Connect with us

টেলিকম ও প্রযুক্তি

ফ্রিল্যান্সারদের মাধ্যমে রপ্তানি আয় দেড় বিলিয়ন ডলার: পলক

Published

on

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ইন্টারনেটের শক্তি আর তারুণ্যের মেধাকে একত্রিত করে বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র ও প্রধানমন্ত্রীর ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় বাংলাদেশের আইটি ফ্রিল্যান্সারদের আত্মকর্মসংস্থানের সুযোগ করে দিয়েছেন।

‘নাটোরের বাগাতিপাড়ার ফয়সাল নিজে উদ্যোক্তা হয়ে কয়েকশ তরুণ-তরুণীকে ফ্রিল্যান্সার বানিয়ে তাদের পরিবারে আর্থিক স্বচ্ছলতা এনে দিয়েছেন। তার মতো সাড়ে ছয় লাখ ফ্রিল্যান্সার দেশকে দেড় বিলিয়ন ডলারের রপ্তানি আয় এনে দিয়েছেন।’

শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সেন্টার ফর অ্যাডভ্যান্সড রিসার্স ইন আর্টস অ্যান্ড সোশাল সাইন্স (কারাস) মিলনায়তনে ঢাবির নাটোর জেলা ছাত্রকল্যাণ সমিতির নবীনবরণ ও কৃতি সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচকের বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

এসময় তিনি আগামী অর্থবছরে ঢাবির সবকটি হলে শেখ রাসেল ডিজিটাল কম্পিউটার ল্যাব স্থাপনের ঘোষণা দেন। সেই সঙ্গে আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল মেধাবী শিক্ষার্থীদের একটি করে ল্যাপটপ উপহার দেওয়া হবে বলে জানান।

Nogod-22-10-2022

এসব উপহারের মাধ্যমে ঢাবির শিক্ষার্থীরা স্মার্ট বাংলাদেশের স্মার্ট নাগরিক হবেন বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ল্যাপটপ আর ইন্টারনেট থাকলেই ঘরে বসে ডলার আয় করা যায়। এজন্য প্রতিবছর আমি ছাত্রকল্যাণ সমিতির মাধ্যমে ন্যূনতম অস্বচ্ছল মেধাবী সাতজনকে একটি করে ল্যাপটপ ও দুজন শিক্ষার্থীকে ২৪ হাজার টাকা করে শিক্ষাবৃত্তি দেবো।

পলক বলেন, দেশে বর্তমানে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় ১৩ কোটি। ২০১০ সালের ১১ নভেম্বর জননেত্রী শেখ হাসিনা ভোলা জেলার চর কুকরি-মুকরিতে যখন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্বোধন করেন, তখন দেশে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছিল মাত্র ৫৬ লাখ।

‘প্রতিমাসে এক কোটি মানুষ এসব সেন্টার থেকে সেবা নিচ্ছেন। সাড়ে ছয় লাখ ফ্রিল্যান্সার ঘরে বসেই দেশ-বিদেশে ব্যবসা করছেন। এটাই হলো শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ।’

তিনি বলেন, ইন্টারনেটের কল্যাণে সরকারের কাজে কেউ অসন্তুষ্ট হলে তা জনসম্মুখে প্রকাশ করতে পারেন। আত্মকর্মসংস্থানের জন্য লার্নিং অ্যান্ড আর্নিং উন্নয়ন প্রকল্পের মাধ্যমে ৫৩ হাজার তরুণ-তরুণীকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।

৬৪ জেলায় তিন মাসের সার্টিফেকেট কোর্সসহ শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং সেন্টার তৈরি করা হচ্ছে। ১১শ কোটি টাকা ব্যয়ে ৪৯৬টি উপজেলা ও জেলাসদরসহ ৫৫৫টি জয় ডিজিটাল সার্ভিস অ্যান্ড এমপ্লয়মেন্ট সেন্টার করা হচ্ছে।

