Connect with us

খেলাধুলা

স্বাগতিকদের পাহাড়সম টার্গেট ছুড়ে দিলো কিউইরা

Published

on

প্রথম ম্যাচেই ব্যাট হাতে জ্বলক দেখালেন নিউজিল্যান্ড ব্যাটাররা। শুরু থেকে শেষ, পুরো ম্যাচ জুড়েই মারমুখি ছিলেন কিউইরা। অস্ট্রেলিয়ার বোলিংকে দুমড়ে মুচড়ে ৩ উইকেটে ২০০ রানের বিশাল সংগ্রহ গড়লো কিউইরা। অর্থাৎ সুপার টুয়েলভপর্বের প্রথম ম্যাচে জিততে হলে অস্ট্রেলিয়াকে করতে হবে ২০১ রান।

সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। ব্যাটিংয়ে নেমে বিধ্বংসী চেহারায় হাজির হন ফিন অ্যালেন। একের পর এক বল সীমানাছাড়া করতে থাকেন। ছিল ফিফটির সুযোগও।

কিন্তু পঞ্চম ওভারের প্রথম বলেই জশ হ্যাজেলউডকে তেড়েফুড়ে মারতে গিয়ে বোল্ড হয়ে যান ফিন। ১৬ বলে তার ৪২ রানের ক্যামিও ইনিংসে ছিল ৫টি চারের সঙ্গে ৩টি ছক্কার মার। ডেভন কনওয়ের সঙ্গে ফিনের উদ্বোধনী জুটিটি ছিল ২৫ বলে ৫৬ রানের।

ফিন ফেরার পর অবশ্য রানের গতি কিছুটা কমে যায় কিউইদের। তারপরও পাওয়ার প্লেতে সবমিলিয়ে বেশ ভালো অবস্থানে ছিল নিউজিল্যান্ড। ৬ ওভারে ১ উইকেটে তোলে ৬৫ রান।

Nogod-22-10-2022

এরপর আরেকটি বড় জুটি গড়েন ডেভন কনওয়ে আর কেন উইলিয়ামসন। ছক্কা মেরে ৩৬ বলে ফিফটি পূরণ করেন কনওয়ে। উইকেটের জন্য হাহাকার ক্রমেই বাড়ছিল অস্ট্রেলিয়ার।

অবশেষে ১৩তম ওভারের শেষ বলে জুটিটি ভাঙেন অ্যাডাম জাম্পা। অসি লেগস্পিনারকে রিভার্স সুইপ করতে গিয়ে বল মিস করেন উইলিয়ামসন। আম্পায়ার আউট দিলে রিভিউ নিয়েছিলেন কিউই অধিনায়ক। তবে কাজ হয়নি। ২৩ বলে ২৩ রান করে ফেরেন উইলিয়ামসন। ভাঙে ৫৩ বলে ৬৯ রানের জুটি।

সুবিধা করতে পারেননি গ্লেন ফিলিপস। জশ হ্যাজেলউডকে খেলতে গিয়ে সোজা আকাশে বল তুলে দেন তিনি (১০ বলে ১২)। তবে ডেভন কনওয়ে ইনিংসের শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন।

তার আক্ষেপ থাকতে পারে একটাই, সেঞ্চুরিটা পেলেন না। ৫৮ বলে ৭ চার আর ২ ছক্কায় ৯২ রানে অপরাজিত থাকেন কনওয়ে। শেষ বলে ছক্কা মেরে দলের ২০০ পূরণ করে দেওয়া জিমি নিশাম ১৩ বলে করেন হার না মানা ২৬।

শেয়ার করুন:
বিজনেস নিউজ পোর্টাল অর্থসংবাদে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Advertisement

খেলাধুলা

সুইজারল্যান্ডকে নিয়ে পর্তুগালের ছেলেখেলা

Published

on

বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বের ম্যাচগুলোতে নিজেদের মেলে ধরতে রা পারলেও দ্বিতীয় রাউন্ডে এসে ঠিকই জ্বলে উঠলো রোনালদোর পর্তুগাল। সুইজারল্যান্ডকে কোনো পাত্তাই দিলো না পর্তুগিজরা। ৬-১ গোলের বড় জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েলো ২০১৬ ইউরো চ্যাম্পিয়নরা। এ যেন সুইজদের নিয়ে ছেলেখেলা করলো পর্তুগালের ফুটবলারর।

