাডার।

প্রথমার্ধে এক প্রাধান্য নিয়ে খেলে ম্যাচের চতুর্থ মিনিটেই লিড নেয় মরক্কো। একটি আক্রমণ ক্লিয়ার করতে গিয়ে কানাডার গোলরক্ষ বক্সের বাইরে গিয়ে ভুল পাস দেন। বল পেয়ে যান হাকিম জিয়েচ। তখন ফাঁকা কানাডার গোলপোস্ট। সেখান থেকে হাকিম জিয়েচ বল পোস্টে মারেন গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে। বল জালে জড়ানো খো ছাড়া আর কিছু করার ছিল না কানাডার রক্ষণের খেলোয়াড়দের ও গোলরক্ষকের।

১১ মিনিট পরই গোলটি ফিরিয়ে দেওয়া চমৎকার সুযোগ এসেছিল কানাডার। ডান দিক থেকে ডিফেন্সচেরা ক্রস ফেলেছিলেন কাইল নারিন। বলটি টাওন বুখানানের সামনে দিয়ে গেলেও পা লাগাতে পারেনি। তখন তার সামনে ছিল শুধুই গোলরক্ষক।

কানাডা ম্যাচে ফেরার সুযোগ হাতছাড়া করলেও ব্যবধান দ্বিগুণ করার সুযোগ হাতছাড়া করেনি মরক্কো। ২৩ মিনিটে ইউসেফ নেসারির শট কানাডার গোলরক্ষকের হাতের নিচ দিয়ে জড়িয়ে যায় জালে।

কানাডা ব্যবধান কমিয়েছে ৪০ মিনিটে। তাও মরক্কোর আত্মঘাতী গোলে। বাম দিক থেকে কানাডার স্যামুয়েল আডোকুজবে যে শট নিয়েছিলেন তাতে পা চালিয়েছিলেন মরক্কোর ডিফেন্ডার নায়েফ আগুয়ার্ড। বল গতি পরিবর্তন করে আশ্রয় নেয় জালে। এটি এই বিশ্বকাপের প্রথম আত্মঘাতি গোল।’

অর্থসংবাদ/কেএ

শেয়ার করুন:
(অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনও তথ্য পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।)
পুরো সংবাদটি পড়ুন

খেলাধুলা

বেলজিয়ামের বিদায়, দ্বিতীয় রাউন্ডে ক্রোয়েশিয়া

Published

on

বেলজিয়ামের গোল্ডেন জেনারেশনের এটিই ছিল শেষ বিশ্বকাপ। ডি ব্রুইন, লুকাকু, হ্যাজার্ডদের মত এক রাশ তারকায় ঠাসা বেলজিয়াম দল ২০১৮ বিশ্বকাপে তৃতীয় হয়ে এই বিশ্বকাপে ভালো করার আশা নিয়ে এসেছিল। কিন্তু কাতার বিশ্বকাপে মার ১ ম্যাচ জিতেই বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিল।

শেষ ম্যাচে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে দরকার ছিল জয়ের। কিন্তু ক্রোয়েটদের জমাট রক্ষণভাগ ভাঙতে ব্যর্থ হন লুকাকু, ডি ব্রুইনরা। ফলে গোলশূন্য ড্রতে খেলা শেষ হলে বিদায় নিশ্চিত হয়ে যায় বেলজিয়ামের।

অর্থসংবাদ/কেএ

Nogod-22-10-2022
শেয়ার করুন:
(অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনও তথ্য পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।)
পুরো সংবাদটি পড়ুন

খেলাধুলা

ক্রোয়েশিয়া-বেলজিয়ামের হাইভোল্টেজ লড়াই

Published

on

কাতার বিশ্বকাপের ‘এফ’ গ্রুপে বাংলাদেশ সময় রাত নয়টায় আজ দুটি ম্যাচ। এক ম্যাচে মুখোমুখি হবে ক্রোয়েশিয়া-বেলজিয়াম, অন্যটিতে মরক্কো-কানাডা। চার দলের মধ্যে কেবল বিদায় হয়েছে কানাডার। বাকি তিন দলের ভাগ্য নির্ধারণ হবে আজ।