প্রথম পর্যায়ে ২৪৩টি উপজেলার মধ্যে নাটোরেরই রয়েছে সাতটি উপজেলা। শিগগিরই এগুলোর কাজ শুরু হবে। ডিজিটাল বাংলাদেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তরুণদের যে সুযোগ করে দিয়েছেন তা কাজে লাগাতে উপস্থিত শিক্ষার্থীদের আহ্বান জানান আইসিটি প্রতিমন্ত্রী।

ঢাবির নাটোর জেলা ছাত্রকল্যাণ সমিতির সভাপতি সাব্বির সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন নাটোর-৪ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) অধ্যাপক মো. আব্দুল কুদ্দুস।

অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ঢাবির সহকারী অধ্যাপক আরিফুল ইসলাম অপু, নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও নাটোর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শরিফুল ইসলাম রমজান, বাংলাদেশ যুব মহিলা লীগের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট কোহেলী কুদ্দুস মুক্তি প্রমুখ।

শেয়ার করুন:
বিজনেস নিউজ পোর্টাল অর্থসংবাদে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Advertisement

টেলিকম ও প্রযুক্তি

নতুন সিম বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে গ্রামীণফোনের আবেদন

Published

on

দেশের সর্ববৃহৎ মোবাইল ফোন অপারেটর গ্রামীণফোন লিমিটেড তাদের নতুন সিম বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ এবং বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)-এ পৃথক দুটি চিঠিতে আবেদন করেছে।

এর আগে গত ২৯ জুন অনির্দিষ্টকালের জন্য গ্রামীণফোনের সিম বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা দেয় বিটিআরসি।

অপারেটরটির বিরুদ্ধে গ্রাহকদের অভিযোগ এবং বিটিআরসির পরীক্ষাতেও সেবার মান সন্তোষজনক না হওয়ায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বলে জানিয়েছিল বিটিআরসি।

সেবার মান আরও শক্তিশালী করতে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগে পাঠানো ওই চিঠিতে গ্রামীণফোন তাদের নেওয়া বিভিন্ন উদ্যোগের কথা উল্লেখ করে।

Nogod-22-10-2022

চিঠিতে গ্রামীণফোন জানায়:

১. নেটওয়ার্ক বিস্তৃতিকরণ ও সেবার মান উন্নয়নে দীর্ঘমেয়াদী প্রতিশ্রুতির অংশ হিসেবে ২০২১ ও ২০২২ সালে সর্বোচ্চ স্পেকট্রাম ক্রয় করে গ্রামীণফোন।

২. ২০২২ সালের মধ্যে টাওয়ার কোম্পানির মাধ্যমে অপারেটরটি আরও ১৯০০ টাওয়ার নির্মাণ করবে, যা সেবার মান উন্নয়নে সহায়তা করবে। ২০২১ সালেও কোম্পানিটি ১৬০০ টাওয়ার নির্মাণ করে।

৩. গ্রামীণফোনের মোট ১৪ হাজার ৫০০টি সাইটে ১০ মেগাহার্টজ স্পেকট্রাম নিয়োগ করে। এছাড়াও গ্রাহকদের ডেটা এক্সপেরিয়েন্স বাড়াতে ১৫ হাজার ৫৫০টি সাইটের ব্যান্ডউইথ ১০ মেগাহার্টজ থেকে ১৫ মেগাহার্টজ-এ উন্নয়ন করে।

৪. এনটিটিএস পার্টনারদের সহযোগীতায় গ্রামীণফোন ফাইবারাইজেশন প্রক্রিয়াকে ত্বরান্বিত করছে। ২০২২ সালে অপারেটরটি ২৩১৬ কিলোমিটার এলাকা ফাইবারের আওতায় নিয়ে আসে, যা ২০২১ সালের তুলনায় ৩০ শতাংশ বেশি এবং আগের বছরের তুলনায় অপারেটরটি সাইটগুলোতে ফাইবার কানেক্টিভিটি বাড়িয়েছে ৭৫ শতাংশ।

৫. ঢাকার গ্রাহকদের উন্নত অভিজ্ঞতা প্রদান ও সেবার মান বাড়াতে অপারেটরিটি ফ্রিকোয়েন্সি অপটিমাইজেশনের কাজ করছে।