এই ম্যাচে শুরুর একাদশে রোনালদোকে দলে রাখেননি কোচ সান্তোস। তার পরিবর্তে একাদশে সুযোগ পান গন্সালো রামোস। এটা নিয়েও কম আলোচনা হচ্ছিল না ম্যাচ শুরুর আগে। কিন্তু সব আলোচনায় ঘি ঢেলে দিলেন এই বেনফিকা স্ট্রাইকার।

কেন তাকে ভবিষ্যত তারকা স্ট্রাইকার ভাবা হচ্ছে সেটা প্রমাণের জন্যেই বিশ্বকাপের নক আউট রাউন্ডের মঞ্চকে বেছে নিলেন তিনি। গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচে তার অনবদ্য হ্যাটট্রিক এবং পেপে, লেয়ো ও গুয়েরেরোর গোলে সুইজারল্যান্ডকে ৬-১ গোলের বিশাল ব্যবধানে হারালো পর্তুগাল।

প্রথমার্ধেই ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয় পর্তুগাল। ম্যাচের ১৭ মিনিটেই প্রথম গোল পায় পর্তুগাল। বাম পাশ থেকে হোয়াও ফেলিক্সের ডিফেন্স চেরা পাসে। বা পায়ের বুলেট গতির শটে গোলরক্ষকের মাথার উপর দিয়ে কোনাকুনি শটে দারুণ গোল করে দলকে এগিয়ে দেন তিনি। চলতি মৌসুমে বেনফিকার হয়ে ১৪ গোল করার পাশাপাশি পর্তুগালের জার্সি গায়ে করেছেন ২ গোল। তার এমন পারফরম্যান্সই তাকে একাদশে নামাতে বাধ্য করে সান্তোসকে।

Nogod-22-10-2022

গোল খেয়ে মরিয়া হয়ে চেষ্টা করে সুইসরা। কিন্তু পর্তুগিজদের দারুণ রক্ষণভাগের কারণে পেরে ওঠেনি। উলটো ৩৩ মিনিটে আবার গোল খেয়ে বসে সুইজারল্যান্ড। এবার কর্নার থেকে দারুণ হেডে গোল করেন ৩৯ বছর বয়সী ডিফেন্ডার পেপে। বিশ্বকাপের ইতিহাসে পেপেই সবচেয়ে বয়স্ক ফুটবলার যিনি নকআউট রাউন্ডে গোল করলেন।

বিরতিতে যাওয়ার আগে সুইজারল্যান্ডের শাকিরি ও জাকা কয়েকটা প্রচেষ্টা চালালেও তা পর্তুগিজ রক্ষণভাগে গিয়ে শেষ হয়ে যায়। ফল ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় পর্তুগাল।

বিরতি থেকে ফিরে আরো যেন ক্ষুরধার পর্তগাল। ৫২ মিনিটে আবারো গোল দেন রামোস। ডান পাশ থেকে দিয়েগো দালোতের বাড়ানো ক্রসে দারুণ ফিনিশিংয়ের মাধ্যমে পর্তুগালকে ৩-০ ব্যবধানে এগিয়ে দেন৷

এই গোলের রেশ কাটতে না কাটতে আবারো গোল দেয় পর্তুগাল। এবার স্কোরশিটে নাম লেখান রাফায়েল গুয়েরেরো। রামোসের বাড়ানো বল থেকে দারুণ শটে গোল করেন তিনি।

৪ গোলে পিছিয়ে থেকে ম্যাচ থেকে অনেকটাই ছিটকে যায় সুইজারল্যান্ড। ৫৯ মিনিটে ম্যানুয়েল আকাঞ্জি সুইসদের হয়ে একটি গোল শোধ দেন। তবে সেই আনন্দ বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি।

