Connect with us

আর্থিক প্রতিষ্ঠান

২০ ঘণ্টা বন্ধ থাকবে ডাচ-বাংলার ‘রকেট’ সেবা

Published

on

বন্ধ

ডাচ-বাংলা ব্যাংকের মোবাইল ব্যাংকিং ‘রকেট’ এর সিস্টেম আপগ্রেডেশনের কারণে ২০ ঘণ্টা সেবা বন্ধ থাকবে। আগামী বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) রাত ১১টা থেকে শুক্রবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত ‘রকেট’ এর সেবা নিতে পারবেন না গ্রাহকরা।

মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর) ব্যাংকের জনসংযোগ কর্মকর্তা সগীর আহমেদ বিষয়টি জানিয়েছেন।

এক নোটিশে ডাচ-বাংলা ব্যাংক জানায়, মোবাইল ব্যাংকিংয়ের সিস্টেম আপগ্রেডেশনের কারণে ‘রকেট’ এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সব সেবা আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর রাত ১১টা থেকে ১৬ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।

ডাচ-বাংলা ব্যাংক বাংলাদেশে প্রথম ২০১১ সালের ৩১ মার্চ মোবাইল ব্যাংকিং ডাচ-বাংলা ‘মোবাইল ব্যাংক’ চালু করে। যেটি বর্তমানে রকেট নামে পরিবর্তন করা হয়েছে।

শেয়ার করুন:

আর্থিক প্রতিষ্ঠান

‘ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে’ মাইডাস ফাইন্যান্স!

Published

on

বন্ধ

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত আর্থিক প্রতিষ্ঠান মাইডাস ফাইন্যান্সিং ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে এসে পৌঁছেছে বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির প্রশাসন, মানব সম্পদ ও এস্টেট ব্যবস্থাপনা বিভাগের সাবেক প্রধান শামীম আহমেদ। দুর্নীতি-অনিয়ম, একের পর এক অর্থ আত্মসাতের কারণেই আর্থিক প্রতিষ্ঠানটির এই অবস্থার কারণ বলে জানান তিনি।

বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি’র সাগর-রুনি মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে শামীম আহমেদ এ তথ্য জানান।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, ঝুঁকির মুখে পড়ায় বর্তমান আমানতকারীদের অর্থ নিয়মিতভাবে পরিশোধ করা যাচ্ছে না। শুধু তাই না টাকার অভাবে বোর্ডে ঋণ পাস হওয়ার পরেও ঋণ বিতরণ করতে পারছেন না।

এই অবস্থায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ না নিলে হাজার হাজার আমানতকারী ও বিনিয়োগকারী তাদের বিনিয়োগ হারিয়ে পথে বসতে বাধ্য হবেন বলে আশঙ্কা করেন সংবাদ সম্মেলনকারী।

>>আরও পড়ুন: তিন কার্যদিবস পর উত্থানে শেয়ারবাজার

সংবাদ সম্মেলনে প্রতিষ্ঠানটির অনিয়ম ও দুর্নীতির চিত্র তুলে ধরে শামীম আহমেদ বলেন, ‘দীর্ঘ ১৫ বছর চাকরি চলাকালীন স্বচক্ষে যে সমস্ত দূর্নীতি, দুঃশাসন, অপকৌশল, অপকর্ম, কূটকৌশল ইত্যাদি প্রত্যক্ষ করেছি ইতিপূর্বে আলোচিত কারণে তা প্রমাণসহ মাইডাসের সম্মানিত শেয়ার হোল্ডার, বিনিয়োগকারী ও আমানতকারীদের জ্ঞাতার্থে উপস্থাপন করা আমার নৈতিক দায়িত্ব হিসেবে মনে করেছি। পাশাপাশি অন্যান্য স্টেকহোল্ডারদেরও বিষয়গুলো জানা আবশ্যক। এ ছাড়া উল্লেখিত অপকর্মে জড়িতদের শাস্তি হওয়া উচিত।’

তিনি বলেন, ‘আশির দশকে এনজিও হিসেবে মাইডাস বিশেষ সুনাম অর্জন করে। এই সুনাম আর মর্যাদাকে পুঁজি করে ১৯৯৫ সালে আর্থিক প্রতিষ্ঠান মাইডাস ফাইন্যান্সিং লিমিটেড গড়ে তোলা হয়। ২০০০ সালে প্রতিষ্ঠানটি বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু করে। অল্প সময়ের মধ্যে এই প্রতিষ্ঠানটির শক্ত আর্থিক ভিত্তি গড়ে ওঠে। শেয়ার হোল্ডারদের নিয়মিত ডিভিডেন্ড দেওয়ার পাশপাশি নিজেস্ব অর্থায়নে ধানমন্ডির ২৭ নম্বর সড়কে জমি কিনে ১৩ তলা ভবন নির্মাণ করা হয়।’