৬. অপারেটরটি নতুন কেনা ২৬০০ মেগাহার্টজ স্পেকট্রাম ব্যবহার শুরু করেছে। ইতোমধ্যে গ্রামীণফোন বিটিআরসি ও এনবিআর’কে প্রথম ইন্সটলমেন্টের ২৪৮ কোটি ২৪ লাখ টাকা পরিশোধ করেছে।

চিঠিতে গ্রামীণফোন দাবি করে, কোয়ালিটি অব সার্ভিস নিশ্চিত করতে বিটিআরসির নির্ধারণ করে দেওয়া সব শর্ত পূরণ করে আসছে তারা। যার মধ্যে:
১. বিটিআরসি’র কোয়ালিটি অব সার্ভিস রিপোর্ট অনুযায়ী ২০২১ সালে জিপির কল ড্রপ রেট ছিল ০.২২ শতাংশ, যা শর্ত অনুযায়ী ৯ গুণ কম। অপারেটরগুলোর কলড্রপ ২ শতাংশ পর্যন্ত স্বাভাবিক ধরা হয়। এমন কি গ্রামীণফোনের এই কলড্রপ দ্বিতীয় বেস্ট অপারেটরের থেকে ২ গুণ কম।
২. ২০২২ সালে বিটিআরসি’র সাথে গ্রামীণফোনও টেস্ট ড্রাইভ পরিচালনা করে, যেখানে সব বিভাগে কোয়ালিটি অব সার্ভিসের সব শর্ত পূরণ করেছে অপারেটরটি।

চিঠিতে গ্রামীণফোন আরোও জানায়, কোয়ালিটি অব সার্ভিস নিশ্চিতে ধারাবাহিক প্রচেষ্টা জরুরি, যা রেগুলেটরের সহযোগীতায় গ্রামীণফোন করে যাচ্ছে। অপারেটরটির এসব উদ্যোগ সবাইকে সংযুক্ত হতে সহায়তা করবে এবং স্মার্ট বাংলাদেশ নির্মাণে একজন ইকোসিস্টেম প্লেয়ার হিসেবে কাজ করে যাবে।

সবশেষে চিঠিতে নতুন সিম বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করতে কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ জানায় গ্রামীণফোন কর্তৃপক্ষ।

অর্থসংবাদ/এসএম

শেয়ার করুন:
বিজনেস নিউজ পোর্টাল অর্থসংবাদে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

টেলিকম ও প্রযুক্তি

স্মার্টফোনের আসক্তি ছাড়ানোর উপায়

Published

on

ডিজিটাল যুগে সবার নিত্যসঙ্গী স্মার্টফোন। অনেকের দিনের বেশিরভাগ সময়ই কাটে এই ডিজিটাল ডিভাইসে। কাজে হোক কিংবা অকাজে অনেকে এই স্মার্টফোনের প্রতি আসক্ত হয়ে পড়েছেন। কিছুক্ষণ পরপরই নোটিফিকেশন চেক করা, টাইমলাইন দেখা, বিভিন্ন অ্যাপ চেক করা আসক্তিরই লক্ষণ।

করোনা মহামারির সময় থেকে এ ধরনের আসক্তি ধীরে ধীরে বেড়ে চলেছে। বিভিন্ন ধরনের গবেষণায় দেখা গেছে, স্মার্টফোনের এ ধরনের প্রভাবের ফলে শারীরিক এবং মানসিক রোগের সৃষ্টি হচ্ছে। এর ফলে চোখের ওপরেও খারাপ প্রভাব দেখা দিয়েছে। যে কোনো স্বভাব তৈরি হতে প্রায় ২১ দিন পর্যন্ত সময় লাগে। সেই স্বভাব আবার ছাড়তে গেলে প্রায় একই সময়ের প্রয়োজন হয়। এক নজরে দেখে নেওয়া যাক স্মার্টফোনের খারাপ প্রভাব থেকে বাঁচার উপায়।