৬৭ মিনিটে পর্তুগালের হয়ে নিজের তৃতীয় ও দলের ৫ম গোলটি করে নিজের হ্যাটট্রিক পূরণ করেন গন্সালো রামোস। পেলের পর তিনিই সবচেয়ে কমবয়সী ফুটবলার হিসেবে বিশ্বকাপের নক আউট রাউন্ডে হ্যাটট্রিক করলেন। তার হাত ধরেই এবারের বিশ্বকাপে প্রথম হ্যাটট্রিক দেখলো সবাই।

৭৩ মিনিটে বদলি হিসেবে মাঠে নামেন রোনালদো। ৮৫ মিনিটে একটি গোলও করেন তিনি। তবে অফসাইডের কারণে রেফারি গোলটি বাতিল করেন। ম্যাচের একদম অন্তিম মুহূর্তে এসি মিলান তারকা রাফায়েল লেয়ো আরো একটি গোল করলে ৬-১ গোলের বিশাল ব্যবধানে জয় পায় পর্তুগাল। কোয়ার্টার ফাইনালে তাদের প্রতিপক্ষ মরক্কো।

শেয়ার করুন:
বিজনেস নিউজ পোর্টাল অর্থসংবাদে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

খেলাধুলা

টাইব্রেকারে স্পেনের বিদায়

Published

on

মেইন প্রেস সেন্টার থেকে সবচেয়ে কাছের স্টেডিয়াম এডুকেশন সিটি। কাছের স্টেডিয়াম হলেও জ্যাম পেরিয়ে যেতে সবচেয়ে বেশি সময় লাগে। আজও এর ব্যতিক্রম হলো না। জ্যাম ঠেলে যখন অবশেষে ম্যাচ শুরুর ঠিক আগে স্টেডিয়ামের মিডিয়া ট্রিবিউনে পৌঁছানো গেল, সেখান থেকে দেখা মিলল গ্যালারির লাল উৎসবের। স্পেন আজ নীল জার্সি পড়লেও তাদের মূল জার্সি লাল। তবে এডুকেশন সিটির স্টেডিয়ামে লাল রঙটা ঠিক স্পেনের লাল নয়, মরক্কোর লালে লাল। ম্যাচে যা হতে যাচ্ছে, সেসব যেন ছিল তারই পূর্বাভাস! গোলশূন্য ম্যাচের পর পেনাল্টি শ্যুট আউটে যে মরক্কো হারিয়ে দিয়েছে স্পেনকে!

গ্যালারির মতো মাঠেও মরক্কোর আধিপত্য। র‍্যাঙ্কিং, ঐতিহ্য, তারকা খেলোয়াড় সকল সূচকেই মরক্কো সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন স্পেনের চেয়ে ঢের পেছনে। মানসিক শক্তি ও টিম স্পিরিটই তাদের মূল শক্তি। এই দুইয়ে বলীয়ান হয়ে লুইস এনরিকের স্পেনের বিপক্ষে খেলেছে।

কোস্টারিকাকে সাত গোল দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করেছিল স্পেন। এরপর আর সেই স্পেনকে পাওয়া যায়নি। চার বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন জার্মানির বিপক্ষে দুর্দান্ত লড়াই শেষে ড্র, এরপর জাপানের বিপক্ষে বসল হেরেই। সেই স্পেন আজকের ম্যাচের শুরুতেই ৭০ শতাংশের কাছাকাছি সময় নিয়ে রেখেছিল বলের নিয়ন্ত্রণ। বল দখল মোটে ২০ ভাগের একটু বেশি হলেও মরক্কোর ফুটবলাররা বিভ্রান্ত হননি। যথেষ্ট পরিণত ফুটবলই খেলেছেন দলটি।

দ্বিতীয়ার্ধে ঘড়ির কাটা যতই এগিয়ে যাচ্ছিল, কোচ লুইস এনরিকে কপালের চিন্তার ভাঁজ তখন ক্রমেই বাড়ছিল। এনরিকে গাভির বদলে মোরাতাকে নামান। ৭০-৭৫ মিনিটের মধ্যে তিন পরিবর্তন করেন। শেষ পনের মিনিট ২০১০ সালের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা যথেষ্ট চেপে ধরেছিল আফ্রিকান দলকে। মরক্কোর দলটি যে সহজে ভেঙে পড়ার নয়, সেটা তখন প্রমাণিত হয়েছে আরও এক বার।