এ ছাড়া ঢাকার ধানমন্ডি, চট্টগ্রামের খুলশী এবং বগুড়ার বড়গোলায় (বগুড়া-রংপুর রোড) বাণিজ্যিক ফ্লোর কেনা হয়। মাইডাস ফাইন্যান্সিং লিমিটেড অর্থনৈতিক ও সুনামের দিক থেকে সমৃদ্ধ হতে থাকে। এর নেতৃত্বে ছিলেন স্যামসন এইচ চৌধুরী, একরামউল্লাহ, রোকেয়া আফজাল রহমান, মির্জা বেহরুজ ইস্পাহানী, এস.এম আল-হুসাইনী, বি আর খান, মোহাম্মদ আব্দুল হালিমসহ কয়েকজন বোদ্ধা পর্ষদ সদস্য। তাদের সীমাহীন দূরদর্শিতা, মেধা, শ্রম, অভিজ্ঞতা, পরিকল্পনা ও যুগোযুযোগী সিদ্ধান্ত মাইডাস ফাইন্যান্সিং লিমিটেডকে স্বল্প সময়ে খ্যাতির শীর্ষে নিয়ে যায়। প্রতিষ্ঠানটি জনপ্রিয় হয়।

ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে প্রথমে আব্দুল করিম এবং পরে আব্দুর রশীদ গাজী সততা, নিষ্ঠা ও একাগ্রতা দিয়ে প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তোলেন। কিন্তু ২০০৮ সাল থেকে অকস্মাৎ এবং অকারণে বিভিন্ন দক্ষ কর্মকর্তাদের জোরপূর্বক পদত্যাগ করতে বাধ্য করা হয়। এরপরেই শুরু হয় মাইডাস ফাইন্যান্সিং লিমিটেডের অন্ধকার যুগ। পরবর্তীতে কোম্পানির এমডি হয়ে আসা মফিকুল আযম, পর্ষদ সদস্য শামসুল আলম এবং তাদের নিকটাত্মীয় বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ শাহ আলম, বর্তমান ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুস্তাফিজুর রহমান, কোম্পানি সচিব তানবীর হাসান পারস্পরিক যোগসাজশে মাইডাস ফাইন্যান্সিং লিমিটেডকে ধ্বংস করতে শুরু করেন। সীমাহীন দুর্নীতি, দুঃশাসন আর অপকর্ম করা শুরু করেন।

অভিযোগে বলা হয়— এরা পরস্পর যোগসাজসে অবৈধ উপায়ে নিজ নামে ঋণ অনুমোদন ও গ্রহণ, ঋণ জালিয়ায়াতি, দুর্নীতির প্রমাণ বিনষ্ট করতে ঘুষ প্রদান; সীমাহীন নারী কেলেঙ্কারি: বেতন ভাতা ম্যানিপুলেশন; নানা ডকুমেন্টস জালিয়াতির মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটিকে লুটপাট করে বিনিযোগকারীদের ঝুঁকির মধ্যে ফেলে দিয়েছেন।

একইসঙ্গে এই চক্র প্রতিষ্ঠানটিতে দক্ষ কর্মকর্তা কর্মচারীদের অপসারণ করে নিজেদের পছন্দের লোকদের নিযোগ ও পদোন্নতি দিয়ে লুটপাট করছে।

সংবাদ সম্মেলে শামীম আহমেদ বলেন, ‘এই চক্র আমাকে অন্যায়ভাবে চাকরি থেকে অপসারণ করেছে, আমি আমার চাকরি ফিরে পেতে সহযোগিতা চাইছি।’

শেয়ারবাজারসহ অর্থনীতির গুরুত্বপূর্ণ খবর পেতে ফেসবুক ও ইউটিউবে অর্থসংবাদের সঙ্গেই থাকুন

শেয়ার করুন:
পুরো সংবাদটি পড়ুন

আর্থিক প্রতিষ্ঠান

আর্থিক প্রতিষ্ঠানের পরিচালক হতে ধারণ করতে হবে ন্যূনতম শেয়ার

Published

on

বন্ধ

নন ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোতে পরিচালক নিয়োগের ক্ষেত্রে শর্তারোপ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। নতুন নিয়ম অনুযায়ী আর্থিক প্রতিষ্ঠানের পরিচালকদের বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের বিধান মেনে ন্যূনতম শেয়ার ধারণ করতে হবে।

