প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার বাড়িতে ‘ঘুষের’ কোটি টাকা

জেলা প্রতিনিধি প্রকাশ: ২০২০-০১-০৯ ২৩:৫৪:০৩

দিনাজপুরের পার্বতীপুরের উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে প্রায় দুই কোটি টাকা পাওয়ার কথা জানিয়ে দুর্নীতি দমন কমিশন বলেছে, এই অর্থ ওই সরকারি কর্মকর্তা ‘ঘুষ’ নিয়েছিলেন।

দুদকের দিনাজপুর সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক আবু হেনা আশিকুর রহমান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, প্রকল্প কর্মকর্তা তাজুল ইসলামের সরকারি বাড়িতে এসব টাকা আলমারি, বিছানার নিচ, ব্যাগসহ বিভিন্ন স্থানে গচ্ছিত ছিল।বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দুদকের দিনাজপুরের সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক আশিকুরের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে এঅর্থ জব্দ করা হয় বলে দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রনব কুমার ভট্টাচার্য্য জানিয়েছেন।

আশিকুর বলেন, আমাদের হটলাইন ১০৬ এ পাওয়া এক অভিযোগের প্রেক্ষিতে এই অভিযান চালানো হয়। তার অফিসে এবং পরে তার বাসায় অভিযান চালানো হয়। তাজুলের কাছ থেকে মোট এক কোটি ৮৫ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয় বলে জানান তিনি।এসব টাকা বিভিন্ন সময় একাধিক প্রকল্প থেকে নেওয়া ঘুষের টাকা বলে ধারণা করছেন দুদক কর্মকর্তা আশিকুর।

তিনি বলেন, এসব টাকার বৈধ কোনো উৎস সম্পর্কে কিছু বলতে পারছেন না পিআইও। উদ্ধার হওয়া টাকার জব্দ তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। এই বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। উপজেলা পরিষদ চত্বরে সরকারি ওই বাড়িতে একাই থাকেন পিআইও তাজুল।

কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলার আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে তাজুল প্রায় দেড় বছর ধরে পার্বতীপুর উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।