Nogod-22-10-2022

পাঁচ মিনিট ইনজুরি সময় দারুণ ফুটবল হয়েছে। মরক্কো গোলের সুযোগ পেয়েছিল। ফিনিশিং ব্যর্থতায় আর গোলটি হয়নি। ইনজুরি সময় শেষ হওয়ার এক মিনিট আগে বক্সের একটু বাইরে ফ্রি কিক পায় স্পেন। সেই ফ্রি কিকে স্পেন গোল পেয়েই যাচ্ছিল। বল গোললাইন অতিক্রম করার আগ মুহর্তে মরক্কোকান গোলরক্ষক হাত ছোঁয়ান। শেষ মিনিটে দুইটি কর্নার আদায় করে স্পেন। মরক্কোর ডিফেন্ডারদের দক্ষতায় অবশ্য সফল হয়নি একবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

গতকাল ক্রোয়েশিয়া-জাপান ম্যাচের মতো আজকের এই ম্যাচও গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। অতিরিক্ত সময়ের শুরুতে মরক্কো দারুণ এক আক্রমণ রচনা করে। স্পেন রক্ষণ পরাস্ত হওয়া সেই আক্রমণ অফসাইডে বাতিল হয়। স্পেন অতিরিক্ত সময়েও বল দখল নিজেদের পায়েই রেখেছিল। পুরো ম্যাচে ৮০০ পাস খেলেছে এনরিকের দল, তবে পায়নি কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা। ১০৪ মিনিটে দুর্দান্ত এক আক্রমণ রচনা করে মরক্কো। ডিফেন্স চেরা পাসে স্পেনের দুই ডিফেন্ডার পরাস্ত। মরক্কোর ফরোয়ার্ডের প্লেসিং কোনো মতো পা দিয়ে ঠেকান স্প্যানিশ গোলরক্ষক উনাই সিমন।

অতিরিক্ত সময়ের দ্বিতীয়ার্ধে দুই দলই গোলের সুযোগ পেয়েছিল। মরক্কোর আক্রমণগুলো কিছু ক্ষেত্রে নষ্ট নিয়ে নিজেদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝিতে। অন্য দিকে স্পেন এই অর্ধে গোল না পাওয়ার জন্য ভাগ্যকেও দুষতে পারে। ১২০ মিনিট শেষ তিন মিনিট ইনজুরি সময় ছিল। সেই ইনজুরি সময়ে স্পেনের আক্রমণ একটি সাইড পোস্টে লেগে বাইরে যায়। ভাগ্য সঙ্গ দিয়েছে মরক্কোকেও। এর এক মিনিট আগে যে স্পেনের আক্রমণ ক্লিয়ার করতে গিয়ে প্রায় আত্মঘাতী গোল হজম করেই বসেছিল দলটি, ভাগ্য সঙ্গ না দিলে কি আর সেখান থেকে বেঁচে ফেরা যেত?

শেয়ার করুন:
বিজনেস নিউজ পোর্টাল অর্থসংবাদে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

খেলাধুলা

শেষ আট নিশ্চিতের মিশনে স্পেন ও পর্তুগাল

Published

on

কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করার মিশনে কাতার বিশ্বকাপে মাঠে নামছে দুই ইউরোপীয়ান পরাশক্তি স্পেন ও পর্তুগাল। শেষ ষোলোর ম্যাচে ২০১০ বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন স্পেনের প্রতিপক্ষ চমক দেখিয়ে চলা আফ্রিকান দল মরক্কো। দোহার আল রাইয়ানের এডুকেশন সিটি স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় আজ রাত ৯টায়।