সোমবার (২৯ আগস্ট) এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

এতে আরও বলা হয়, পরিচালক নির্বাচন বা মনোনয়নের পর নিযুক্তি বা পদায়ন বা পুনঃনিযুক্তি বা পুনঃপদায়নের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ব্যাংকের পূর্বানুমোদন গ্রহণ করতে হবে। এ রূপে নিযুক্ত, পুনঃনিযুক্ত বা পদায়নকৃত পরিচালককে বাংলাদেশ ব্যাংকের পূর্বানুমোদন ব্যতিরেকে পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া, বরখাস্ত বা অপসারণ করা যাবে না।

এছাড়াও অন্তত ১০ বছরের ব্যবস্থাপনা, ব্যবসায়িক বা পেশাগত অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। পরিচালকের স্বার্থসংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান ঋণ খেলাপি হবে না।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী অযোগ্যতার ক্ষেত্রে বলা হয়েছে, মনোনীত ব্যক্তি বা মনোনয়ন প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের ফৌজদারি অপরাধে দণ্ডিত হওয়া কিংবা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে দেওয়ানি বা ফৌজদারি আদালতের রায়ে কোনও বিরূপ পর্যবেক্ষণ বা মন্তব্য থাকা। মনোনীত ব্যক্তি বা মনোনয়ন প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক বা সরকারের কোনও সংস্থা কর্তৃক সম্পাদিত তদন্ত বা পরিদর্শন প্রতিবেদনে জাল-জালিয়াতি, আর্থিক অপরাধ বা অন্য অবৈধ কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার বিষয়ে কোনও পর্যবেক্ষণ থাকা। মনোনীত ব্যক্তি বা মনোনয়ন প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান যদি আর্থিক খাত সংশ্লিষ্ট কোনও নিয়ন্ত্রক সংস্থার বিধিমালা, প্রবিধান বা নিয়মাচার লঙ্ঘনজনিত দণ্ডে দণ্ডিত হন। কোনও ব্যক্তি কোনও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের পরিচালক থাকা অবস্থায় তার স্বার্থসংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান বা কোম্পানি যার কোনও পৃথক সত্তা নেই, তার পক্ষে আর কোনও পরিচালক ওই আর্থিক প্রতিষ্ঠানের পর্ষদে নিযুক্ত হতে পারবেন না।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনায় আরও বলা হয়, আর্থিক প্রতিষ্ঠানে বহিঃহিসাব নিরীক্ষক, আইন উপদেষ্টা, উপদেষ্টা, পরামর্শক, বেতনভুক্ত কর্মচারী বা অন্য কোনও পদের দায়িত্বে নিয়োজিত রয়েছেন কিংবা বিগত পাঁচ বছরের মধ্যে নিয়োজিত ছিলেন এ রূপ ব্যক্তি সংশ্লিষ্ট আর্থিক প্রতিষ্ঠানের পর্ষদে নিযুক্ত হতে পারবেন না। আর্থিক প্রতিষ্ঠানের পরিচালক পদের মেয়াদ হবে অনধিক তিন বছর এবং কোনও পরিচালক একাদিক্রমে তিন মেয়াদের বেশি ওই পদে অধিষ্ঠিত থাকতে পারবেন না। তবে একাদিক্রমে তিন মেয়াদে পরিচালক পদে অধিষ্ঠিত থাকার মেয়াদ শেষ হওয়ার তারিখ হতে পরবর্তী তিন বছর অতিবাহিত হওয়ার পর তিনি পরিচালক পদে পুনঃনির্বাচিত হওয়ার যোগ্য হবেন।

তবে ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেড, পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেড এবং বাংলাদেশ ইন্ডাস্ট্রিয়াল ফাইন্যান্স কোম্পানি লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ হাইকোর্ট কর্তৃক পুনঃগঠিত হওয়ায় উপরোক্ত বিধান তাদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে না।

শেয়ার করুন:
পুরো সংবাদটি পড়ুন

আর্থিক প্রতিষ্ঠান

আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সুদ হার বেঁধে দিলো বাংলাদেশ ব্যাংক