আহমেদ বিন আলি স্টেডিয়ামে লড়বে ক্রোয়েশিয়া-বেলজিয়াম। এই ম্যাচটি ড্র করতে পারলেই নকআউটে নাম লেখাবে এরই মধ্যে ৪ পয়েন্ট জোগাড় করা ক্রোয়েশিয়া। অন্যদিকে ৩ পয়েন্ট পাওয়া বেলজিয়ামের পরের রাউন্ডে যেতে হলে জিততেই হবে। হারলে বিদায়, ড্র করলে তাকিয়ে থাকতে হবে মরক্কো-কানাডা ম্যাচের দিকে।

কানাডার পয়েন্ট ০। তারা জিতলেও লাভ নেই। তবে মরক্কো তাদের কাছে হেরে গেলে ৪ পয়েন্ট নিয়েও বাদ পড়ার শঙ্কায় পড়তে পারে। সেক্ষেত্রে ক্রোয়েশিয়া-বেলজিয়ামের ম্যাচ ড্র হলে বেলজিয়ামের সমান ৪ পয়েন্ট হবে মরক্কোর। হিসেব আসবে গোল ব্যবধানের।

ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে বেলজিয়াম জিতলে ৬ পয়েন্ট নিয়ে তারাই উঠবে নকআউটে। তখন ক্রোয়েশিয়ার তাকিয়ে থাকতে হবে মরক্কো-কানাডার ম্যাচের দিকে। মরক্কো জিতে গেলে তখন তারা ৭ পয়েন্ট নিয়ে নকআউটে উঠবে, বিদায় হয়ে যাবে ক্রোয়েশিয়ার। ড্র করলেও মরক্কো ৫ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয়পর্বে নাম লেখাবে।

Nogod-22-10-2022

তবে মরক্কো আর ক্রোয়েশিয়া দুই দলই হারলে, বেলজিয়াম উঠবে নকআউটে। সমান ৪ পয়েন্ট নিয়ে গোল ব্যবধানে এগিয়ে থাকার সুবাদে নকআউট উঠবে মরক্কো বা ক্রোয়েশিয়া।

অর্থসংবাদ/কেএ

শেয়ার করুন:
(অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনও তথ্য পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।)
পুরো সংবাদটি পড়ুন

খেলাধুলা

অগ্নিপরীক্ষায় সাবেক দুই বিশ্বচ্যাম্পিয়ন

Published

on

কাতার ফুটবল বিশ্বকাপের গ্রুপপর্ব চলে এসেছে প্রায় শেষের পথে। তবে স্পেন-জার্মানির মত বড় দলের এখন পর্যন্ত রয়ে গেছে দুশ্চিন্তা। শেষ ম্যাচে হার শেষ করে দিতে পারে তাদের বিশ্বকাপ স্বপ্ন।

আজ (বৃহস্পতিবার) ‘ই’ গ্রুপের ম্যাচে বাংলাদেশ সময় রাত একটায় খলিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে স্পেন মুখোমুখি হবে জাপানের এবং জার্মানি আল বায়েত স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হবে কোস্টারিকার। সাবেক দুই বিশ্বচ্যাম্পিয়নের প্রতিপক্ষ অপেক্ষাকৃত সহজ। ফলে জিতলেই তারা উঠে যাবে নকআউটে। কিন্তু অঘটন ঘটলে? অঘটনের এই বিশ্বকাপে বিদায় হয়ে যেতে পারে যে কোনো দলের।

কোস্টারিকার জালে ৭ গোল দেয়ার পর স্পেনকে মনে হয়েছিল তারা অজেয়। দ্বিতীয় ম্যাচে হারেনি বটে; কিন্তু জার্মানিকে হারাতেও পারেনি। ১-১ গোলে ড্র করেছে তাদের সঙ্গে।
অন্যদিকে জার্মানির বিপক্ষে জিতলেও জাপান হেরে গেছে কোস্টারিকার কাছে। ফলে এই গ্রুপে তৈরি হয়েছে একটা দোদুল্যমান অবস্থা। এখন পর্যন্ত দ্বিতীয়পর্ব নিশ্চিত হয়নি কারও, বিদায়ও হয়নি।

স্পেনের পয়েন্ট সবচেয়ে বেশি, ৪। জাপান আর কোস্টারিকার ৩ করে। ১ পয়েন্ট নিয়ে জার্মানি সবার নিচে। তবে ৪ পয়েন্ট নিয়েও বিদায় হয়ে যেতে পারে স্পেনের, তেমনি ১ পয়েন্ট পাওয়া জার্মানিরও সুযোগ আছে নকআউটে যাওয়ার।