দ্বিতীয় রাউন্ড অর্থাৎ প্রি-কোয়ার্টার ফাইনালের শেষ ম্যাচে সুইজারল্যান্ডের মুখোমুখি হচ্ছে ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডোর পর্তুগাল। লুসাইল আইকনিক স্টেডিয়ামে এই ম্যাচটি মাঠে গড়াবে রাত ১টায়। ম্যাচ দুটিতে স্পেন ও পর্তুগাল ফেভারিট হলেও চমক অব্যাহত রেখে শেষ আটে খেলার স্বপ্ন বুনছে মরক্কো এবং সুইজারল্যান্ডও।
১৯৯৬ বিশ্বকাপে কিংবদন্তি ইউসেবিওর পর্তুগাল তৃতীয় হয়েছিল। ওইটাই পর্তুগিজদের বিশ্বমঞ্চে সেরা সাফল্য। তার মানে এখন পর্যন্ত ইউরোপের ব্রাজিল খ্যাত দেশটি ফাইনালে উঠতে পারেনি। শেষ তিনটি আসরের দুটিতেই নকআউট পর্বের প্রথম ম্যাচে বিদায় নিতে হয় রোনাল্ডো, পেপেদের। এবার সেই ব্যর্থতা ঘোচানোর লক্ষ্যে মরুর বুকে এসেছে কোচ ফার্নান্ডো সান্টোসের দল। ২০০৬ সালে রোনাল্ডোর অভিষেক বিশ্বকাপে সেমিফাইনালে খেলেছিল পর্তুগাল। আধুনিক যুগে এটাই সেরা সাফল্য দলটির।

এবার গোল্ডেন জেনারেশন নিয়ে দেশটি সেরা সাফল্য পেতে চায়। অন্তত শেষ বিশ্বকাপ খেলা অধিনায়ক রোনল্ডোর জন্য তারা সোনার ট্রফি জিততে মরিয়া। যদিও সি আর সেভেনকে ছাপিয়ে এবার পর্তুগিজ দলে ব্রুনো ফার্নান্দেজকে নিয়ে বেশি আলোচনা হচ্ছে। গ্রুপ পর্বে উরুগুয়ের বিরুদ্ধে ২-০ গোলের জয়ের ম্যাচে দুটি গোলই করেছিলেন ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে খেলা তারকা এই মিডফিল্ডার।
ইউরো ২০১৬ জয়ী পর্তুগাল এবার বিশ^কাপে নতুন কিছু করে দেখাতে চায়। দলটির গোলমেশিন খ্যাত রোনাল্ডোর ফর্ম ও ফিটনেস নিয়ে শুরু থেকেই শঙ্কা নিয়ে বিশ^কাপে এসেছে পর্তুগাল। পাঁচবারের ফিফা সেরা তারকা এখনো নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি। এরপরও পর্তুগাল কোচ পরিচিত প্রতিপক্ষ সুইজাল্যান্ডের বিরুদ্ধে চাপ নিতে চান না।

সবশেষ চলতি বছরের শুরুতে উয়েফা নেশন্স লিগে সুইসদের ৪-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছিল পর্তুগিজরা। ওই ম্যাচে রোনাল্ডো প্রথমার্ধে দুই গোল করেছিলেন। এরপর জেনেভাতে ফিরতি ম্যাচে অবশ্য সুইজারল্যান্ডের কাছে ১-০ গোলে হেরেছিল পর্তুগিজরা। রোনাল্ডোদের হারানোর পর নেশন্স লিগে সুইসরা পালাক্রমে স্পেন ও চেক প্রজাতন্ত্রকে পরাজিত করে। এবারের বিশ^কাপেও গ্রুপ পর্বে তিন ম্যাচের দুটিতেই জয় তুলে নিয়েছে সুইজারল্যান্ড।