Published

on

বন্ধ

নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ঋণের ক্ষেত্রে সুদ হার ১১ শতাংশ এবং আমানতের ক্ষেত্রে সুদ হার ৭ শতাংশ বেঁধে দিলো বাংলাদেশ ব্যাংক। সোমবার (১৮ এপ্রিল) বাংলাদেশ ব্যাংক এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করেছে। নতুন এই নির্দেশনা আগামী জুলাই থেকে কার্যকর হবে।

এর আগে ব্যাংকগুলোর জন্য এ ধরনের নির্দেশনা দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। ওই নির্দেশনায় বলা হয়েছিল—ব্যাংগুলো সর্বোচ্চ ৬ শতাংশ সুদে আমানত সংগ্রহ এবং ৯ শতাংশ সুদে ঋণ বিতরণ করতে পারবে।

দেশের সব নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী কাছে পাঠানো সার্কুলারে বাংলাদেশ ব্যাংক বলেছে, কিছু কিছু আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিদ্যমান বাজার হারের সঙ্গে সামঞ্জস্য বজায় না রেখে, তুলনামূলক উচ্চ সুদ ও মুনাফার হার আমানত গ্রহণের ফলে অযৌক্তিকভাবে প্রতিষ্ঠানগুলোর তহবিল ব্যয় বৃদ্ধি পাচ্ছে। এর প্রভাবে আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে উচ্চ সুদ বা মুনাফার হারে গ্রাহকের অনুকূলে ঋণ বা লিজ বা বিনিয়োগ সুবিধা প্রদান করতে হচ্ছে। এতে ঋণগ্রহীতাদের ঋণ পরিশোধের সক্ষমতা হ্রাস পাচ্ছে। এছাড়া খেলাপি ঋণের পরিমাণ ও হার বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলশ্রুতিতে উৎপাদনসহ সামগ্রিক অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে।

এমন অবস্থায়, আমানত সংগ্রহের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ সুদ বা মুনাফার হার ৭ শতাংশ এবং ঋণ বা বিনিয়োগের সুদ বা মুনাফার কার্যকরী হার ১১ শতাংশ নির্ধারণ করা হলো।

শেয়ার করুন:
পুরো সংবাদটি পড়ুন

আর্থিক প্রতিষ্ঠান

লাইসেন্সবিহীন কুরিয়ারের সেবা নিতে পারবে না আর্থিক প্রতিষ্ঠান

Published

on

Bangladesh-Bank

লাইসেন্সবিহীন কুরিয়ার প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ডাক আদান-প্রদানসহ কোনো ধরনের সেবা নিতে পারবে না ব্যাংক বহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠান।

মঙ্গলবার (৭ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও বাজার বিভাগ এ সংক্রান্ত নিষেধাজ্ঞা দিয়ে আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের চিঠি দিয়েছে। এর আগে ৩০ জুন ব্যাংকগুলোকেও একই নির্দেশনা দিয়েছিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

লাইসেন্সবিহীন কুরিয়ার সার্ভিস প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে কোনো ধরনের ডাক আদান-প্রদান না করার সরকারি নির্দেশনা থাকলেও তা মানছে না কোনো কোনো ব্যাংক। এমন প্রেক্ষাপটে এসব প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ডাক আদান-প্রদান থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। গতকাল (সোমবার) এ-সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করে সব ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়।

সার্কুলারে বলা হয়েছে, দ্য পোস্টাল অফিস অ্যাক্ট-১৮৯৮ এর ‘মেইলিং অপারেটর ও কুরিয়ার সার্ভিস বিধিমালা, ২০১৩’ এর নির্দেশনা অনুযায়ী, লাইসেন্সবিহীন মেইলিং অপারেটর ও কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে ডাক দ্রব্য গ্রহণ, পরিবহন ও বিলি বিতরণ নিষিদ্ধ রয়েছে। এরপরও বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠান এসব প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ডাক আদান-প্রদান করছে। এখন থেকে লাইসেন্সবিহীন মেইলিং অপারেটর ও কুরিয়ার সার্ভিস প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ডাক আদান-প্রদান থেকে বিরত থাকতে নির্দেশ দেওয়া হলো।

ব্যাংক কোম্পানি আইন, ১৯৯৩ এর ১৮ (ছ) ধারায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ নির্দেশনা জারি করেছে বলে সার্কুলারে বলেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