নিজেদের শারীরিক এবং মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নতি করার জন্য স্মার্টফোনের নেশা ছাড়ার খুবই প্রয়োজন রয়েছে। কয়েকটি নির্দিষ্ট উপায় মেনে চললে স্মার্টফোনের এই খারাপ প্রভাব থেকে বাঁচা সম্ভব।

  • স্মার্টফোন ব্যবহার করার জন্য একটি সময় সেট করতে হবে। এর জন্য অ্যালার্ম লাগানোর দরকার হলে সেটি লাগাতে হবে।
  • দিনের নির্দিষ্ট কিছু সময়ের জন্য ফোন বন্ধ করে দিতে হবে। এর ফলে নিজেদের সঙ্গে সঙ্গে ফোনও কিছুটা আরাম পাবে।
  • ফোনের নোটিফিকেশন লিমিট করে দিতে হবে। এর ফলে বার বার ফোনের সোশ্যাল মিডিয়া, মেইল অথবা মেসেজিং অ্যাপের নোটিফিকেশন আসবে না। এর ফলে বার বার ফোনের দিকে নজর যাবে না।
  • পড়ার সময় নিজেদের ফোন দূরে রাখতে হবে। এর ফলে পড়াশোনার ওপর মন বসবে।
  • ফোন বন্ধ রাখার যে নির্দিষ্ট সময় সেট করা হবে, সেই সময় সম্পর্কে বন্ধু এবং পরিবারের লোকদের বলে রাখা প্রয়োজন। যেন তারা সেই সময় ফোন অথবা মেসেজ করে চিন্তা না করে।
  • রাতে ঘুমানোর কয়েক ঘণ্টা আগে ফোনের ব্যাকলাইট কম করে দিতে হবে।
  • দিনে কিছু ঘণ্টার জন্য ফোনের ডেটা অফ করে দিতে হবে অর্থাৎ ইন্টারনেট বন্ধ করে দিতে হবে। এর ফলে ফোনের ব্যাটারির সাশ্রয় হবে এবং ফোনের দিকে সহজেই নজর যাবে না।
  • কোনো মেসেজ এলেই সঙ্গে সঙ্গে রিপ্লাই করার স্বভাব পরিবর্তন করতে হবে। জরুরি ক্ষেত্রেই একমাত্র সঙ্গে সঙ্গে রিপ্লাই দেওয়া প্রয়োজন।
  • পড়াশোনা করার সময় নিজের ফোন অন্য কারও কাছে জমা রাখতে হবে। যদি নিজেদের কাছে ফোন থাকে, তাহলে বার বার সেই ফোনের দিকেই নজর যাবে।
  • অর্থসংবাদ/এনএন
শেয়ার করুন:
বিজনেস নিউজ পোর্টাল অর্থসংবাদে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

টেলিকম ও প্রযুক্তি

ব্যবহারকারীর পানি খাওয়ার সময় জানাবে স্মার্টওয়াচ

Published

on

সম্প্রতি ভারতে লঞ্চ হয়েছে ফায়ার বোল্টের নতুন স্মার্টওয়াচ ফায়ার বোল্ট নিনজা কল প্রো প্লাস। দারুন সব স্পোর্টস এবং হেলথ ফিচারের সঙ্গে বাজারে এসেছে স্মার্টওয়াচটি। এছাড়াও স্মার্টওয়াচের ডায়ালে ব্লুটুথ কলিং ফিচার, ডাইরেক্ট ডায়ালিং এবং কল হিস্ট্রি দেখার জন্য বিশেষ ফিচার থাকছে।

সংস্থার নতুন স্মার্টওয়াচটিতে দেওয়া হয়েছে ১.৮৩ ইঞ্চির এইচডি ডিসপ্লে। যার পিক্সেল রেজোলিউশন ২৪০×২৮৪। একাধিক ওয়াচ ফেসের সুবিধাও থাকছে। পছন্দমতো ওয়াচ ফেস বেছে নিতে পারবেন ব্যবহারকারীরা। স্মার্টওয়াচটি স্মার্টফোনের সঙ্গে যুক্ত থাকলে এর মাধ্যমেই মিউজিক কন্ট্রোল করতে পারবেন ইউজাররা। এছাড়াও ফোন রিসিভ বা রিফিইউজও করতে পারবেন।