Nogod-22-10-2022

স্পেন জাপানের বিপক্ষে জিতলে ৭ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হিসেবেই দ্বিতীয়পর্বে পা রাখবে। জাপান জিতলে ৬ পয়েন্ট নিয়ে তারা নকআউটে যাবে। তখন স্পেনের তাকিয়ে থাকতে হবে জার্মানি-কোস্টারিকার ম্যাচের দিকে। আর ম্যাচ ড্র হলে ৫ পয়েন্ট নিয়ে স্পেনই চলে যাবে নকআউটে। তখন জাপানের তাকিয়ে থাকতে হবে জার্মানি-কোস্টারিকার ম্যাচের দিকে।

অন্যদিকে জার্মানি-কোস্টারিকার ম্যাচে কোস্টারিকা জিতলে ৬ পয়েন্ট নিয়ে তারা দ্বিতীয়পর্বে নাম লেখাবে। বিদায় হবে জার্মানির। জার্মানি জিতলে তাদের হবে ৪ পয়েন্ট। সেক্ষেত্রে স্পেন হারলে সমান পয়েন্ট নিয়ে সুযোগ থাকবে জার্মানির। হিসেব হবে গোল ব্যবধান।

জার্মানি-কোস্টারিকার ম্যাচ ড্র হলেও ২ পয়েন্ট নিয়ে জার্মানি বাদ পড়বে। সেক্ষেত্রে কোস্টারিকার পয়েন্ট হবে ৪। স্পেন হারলে তাদেরও সুযোগ থাকবে নকআউটে যাওয়ার। তবে স্পেন ড্র করলে জয় ছাড়া আর কোনো সুযোগ থাকবে না কোস্টারিকার।

সহজ করে বললে, স্পেন আর জার্মানি নিজেদের শেষ ম্যাচটি জিতলে চলে যাবে নকআউটে। হারলে বা ড্র করলেও সুযোগ থাকবে স্পেনের। কিন্তু জার্মানির জয়ের কোনো বিকল্প নেই।

অর্থসংবাদ/কেএ

শেয়ার করুন:
(অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনও তথ্য পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।)
পুরো সংবাদটি পড়ুন

খেলাধুলা

মেক্সিকোর সর্বনাশ করে বিদায় নিল সৌদি

Published

on

চিত্রটা আর্জেন্টিনা ম্যাচের। মেসিদের কাছে ২-০ গোলে হেরে যাওয়ার পর কিছুটা মুখ মলিন পোল্যান্ড ফুটবলারদের। খানিক পরই উল্লাসে মেতে উঠলেন তারা। হঠাৎ কী হলো? উল্লাস কেনো লেওয়ানডস্কিদের? রহস্য জানা গেলো সঙ্গে সঙ্গেই। শেষ মুহূর্তে মেক্সিকোর জালে একবার বল জড়িয়ে দিয়েছে সৌদি আরব।

সৌদির এই এক গোলেই ভিন্ন কোনো হিসাব-নিকাশ ছাড়াই দ্বিতীয় রাউন্ড নিশ্চিত হলো পোলিশদের। অন্যদিকে সৌদি আরবকে ২-১ গোলে হারিয়েও কোনো লাভ হলো না মেক্সিকোর। গোল ব্যবধানে পিছিয়ে পড়ে বিদায় নিতে হলো তাদের।

প্রথম দুই ম্যাচ থেকে অর্জন মাত্র ১ পয়েন্ট। শেষ ম্যাচে সৌদি আরবকে হারাতে পারলে সম্ভাবনা টিকে থাকবে। তবে হিসাব-নিকাশেরও প্রয়োজন ছিল।

সেই জয়টা পেলোও। কিন্তু ৯০+৫ মিনিটে হজম করা গোলটিই হলো যা সর্বনাশের মূল। তাতে গোল ব্যবধানে পিছিয়ে গেলো মেক্সিকো। যার ফলে বিদায় ঘটলো তাদের।

Nogod-22-10-2022

তবে, ওই গোলটা হজম না করলেও বিদায় হতো মেক্সিকোর। কারণটা ভিন্ন। মেক্সিকো এবং পোল্যান্ডের পয়েন্ট এবং গোল ব্যবধান সমান হলে ফিফার ভিন্ন এক নিয়মে দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠে যেতো পোল্যান্ড।