শেয়ার করুন:
পুরো সংবাদটি পড়ুন

আর্থিক প্রতিষ্ঠান

আর্থিক প্রতিষ্ঠান খোলা থাকবে ৫ ঘণ্টা, রোববার বন্ধ

Published

on

Bangladesh-Bank

করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণ পরিস্থিতি বি‌বেচনায় চলমান বিধিনিষেধ ১৪ জুলাই পর্যন্ত বা‌ড়ি‌য়ে‌ছে সরকার। এ সময় ব্যাংকের মতো ব্যাংক বহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানও সীমিত পরিসরে খোলা থাকবে।

গ্রাহকদের জরুরি আর্থিক সেবা দিতে আগামী ৮ জুলাই (বৃহস্প‌তিবার) থেকে সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত খোলা থাকবে এসব প্রতিষ্ঠান। এছাড়া বিধিনিষেধ চলাকালে শুক্র ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটির সঙ্গে রোববারও বন্ধ থাকবে আর্থিক প্রতিষ্ঠান।

বুধবার (৭ জুলাই) বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও বাজার বিভাগ এ সংক্রান্ত সার্কুলার জারি করেছে।

আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের পাঠানো নির্দেশনায় বলা হয়, গ্রাহকদের জরুরি আর্থিক সেবা দেওয়ার লক্ষ্যে স্বাস্থ্যবিধি পরিপালন করে সীমিত আকারে আর্থিক প্রতিষ্ঠান কার্যক্রম চালু থাকবে। বিধিনিষেধ চলাকালে শুক্র ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটিসহ রোববার বন্ধ থাকবে আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো।

ছুটির দিন ও রোববার ব্যতীত সপ্তাহের অন্যান্য দিন গ্রাহকের হিসাবের মেয়াদপূর্তিতে স্থায়ী আমানত নগদায়ন, ঋণের কিস্তি জমা গ্রহণসহ জরুরি কাজ সম্পাদন করা যাবে। তবে অফিস খোলা রাখার ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে সীমিত সংখ্যক লোকবলের মাধ্যমে সেবা প্রদানের বিষয়টি নিশ্চিত করতে বলেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর সর্বোচ্চ দুটি শাখা (একটি ঢাকায় ও অপরটি ঢাকার বাইরে) ও প্রধান কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট বিভাগ সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত খোলা রাখা যাবে।

জরুরি গ্রাহক সেবা নির্বিঘ্ন রাখতে প্রয়োজনীয় জনবলের বিন্যাস ও উপস্থিতির বিষয়টি প্রতিষ্ঠানসমূহ স্বীয় বিবেচনায় সম্পন্ন করবে।

বাংলাদেশ ব্যাংক বলেছে, আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের চলাচলের সময় স্ব স্ব প্রতিষ্ঠান কর্তৃক প্রদত্ত পরিচয়পত্র বহন করতে হবে। এছাড়া গত ৩০ জুনের সার্কুলারের অন্যান্য নির্দেশনাবলী অপরিবর্তিত থাকবে।

আর্থিক প্রতিষ্ঠান আইন, ১৯৯৩ এর ১৮(ছ) ধারায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ নির্দেশনা জারি করা হয়েছে বলে সার্কুলারে উল্লেখ করা হয়।

শেয়ার করুন:
পুরো সংবাদটি পড়ুন

আইন-আদালত

অর্থ উদ্ধারে সহযোগিতায় দেশে ফিরতে চান পিকে হালদার

Published

on

বন্ধ

বহুল আলোচিত অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে দেশ ছাড়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা থাকার পরও পালিয়ে চলে যাওয়া সেই প্রশান্ত কুমার বা পিকে হালদার এখন দেশে ফিরতে চান। নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠান ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স সার্ভিসেস লিমিটেডের (আইএলএফএসএল) টাকা উদ্ধারে সহযোগিতা করতে নিরাপদে দেশে ফিরতে চান। তবে দেশে ফিরে জীবনের নিরাপত্তার জন্য আদালতের হেফাজতে যেতে চান তিনি। এজন্য ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স সার্ভিসেস লিমিটেডের (আইএলএফএসএল)-এর পক্ষ থেকে বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের হাইকোর্ট বেঞ্চে সোমবার আবেদন করা হয়েছে। তবে পিকে হালদার কবে, কখন, কিভাবে ফিরতে চান তা আইএলএফএসএল লিখিতভাবে জানালে সে বিষয়ে পরবর্তী আদেশ দেবেন হাইকোর্ট।

হাইকোর্টে আইএলএফএসএল-এর পক্ষে আইনজীবী ছিলেন ব্যারিস্টার মাহফুজুর রহমান মিলন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা ও দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান।