১০০টিরও বেশি স্পোর্টস মোড রয়েছে স্মার্টওয়াচটিতে। দৌড়ানো, সাঁতার, ফুটবল, পাহাড়ে চড়া, সাইকেলিংসহ বিভিন্ন স্পোর্স্টস মোড পাবেন ঘড়িটিতে। স্বাস্থ্য সচেতন হয়ে আপনি কতটা উন্নতির দিকে এগিয়েছেন তার প্রতিটি পদক্ষেপ এই স্মার্টওয়াচের সাহায্যে পরিমাপ করা সম্ভব হবে।

এই স্মার্টওয়াচে পাবেন বিভিন্ন হেলথ ফিচার। হার্ট রেট, SpO2, নারীদের স্বাস্থ্যের খেয়াল রাখবে ২৪ ঘণ্টা। এছাড়াও ব্যবহারকারীর পানি খাওয়ার রিমাইন্ডারও পাঠাবে এই স্মার্টওয়াচ। ঘড়িটি পরে থাকা অবস্থায় আপনার নিঃশ্বাস-প্রশ্বাসের সব আপডেট পাবেন।

Nogod-22-10-2022

স্মার্টওয়াচটি একক চার্জে 6 দিন পর্যন্ত চলতে পারে। কালো, নীল, ধূসর, গোলাপি এবং কালো রঙে পাওয়া যাবে ঘড়িটি। ভারতীয় বাজারে এটি দাম মাত্র ১ হাজার ৯৯৯ রুপি। বাংলাদেশি মুদ্রায় মাত্র ২ হাজার ৪৭৮ টাকায় কেনা যাবে ঘড়িটি। এই মুহূর্তে সংস্থার অফিশিয়াল ওয়েবসাইট ও ই-কমার্স সাইট অ্যামাজনে অর্ডার করা যাবে স্মার্টওয়াচটি।

শেয়ার করুন:
বিজনেস নিউজ পোর্টাল অর্থসংবাদে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

আন্তর্জাতিক

মাস্কের সম্পদ কমেছে ১০১ বিলিয়ন ডলার

Published

on

গত এক বছরে ১০১ বিলিয়ন ডলার সম্পদ কমেছে বিশ্বের শীর্ষ ধনী ইলন মাস্কের। তবে সম্পদ কমলেও এখনও শীর্ষ ধনী তিনি।

ধনকুবেরদের ইনডেক্স অনুযায়ী,এক বছর আগে ইলন মাস্কের সম্পদ ছিল ৩৪০ বিলিয়ন ডলারের আশপাশে। সেটা কমে এসে এ বছর ১৭০ বিলিয়ন ডলারে দাঁড়িয়েছে।

ইলন মাস্কের সবচেয়ে বড় প্রতিষ্ঠান টেসলা ইনকরপোরেশন ব্যবসায়িক ক্ষতির মুখোমুখি হয়েছে এ বছর। বাজার থেকে ৩ লাখ ২১ হাজার গাড়ি ফিরিয়ে নিতে হয়েছে সংস্থাটিকে। কারণ, গাড়িগুলোর পেছনের আলো ঠিকমতো কাজ করছিল না। এ ছাড়া আরও ৩০ হাজার গাড়ির এয়ার ব্যাগ কাজ করছে না ঠিকমতো। এসব কারণে টেসলার শেয়ার কমতে শুরু করেছে। ৩ শতাংশ শেয়ার কমে গেছে টেসলার এ বছর, যা গত ২ বছরে সবচেয়ে কম।

কেবল ইলন মাস্কই নন, শেয়ারবাজারে এ বছর ক্ষতির মুখে পড়েছেন মার্ক জাকারবার্গ, বার্নার্ড আর্নল্ড, গৌতম আদানীসহ অন্যান্য ধনকুবেরও। বছরে প্রায় ৫০ হাজার কোটি ডলার ক্ষতি হয়েছে তাদের।