Nogod-22-10-2022

ক্যামেরুনের  বিরুদ্ধে ১-০ গোলের জয় দিয়ে বিশ^কাপ শুরু করা দলটি ব্রাজিলের কাছে একই ব্যবধানে হেরে যায়। শেষ ম্যাচে এক পয়েন্ট হলেই সুইসদের পরের রাউন্ড নিশ্চিত হয়ে যেত। কিন্তু ব্রাজিলকে হারিয়ে দিয়ে ক্যামেরুন পুরো গ্রুপের চেহারা পাল্টে দেয়। শেষ পর্যন্ত সার্বিয়ার বিরুদ্ধে ৩-২ গোলের জয়ে নকআউট রাউন্ডে উঠেছে সুইসরা। এর আগে বিশ^কাপের কোন আসরে সুইসরা তিনটি ম্যাচ জিততে পারেনি। সাতবারের প্রচেষ্টায় কখনই কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছাতে পারেনি। কিন্তু এবারের কোচ মুরাত ইয়াকিনের দল সেই স্বপ্ন দেখছে।
অন্যদিকে ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপের রানার্সআপ ক্রোয়েশিয়া ও তৃতীয় হওয়া বেলজিয়ামের মতো পরাশক্তিদের পেছনে ফেলে ‘এফ’ গ্রুপের সেরা হয়ে নকআউট রাউন্ডে এসেছে মরক্কো। আর ‘ই’ গ্রুপে জাপানের পেছনে থেকে দ্বিতীয় হয়ে শেষ ষোলোতে এসেছে স্পেন। সেনেগালের পর দ্বিতীয় আফ্রিকান দল হিসেবে এবারের আসরে দ্বিতীয় রাউন্ড নিশ্চিত করেছে মরক্কো।

ক্রোয়েটদের বিরুদ্ধে গোলশূন্য ড্র দিয়ে আসর শুরু করার পর বেলজিয়ামকে ২-০ ও কানাডাকে ২-১ গোলে হারিয়ে গ্রুপে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয় মরক্কো। এবারসহ দ্বিতীয়াবারের মতো বিশ্বকাপের নক আউট পর্বে উঠেছে তারা। এর আগে ১৯৮৬ আসরে শেষ ষোলো থেকে বিদায় নিয়েছিল। সব ধরনের প্রতিযোগিতায় টানা আট ম্যাচে অপরাজিত আছে অ্যাটলাস লায়ন্সরা। এই ম্যাচগুলোতে মরক্কো মাত্র দুই গোল হজম করেছে।
বিপরীতে লুইস এনরিকের স্পেন কিছুটা হলেও পিছিয়ে আছে। গ্রুপের শেষ ম্যাচে এশিয়ার পরাশক্তি জাপানের কাউন্টার অ্যাটাকের সামনে দাঁড়াতেই পারেনি স্প্যানিশ রক্ষণভাগ। যার পরিণতি ২-১ গোলে হার। আলভারো মোরাতার গোলে ম্যাচের শুরুর দিকেই লিড নিয়েছিল স্পেন। কিন্তু জাপানিজ কোচ হাজিমে মোরিইয়াসুর খেলোয়াড় বদলির কৌশলে কাছে হার মানতে বাধ্য হয় স্প্যানিশরা। ২০১৮ বিশ্বকাপে তারা শেষ ষোলো থেকে বিদায় নিয়েছিল।

এবার সেই হতাশায় ভুগতে চায় না তারুণনির্ভর দলটি। বিশ্বকাপে এর আগে মাত্র একবারই দেখা হয়েছে মরক্কো ও স্পেনের। সেটা চার বছর আগে রাশিয়া আসরে। গ্রুপ পর্বের ওই ম্যাচটি ২-২ গোলে ড্র হয়েছিল। তার মানে এবার টানা দ্বিতীয়বার বিশ্বকাপে দেখা হচ্ছে দল দুটির। স্পেন ও মরক্কোর প্রথম দেখা ১৯৬১ সালে। এখন পর্যন্ত একে অপরের বিরুদ্ধে দল দুটি খেলেছে তিনটি ম্যাচ। যেখানে দুটিতে জয় স্পেনের, অপর ম্যাচটি ড্র হয়।

অর্থসংবাদ/কেএ

শেয়ার করুন:
বিজনেস নিউজ পোর্টাল অর্থসংবাদে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

খেলাধুলা

টিভিতে আজ দেখবেন বিশ্বকাপের যেসব খেলা

Published

on

ফুটবল
কাতার বিশ্বকাপ
রাউন্ড অব সিক্সটিন
মরক্কো-স্পেন
সরাসরি, রাত ৯টা
টি স্পোর্টস, গাজী টিভি, বিটিভি