হাইকোর্ট গত ১৯ জানুয়ারি এক আদেশে প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান, এমডি, বহুল আলোচিত পিকে হালদারসহ ১৩ পরিচালকের ব্যাংক হিসাব ও পাসপোর্ট জব্দ, সকল সম্পদ ক্রোক করার নির্দেশ দেন। একইসঙ্গে পিকে হালদারের মা, স্ত্রী, ভাইসহ ২০ জনের ব্যাংক হিসাব ও পাসপোর্ট জব্দ, সকল সম্পদ ক্রোক করার নির্দেশ দেওয়া হয়। এছাড়া পিকে হালদারসহ এই ২০ জনের দেশত্যাগের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয় এবং তাদের গত ৫ বছরের আয়কর রিটার্ন হাইকোর্টে দাখিল করতে নির্দেশ দেওয়া হয়। ওই প্রতিষ্ঠানের ৭ আমানতকারীর করা এক আবেদনে এ আদেশ দেন হাইকোর্টের কম্পানি আদালত। এই আদেশ স্থগিত চেয়ে আইএলএফএসএল-এর দুইজন পরিচালক আপিল বিভাগে আবেদন করলেও আপিল বিভাগ হাইকোর্টের আদেশ বহাল রাখেন।

এ অবস্থায় পিকে হালদার দেশ থেকে পালিয়ে যান। তিনি বর্তমানে কানাডায় অবস্থান করছেন। সেখান থেকে তিনি দেশে ফিরতে চান। এবিষয়ে আইএলএফএসএল-এর পক্ষ থেকে হাইকোর্টে দাখিল করা আবেদনে বলা হয়, পিকে হালদার কানাডা থেকে আইএলএফএসএল-এর সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। আইএলএফএসএল-কে একটি চিঠি দিয়েছেন। তাতে বলা হয়, আইএলএফএসএল-এর খেলাপি ঋন আদায়ে সহযোগিতা করতে তিনি দেশে ফিরতে চান। তবে দেশে ফিরলে তাকে পুলিশি হেফাজতে না নিয়ে আদালতের হেফাজতে নেওয়া হয়-এমন নিরাপত্তা চান তিনি। তিনি জীবনের নিরাপত্তা চান। ওই চিঠিও আদালতে উপস্থাপন করেন আইএলএফএসএল-এর আইনজীবী। পরে আইনজীবীদের উপস্থিতিতে আদেশ দেন হাইকোর্ট।

শেয়ার করুন:
পুরো সংবাদটি পড়ুন

ফেসবুকে অর্থসংবাদ

বন্ধ
জাতীয়2 hours ago

শেখ হাসিনার জন্যই দেশজুড়ে শান্তির সুবাতাস বইছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

বন্ধ
জাতীয়4 hours ago

আইজিপির দায়িত্ব নিলেন চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন

বন্ধ
সারাদেশ4 hours ago

এক টাকায় পছন্দের পোশাক,সহযোগীতায় চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ

বন্ধ
কর্পোরেট সংবাদ6 hours ago

স্বপ্ন এখন মৌলভীবাজারের শেরপুরে

বন্ধ
জাতীয়6 hours ago

বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা সরকারের দায়িত্ব: তথ্যমন্ত্রী

বন্ধ
পরিবেশ6 hours ago

৩ দিনের মধ্যে সাগরে লঘুচাপ সৃষ্টি হতে পারে, বাড়বে বৃষ্টি

বন্ধ
জাতীয়6 hours ago

র‍্যাবের ডিজি হিসেবে দায়িত্ব নিলেন এম খুরশীদ হোসেন

বন্ধ
ক্রিকেট7 hours ago

আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রাইজমানি ঘোষণা

বন্ধ
জাতীয়8 hours ago

আমাদের হাঁটু ভাঙবে না, কোমরও ভাঙবে না: কাদের

বন্ধ
রাজধানী11 hours ago

রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৫৯

তারিখ অনুযায়ী খবর

October 2022
S M T W T F S
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
3031  
Advertisement
Advertisement

এ সপ্তাহের আলোচিত

সম্পাদক : হায়দার আহমেদ খান এফসিএ

কার্যালয় : ৫৬ পুরানা পল্টন, শখ সেন্টার, লেভেল-৪, ঢাকা।

news.orthosongbad@gmail.com

+8801791004858

স্বত্ব © ২০২২ অর্থসংবাদ