শেষে এসে রাজধানীতে কোরবানির পশুর সংকট

নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশ: ২০২০-০৭-৩১ ২২:২৭:২৩, আপডেট: ২০২০-০৭-৩১ ২৩:০৭:০৯

শেষ মুহূর্তে রাজধানীর পশু হাটগুলোতে দেখা দিয়েছে কোরবানির গরু ছাগলের সংকট। বৃহস্পতিবার বিকেলের পর থেকেই পশুহাটগুলোকে বেচাবিক্রি বেড়ে যায়। শুক্রবার সকালেই হাটগুলোতে দেখা দেয় পশুর সংকট। আগের রাতে ক্রেতাদের সমাগম দেখে অনেক ফড়িয়া দ্রুত রাজধানীর আশপাশ থেকে পশু জড়ো করেন। ফলে শেষ দিকে কিছুটা হলে বিক্রেতাদের মুখে হাসি ফুটেছে।

পশু ব্যবসায়ী ও ইজারাদাররা জানান, এবার কোভিড-১৯ এর কারণে অনেকেই পশু কোরবানি থেকে বিরত রয়েছেন। আর করোনার স্বাস্থ্যবিধির কড়াকড়ির কারণে রাজধানীতে পশুরহাটও কমিয়ে দেয় ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন। এ জন্য বাকি যে হাটগুলো ছিল, সেগুলোতেও পশু উঠেছিল তুলনামূলক কম। এ কারণেই বৃহস্পতিবার হাটগুলোতে পশুর সংকট দেখা দেয়। তবে ফড়িয়ারা বিষয়টি আঁচ করতে পেরে তাৎক্ষণিকভাবে পশু আমদানির চেষ্টা করে। তারা দামও বাড়িয়ে দেয়। অথচ গত কয়েক দিন ধরেই পশুর বাজার ছিল কিছুটা মন্দা।

রাজধানীর বিভিন্ন হাটে খোঁজ নিয়ে দেখা যায়, অনেকেই হাটে পশু কিনতে গিয়ে ফিরে যাচ্ছেন। তারা জানান, হাটগুলোতে থাকা পশুর প্রায় সবই বিক্রি হয়ে গেছে। তারা অনেকে ভ্রাম্যমাণ বিক্রেতার কাছ থেকে পশু কেনার চেষ্টা করেন। অনেকে গরুর পরিবর্তে খাসি কিনতে চান। খাসিরও দাম বেড়ে যায়।

এমনিতেই এবার হাটে পশু কম উঠেছিল। বৃহস্পতিবার দুপুরের পরই হাটে ক্রেতার ঢল নামে। মুহূর্তের মধ্যেই বিপুল সংখ্যক পশু বিক্রি হয়ে যায়। কিছু ব্যাপারী শুক্রবার সকালের মধ্যেই পশু এনে জড়ো করেন। এতে পশুর চাহিদা অনেকটাই পূরণ করা গেছে।

 

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।