পর্তুগাল-সুইজারল্যান্ড
সরাসরি, রাত ১টা
টি স্পোর্টস, গাজী টিভি, বিটিভি

অর্থসংবাদ/কেএ

শেয়ার করুন:
বিজনেস নিউজ পোর্টাল অর্থসংবাদে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

খেলাধুলা

দক্ষিণ কোরিয়াকে উড়িয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিল

Published

on

দক্ষিণ কোরিয়াকে ৪-১ গোলে বিধ্বস্ত করে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করার পর নিজেরা একে অপরের সঙ্গে হ্যান্ডশেক করেছেন ব্রাজিলিয়ান ফুটবলাররা।

কিন্তু আনন্দে উল্লাসে তখনও মেতে ওঠেননি। এরই মধ্যে দেখা গেলো নেইমার এবং ব্রাজিলের আরেক ফুটবলার মিলে একটি ব্যানার নিয়ে আসছেন মাঠের মধ্যখানে।

ক্যামেরার দিকে মুখ করে সেই ব্যানার মেলে ধরলেন নেইমাররা। ব্যানারটির একপ্রান্তে ১৯৭০ এর বিশ্বকাপে গোল করার পর পেলের সেই বিখ্যাত উদযাপনের ছবি। অন্যপ্রান্তে বড় করে লেখা পেলে।

এরপর ব্যানারের পেছনে একে একে ব্রাজিলের সব ফুটবলাররা এসে দাঁড়ালেন। ব্যানার প্রদর্শণ করে নেইমাররা বুঝিয়ে দিতে চাইলেন, কাতার বিশ্বকাপ খেলতে এসে হাজার হাজার মাইল দুরে থেকেও তারা তাদের জাতীয় বীর, কিংবদন্তি ফুটবলার পেলেকে ভুলে যাননি। বরং, দক্ষিণ কোরিয়ার বিপক্ষে পাওয়া জয়টিকে তারা উৎসর্গ করেছেন পেলের উদ্দেশ্যে।

Nogod-22-10-2022

ক্যান্সারে আক্রান্ত পেলে এখন ব্রাজিলের সাও পালোস্থ আলবার্ট আইনস্টাইন হাসপাতালে জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে রয়েছেন। দুইদিন আগে তো হঠাৎ চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন না দেখে দ্রুত তাকে প্যালিয়াটিভ কেয়ারে নিতে হয়েছে। যেখান থেকে খুব কম সংখ্যক রোগিই ফিরে আসেন।

৮২ বছর বয়সী সাবেক এই কিংবদন্তি ফুটবলার কোলন ক্যান্সারে আক্রান্ত। এক বছর আগেই অস্ত্রোপচার করা হয়। কিন্তু এরপরও নিয়মিত কেমোথেরাপি দিতে হয় তাকে।

মাঝে মধ্যেই অবস্থা সঙ্কটজনক হলে তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়। যে কারণে এবার পেলেকে কাতার বিশ্বকাপ দেখতে আসার জন্য ডাক্তার অনুমতি দেননি। এখনও তিনি রয়েছেন একেবারে শেষ অবস্থায় বলা যায়।

এমন পরিস্থিতিতে কাতারে ব্রাজিলের ম্যাচের সময় পেলেকে স্মরখ করে, তার দ্রুত সুস্থতা কামনায় গ্যালারিতে বিশাল ব্যানার প্রদর্শণ করে দর্শকরা। এবার খোদ নেইমাররাই ব্যানার প্রদর্শন করে পেলের পাশে নিজেদের অবস্থান ঘোষণা করলো তারা।

অর্থসংবাদ/কেএ

শেয়ার করুন:
বিজনেস নিউজ পোর্টাল অর্থসংবাদে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন
Advertisement
December 2022
S M T W T F S
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031

কর্পোরেট সংবাদ

ক্যাম্পাস টু ক্যারিয়ার

ফেসবুকে অর্থসংবাদ