বিমানের কাছে নতুন উড়োজাহাজ বিক্রি করবে কানাডা

ডেস্ক রিপোর্টার প্রকাশ: ২০২০-০১-০২ ১৯:৪৯:৫৬, আপডেট: ২০২০-০১-০২ ২১:১৭:৪৫

বিমানের কাছে নতুন দুটি ড্যাশ-৮ কিউ-৮০০ মডেলের উড়োজাহাজ বিক্রির প্রস্তাব দিয়েছে নির্মাতা প্রতিষ্ঠান কানাডিয়ান কমার্শিয়াল করপোরেশন।বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে বাংলাদেশে কানাডার হাইকমিশনার বেনইত প্রিফনটেইনের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলীর সঙ্গে বৈঠকে এ প্রস্তাব দেয়।

কানাডার কাছ থেকে কেনা নতুন তিনটি ড্যাশ-৮ কিউ-৮০০ মডেলের উড়োজাহাজ চলতি বছরের মে-জুনে বিমানবহরে যোগ হবে। তবে বিমানের কাছে একই মডেলের আরও নতুন দুটি উড়োজাহাজ বিক্রির প্রস্তাব দিয়েছে নির্মাতা প্রতিষ্ঠান কানাডিয়ান কমার্শিয়াল করপোরেশন।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে বাংলাদেশে কানাডার হাইকমিশনার বেনইত প্রিফনটেইনের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলীর সঙ্গে বৈঠকে এ প্রস্তাব দেয়। বৈঠকে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. মহিবুল হক, কানাডার উড়োজাহাজ নির্মাণকারী সরকারি প্রতিষ্ঠান কানাডিয়ান কমার্শিয়াল করপোরেশনের এশিয়া অঞ্চলের পরিচালক ইভোনি চিন ও ঢাকায় কানাডিয়ান হাইকমিশনের ট্রেড কমিশনার মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।

প্রস্তাবে কানাডিয়ান কমার্শিয়াল করপোরেশন নতুন উড়োজাহাজ দুটি ২০২১ সালের মধ্যেই সরবরাহ করতে পারবে বলে জানানো হয়। বাংলাদেশের পক্ষ থেকে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. মহিবুল হক প্রতিনিধিদলকে বলেন, আনুষ্ঠানিক প্রস্তাবের পর দুটি উড়োজাহাজের মূল্য এবং অন্যান্য আনুষঙ্গিক বিষয় পর্যালোচনা করা হবে। সব বিষয় সন্তোষজনক হলে বাংলাদেশ নতুন উড়োজাহাজ কিনতে পারে।

বৈঠকে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে কানাডার টরন্টোতে সরাসরি বিমান চলাচলে কানাডার সহযোগিতা চাওয়া হয়। জবাবে কানাডিয়ান হাইকমিশনার বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের প্রস্তাবিত ঢাকা-ম্যানচেস্টার-টরন্টো ও ঢাকা-রোম-টরন্টো রুটে ফ্লাইট পরিচালনার ক্ষেত্রে কানাডার পক্ষ থেকে ফিফথ ফ্রিডম অব এয়ার প্রদানের আশ্বাস দেন।

আমরা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।