কারণ, হলুদ কার্ড বেশি দেখেছে মেক্সিকো। তারা ৭টি হলুদ কার্ড দেখেছে। অন্য দিকে ৫টি হলুদ কার্ড দেখেছে পোল্যান্ড। হলুদ কার্ডের এই পার্থক্যের কারণে বিদায় ঘটতো মেক্সিকোর। তবে সে হিসেবে যেতে হয়নি সৌদি আরবের শেষ গোলটার কারণে।

প্রথমার্ধ গোলশূন্যই ছিল মেক্সিকো এবং সৌদির ম্যাচ। অনেক আক্রমণ করেও গোল বের করতে পারেনি মেক্সিকানরা। সৌদিও পাল্টা আক্রমণে উঠে চেষ্টা করেছিলো। কিন্তু গোল পায়নি।

তবে দ্বিতীয়ার্ধ শুরু হতে না হতেই গোল পেয়ে যায় মেক্সিকো। বরং, ৫ মিনিটের ব্যবদানে ২-০ গোলে এগিয়ে যায় তারা। ৪৭ মিনিটে প্রথম গোল করেন হেনরি মার্টিন। কর্নার কিক থেকে ভেসে আসা বলে অসাধারণ দক্ষতায় সৌদির জালে বল জড়িয়ে দেন তিনি।

৫ মিনিট পর আবারও গোল। ৫২তম মিনিটে দ্বিতীয় গোলটি করেন লুইস শাভেজ। দুর্দান্ত এক ফ্রি-কিক। বাম পায়ের ফ্রি-কিকটা ডান কোন দিয়ে প্রবেশ করলো সৌদি আরবের জালে। আল ওয়াইজ মুভ করারও সময় পাননি।

এরপর মেক্সিকানরা আরেকটি গোলের জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে। কারণ, তারা বুঝতে পেরেছিলো, পোল্যান্ডের সঙ্গে গোল ব্যবধান সমান হয়ে যাবে এবং হলুদ কার্ড দেখায় তারা পিছিয়ে। কিন্তু তৃতীয় গোল তো দুরে থাক, ইনজুরি সময়ের একেবারে শেষ মুহূর্তে উল্টো গোল হজম করে বিদায় বরণ করে নিলো তারা।

সালেম আল দাওসারি এ সময় গোলটা করেন। হাতান বাহব্রির সঙ্গে ওয়ান টু ওয়ান বল দেয়া নেয়া করে বক্সে ঢুকে পড়েন এবং ওচোয়াকে বোকা বানিয়ে মেক্সিকোর জালে বল জড়িয়ে দেন তিনি।

৮৭ মিনিটে একবার সৌদির জালে বল প্রবেশ করিয়েছিলো মেক্সিকো। উরিয়েল আনতুনা আল ওয়াইজকে ফাঁকি দিয়ে বলটি জালে জড়িয়ে যখন উল্লাস করছিলেন, তখন ভিএআর চেক করে জানিয়ে দেয়া হলো গোল হয়নি। অফসাইড ছিলো।

তার আগে ৭৮ মিনিটে দারুণ একটি সুযোগ নষ্ট করে দেন রদ্রিগেজ। লোজানোর কাছ থেকে বল পেয়ে তিনি বলটি বাইরে মেরে দেন। এর আগে ৭৩ মিনিটে আরও এক ফ্রি-কিক থেকে গোলের সুযোগ পেয়েছিলেন শাভেজ। কিন্তু তার শট দারুণ দক্ষতায় তালুবন্দী করে নেন আল ওয়াইজ।

ম্যাচের শুরুতেই গোল দিয়ে এগিয়ে যেতে পারতো সৌদি আরব। তৃতীয় মিনিটে আল শেহরির শট অসাধারণ দক্ষতায় ফিরিয়ে দেন মেক্সিকো গোলরক্ষক গুইলার্মো ওচোয়া। ফিরতি বলটিতেই কাউন্টার অ্যাটাক। এবার অ্যালেক্সিস ভেগা অসাধারণ এক শট নিয়েছিলেন সৌদি গোললক্ষ্যে। কিন্তু আল ওয়াইজও দারুন দক্ষতায় গোল থেকে দলকে রক্ষা করেন।

অর্থসংবাদ/কেএ

শেয়ার করুন:
(অর্থসংবাদে প্রকাশিত কোনও তথ্য পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।)
পুরো সংবাদটি পড়ুন
Advertisement
December 2022
S M T W T F S
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031

কর্পোরেট সংবাদ

ক্যাম্পাস টু ক্যারিয়ার

ফেসবুকে অর্থসংবাদ