Nogod-22-10-2022

অর্থসংবাদ/এনএন

শেয়ার করুন:
বিজনেস নিউজ পোর্টাল অর্থসংবাদে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন

আন্তর্জাতিক

টুইটার অ্যাকাউন্ট ফিরে পেলেন ট্রাম্প

Published

on

trump twitter

বিশ্বের শীর্ষ ধনী ও যুক্তরাষ্ট্রের গাড়ি নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান টেসলার মালিক ইলন মাস্ক টুইটার কিনে নেওয়ার পর সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তার অ্যাকাউন্ট ফিরে পেলেন।

নির্বাচনে হেরে যাওয়ার পর ও পরবর্তীতে ২০২১ সালের ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলে হামলার জেরে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে বয়কট করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো। টুইটার, ফেসবুক, এমনকি ইউটিউব কর্তৃপক্ষ তার ব্যবহৃত অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেয় সে সময়। টুইটারে ট্রাম্পের প্রায় ৯ কোটি ফলোয়ার ছিল। এছাড়া ফেসবুক ও ইউটিউবও ট্রাম্পের অ্যাকাউন্ট সাময়িকভাবে জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়। এসব অ্যাকাউন্ট বন্ধ হওয়ার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েন তিনি।

জানা গেছে, ডোনাল্ড ট্রাম্পের টুইটার অ্যাকাউন্ট ফিরিয়ে দেওয়ার ব্যাপারে একটি জরিপ শুরু করেন ইলন মাস্ক। শুক্রবার (১৮ নভেম্বর) শুরু হওয়া জরিপে ফলোয়ারদের কাছে মতামত চান টুইটারের মালিক ইলন মাস্ক। এতে দেখা যায়, প্রায় ৬০ শতাংশ ট্রাম্পের পক্ষে মত দিয়েছেন।

পরে শনিবার (১৯ নভেম্বর) রাতে ইলন মাস্ক টুইটারে জানান, ট্রাম্পের পক্ষে মত দিচ্ছেন ফলোয়াররা। ট্রাম্পের অ্যাকাউন্ট পুনর্বহাল করা হবে। তিনি আরও লেখেন ‘ভক্স পপুলি, ভক্স দেই’ এর অর্থ দাঁড়ায় ‘মানুষের কণ্ঠ, ঈশ্বরের কণ্ঠস্বর’।

Nogod-22-10-2022

ইলন মাস্কের এই জরিপে দেখা গেছে, শনিবার রাত পর্যন্ত ট্রাম্পের অ্যাকাউন্ট ফিরিয়ে দেওয়ার পক্ষে মত দিয়েছেন ৫১ দশমিক ৮ শতাংশ এবং বিপক্ষে মত দিয়েছেন ৪৮ দশমিক ২ শতাংশ মানুষ। জরিপে ১ লাখ ৫০ হাজারের মতো মানুষের মতামত নেওয়া হয়।

এর আগে অ্যাকাউন্ট ফিরে পেতে টুইটার কর্তৃপক্ষকে আহ্বান জানান সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। যদিও ডোনাল্ড ট্রাম্প সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ‘ট্রুথ সোশ্যাল’ নামে একটি অ্যাপও চালু করেছিলেন।

এদিকে, ২০২৪ সালে আবারও মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প গত মঙ্গলবার রাতে ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের পাম বিচের মার-এ-লাগোতে এক অনুষ্ঠানে এ ঘোষণা দেন। সে সময় ৭৬ বছর বয়সী ট্রাম্প বলেন, ‘আমি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট পদে আমার প্রার্থিতা ঘোষণা করছি।’

সূত্র: সিএনএন

শেয়ার করুন:
বিজনেস নিউজ পোর্টাল অর্থসংবাদে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
পুরো সংবাদটি পড়ুন
Advertisement
December 2022
S M T W T F S
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031

কর্পোরেট সংবাদ

ক্যাম্পাস টু ক্যারিয়ার

ফেসবুকে অর্থসংবাদ